প্রিয় গল্পপোকা- Shanzida Tasnim Ritu

0
948

#গল্পপোকা_চিঠি_প্রতিযোগিতা_২০২০
চিঠি নং-১

প্রিয় গল্পপোকা,
তুমি কেমন আছো জানতে চাইবো না, কারণ আমি জানি আমরা ভালো থাকলেই তুমি ভালো থাকো। আমরা নিজেদের নিয়ে এতো ব্যস্ত থাকি যে তোমার খোঁজ টাও নেওয়া হয় না, আমাদের উপর রাগ করো না প্লিজ।
আচ্ছা বাকিদের কথা বাদ থাক, তুমি কী জানো তুমি আমার কতটা প্রিয়? আমি তোমার জন্য নতুন আমাকে খুঁজে পেয়েছি জানো? তোমার তো জানার কথা। আমি খুব একা হয়ে পড়েছিলাম, ভেঙে পড়েছিলাম, ক্লান্ত হয়ে পড়েছিলাম কিন্তু তোমার কাছে এসে আমার মাঝে নতুন প্রাণের সঞ্চারণ ঘটেছে। তোমার মাধ্যমে আমি খুব প্রিয় কিছু মানুষ পেয়েছি। তোমার মাধ্যমেই আমি আমার মনের মধ্যে সাজানো সকল কথা সাজাতে পেরেছি। তোমার জন্য আজ আমার কথা অনেকে জানে, আমাকে উৎসাহ দেয়।
তোমার মতো এতটা ভালোবাসা আমাকে কেউ দেয়নি জানো? তোমার হাত ধরে আমি নতুন করে বৃষ্টিতে ভিজেছি। একা রাতের আলো-আধারীর ছায়াতে খেলেছি। সবুজ মাঠের উদাসীনতা, নদীর বয়ে চলার শব্দ, মেঘেদের হুটোপুটি সব আমি তোমার জন্য আবার নতুন করে দেখেছি। আমার মনের প্রতিটা শব্দের, প্রতিটা অক্ষরের আকৃতি তোমার জন্য নতুন ভাবে সেজেছে।
ও আমার প্রিয় গল্পপোকা,
আজ তোমাকে নিয়ে লিখতে বসে আমি যে কতটা পুলক অনুভব করছি তোমাকে বোঝাতে পারবো না। তুমি কি বুঝবে আমার মনের আকুলতা? বুঝবে তোমার প্রতি আমার ভালোবাসা? বুঝবে তুমি আমার কতটা আপন? জানো আমি তোমার জন্য কতটা বিনিদ্র রজনী কাটিয়েছি? শুধু তোমার জন্য, তোমার ভালোবাসার জন্য। তুমি এত ভালো কেন? কেন এতো সুন্দর আর অনিন্দ্য? তোমার প্রতিটা গল্পে আমি ডুব দিয়েছি। ভেসেছি স্বপ্নের সাগরে। তোমার অনুরাগের আগুনের তপ্ত স্পর্শও অনুভব করেছি বারবার। আমি যে অক্ষম আমার প্রিয় গল্পপোকা। আমি অক্ষম আমার ভালোবাসা প্রকাশে। কীভাবে বোঝাবো তোমাকে, কতটা অবদান আমার জীবনে তোমার? তুমি যে আমাকে নতুন করে বাঁচতে শিখিয়েছ, ভালোবাসতে শিখিয়েছ, হাসতে শিখিয়েছ, বারবার গহীন ভাবে ভাবতে শিখিয়েছ। আমি ক্লান্তি ভুলে বারবার মেতেছি তোমাকে নিয়ে। সব ভুলে এমনকি এটাও ভুলে গিয়েছিলাম যে কতটা দুর্বিষহ ছিল আমার পথ চলা, অথচ তুমি কতটা সাবলীল! কতটা অনন্য তুমি! তোমার মত আর কেউ নেই জানো? আমি কোথাও পাইনি এতো আবেগের ঘনঘটা, কোথাও পাইনি এতটা দৃঢ় বন্ধন, কোথাও পাইনি এমন অসাধারণ একতার হদিশ। তুমি কোথায় ছিলে এতদিন? কেন আরও আগে আসোনি আমার কাছে? কেন আরও আগে ধরা দাওনি? কেন আমায় আরও আগে সুযোগ দাওনি তোমার মাঝে নিজেকে বিলিয়ে দেওয়ার? বলো কেন দাওনি?
আমার আদরের গল্পপোকা,
আমি আজ আবারও আমার স্মৃতিতে ডুব দিয়েছি তোমাকে নিয়ে, এই যে কত কিছু লিখছি তোমার জন্য। তুমি ছাড়া আর কাকে বলতাম এতো কথা? এতটা ধৈর্য কার আছে বলতো আমার সাথে আমার রাজ্যে ঘুরে বেড়ানোর? উফ! তুমি না থাকলে যে আমার কী হতো! এই তুমি হাসছো কেন? কি ভাবছো আমি মজা করছি? বাড়িয়ে বলছি? তোমাকে পাম্প দিয়ে ফোলাচ্ছি? মোটেও না, দেখি কার সাহস আছে আমাকে বলার যে আমি তোমাকে নিয়ে বাড়িয়ে বলছি। আমি একবিন্দুও বাড়িয়ে বলছি না বরং অনেক কম বলছি। তোমাকে নিয়ে যে হাজার হাজার কথা লিখেও শেষ করতে পারবো না প্রিয়, সেই ক্ষমতা যে নেই আমার। এই যে দেখো, আমি ইতোমধ্যে খেই হারিয়ে ফেলেছি, আমার নিঃশ্বাস গাঢ় থেকে গাঢ়তর হচ্ছে, হাত কাঁপছে। আমি আর পারছি না ভাবতে।
জানো প্রিয়,
আমার কল্পনার জগত বিশালতা পেয়েছে তোমার জন্য, তুমি আমাকে বারবার ভাবিয়েছো। অজস্রবার আমার ভ্রূদয় কুঞ্জিত হয়েছে তোমাকে ভেবে ভেবে। কপালে বিন্দু বিন্দু ঘামের শীতলতা জমেছে তোমার চিন্তায় নিজেকে ডুবিয়ে। কতবার আমি নিজেকে ভুলেছি, কতবার বাস্তবের পথ হারিয়েছি তার কোনো হিসাব নেই।
প্রিয়,
তোমাকে আরও কত কি যে বলার আছে কিন্তু আজ আর লিখবো না। আমার লেখা পড়ে ইতোমধ্যে তোমার মাথা ঘুরে যেতে পারে তাই আমি আর কষ্ট দিতে চাচ্ছি না তোমাকে। তুমি অনেক ভালো থাকো, অনেক অনেক বড় হও। আমাকে নিয়ে, আমাদের সবাইকে নিয়ে তোমার পথ চলা সাবলীল ও দীর্ঘ হোক। তুমি সকলের প্রিয় আর কাছের হও এই দোয়া করে পত্রের ইতি টানছি।
ইতি
তোমার এক নগন্য সদস্য।

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে