Love_at_1st_sight ??? Part : 9

0
4880

Love_at_1st_sight ???
Part : 9

writer-Jubaida Sobti
রাহুল স্নেহাকে তার রুমে নিয়ে গেলো।
স্নেহা রাহুলের রুম দেখে Shocked?
স্নেহা : yaaakkkk??
(স্নেহার কথা শুনে রাহুল তাড়াতাড়ি মাটিতে পড়ে থাকা কাপড়-চোপড় গুলো উঠিয়ে নেই।???এবং স্নেহার জন্য বসার ব্যবস্থা করে দেই।)
রাহুল : একটু অগোছালো, দাঁড়াও ঠিক করে দিচ্ছি ?
স্নেহা : সব রুম গোছানো..শুধু আপনার রুমের সব এলোমেলো.?
[এই বলে স্নেহা ড্রেসিং এর উপর হাত রাখতেই তার হাতে খাবার টাইপ্সের কি যেন লেগে যায়,]
স্নেহা : ইশশ!? এগুলো কি?..
রাহুল : ??? ফ্লিম দেখে খাচ্ছিলাম তো, তখন নিশ্চয় পড়েছে,
স্নেহা : ড্রইং রুমের এতোবড় টেবিল ফেলে এইখানে খেতে গেলেন কেন?…
রাহুল : বললাম তো ফ্লিম দেখে খাচ্ছিলাম ? but u don’t worry আমার বউ আসলে তখন সব ঠিক হয়ে যাবে বাকি রুম গুলোর মতো। ?
স্নেহা : ( blushing )
রাহুল : আচ্ছা আমার যেদিন বিয়ে হবে সেদিন কোন দিকটা ফুল আর কোন দিকটা ক্যান্ডেলাইট দিয়ে সাজালে ভালো হবে, বলো তো?..
ভালো আইডিয়া দিবা কিন্তু স্নেহা যাতে আমার বউ এর পছন্দ হয়।?
[ (স্নেহা লজ্জায় blushing ) স্নেহা চলে যেতে চাইলে রাহুল তার হাত ধরে রাহুলের কাছে টেনে নেই,]
[(রাহুল তার মুখটি কাছে এনে স্নেহার নাকের সাথে আর কপালের সাথে লাগায়?,
স্নেহার তার চোখ বন্ধ করে ফেলে nd sneha’s heart beating faster again)
রাহুল : [(স্নেহাচোখ বন্ধ করাতে একটা তেডি স্মাইল দেই, এবং রাহুল ও তার চোখ বন্ধ করে ফেলে,) nd rahul’s heart beating faster too]
হঠাৎ রাহুলের ফোন আবার বেজে উঠলো ?
রাহুল পকেট থেকে মোবাইল বের করে দেখে, সিম কোম্পানির কল, গেল মাথাটা ধরে,? রাহুলের মাথায় ১০০ডিগ্রী হাই ভোলটেইজ উঠানামা করছে ?
রাহুল : তুমি বলো স্নেহা এদের কি করতে ইচ্ছা হয়??
স্নেহা : ????
আচ্ছা হয়েছে অনেক এবার বাসায় যেতে হবে আমায়, আরে আমিতো মোবাইলটা ও ফেলে এসেছি শায়লার কাছে?
রাহুল : ওকে Wait আমি কল দিয়ে দেখছি।
রাহুল স্নেহার মোবাইলে কল দেই, এবং শায়লা রিসিভ করে,
স্নেহা : হ্যালো শায়লা, আমি বলছি স্নেহা
শায়লা : স্নেহা তুই কোথায়, তোকে আমরা পাগলের মতো খুজছি।?আর তোর মোবাইলটা ও তো ফেলে গিয়েছিস, আন্টি ফোন দিয়েছিল আমি বলেছি তুই একটু বিজি আছিস, তাই একটু পরে ফোন করতে,
স্নেহা : ওকে আমি বাসায় যাচ্ছি তুই মোবাইলটা রাখ। আমি কালকে নিবো,
স্নেহা : (তাড়াতাড়ি ফোন রেখে) আমাকে এখন বাসায় যেতে হবে, চলেন তাড়াতাড়ি,
রাহুল স্নেহাকে তার বাসায় পৌছে দেই।
মা : স্নেহা এটা কি বাসায় আসার সময় হলো তোর?..আর তুই ফোন ধরছিলি না কেন।?.. কত টেনশন হচ্ছিলো জানিস,?..
স্নেহা : মা ঐখানে আওয়াজের কারনে ফোনের আওয়াজ শোনা যাচ্ছিলো না।
মা : তোর বাবা অনেক রেগে আছে,
স্নেহা : মা তুমি একটু মেনেজ করো না আমি তো তোমাকে বলেই গিয়েছি।
মা : আচ্ছা যা ফ্রেশ হয়ে আয় আমি দেখছি।
স্নেহা ফ্রেশ হয়ে ড্রইং রুমে এলে,
বাবা : স্নেহা ভদ্র ঘরের মেয়েরা এতো রাত পর্যন্ত বাহিরে থাকে না বুঝলি।
স্নেহা : বাবা প্রোগ্রাম কিছুক্ষন আগেই শেষ হয়েছিল।
বাবা : প্রোগ্রাম যতক্ষণেই শেষ হোক না কেন… সময় দেখে তোর বাসায় চলে আসার দরকার ছিলো,
স্নেহা : সরি বাবা,
বাবা : আর শোন কাল সকালের দিকে তোকে ছেলেপক্ষ দেখতে আসবে, ছেলে অনেক ভালো লনডনে পড়ালিখা করেছে,তোর ছবি দেখেই তোকে পছন্দ করেছে, কাল ছেলের বাবা মা আসবে তোকে দেখতে,।
(স্নেহার বাবার কথা শোনে স্নেহা Shocked ? স্নেহা তার মায়ের দিকে তাকালো মা কিছু বলছে না)…
স্নেহা তার রুমে গিয়ে কাদা শুরু করলো…
স্নেহার মা ও আসে তার পিছু পিছু।
মা : স্নেহা আমি তোর বাবাকে অনেক বারণ করেছি। ?তোর বাবা বলছে এমন ভালো প্রস্তাব বার বার আসেনা,
আর ছেলের বাবা তোর বাবার পুরোনো বন্ধু,
তোর বাবাকে অনেক কাজে সাহায্য করেছে তিনি কিন্তু কখনো কিছু চায়নি,
তাই তোর বাবা বলেছে, আমি চায়না এই বিয়েতে কোনো প্রকার ভেজাল সৃষ্টি হোক।
স্নেহা অন্তত তোর বাবার দিকটা দেখে হলেও না করিস না।
(স্নেহা তার মা কে কিছু বলতে চেয়ে ও আর বলতে পারেনি।?)
রাতে স্নেহা আর কিছু খায়নি। শুধু রাহুলের কথা মনে পড়ছে, মা কে ও কিভাবে বলবে সে রাহুলকে ভালোবাসে রাহুল ও তো কখনো বলেনি সে স্নেহাকে ভালোবাসে, এভাবে কাঁদতে কাঁদতে স্নেহার রাত কেটে গেলো।
আজ কলেজ যায়নি স্নেহা,
স্নেহাকে তৈরি হতে বললো কিছুক্ষণ পরেই বরপক্ষ দেখতে আসবে,
ঐদিকে রাহুল সারা কলেজ স্নেহাকে খুজে বেড়াচ্ছে কিন্তু কোথাও পেল না।
রাহুল : স্নেহা আজ কলেজ আসেনি?
শায়লা : না আজতো স্নেহা কলেজ আসেনি।
মার্জান : কি হলো জিজু একদিন কলেজ না আসাতে এতোটা মিস করছেন ?
রাহুল : না আসলে (with blushing) তোমাদের দেখছি ওকে দেখছিনা তো তাই জিজ্ঞেস করলাম,…
রাহুলের ও কেমন যেন বার বার স্নেহার কথা মনে পড়ছে, স্নেহাকে দেখার পর থেকে এমন একটা দিন কাটেনি তাকে না দেখে কেটেছে,( রাহুল blushing)
আর অন্যদিকে স্নেহাকে বর পক্ষ দেখেই পছন্দ করে ফেলেছে,…সব ঠিকঠাক।
কয়েকদিন পরে এসে বিয়ের তারিখ ফিক্সড করে যাবে।
স্নেহা কিছুই করতে পারছে না কেঁদে কেঁদে শুধু বালিশ ভেজাচ্ছে,…
স্নেহার বাবা মা মনে করছে, বিয়ে হয়ে যাবে শশুড়বাড়ী চলে যাবে, তাই হয়তো এমন করছে,
কিন্তু তা না…স্নেহার কেন যেন বার বার রাহুলের সাথে কাটানো কথা গুলো মনে পড়ছে তার সাথে প্রথম দেখা..???? এখন আর ভেবেও কি হবে বিয়ের কথা বার্তা সবইতো ফাইনাল হয়ে গেছে।
পরদিন কলেজ গেলো স্নেহা,
রাহুল স্নেহাকে দেখে (Blushing)with তেডি স্মাইল দিলেও স্নেহা রাহুলকে দেখেও না দেখার মতো হয়ে ক্লাসে চলে যায়।
(স্নেহা Avoid রাহুল ?)
ক্লাস শেষে ফ্রি টাইমে ও অনেকবার দেখা হয় কিন্তু স্নেহা রাহুলের সাথে কোনো কথায় বলছে না,
হঠাৎ স্নেহা ক্লাস শেষে বের হওয়ার সময় রাহুল স্নেহাকে টেনে একপাশ নিয়ে যায়,
রাহুল : কি হলো স্নেহা কখন থেকেই দেখছি তুমি আমাকে Avoid করেই যাচ্ছো,
সমস্যা কি তোমার..?
স্নেহা : আপনার সমস্যা কি আগে সেটা বলেন?…কি হয় আমি আপনার যে আপনি আমাকে হাত ধরে এভাবে টেনে আনেন?…
রাহুল স্নেহার কথা শুনে পুরাই Shocked ?
স্নেহা এমনটা কিভাবে বলতে পারলো..
স্নেহা রাহুলের হাত থেকে তার হাত ছাড়িয়ে সিরি দিয়ে নেমে চলে যায়।
রাহুল ও স্নেহার পিছু পিছু নিচে যায়…রাহুল স্নেহাকে কয়েকবার ডাক দিলেও স্নেহা রাহুলের দিকে ফিরেও তাকায় না।
হঠাৎ রাহুল আর না পেরে খুব জোড় গলায় স্নেহা বলে ডাকদেই, এবং সবাই রাহুলের দিকে ফিরে তাকায়।
স্নেহা ও Shocked হয়ে রাহুলের দিকে ফিরে তাকায়..
then রাহুল কাছে এসে স্নেহার হাত ধরে একপায়ের হাটু মাটিতে বসিয়ে সবার সামনে স্নেহাকে প্রপোজ করে,?
রাহুল : স্নেহা I love u ?
do u love me?..
স্নেহা (মনে মনে blushing) এটা তো স্নেহা ভাবেনি, ?
স্নেহার চোখ দিয়ে জল গড়িয়ে পড়লো,?
হঠাৎ স্নেহার মনে পড়লো তার তো বিয়ে ঠিক হয়ে গিয়েছে, সে রাহুলকে কিভাবে হ্যাঁ বলবে,আবার রাহুলকে ফিরিয়ে ও কিভাবে দিবে,
সব একসাথে মাথায় ঘুরছে স্নেহার?
মার্জান : Come on sneha, say yes!
জারিফা : স্নেহা what r u doing? hurry up… say yes,…
অনেক মেয়েই jealous তখন তাদের ক্রাশ তাদের সামনে অন্য একটি মেয়েকে প্রপোজ করছে, এতো গুলো মেয়ের মধ্য থেকে রাহুল স্নেহাকেই কেন বেচে নিয়েছে,?
কলেজে প্রায় এমন প্রপোজ হয়ে থাকে,এবং রাহুলের মতো ফেমাস হ্যান্ডসাম ছেলে ঐ সেমিস্টারের আরো কয়েক জন ও আছে কিন্তু এটা সহ্য করার মতো না কারন রাহুল বলে কথা,?
রাহুল : (again with sadness?) স্নেহা Do u love me?..
স্নেহার মাথায় ঘুরছে যদি রাহুলকে হ্যাঁ বলে তাহলে বাসায় কি জবাব দিবে,
স্নেহা তার পা পিছিয়ে নিয়ে গেলো,? রাহুলের হাত থেকে তার হাত সরিয়ে নিলো,? রাহুলকে স্নেহা মিথ্যা আশা কি করে দিবে তাই স্নেহা রাহুলকে কিছু না বলে দৌড়ে চলে গেলো,…?
মার্জান : স্নেহা কই যাচ্ছিস,?
জারিফা : কি হলো বলতো ওর, এইভাবে চলে যাওয়ার কোনো মানে হয়।?
রাহুল খুব দূঃক্ষের সাথে উঠে দাঁড়ালো, ? রাহুল স্নেহা থেকে এটা আশা করেনি।
স্নেহা যদিও রাহুলকে ভালো না বাসতো তাহলে প্রথম থেকেই কেন রাহুলকে Avoid করেনি,?… এতো গভীরতা দেখিয়ে কেন এভাবে চলে গেলো,?
নেহা : So sad for u rahul?
[but নেহা Shocked rahul reject from sneha? how it’s possible ?]
রাহুল নেহাকে আর কিছুই বললো না কি বা বলার মতো রইলো আর?
রাহুলের বন্ধুরা তার পাশে এসে দাঁড়ালে।
রাহুল : Don’t worry dear  I m ok..
রাহুল যতই Ok বলুকনা কেন তার বন্ধুরা বুঝতে পারছে এসময় তার মধ্যে কি চলছে?
রাহুল কিছু না বলে আর পার্কিং থেকে তার গাড়ীটি নিয়ে সোজা বেরিয়ে পরে,
অনেকেই বলাবলি করছে Rahul is rejected from sneha ?? OMG.
স্নেহা একা বাসায় চলে আসে,…
রুমে গিয়ে বালিশ ভিজিয়ে কেদেই চলছে,
কেন সে রাহুলকে হে বললো না?,আসলেই কি সে রাহুলকে ছেড়ে থাকতে পারবে,???
স্নেহার ফ্রেন্ডসরা স্নেহার বাসায় আসে স্নেহাকে দেখতে,
মার্জান : স্নেহা আমরা তোকে দেখতে আসিনি। শুধু একটা কথায় জানতে এসেছি রাহুলকে এক্সেপ্ট করলিনা কেন?..
স্নেহা : ???
জারিফা : তুই যদি রাহুলকে লাভ না করতি তাহলে ওকে দেখলে এতো খুশী কেন হতি?…ওর সাথে কলেজে টাইম স্পেন্ড কেন করতি?..বল?..
মার্জান : আচ্ছা মানলাম তুই ওকে ভালোবাসিস না তাই answer
দিলিনা, তাহলে এভাবে কাঁদছিস কেন সেটা তো বল,…
স্নেহা তার ফ্রেন্ডসদের সব খুলে বললে,
মার্জান : What the hell???..তুই আন্টিদের বলিসনি তুই রাহুলকে লাভ করিস,
স্নেহা : কিভাবে বলবো তখন তো রাহুল আমাকে বলেনি ও আমাকে লাভ করে,..?এখন যা ও বলেছে আমার বিয়ে ঠিক হওয়ার পর,বাবাকে বললে বাবা আমাকে মেরেই ফেলবে?
মার্জান : কি বোকারে বাবা তুই…শুধু I love u বললেই সে তোকে ভালোবাসে এটাতো নয়..
রাহুল তো তোকে অনেক ভাবেই অনেক আগেই থেকে বুঝিয়েছে সে তোকে লাভ করে,
তুই জানিস রাহুল কতটা কষ্ট পেয়েছে,?
মেয়ের অভাব পরেনি তার… তোকে সত্যি ভালোবাসে বলেই..সে এতোগুলো মেয়ের মধ্যে থেকে তোকে বেচে নিয়েছে…
সেটা বলাতে স্নেহা আরো কেদে উঠে,?
শায়লা : হে স্নেহা বিয়ে জীবনে একবার করবি, যাকে লাভ করিস তাকেই যদি বিয়ে না করিস তাহলে ঐ বিয়ে করে কি লাভ ?রাহুল তোকে অনেক ভালোবাসে স্নেহা,
মার্জান : আচ্ছা আন্টিকে আমরাই বলছি।
স্নেহা : না…তোরা কিছু বলিস না মা কে যদি এখন এসব বলি মা অনেক কষ্ট পাবে, এসব সজ্য করতে পারবে না,??
বাবা বলেছে বিয়েতে কোনো প্রকার ঝামেলা চায় না।
মার্জান : ঠিকাছে তুই যা ভালো মনে করিস।?কিন্তু একটা কথা মনে রাখিস রাহুল তোকে অনেক লাভ করে,…
এই বলে তারা চলে গেলো।
স্নেহা রুমে একা একা বসে আছে,?
রাহুল : [ যে ছেলে কখনো স্মোক করে না সে আজ স্মোক করছে,
রাহুলের চোখ রক্তের ছানির মতো লাল হয়ে যাচ্ছে?খুব কষ্ট জমে আছে আজ বুকের ভেতর। ]
আসিফ : রাহুল হয়েছে রাখ আর কয়টা খাবি, ২৫ টা খেয়েছিস এই পর্যন্ত, ?
আরে কতো মেয়েতো আছে একটার জন্য জীবনটা এভাবে শেষ করে দেওয়ার কি আছে,
রাহুল কিছুই বললো না চোখ ঝাপসা হয়ে আসছে,রাহুল সে কবে কেঁদেছিল ভুলে গিয়েছে,…
আজ আবার কারো জন্য বুক ফেটে কান্না আসছে ?
(চলবে)

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে