হারিয়ে যাওয়া অনুভূতি  পাঠ-৫

0
2395

হারিয়ে যাওয়া অনুভূতি  পাঠ-৫
#আরিশা অনু

“””একটু পর নিপা এসে কাজ বুঝিয়ে দিয়ে গেল তাই সব ভাবনা চিন্তা বাদ দিয়ে কাজে মন দিলাম…!!!(অনন্যা)

“””ধ্যাৎ কোনো কাজে ই মন বসছে না আমার।বার বার বেহায়া চোখটা অনন্যার কেবিনের দিকে যাচ্ছে।

“””ওর কেবিনটা আমার কেবিনের সামনে হওয়ায় দেখতে সুবিধা হচ্ছে।

“””আবার কেনো যেনো এতদিন পর #হারিয়ে যাওয়া অনুভূতি টা সাড়া দিতে শুরু করেছে,এ যেনো নতুন প্রেমে পড়ার মত এক নতুন অনুভূতি..!!

“””একদৃষ্টিতে ওর দিকে তাকিয়ে আছি আমি পাগলি টা কাজের ফাঁকে ফাঁকে কলম টা মুখে দিয়ে কি যেন ভাবছে তারপর আবার কাজ করছে…!!

“””আর এসবের ভিতরে ওর অবাধ্য খোলা চুল গুলো বার বার মুখের উপর এসে পড়ে মুখটা ঢেকে দিচ্ছে, আর ও খুব যত্ন করে চুলগুলো আবার কানের পেছনে গুজে দিচ্ছে।

“””একটু পর পর চুলগুলো কানের পেছন থেকে আবার বেরিয়ে আসছে আর ও ঠিক করছে,চুলগুলো ও যেনো দুষ্টামি তে মেতে উঠেছে ওর সাথে।আর খোলা চুলের ভিড়ে ওর ফর্সা লম্বা নাকটা যেন বার বার উঁকি দিচ্ছে, সব মিলিয়ে যেন অদ্ভুত এক সুন্দর্যের সৃষ্টি হয়েছে । খুব ইচ্ছা করছে ওর অবাধ্য চুলগুলো কে নিজে হাতে ঠিক করে দিয়ে ওর মুখটা দুচোখ ভরে দেখে এত বছরের তৃষ্ণা মেটায়….!!!

“””এগুলো ভাবতে ভাবতে হঠাৎ করে অতিতের ভাবনায় ডুব দিলাম।
.
.
.
.
.
“””রোহাননননন…!!!(অনন্যা)

“””উফ্ এত জোরে কেউ চিৎকার করে কি হয়েছে কি বলো…?(রোহান)

“””চিৎকার কি আর সাধে করি সেই কখন থেকে ডাকছি তোমায় আর তুমি হা করে তাকিয়ে আছো আমার মুখের দিকে।কি দেখো এত হা করে হ্যাঁ। একবারো তাকিয়ে দেখেছো কতবড় চাঁদ উঠেছে আজ।আর চারপাশ টা ও জোৎস্নার আলোয় কত সুন্দর লাগছে।

“””না জানি আজ কত কপোত-কপোতি জোৎস্নার আলোয় তাদের ভালোবাসাকে নতুন করে ভিজিয়ে নিচ্ছে।ইস্ কত রোমাঞ্চকর একটা পরিবেশ ভেবে দেখেছো তুমি….?(অনন্যা)

“””আমার সামনে যে চাঁদটা আছে আগে তাকে দেখা শেষ করি তারপরে বাকি সব কথা ভাববো।(রোহান)

“””ইস্ তোমার সব সময় বাজে কথা।তারপর রোহানের কাঁধে মাথা রেখে ওর একহাত শক্ত করে ধরে চাঁদ দেখতে লাগলাম।এখন নিজেকে পৃথিবীর সব থেকে সুখি মানুষ বলে মনে হচ্ছে আমার….!!!(অনন্যা)

“””অনুসোনা…..?(রোহান)

“””হুমমম….(অনন্যা)

“””ভলোবাসি….!!!(রোহান)?

“””কাঁধথেকে মাথাটা তুলে ওর চোখের দিকে তাকিয়ে মুচকি হেসে বললাম আমিও…..!!!(অনন্যা) ?

“””হালাকা রাগ দেখিয়ে বললাম আমিও কি হুম….???(রোহান)?

“””এবার ঠোঁটের হাসিটা আর একটু বাড়িয়ে বললাম……

ভালোবাসি ভালোবাসি ভালোবাসি

“””এবার হয়েছে স্যার…..??(অনন্যা) ?

“””কিছুনা বলে ওকে কাছে টেনে শক্ত করে বুকে জড়িয়ে নিয়ে বললাম….

ভালোবাসি ভালোবাসি ভালোবাসি

অনেক বেশি ভালোবাসি ম্যাম…(রোহান)?
.
.
.
.
.
“””হঠাৎ ফোনের শব্দে চিন্তার জগৎ ছেড়ে বেরিয়ে আসলাম।তারপর কথা বলা শেষ করে অনুকে ফোনকরে আমার কেবিনে ডাকলাম।(রোহান)

“””শয়তান টার ডাক পড়েছে কি জানি কি বলবে আবার।তারপর ভাবাভাবি বাদ দিয়ে ওর কেবিনে যেয়ে বললাম স্যার আসবো….?(অনন্যা) ?

“””আসো…!!!(রোহান)

“””ভিতরে এসে কিছুনা বলে চুপচাপ দাড়িয়ে থাকলাম…!!!(অনন্যা) ?

“””মিসেস অনু আমার জন্য এককাপ কফি আর হালকা কোনো খাবার রান্না করে আনুন তো ল্যাপটপের দিকে তাকিয়ে কথাটা বললাম।একবার আঁড় চোখে ওরদিকে তাকালাম বেশ অবাক হয়েছে বেচারিকে দেখেই বোঝা যাচ্ছে….!!(রোহান)?

“””এতবছর পর রোহানের মুখ থেকে মিসেস অনু ডাকটা শুনে চোখে পানি এসে গেল।?তারপর ও নিজেকে সামলে নিলাম। রোহান হঠাৎ এমন কিছু করতে বলবে ভাবিনি।একবার ভাবলাম বারন করে দেব তারপর আবার ভাবলাম এতবছর পর ও আমার হাতের খাবার খেতে চেয়েছে বারন করি কি করে। তাই বললাম ঠিক আছে স্যার।তারপর ওর কেবিন থেকে বেরিয়ে আসলাম।(অনন্যা)?

“””আরে এত সহযে মেনে নিল।আমি তো ভাবছিলাম ও বারন করে দেবে।যাই হোক এতবছর পর আবার ওর হাতের খাবার খেতে পারবো ভেবে খুব ভালো লাগছে।(রোহান)?

“””বললাম তো ঠিক আছে বাট ক্যান্টিন টা কোথায় সেটা তো জানিনা।?ইয়েস নিপার থেকে জেনে নি।

“””তারপর নিপার থেকে যেনে নিয়ে এগলাম রোহানের জন্য খাবার রান্না করতে।অনেকগুলো দিন পর আবার নিজে হাতে ওর জন্য রান্না করবো ভাবতেই খুশিতে মনটা ভালো হয়ে গেল।(অনন্যা)?
.
.
.
.
.
Continue……

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে