আমার বুড়ো part : 6

0
1671

আমার বুড়ো part : 6

লেখিকা সুরিয়া মিম

!
আরে দেখবো ওই তো বিয়ে করছি বলি কথা,
আমার বুড়ি বৌ হি হি হি,
……
আঙ্কল তুমি ওভাবে কাকে দেখছ?
….
কাকে আবার?
তোমাদের আন্টি কে?
..
কেমন লাগছে আমাদের আন্টি কে?
….
অনেক সুন্দর,
….
ভাই কন্ট্রোল কন্ট্রোল কন্ট্রোল,
….
কি তোরা বাচ্চা পোলাপানের সামনে কন্ট্রোল কন্ট্রোল কন্ট্রোল করছিস?
….
ভাই তোর যে অবস্থা দেখছি,
তাতে ভাবির কপালে,
…..
চুপ একদম চুপ তোদের মতো লুচ্চা না আমি,
….
আমরা তো লুচ্চা তাই তো তোর বৌ কে দেখে আবারো বিয়ে করতে মন চাইছে আমাদের,
….
দাড়া তোরা দাড়া ভাবিদের ডেকে তোদের আবারো শশুড় বাড়ি যাওয়ার ব্যবস্থা করছি আমি,
….
আরে ভাই কি যে কও না তুই?
এক বৌয়ের জ্বালায় অতিষ্ঠ আবার আরেক বৌ?
তাও আবার বুড়ো কালে মাফ চাই ভাই মাফ করে দে,
…..
হা হা হা,
…..
কিন্তু আমাদের ইমান সাহেব কি কাজ করল?

ক্যান কি করছে ও?
….
রুহান তুই জানো না প্রথম বৌ টাকে তাড়িয়ে দিয়ে মেয়ের বয়সী মেয়ে কে বিয়ে করে নিয়ে আসছে,
ছেলেমেয়ে তো মায়ের জন্যে পাগল হয়ে হন্য হয়ে মা কে খুজে বেড়াচ্ছে,

কি বলো তোরা?
আমি তো শুনেছি ওর প্রথম বৌ অনেক সুন্দরি ও গুনোবতী ফোনে যখনি কথা হতো বৌয়ের প্রশংসা করতে করতে মুখে ফ্যানা উঠে যেত ওর,
….
আর বলিস না ভাই বুড়ো কালে ভীমরতি,

বাবা তোমার বৈঠক করা হয়ে গেছে?
তাহলে চলো প্লিজ,

হ্যা মা চলো,
….
তারপর আমাদের গায়ে হলুদের আনুষ্ঠানিকতা শুরু হয়ে যায়,
সবাই গায়ে হলুদ লাগিয়ে দেওয়ার পরে,
মেয়ে গিয়ে ওর বাবা কে ধরে এনে বলে,
….
বাবা সবাই তো লাগিয়ে দিলো,
তুমি ও মায়ের গায়ে হলুদ লাগিয়ে দাও না প্লিজ প্লিজ প্লিজ,

হ্যা মা দিচ্ছি,

তারপর বুড়ো আমার দু গালে হলুদ লাগিয়ে দেয়,
তখনি আমাদের চোখাচোখি হয়ে যায়,
আর আমি অনুভব করে দেখি,
..
যে বুড়োর চোখে ও স্পর্শে সামান্য তম নোংরামো নেই,
মুখে শুধু হাসি হাসি ভাব,
…..
হঠাৎ করে দুজনে হেসে ফেলি আমরা,
তখন মেয়ে ওনাকে টেনে নিয়ে যায়,
তারপর সবাই আমাকে গোসল করিয়ে রুমে নিয়ে যায়,
…..
আর লাঞ্চ করিয়ে আমাকে তিন ঘন্টা ধরে বৌ সাজায়,
জানিনা আমার মেয়েটা আমাকে বিউটিশিয়ান দিয়ে
তিন ঘন্টা ধরে কোন গাছে পেত্নী সাজিয়েছে,
….
এখন তো ভয় করছে আমার বুড়ো আবার আমাকে দেখে অক্কা না পায় হা হা হা,
…..
আমাকে সাজানোর পর আমি নিজেকে একবার ও আয়নায় চোখ বুলিয়ে দেখিনি,
কেন জানিনা খুবি লজ্জ করছে আমার,
….
হয় তো বুড়ি বয়সে বিয়ে করছি বলে এমন টা হচ্ছে,
হা হা হা,

কিছুক্ষণ পরে আমার ডাক পরে যায়,
মেয়ে ও তার বন্ধুরা এসে আমাকে ধরাধরি করে নিচে নিয়ে যায় ,
….
নিচে গিয়ে দেখি বুড়ো রয়েল ব্লু কালারের শেরওয়ানি মাথায় টোপর ও হালকা পাক ধরা চুলে আমাকে দেখে মৃদু মৃদু হাসছে,

হাসবেই তো মেয়ে আমাকে তিন ঘন্টা ধরে শ্যাওড়া গাছের পেত্নী সাজিয়েছে হাসবেনা বুড়ো কেন সবাই হাসবে,
….
অনেক ধুমধাম করে আমাদের বিয়ে হয়ে যায় পরে বাচ্চারা মিলে ফোটো শেসন শুরু করে দেয়,
রাতে মিষ্টি মুখ করিয়ে মেয়ে ও তার বান্ধবিরা আমাকে বাসরে বসিয়ে দেয়,

ইসসস এখন কি হবে?
বুড়ো টা এসে কি স্বামীর অধুকার চাইবে?

তখনি খট করে দররজা খোলার শব্দ হয়,
সাথে সাথে বুড়ো টা হাসতে হাসতে আমাকে এসে বলে,
….
জানো তোমার মেয়ে কে রুমে ঢোকার আগে পঞ্চাশ হাজার টাকা ঘুস দিতে হয়েছে,
আসলে মেয়ে টা এতো ফাজিল হয়েছে না কি বলবো তোমায় না মানে আপনাকে

মানে ভুল করে বলে ফেলেছি,
……
আপনি আমাকে তুমি করে বলতে পারেন,
…..
আরে আরে কি করছ তুমি?

কেন সালাম?
. ….
তা বলে পায়ে হাত দিতে হবে?
..
না মানে,

দেখো সেকেলে রিচুয়ালস, আয় রেয়ালি ডোন্ট কেয়ার,
আমি শুধু জানি তুমি আমার আর আমাদের মেয়ে টা হলো আমাদের,
…..
বুড়ো কথা শুনে চোখেরজল চলে আমার,

আমার বুড়ি টাকি কাঁদছে?
কি হলো তুমি কাঁদছ?

কোন নাতো?
……
তাহলে চোখ দুটো টলটল করছে কেন?

এমনি,
..
তাহলে চলো নামাজ টা পরে নেই,
..
হ্যা চলুন,
….
তারপর আমরা একসাথে ওযু করে সালাত আদায় করতে বসি,
সালাত আদায় শেষে উনি আমাকে বলেন,
…..
আজকে তোমাকে অনেক সুন্দর লাগছে বুড়ি ,
….
কি হলো কি ভাবছেন?
….
আজকে অনেক কষ্ট হয়েছে তোমার,
তাই বলছি রেস্ট নাও,
….
মেয়ে কে একটু ডেকে দিবেন?
ওর্নামেন্টস গুলো খুলে দিয়ে যাক,
….
তুমি কি পাগল হয়েছ কেন?
….
কেন?

তোমার মেয়ে দরজায় আড়ি পেতে বসে আছে,
….
তার বাবা মা কি করছে সেটা বোঝার জন্যে,

বুড়োর কথা শেষ হতে না হতেই আমরা দু জন দুদিকে ফিরে নিঃশব্দে হাসতে শুরু করি,
….
সত্যি মেয়ে আমার ফাজিল,
নাহলে ও ভাবল কি করে যে আমি ওর মা কে?

হা হা হা
চলবে,,,,,,

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here