Devil love part-14

0
2840

Devil love part-14
#writer_kabbo_Mahmud

কাব্যঃ আমি নিজে চেঞ্জ করেছি(একদম ফ্রেসভাবে বলে দিল)
,
তানিশাঃ কীইইইইহহহহহ(ডাইনির মতো তাকিয়ে?) (কাব্যর পাশে বসে পড়ে)তারমানে আপনি আমার বাকিটাও শেষ করে দিলেন (মাথাই হাত দিয়ে) বজ্জাত devil, নাইজেরিয়ান এনাকন্ডা, আফ্রিকান গন্ডার, লাল বাদর, মুখ পুড়া হনুমান, কালো কুমির, টিকটিকি, নেংটি ইদুর,ডাইনোসর, আপনার লজ্জা করল না এভাবে একটি মেয়েকে টাচ্ করতে???(একদমেই বলে দিল)
,
কাব্যঃ তুমি কী বোঝাতে চাইছো??? (দাঁতে দাঁত চেঁপে)
,
তানিশাঃ আমি কী বোঝাতে চাইছি বুঝছেন না নাকি বুঝতে চাইছেন না কোনটি???(ঝাড়ি দিয়ে,বিছানায় থেকে উঠে)
,
কাব্যঃ তানিশা যা বলবে ভালো করে বল(শান্তভাবেই)
,
তানিশাঃ আপনি আমার পোশাক চেঞ্জ করেছেন মানে সব দেখে ওওম্মম(মুখ চেপে ধরে) এ্য্য্য্যায়ায়ায়া ও আম্মুগো তোমার মেয়ের সব দেখে নিয়েছে এই পাজি এ্য্য্যাাায়ায়ায়া এখন আমার কী হবে গোওও আমার আর বিয়ে হবে না (কপালে হাত দিয়ে) (মনে হচ্ছে ন্যাকা কান্না)
.
কাব্যঃ চাইলে আমার সাথে করতে পারো!!(ডেভিল এর মতো হাসি দিয়ে)
.
তানিশাঃ কোনদিনও না, আপনার মতো ডেভিল,খরগোশ, বদমাইশের বউ কোনদিন ও না(ঝাড়ি দিয়ে)
,
কাব্যঃ এই সকাল সকাল তোমার এইসব কথা ভালো লাগছে না,,আর একটু আগে তুমি যেটা দিলে তার জন্য তোমাকে ক্ষমা করছি,তা না হলে এতক্ষনে,
,
তানিশাঃ কী করতে এতক্ষনে,শুধু মুখ চেপে ধরতে(রেগে গিয়ে)
,
কাব্যঃ ওহ্ তারমানে তুমি বোঝাতে চাইছো মুখ চেপে ধরার সাথে আরও কিছু করতে,,বাহ্ তুমি তো বেশ রোমান্টিক (তানিশার দিকে তাকিয়ে)
,
তানিশাঃ না সেটা বলতে চাই নি,আমি বলতে চাইছি আপনি অবিবাহিত একটি মেয়েকে কেন টাচ্ করলে,
,
কাব্যঃ দেখ তানিশা যা করেছি তার জন্য আমি দুঃখিত, আর সেটি না করলে তুমি বেশি অসুস্থ হয়ে যেতে,আর এই বাসাই কোন মেয়েও নেই যে তোমাকে ঠিক করত,
(কিছুটা দূরে যেয়ে ল্যাপটপ থেকে একটি পেনড্রাইভ বের করে) বিশ্বাস না হলে এটা দেখতে পার, কাল রাতে আমি তোমার সাথে যা কিছু করেছি সব এই পেনড্রাইভ এর ভিতরে আছে(তানিশার হাতে ধরিয়ে দিয়ে)
,
তানিশাঃ ok (মাথা নিচু করে)
,
কাব্যঃ অনেক কথা হয়েছে, এবার নিচে যেয়ে কিছু রান্না কর আমি ফ্রেস হয়ে আসি,
,
তানিশাঃ কীহহ্ আমি রান্না করব???
,
কাব্যঃ আজকে নাহয় একটু সুন্দর করেই রান্নাটি কর,কারণ আজ তোমাকে আমি বাসাই দিয়ে আসব আর তোমাকে বিয়ে না করার প্রস্তাবটিও দিয়ে আসব
,
তানিশাঃ সত্যি??(আনন্দের হাসি দিয়ে)
,
কাব্যঃ হুম সত্যি, এবার যাও(বলেই কাব্য ফ্রেস হতে চলে গেল)
,
–আর এদিকে তানিশা নিচে যেয়ে আনন্দের সাথে রান্না করতে লাগল,, আজ সে বাসাই যাবে তাই আনন্দে তো নাগিন ডান্স দিচ্ছে?
কাব্য ফ্রেস হয়ে নিচে আসল,
,
কাব্যঃ mr, Tamim আপনি একটু রুমের ভিতরে আসেন(ফোনে)
,
–কিছুক্ষন পর তামিম আসল
.
তামিমঃ স্যার আপনি কিছু বলবেন??
,
কাব্যঃ হুম কথাটি হলো,আপনাদের কাজ শেষ যার জন্য কাজে এসেছিলেন সে আজ বাসাই চলে যাবে তাই আপনারা চলে যেতে পারেন আমি আবির এর কাছে থেকে আপনাদের bill pay kore debo ok..
.
তামিমঃ ok sir,দরকার পড়লে বলবেন আমরা চলে আসব
,
কাব্যঃ ওকে
,
তামিমঃ আচ্ছা তাহলে আসি স্যার(বলেই চলে গেল)
,
কাব্যঃ রান্না কেমন হলো??(সোজা তানিশার কাছে যেয়ে)
,
তানিশাঃ হুম ভালো, দেখতেই তো পাচ্ছেন,
,
কাব্যঃ হুম,,,আচ্ছা তাহলে বাসাই যেয়ে কী করবে?
,
তানিশাঃ বাসাই যেয়ে কী করব আবার আগে যা করতাম আনন্দ মাস্তি আর পড়াশোনা,
,
কাব্যঃ ওহ,,তো বিয়ে কার সাথে করবে?? তোমার কাব্যকে কীভাবে খুজবে??
,
তানিশাঃ সেটা জানিনা তবে আমি তাকে খুজব(নিমিষেই হাসি মুখটি ফ্যাকাসে হয়ে গেল) দেখাযাক আল্লাহ কী করে!!
,
কাব্যঃ হুম,তুমি তাকে খুব তাড়াতাড়ি খুজে পাবে
,
তানিশাঃ আপনি কীভাবে সিনওর হচ্ছেন?
,
কাব্যঃ হুম,মনে বলছে তাই,,,আচ্ছা রান্না কর
,
–তানিশার রান্না করার মাঝে কাব্য অনেক কথা বলছিল তানিশা উত্তর দিচ্ছিল।
–এভাবে রান্না কমপ্লিট হয়ে যাওয়ার পর টেবিলে সুন্দর করে সাজিয়ে,
,
তানিশাঃ নিন শুরু করুন,
,
কাব্যঃ হুম তুমিও বসো
,
তানিশাঃ হুম,,
—তারপর তার দুজন মিলে breakfast করে রুমে গেল,
,
কাব্যঃ আচ্ছা তুমি রেডি হয়ে নাও,
,
তানিশাঃ হুম,,
—তারপর তানিশা ফ্রেশ হয়ে নিজেকে প্রস্তুতি করে,
,
তানিশাঃ আমি রেডি চলুন (আগ্রহী হয়ে)
,
কাব্যঃ হুম চলো,
–তানিশা+কাব্য নিচে যেয়ে সোজা গাড়িতে যেয়ে বসল-
আর কাব্য ড্রাইভিং শুরু করল।
,
–গাড়ি চলছে আপন গতিতে কিন্ত কেউ কোন কথা বলছে না
,
তানিশাঃ আচ্ছা আপনি এমন হাদারাম এর মতো বসে আছেন কেন???
,
কাব্যঃ তো কী করব??
,
তানিশাঃ কী বলবেন মানে?? পাশে একটা মানুষ বসে আছে তার সাথে কথা বলতে পারনে না??
,
কাব্যঃ কী কথা বলব???
,
তানিশাঃ ইহ্ ভদ্র মানুষ সাজা হচ্ছে৷ অন্য ছেলে হলে তো পাশে সুন্দরী মেয়ে পেলে একবারে পটানো সুরু করে দিতো,আর ইনি আবার ভদ্র হচ্ছে ঢং(বিড়বিড় করে)
,
কাব্যঃ কী বললে(রেগে গিয়ে)
,
তানিশাঃ ক্কই কিছু না?,,,,(বুঝিনা ইনি আমার সব কথা শুনে ফেলে কেমন করে)
,
কাব্যঃ আমি তোমার সব কথা শুনতে পাই,
,
তানিশাঃ উহ্,,,,আচ্ছা আপনাদের গাংনী বাজার এতো ছোট কেন???
,
কাব্যঃ কীইইইইহহহহ্, এটা তোমার ছোট মনে হয়????(অবাক হয়ে)
,
তানিশাঃ হুম, ছোটই তো
,
কাব্যঃ উফ্ আমি তো ভুলেই গিয়েছিলাম কার সাথে কথা বলছি(মনে মনে) হুম আমাদের বাজার ছোট,
,
তানিশাঃ শুধু ছোট না এই বাজারের কোন সৌন্দর্য হাবিজাবি ইত্যাদি ইত্যাদি
–তানিশা কথা বলেই চলেছে কাব্য সেদিকে কোন খেয়াল না করে ড্রাইভ করছে,

তানিশাঃ আচ্ছা আপনি কী অন্য গ্রহের প্রানী???
,
কাব্যঃ what the,,,এটা আবার কেমন কথা??
,
তানিশাঃ কেমন কথা মানে আমি এতো বকবক করছি আর আপনি একটা কথারও উত্তর দিচ্ছেন না!!
,
কাব্যঃ (গাড়ি ব্রেক করে)
,
তানিশাঃ কী হলো(ভয় পেয়ে)
,
কাব্যঃ ধীরে ধীরে তানিশার একেবারে কাছে চলে এসে
,
তানিশাঃ আপনি এটা কী করছেন????
,
কাব্যঃ (তানিশার কানের কাছে আসে,আর তানিশা চোখ বন্ধ করে ফেলে,) বাসাই এসে গিয়েছি.
,
–তানিশা অবাক হয়ে তাকাই কাব্যর দিকে,
,
তানিশাঃ মানে???
,
কাব্যঃ মানে বোঝ না???বাসাই চলে এসেছি নামো,,,
,
—তারপর তারা দুজনে গাড়ি থেকে নেমে কলিংবেল বাজাই
,
টিং টিং টিং,

চলবে,,,,

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে