রোমান্টিক বুড়ো বর ১৩ পর্ব

"এখনই জয়েন করুন আমাদের গল্প পোকা ডট কম ফেসবুক গ্রুপে। আর নিজের লেখা গল্প- কবিতা -পোস্ট করে অথবা অন্যের লেখা পড়ে গঠনমূলক সমালোচনা করে প্রতি সাপ্তাহে জিতে নিন বই সামগ্রী উপহার। আমাদের গল্প পোকা ডট কম ফেসবুক গ্রুপে জয়েন করার জন্য এখানে ক্লিক করুন "

#রোমান্টিক বুড়ো 😜 বর
#১৩ পর্ব
#Mitu jahan Mitu
,
,
তুলির ঘুম ভাঙ্গলে ফ্রেশ হয়ে নিচে এসে দেখে পারভেজ আর তার বোন মিসু এসেছে।
নিসু আসতে চেয়েছিল কিন্তু মিসু আসতে দেয় নি ,
বলেছে পরে আসতে ,তাই পারভেজ আর মিসু এসেছে)
,
মিসু:ওই যে ভাবি এসেছে(চলো ভাবি তোমার ঘরে যায় আজ প্রথম যাবো কিন্তু আমি তোমার ঘরে)
,
আমি: আমার ঘরে 😒
,
মিসু: হুম তোমার ঘরে 🙂কেনো যেতে পারি না বুঝি।
আমি:আসো 😒
,
মিসু:আরে ভাবি এতোক্ষণ এ তোমার ঘুম ভাঙল বলো ,
কখন থেকে বসে আছি আমি আর ভাইয়া।
,
আমি:কেনো বসে আছো তোমরা।
,
মিসু: প্লিজ ভাবি আর রাগ করে থেকো না,
জানো নিসু যে মিথ্যা বলেছে তা ও স্বীকার করেছে আর ভাইয়া ওকে অনেক বকেছে।
,
আমি:তো আমি কি করবো 😡,
আর তোমাদের বিষয়ে আমাকেই বা বলছো কেনো।
,
মিসু: জানি ভাবি তোমার সাথে যা হয়েছে তা ভুল।
কিন্তু ভাবি ভুল তো মানুষেরই হয় তুমি বলে ,
কিন্তু একটি ভুল সারা জীবন আগলে রাখাও কি বড় ভুল নয়
,
আমি: ভুল !কোনটা ভুল বলো তো মিসু আপু।
আমি যা করেছি তাই বুঝি ভুল ,
আর আমার সাথে যা হয়েছে তা কখনোও ভুল নয় আপু ,এটা অন্যায়।
কারো কথা না শুনে বিচার করা ,তার গায়ে হাত তোলা কোনো ভুল নয় মিসু আপু।
,
আমার জায়গায় আজ যদি তুমি থাকতে আপু তাহলে এতো সহজে মেনে নিতে পারতে এই অপমান ,
তোমার স্বামী যদি বিনা অপরাধে শুধু তার বোনের কথা শুনে ,
যদি তোমাকে ঘর থেকে বের করে দেয় তাহলে কেমন লাগবে তোমার বলো ,
,
মিসু; সত্যিই ভাবি আমার কিছু বলার নেই ,
আমি বুঝতে পারছি তোমার কষ্টটা ,
কিন্তু তোমাকে কষ্ট দিয়ে ভাইয়াও সুখে নেই ভাবি ,
তুমি আসার পর থেকে ভাইয়া একটা রাত ও ঠিক মতো ঘুমাইনি।
তুমি কি পারো না একটাবার ক্ষমা করে দিতে ভাইয়া কে
,
আমি: না পারি না আপু।
প্লিজ মিসু আপু এই বিষয় নিয়ে তুমি আর আমাকে অনুরোধ করতে এসো না।
আমি আর যাই করি না কেনো উনাকে ক্ষমা করতে পারবোনা,
উনি শুধু আমার গায়ে হাত তোলেনি বরং আমার কলিজায় আঘাত করছে।
স্বামীর থেকে এমন ব্যবহার কোনো স্ত্রী আশা করে না।
আর উনি যা করেছে তা নাই বা বললাম ।
,
মিসু: আমি বুঝতে পারছি , কিন্তু তবুও অনুরোধ রইল,
এরপর তোমার ইচ্ছা —
,
(দরজার সামনে পারভেজ এসে দাঁড়িয়ে সব কথা শুনছি, হঠাৎ পারভেজ এসে—
,
পারভেজ:হুম-হুম আসতে পারি
,
মিসু:আরে ভাইয়া তুই 😕আস ।
,
(পারভেজ কে দেখে তুলি অন্যদিকে ঘুরে বসলো)
,
পারভেজ: তুই তো আসতে বলছিস কিন্তু যার ঘর সে তো মুখ ফিরিয়ে নিয়েছে😥😥😥
,
হঠাৎ আম্মু এসে–
,
আম্মু:কে মুখ ফিরিয়ে নিয়েছে বাবা পারভেজ🙂
,
পারভেজ:না মানে
,
মিসু:কেউ না তো আন্টি ,তা আপনি দাঁড়িয়ে আছেন কেনো বসুন না।
,
আম্মু:তা তো বসবোই কিন্তু মা আজ তোমাকে থাকতেই হবে আমাদের বাড়িতে,
এই প্রথম এলে তাও আবার এই শরীর নিয়ে ,
,
মিসু:না আন্টি আমি থাকতে পারবো না,
কিছুক্ষণ পর চলে যেতে হবে আজকে আবার ডাক্তার এর কাছে যেতে হবে
,
আম্মু: কিন্তু এসেই চলে যাবে এ কেমন কথা ,
আর এই সময়ে একটু সাবধানে থেকো মা ।
,
মিসু: হুম আন্টি ,
,
আম্মু:তা বাবা সেবার এলে কিন্তু থাকো নি,
এবার কিন্তু অবশ্যই থাকতে হবে কয়েক দিন।
,
পারভেজ: আচ্ছা আম্মু এবার অনেক দিনি থাকতো ,
যতো দিন বউ আছে ততোদিন
,
আম্মু: আচ্ছা বাবা 🙂 থেকো
আচ্ছা তোমরা কথা বলো আমি আর মিসু নিচে আছি।
,
পারভেজ: ওকে আম্মু।
,
(তারপর মিসু আর আম্মু চলে গেলো)
,
পারভেজ: কিছু বলতে —
আমি: সমস্যা কি আপনার , এখানে কি চাই😠😠
আর এখানে এসেছেন কেনো?
,
পারভেজ: আমি তোমাকে নিতে এসেছি তুলি।
,
আমি:কি বললেন 😠 নিতে এসেছেন কিন্তু কোন অধিকারে ,
আর আমি আপনাকে চিনি না।
,
পারভেজ: স্বামীর অধিকারে 😕 নিতে এসেছি।
,
আমি:বাহ বাহ অনেক মজা করতে পারেন তো ,
,
কখনোও স্বামীর অধিকারে গায়ে হাত তুলবেন ,
আবার স্বামীর অধিকারে ঘর থেকে বের করে দিবেন।
এখন আবার স্বামীর অধিকারে নিতে এসেছেন
,
কি মজা তাই না 😠
আমাকে কি পুতুল পেয়েছেন আপনি নাকি পাগল উন্মাদ।
,
পারভেজ: (চুপ করে নিচের দিকে তাকিয়ে)
,
আমি: আপনি যদি ভেবে থাকেন আপনি আমাকে নিতে এসেছেন ,
তাই আমি সব ভুলে আপনার সাথে চলে যাবো তা কিন্তু ভুল ।
আমি কখনোই আপনার সাথে যাবো না।
,
পারভেজ:সব কি তুমিই বলবে আমাকে কিছু বলতে কি দিবে না 😥😥😏
,
আমি:এখনোও কিছু বলার আছে আপনার।
,
পারভেজ:😥😥😥
,
আমি: আপনি কি বলবেন তা আমার জানা তবুও আমি আপনার মতো নয় ।
তাই যা বলার বলে চলে গেলে আমি খুশি হবো 😡😡😡
,
পারভেজ: আমি জানি আমি যা করেছি তা ঠিক করিনি,
কিন্তু আমি কেনো করেছি তা তুমি জানো তুলি।
আমি আমার বোনদের কখনো ও কাঁদতে দেখিনি ।
সেদিন যখন এসে দেখলাম নিসু আর তুমি কথা কাটাকাটি করছো ,
আর নিসু কাঁদছিল তখন আমি নিজেকে কন্ট্রোল করতে পারিনি।
আমি মনে করেছি আমি সেদিন তোমাকে বেবি হবার জন্য জোরাজুরি করাতে ,
আমার উপরের রাগ আমার বোনের সাথে রাগ দেখাচ্ছ।
কিন্তু আমার ধারণা আর আমি ভুল ছিলাম।
আমার বোন যেমন আমার কাছে প্রিয় ঠিক তেমনি স্ত্রীও প্রিয় হওয়া উচিত,
কিন্তু আমি শুধু আমার নিজের বোনের কথা চিন্তা করেছি কিন্তু তোমার কথা নয় আর সেটাই আমার অন্যায়।
,
আমি:( চুপ 😠😠)
,
পারভেজ: কিন্তু তুলি বিশ্বাস করো,
তুমি চলে আসার পর একটা দিন ও শান্তিতে শুতে পারিনি।
আমি: আপনার কথা শেষ হয়েছে নাকি আরো বাকি
,
পারভেজ:না মানে প্লিজ তুলি আমাকে ক্ষমা করে দাও,😥😥
,
আমি:হা হা হা আমি আপনাকে ক্ষমা করবো ,
আমি কেই বা আপনার।আর রোইলো আমি যাবো কি না।
তাহলে শুনে রাখুন—–
,
চলবে

গল্প পোকা
গল্প পোকাhttps://golpopoka.com
গল্পপোকা ডট কম -এ আপনাকে স্বাগতম......

Related Articles

ছন্দ ছাড়া বৃষ্টি পর্ব-০৫ এবং শেষ পর্ব | ইমোশনাল গল্গ

#ছন্দ_ছাড়া_বৃষ্টি #লেখনীতে- Ifra Chowdhury #পর্ব-০৫ (শেষ পর্ব) . তন্ময়, তিন্নি রুম থেকে বেরিয়ে যাওয়ার পর ডুকরে কেঁদে উঠলাম আমি। তিহান আমার সাথে এতো বড় বিশ্বাসঘাতকতা করেছে, এটা...

ছন্দ ছাড়া বৃষ্টি পর্ব-০৪

#ছন্দ_ছাড়া_বৃষ্টি #লেখনীতে- Ifra Chowdhury #পর্ব-০৪ . তিহান অফিসে চলে যাওয়ার কিছুক্ষণ পরেই তন্ময় হন্তদন্ত পায়ে আমার কাছে ছুটে আসে। আমি ওর প্রতীক্ষায়ই ছিলাম। ও আসার পর সরাসরি...

ছন্দ ছাড়া বৃষ্টি পর্ব-০৩

#ছন্দ_ছাড়া_বৃষ্টি #লেখনীতে- Ifra Chowdhury #পর্ব-০৩ . হঠাৎ করে তিহান হাসতে আরম্ভ করলেন। এবার আমি ভ্রুজোড়া কুঞ্চিত করে জিজ্ঞেস করলাম, 'হাসছেন কেন?' উনি হাসতে হাসতেই জবাব দিলেন, 'তোমাকে ভয় পেলে বেশ...

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here

- Advertisement -
- Advertisement -

Latest Articles

ছন্দ ছাড়া বৃষ্টি পর্ব-০৫ এবং শেষ পর্ব | ইমোশনাল গল্গ

0
#ছন্দ_ছাড়া_বৃষ্টি #লেখনীতে- Ifra Chowdhury #পর্ব-০৫ (শেষ পর্ব) . তন্ময়, তিন্নি রুম থেকে বেরিয়ে যাওয়ার পর ডুকরে কেঁদে উঠলাম আমি। তিহান আমার সাথে এতো বড় বিশ্বাসঘাতকতা করেছে, এটা...
error: ©গল্পপোকা ডট কম