?ভোর? পর্বঃ ০৭।

0
601

?ভোর? পর্বঃ ০৭।
লেখিকাঃ আয়sHa?
|
|
আলোর সকালে ঘুম গেলো। চোখ খুলে দেখে ভোর ওর বুকের উপর ই ঘুমিয়ে আছে। আলো আস্তে করে ভোরের মাথাটা ধরে পাশে শুয়ে দিয় উঠে চলে যাচ্ছিলো কিন্তু চোখ দুটো আটকে গেলো ভোরের পিঠের উপর। আলো পিঠটা দেখে আঁতকে উঠল.. ইশশশশশ বলে। তারপর ভোরের পিঠে আলতো করে হাতটা রাখলো। আলো পিঠে হাত বুলাতে বুলাতে ভোরের ঘুমটা ভেঙ্গে গেলো। ভোর নড়েচড়ে ওঠায় আলো পিঠ থেকে হাতটা সরিয়ে নিলো। ভোর উঠে বসলো…
|
ভোরঃঃ গুড মর্নিং…
|
আলোঃঃ মর্নিং…
|
ভোরঃঃ ফ্রেশ হও নি? ওহ তোমার তো পায়ে ব্যাথা ভুলেই গিয়েছিলাম। ওকে চলো দিয়ে আসি ওয়াশরুমে…
|
আলোঃঃ হুমমমম…
|
ভোর উঠে আলোকে কোলে নিলো আলো ভোরের ঘাড়ে দুহাত দিয়ে জড়িয়ে ধরলো যেন না পড়ে যায় কিন্তু আলোর একটা হাত বাঁধন ছাড়া হয়ে ভোরের পিঠে পড়লো..
|
ভোরঃঃ আহহহ….
|
আলোঃঃ ইশশশ আপনার লেগেছে খুব না? সরি সরি আমি ইচ্ছা করে হাত রাখিনি। সরি।
|
ভোরঃঃ হুমম.. ((ব্যথার্ত্ব কন্ঠে))
|
এরপর আলো ফ্রেশ হয়ে বের হলো আর ভোর আলোকে কোলে তুলে নিয়ে সোফায় বসিয়ে দিলো তারপর ভোর ফ্রেশ হয়ে এলো।
|
ভোর শার্ট পড়বে সেটা আলো দেখে…
|
আলোঃঃ আপনি কোথাও যাবেন??
|
ভোরঃঃ হুমমম… অফিসে..
|
আলোঃঃ আজ অফিসে যেতে হবে না।
|
ভোরঃঃ কেন???
|

এখনই জয়েন করুন আমাদের গল্প পোকা ফেসবুক গ্রুপে।
আর নিজের লেখা গল্প- কবিতা -পোস্ট করে অথবা অন্যের লেখা পড়ে গঠনমূলক সমালোচনা করে প্রতি মাসে জিতে নিন নগদ টাকা এবং বই সামগ্রী উপহার।
শুধুমাত্র আপনার লেখা মানসম্মত গল্প/কবিতাগুলোই আমাদের ওয়েবসাইটে প্রকাশিত হবে। এবং সেই সাথে আপনাদের জন্য থাকছে আকর্ষণীয় পুরষ্কার।

গল্পপোকার এবারের আয়োজন
ধারাবাহিক গল্প প্রতিযোগিতা

◆লেখক ৬ জন পাবে ৫০০ টাকা করে মোট ৩০০০ টাকা
◆পাঠক ২ জন পাবে ৫০০ টাকা করে ১০০০ টাকা।

আমাদের গল্প পোকা ফেসবুক গ্রুপে জয়েন করার জন্য এই লিংকে ক্লিক করুন: https://www.facebook.com/groups/golpopoka/?ref=share

আলোঃঃ না মানে আপনার পিঠে জঘম তো তাই। শার্ট পড়ে থাকতে কষ্ট হবে আপনার।
|
ভোরঃঃ আজ সূর্য কোথা থেকে উঠলো??
|
আলোঃঃ বরাবরের মতো পূর্ব দিক থেকে। কেন??
|
ভোরঃঃ না মানে তুমি যে কি না আমাকে ঘৃণা কর সে আমাকে নিয়ে ভাবছো। কেয়ার করছো তাই।
|
আলোঃঃ হোক না সব মিথ্যা ছিলো কিন্তু আপনার ভালোবাসাটা মিথ্যা না। তা গতকাল রাতেই প্রমান পেলাম। তাই ভাবছি আপনাকে মেনে নেবার চেষ্টা করব।
|
ভোরঃঃ আর রিহামের কি হবে??
|
আলোঃঃ রিহাম অদেখা তাই অদেখাতেই থাক। কপালে আপনি ছিলেন তাই বিয়েটা আপনার সাথেই হলো।
|
ভোর দৌড়ে এসে আলোর পাশে বসে আলোর কপালে… গালে.. গলায় হাত দিয়ে…..
|
ভোরঃঃ এই তোমার জ্বর ট্বর হয় নি তো? আবোল-তাবোল। বকছো যে। পাগল হলে নাকি??
|
আলোঃঃ হ্যাঁ পাগল হয়েছি। ঐ ফাস্টএইড বক্স ওটা আগে নিয়ে আসুন।
|
ভোর বক্সটা এনে আবার পাশে বসলো।
|
আলোঃঃ দেখি ঘুরে বসুন। আপনার পিঠে সেভলন ক্রিম লাগিয়ে দেই।
|
ভোরঃঃ না না… ওটায় প্রচুর জ্বলে। আমি দিবো না।
|
আলোঃঃ ঘুরে বসুন বলছি।
|
ভোর ঘুরে বসলো। আলো ক্রিম লাগিয়ে দিচ্ছে আর ভোর উহ-আহ করছে। আলোর ক্রিম লাগানো শেষে ভোর আলোর পায়ের ব্যান্ডেজ খুলে ক্রিমটা আলোর পায়েও লাগিয়ে দিলো। আর ব্যান্ডেজ করলো না। কিছুক্ষণ পর সার্ভেন্ট এসে ওদের নাস্তা রুমে দিয়ে গেলো। ভোর আলোকে খাইয়ে দিলো আর নিজেও খেয়ে নিলো।
|
আলো বেডে বসে বসে মোবাইল দেখছে আর ভোর অফিসের কাজ করছে সোফায় বসে। আলো ফোন দেখছে আর বাঁকা চোখে ভোরকে দেখছে।
|
ভোরঃঃ বাঁকা চোখে দেখছ কেন কিছু বলবে???
|
আলোঃঃ কই নাতো…
|
ভোর এবার উঠে আলোর কাছে এসে…..
|
ভোরঃঃ হুমমম বুঝলাম। দেখো তো আমার বুকটা কেমন???
|
আলোঃঃ সরুন তো। টাওয়াল দিন বুকে। নির্লজ্জ।
|
ভোরঃঃ কিছু একটা আছে বুকে খুঁজে দেখো পাবে।
|
আলো এবার লজ্জামাখা চোখে ভোরের বুকে খঁজতে লাগলো কি আছে দেখার জন্য। দেখতে দেখতে একটা জায়গায় চোখ আটকে গেলো। আলো ভালোভাবে বোঝার জন্য বললো…
|
আলোঃঃ আর একটু কাছে আসুন তো…
|
ভোরঃঃ হুমমম…
|
ভোর কাছে এলো তারপর আলো ভালোভাবে দেখে….
|
আলোঃঃ আআআপনি??
|
ভোরঃঃ হুমম ((মুচকি হাসি দিয়ে))
|
আলোঃঃ এটা কেন করলেন? কবে করলেন?
|
ভোরঃঃ অনেক আগে। তোমার সাথে দেখা হবার আগে।
|
আলোঃঃ আপনি কি পাগল??
|
ভোরঃঃ হুম তোমার জন্য একটু পাগলামি করলাম।
|
আলোঃঃ ওহ তাহলে এত ছোট আর হাল্কা করে বুকে আমার নাম লিখছেন কেন যে খুঁজে পেতে কষ্ট হয়। বড় করে লিখতে পারলেন না? ((রাগী কন্ঠে))
|
ভোরঃঃ এখন লিখব???
|
আলোঃঃ ধুরররর। সরুন তো ঘুম পাচ্ছে।
|
ভোর আলোর হাতটা ধরে টেনে বুকে নিলো যেখানে আলোর নামটা লেখা। তারপর…
|
ভোরঃঃ এই বুকে হাত রেখে বলো তো একটা সত্যি কথা…
|
আলোঃঃ কি????
|
ভোরঃঃ তুমি কি সত্যি আমাকে মেনে নেবার চেষ্টা করবে??
|
আলো কিছুক্ষণ ভেবে…
|
আলোঃঃ হুমমমম….
|
ভোরঃঃ আমার চোখের দিকে তাঁকিয়ে বলো তো।
|
আলোঃঃ না।
|
ভোরঃঃ কেন?
|
আলোঃঃ আপনার চোখ দুটো মায়ার সাগর। ওখানে তাঁকিলে নিজের কন্ট্রোল রাখা সম্ভব না। সেদিনের মতো কিছু হোক চাই না।
|
ভোরঃঃ ওহ ওকে।
|
আলোঃঃ হুমম। বাবাকে কল করেছিলেন??
|
ভোরঃঃ ওহ সিট ভুলে গেছিলাম। দাঁড়াও দিচ্ছি।
|
আলোঃঃ আমি দিয়েছিলাম। বাবা সুস্থ আছে।
|
ভোরঃঃ হুমম..
|
আলোঃঃ আমি একটু শুবো..
|
ভোরঃঃ আচ্ছা তুমি শুয়ে পড়ো আমি বাকি কাজগুলো করেনি অফিসের।
|
আলোঃঃ আচ্ছা।
|
ভোর কাজে মন দিলো আর আলো শুয়ে শুয়ে অনেক কিছু চিন্তা করতে করতে ঘুমিয়ে পড়লো।
|
ভোর হঠাৎ করে আলোর দিকে অনেকক্ষণ তাঁকিয়ে একটা রহস্যময় হাসি দিয়ে আবার কাজে মন দিলো।
|
দুপুর ২:০০ টা ঘড়িতে আলোর ঘুম ভাঙল। আলো উঠে বসে চারদিকে তাঁকিয়ে দেখে ভোর নাই। ঘড়িতে তাঁকিয়ে দেখে দুপুর ২:০০। বেড থেকে নেমে পা ফেলার চেষ্টা করছে। এরমধ্যে ওয়াশরুমের দরজা খোলার শব্দ পেয়ে সামনে তাকালো। তাঁকিয়ে দেখে ভোর শাওয়ার নিয়ে বের হয়েছে শুধু একটা টাওয়াল পড়ে হাত দিয়ে চুল ঝাড়তে ঝাড়তে। আলো চোখ নামিয়ে নেয়। ভোর আলোর কাছে এসে…
|
ভোরঃঃ তুমি বেড থেকে নামছ কেন? পায়ে ব্যথা পাবে তো।
|
আলোঃঃ হাঁটার অভ্যাস করতে হবে। তা না হলে ব্যথা কমবে না। আর ২টা বেজে গেছে গোসল করবো।
|
ভোরঃঃ ওকে চলো তোমাকে দিয়ে আসি ওয়াশরুমে।
|
আলোঃঃ আগে আপনি চেঞ্জ করুন তারপর হাতটা ধরুন তাতেই হবে।
|
ভোরঃঃ কেন আমাকে চেঞ্জ করতে হবে কেন?
|
আলোঃঃ এভাবে টাওয়াল পড়ে থাকবেন না কি শুধু((নিচে তাঁকিয়ে))
|
ভোরঃঃ এভাবেই থাকবো। বৌয়ের সামনেই তো। আসো…
|
আলো চুপ হয়ে গেলো। ভোর আলোর হাতটা ধরলো। আলো ভোরের হাত ধরে উঠে দাঁড়ালো। তারপর আস্তে আস্তে ওয়াশরুমে গেলো হেঁটে।
|
|
|
চলবে…………
((ভুল-ত্রুটি ক্ষমার চোখে দেখবেন।ধন্যবাদ ?))

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here