প্রিয় হবু জামাই – Lutfun Nahar Azmin

0
28

#গল্পপোকা_চিঠি_প্রতিযোগীতা_২০২০

প্রিয় হবু জামাই,

জানিনা তুমি বর্তমানে পৃথিবীর কোন জায়গায় আছো।জানিনা তুমি কেমন আছো!শুধু এতটুকু জানি ভবিষ্যতে তুমি আমার জামাই হবে।জানোই দেশ মানে পুরো পৃথিবীর অবস্থা ভালো না।করোনা ভাইরাসের ভয়াল থাবার কাছে অসহায় পুরো মানব জাতি।তুমি যেখানেই থাকো একটু সাবধানে থেকো।বার বার হাত ধুবা।বাইরে গেলে মাস্ক ব্যবহার করবা সাথে মানুষের কাছ থেকে তিন ফুট না ছয় ফুট দুরত্ব বজায় রাখবা।বলা যায় না আবার কখন তোমায় ভাইরাস এসে জড়িয়ে ধরে।

এইবার আসি ভবিষ্যত পরিকল্পনায়।তুমি হয়তো এখন জানো না বাট ভবিষতে তো জানতে পারবে তাই বলি আমি কিন্তু রান্নাবান্নায় পুরাই অকর্মার ঢেকি।রান্না ঘরে ঢুকলেই নিজের সৃজনশীল প্রতিভাকে কাজে লাগাই।একটা উদাহারন দেই শুনো..
এক বার তোমার দাদা শ্বশুর মানে আমার দাদা আমার কাছে মশলা চা খাইতে চেয়েছিলো।আমিও ভালো মেয়ের মতো সুড়সুড় করে রান্নাঘরে যাই আর চা বানাই।দাদা তখন অলরেডি চা খেয়ে ফেলছে।কিন্তু বিপত্তি বাজছে তোমার শাশুড়ি মা রান্না রুমে ঢুকার পর।রাতের খাবার রেডি করার জন্য আম্মু রান্না ঘরে ঢুকে জোরে চিৎকার দেয়। আমি দৌঁড়ে রান্না ঘরে যায়।গিয়ে দেখি তোমার শাশুড়ি মা আমার দিকে রক্তচক্ষু নিয়ে দাঁড়িয়ে আছে।আমি কারণ জানতে চাইলে আম্মু চায়ের পাতিল দেখিয়ে বলে
“এইগ্লা কি বানাইছিস?”
আমি একগাল হেসে উত্তর দেই বুঝতে পারো না আম্মু?এইটা মশলা চা!আম্মু আবার আমায় জিজ্ঞাস করে
“চায়ের মধ্যে আদা,দারুচিনি,এলাচ,লবঙ্গ ঠিক আছে।তার পরে আর কি কি দিছিস?”
“কেন?দেখাই তো যাচ্ছে।মরিচ,রসুন,পেঁয়াজ,গোলমরিচ,পাঁচফোড়ন, জিরা বলতে গেলে সব শুকনা মশলা।”

এখন নিশ্চয় বুঝতে পেরেছো পরে কি হয়েছে!তোমার শ্বাশুড়ি মা আমার পিঠে বেশি না ঠাস করে একটা থাপ্পড় বসিয়ে দিয়েছে।আর সেই মারের ব্যাথা তিনদিন পর্যন্ত ছিলো।এখন বুঝতেই পারছো আমি রান্না বান্নায় অকর্মার ঢেকি।রান্না আমার দ্বারা সম্ভব না।আমি রান্না জানি না দেখে তোমার শাশুড়ি মা খালি তোমায় আর আমার শ্বশুড়বাড়ি নিয়ে খোটা দেয়!যেহেতু আমি রান্না জানি না তাই বলছি।এখনো সময় আছে।আমি আসার আগেই তুমি রান্না শিখে নাও।তুমি রান্না করবে আমি খাবো!আর যদি অগোছালো হয়ে থাকো তাহলে এখনি গোছালো হয়ে যাও।কারণ আমি প্রচুর অলস।নিজের জন্য এক গ্লাস পানি ভরে খেতেও আমার কষ্ট হয়।আমি খুব ভালো মেয়ে। রাগ কম করি।কিন্তু যখন রাগ করি ওই রাগ কিন্তু অনেকদিন থাকে।যে কয়দিন রাগ থাকে সে কয়দিন বাসায় আম্পান, ফনি, নার্গিস,সিডর, আইলা বয়ে যায়।তাই আমাকে না রাগানোই ভালো।
একটা কথা বলে রাখি।আমার কিন্তু কোরিয়ান ছেলেদের হেবি ভাল্লাগে।তাই বলছি পারলে একটু কোরিয়ান ছেলেদের মতো কিউটের বস্তা হওয়ার চেষ্টা করো।তাহলে আর কোনো কোরিয়ান অপ্পার ওপর ক্রাশ খাবোনা।শুধু তোমার ওপরই খাবো।

অনেক কথাই লেখলাম।লেখতে লেখতে হাত ব্যাথা হয়ে গেছে।আরো অনেক কথাই জমে আছে। যা চিঠির মাধ্যমে জানানো সম্ভব নয়।আল্লাহ বাঁচিয়ে রাখলে সামনাসামনি তোমায় আরো আমার মনের মধ্যে জমে থাকা কথাগুলো শুনাবো।ভালো থেকো প্রিয়।

ইতি
তোমার হবু বউ

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here