চিঠি নং- ১ -সোহাগুর রহমান (সোহাগ)

0
508

#গল্পপোকা_চিঠি_প্রতিযোগিতা_২০২০

চিঠি নং- ১

কবিতা,
গোধূলির আলোহীন এই মেঘাচ্ছন্ন প্রহরে সদ্য ফোঁটা গন্ধরাজের শুভেচ্ছা নিও। অনেকদিন আগে একটা চিঠি লিখেছিলাম তোমার ঠিকানায়, আজ আবার লিখতে বসলাম। উদাস মন যেন আজ হারিয়ে গেছে একটি সুরতোলা নদীর ঢেউয়ের দোলায়। তার রিনরিনে উচ্ছোষিত স্রোতে অনুভূতিরা স্বপ্নাচ্ছন্ন কত কথা ভাসিয়ে নিয়ে গেছে , আমি তার কিছুই জানি না। এসব রঙিন স্মৃতি, বয়ে বেড়ানো তোমার ভালোবাসা গল্পের পাতায় তুলে রাখছি, সময়ের কফিনে ওরা বন্দি হতে থাক। যদি কখনো আমাদের সম্পর্কের অবনতি হয় ওদের নিয়ে বেঁচে থাকা যাবে। আচ্ছা, কেমন আছো কবিতা?

আজ এই তুমুল বর্ষায়, ডুবে যাওয়া শহর কিংবা আমার উৎকন্ঠিত একটি আধখোলা জানালার পাশে তোমার থাকার কথা। কই তুমি? অপেক্ষাদের ফুরিয়ে যাওয়া সময়ের একেকটি হিসেব জমাচ্ছি ডায়েরির রঙচটা পাতায়। যেন দীর্ঘশ্বাসের ভিতর শুয়ে থাকা হৃদয়ের তুমুল হাহাকার নিয়ন আলোয় পিষে যাচ্ছে ; শহর থেকে বন্দরে কখনো বা দিক থেকে দিগন্তে। একদিন আমাদের উঠোনে বৃষ্টি হবে, ল বাঁধনহারা পাখির মত ভিজে যাবো একসাথে। সেদিন একান্তই আমাদের হবে সেই বৃষ্টিবিলাস।

মুঠো ভর্তি রঙিন ইচ্ছে নিয়ে সারাদিনমান ঘুরে বেড়াচ্ছি, লোক থেকে লোকান্তরে। অথচ আমার জন্য নাকি তোমার হাতে সময় নেই। বাতাসের তোড়ে বিষাদের ছাপ লেগে আছে, হৃদয়ের গহীনে শুয়ে থাকা সর্গও বুঝি ডুবে গেছে নরকে। তোমার শহরের বাহিরে অনেকটা দিন ছিলাম। ফিরে এসে ভাবলাম আমার জন্য তুমি আজও অপেক্ষায় আছো; চুপ করে থাকো গাছের পাতার মত। পড়ন্ত বিকেলের বুকে মাথা রেখে কতদিন তোমাকে ভালোবাসি বলা হয়নি। যাক সে কথা সূর্যটা ডুবে গিয়ে সন্ধ্যাকে আহ্বান করছে এবার উঠি। নৈঃশব্দে ডুবে যাওয়া শহর থেকে শতদল তুলছি আনমনে। হঠাৎ, অনেকটা বে-খেয়ালে তুমি আমার কাঁধে মাথা রাখলে। স্বপ্নের ভেতরে আরেকবার তাকাতেই আমি তোমাকে হারিয়ে ফেললাম। তারপর আবার ঘুমিয়েছি কিন্তু তুমি আর আসোনি!

তোমার চোখ স্বচ্ছ কাঁচের মত, আমার জন্য তোমার মনের ভেতর কি যেন চলছে তা ও চোখে স্পষ্ট। জানো, মাটিতে পড়ে থাকা শুভ্র ফুল হাতে কুড়িয়ে নিলে ফুলগুলো যত খুশি হয়, আমি তারও বেশি খুশি হই তোমার মুচকি হাসির স্ফুরণে। যাই হোক, আমাকে কষ্ট দেয়াও তোমার জন্য বৈধ।খামখেয়ালির বশে আমার উপর রাগ করো, তখন আমার চোখ জুড়েও নামে অন্ধকার। ফিরে এসে সে আঁধার মুছে দাও নিবিড় যত্ন। আজ এক উদভ্রান্ত পথিকের মতো অজস্র বিমর্ষতা নিয়ে এসব স্মৃতি পরখ করছি। খুব দূরে, অচেনা কোন জায়গা থেকে হাতছানি দেয় তোমার হাসি। আল্লাহর কাছে দোয়া করো, যেন আমরা আমাদের হই! আল্লাহ হাফেজ।

ইতি
তোমার সরল নির্দোষী

সোহাগুর রহমান (সোহাগ)
জেলা: মাগুরা

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে