নেশালো সে পর্ব-০৮

0
1807

#নেশালো_সে💖
#লেখনীতে:#তানজিল_মীম💖

০৮.

“দেয়ালের সাথে চেপে ধরে দাঁড়িয়ে আছে আয়াফ’!!আর ওনার এমন কাজে আমি চোখ বড় বড় করে তাকিয়ে আছি’!!আচমকা এমন কিছুর জন্য মোটেও প্রস্তুত ছিলাম না আমি’!!নিচ থেকে রুমে ঢুকতেই আয়াফ এমন কিছু করবে সেটা আমি ভাবতেই পারি নি’!!আমি তো ভেবেছিলাম আয়াফ এতক্ষনে গভীর ঘুমে মগ্ন হবে’!!চোখ বড় বড় করে তাকিয়ে বলে উঠলাম আমি আয়াফকেঃ

———-“এটা কি হলো!আপনি ঘুমান নি এখনও….

———–“না ঘুমাই নি,তোমার সাথে ঝগড়া না করলে আমার ঘুম আসবে না তুমি জানো না!(রেগে)

———–“মানে?

———–“কেনো তুমি বুঝতে পারো নি!আমি কি ইংলিশে বলেছি যে তুমি বুঝতে পারো নি…

———–“হর্ঠাৎ কি হলো আপনার এতো রেগে আছেন কেন?

———-“আমার ভালো লেগেছে তাই রেগে আছি তোমার তাতে কি?

———-“আশ্চর্য!কি কারনে রেগে আছেন সেটা তো বলবেন,

———-“না তোমায় বলবো না….

———-“না বললে বুঝবো কিভাবে?

———-“কেনো বুঝো না, কবে বুঝতে পারবে তুমি…..

“বলেই স্ব-জোরে দেয়ালে ঘুসি মারলো আয়াফ’!!ওনার এমন কাজে আমি পুরো কেঁপে উঠলাম’!!তারপর কাঁপা কাঁপা গলায় বললামঃ

———“প্লিজ আয়াফ!এমন করছেন কেন?না বললে আমি বুঝবো কিভাবে….

“আয়াফ আফিয়ার কথা শুনে ওর দু-গাল আলতোভাবে চেপে ধরে বললঃ

———-“তুমি কি সত্যি বুঝতে পারছো না আমি কি বলতে চাচ্ছি…..(নীরবভাবে)

“আমি রীতিমতো অবাক হচ্ছি আয়াফের আচরনে’!!আয়াফ আবারো বলে উঠলঃ

———“তুমি জানো এখন আমার কি করতে ইচ্ছে করছে তোমায়….

“আয়াফের কথা শুনে চোখ বড় বড় করে তাকিয়ে বলে উঠলাম আমিঃ

———–“হুম কি…..

———–“আমি তোমায় কিস করতে চাই, তোমার ঠোঁট ছুয়ে দিয়ে শক্ত করে জড়িয়ে ধরে বলতে চাই আমি তোমায়…… বলেই থেমে গেল আয়াফ….

.

“এদিকে আমি আয়াফের দিকে হাবলা কান্তের মতো তাকিয়ে আছি যেন উনি কি বলছে সব মাথার উপর দিয়ে যাচ্ছে’!!আমায় চুপ থাকতে দেখে আয়াফ আবারো বলে উঠলঃ

———–“তুমি কেনো বুঝতে পারছো না “মায়াবতী”, আমি তোমায়…..যাও তোমায় কিছু বুঝতে হবে না!বলেই আমার হাত ধরে টেনে নিয়ে যাচ্ছে আয়াফ’!!

“আয়াফ আফিয়াকে বিছানায় শুয়ে দিয়ে বলে উঠলঃ

———–“কাল থেকে যদি রাতে দেরি করে রুমে আসো তাহলে তোমার খবর আছে বলে দিলাম’!!

“বলেই আফিয়াকে শক্ত করে জড়িয়ে ধরে ঘুমিয়ে পড়ে আয়াফ’!!

||

“এদিকে আফিয়া এখনো শকট হয়ে আছে যেন আয়াফ কি বললো আর আয়াফ কি করছে সব তার মাথার উপর দিয়ে যাচ্ছে!!

___________________

“রাত_২ঃ০০টা……

“আয়াফ বাচ্চাদের মতো করে আফিয়াকে জড়িয়ে ধরে ঘুমিয়ে আছে’!!আর আফিয়া তার মুখের দিকে তাকিয়ে মুচকি হাসছে’!!এমনটা নয় আফিয়া বুঝতে পারছে না আয়াফ কি বলতে চাইছে’!!আসলে আয়াফকে একটু জ্বালাতে আফিয়ারও বেশ লাগছে’!!প্রত্যেক বার আয়াফ শুরু তুমি কেনো বুঝো না আমি তোমায়…এতটুকু বলে থেমে যায়!কেন রে পুরো কথাটা বললে তোর পেস্টিচ চলে যাবে নাকি,না তোর মাথার চুল পড়ে যাবে ভেবে পায় না আফিয়া’!!তাই আফিয়া মনে মনে ঠিক করে রেখেছে যতক্ষণ না আয়াফ তাকে পুরো কথাটা বলবে ততক্ষণ আফিয়াও কিছু বলবে না!না বোঝার ভান নিয়ে থাকবে’!!ভেবেই হাল্কা হাসলো আফিয়া’!!এসব ভাবতে ভাবতে কখন যে ঘুমের দেশে পাড়ি জমালো নিজেও জানে না আফিয়া!

“রাতের জোৎসা ভরা আলোতে আলোকিত হয়ে গেছে রুম!’তার সাথে একটু একটু করে আলোকিত হচ্ছে দুটো মানুষের মন!

||

“আজকে আফিয়ার ভার্সিটিতে এক্সাম শুরু’!!তাই সকাল সকাল ঘুম থেকে উঠে পড়েছে আফিয়া’!!তাড়াতাড়ি গোসল সেরে একটা লাল রঙের চুড়িদার পড়েছে সে’!!চোখে কাজল টেনে, সাথে হাল্কা মেকাপ দিয়ে তৈরি সে’!!!চুলগুলো ভিঁজে থাকায় আপাতত খোলা রেখেছে’!!এক পায়ে পায়েল পড়েছে আফিয়া’!!তার ঝুনঝুন করা শব্দ কানে এসে বসছে আয়াফের’!!বিছানা লেপ্টে গভীর ঘুমে মগ্ন সে’!!আফিয়ার রুমের হাঁটার ফলে সোজা পায়েলের শব্দ এসে বাজছে আয়াফের কানে’!!একরাশ বিরক্ত নিয়ে চোখ খুললো আয়াফ’!!সাথে সাথে চোখ তার চড়ুই গাছ’!!অপলকভাবে তাকিয়ে আছে আয়াফ আফিয়ার দিকে’!!আফিয়াকে অসম্ভব সুন্দর লাগছে এই মুহুর্তে’!!পলক বিহীন তাকিয়ে আছে আয়াফ আফিয়ার দিকে’!!

“আর অন্যদিকে আফিয়া বইয়ের পাতায় এতটাই মগ্ন যে তাকে কেউ গভীর ভাবে দেখছে তা সে বুঝতেই পারছে না’!!রুমের মধ্যে বই নিয়ে পায়চারি করছে আফিয়া’!!প্রচন্ড নার্ভাস সে’!!এই বিয়ের চক্করে তেমন পড়াশোনা করা হয় নি তার’!!তাই অনেকটাই দুশ্চিন্তার মধ্যে আছে আফিয়া’!!

“আয়াফ আফিয়ার বিষয়টা আন্দাজ করতে পেরে বলে উঠলঃ

———-“এত নার্ভাস হওয়ার কি আছে যা হবে ভালোই হবে দেখে নিও….

“আচমকা আয়াফের মুখে এমন কথা শুনে কিছুটা ভরকে গেলাম আমি’!!পরক্ষণেই নিজেকে সামলে নিয়ে বলে উঠলামঃ

———–“আসলে তেমন ভালো ভাবে পড়াশোনা করা হয় নি তো তাই একটু নার্ভাস লাগছে’!!

“আয়াফ মুচকি হেঁসে বললোঃ

———-“কিছু হবে না দেখে নিও….

“বলেই বিছানা ছেড়ে উঠে সোজা ওয়াশরুমে চলে যায় আয়াফ’!!

||

“সকাল_৯ঃ০০টা……

“ব্রেকফাস্ট শেষ করে আয়াফ আর আফিয়া দুজনেই বেরিয়ে গেল বাড়ি থেকে’!!আয়াফ আফিয়াকে ভার্সিটি নামিয়ে দিয়ে অফিস যাবে’!!আয়াফ আর আফিয়া বসতেই ড্রাইভার গাড়ি চালাতে শুরু করল’!কুটকুটে নীরবতায় বিরাজ করছে গাড়িতে’!!কারো মুখেই কোনো কথা নেই’!!শেষমেশ কেউ কিছু না বলেই পুরোটা রাস্তা পার করে দিল’!!ভার্সিটির সামনে আসতেই আফিয়া নামতে যাবে এমন সময় আয়াফ তার হাত টেনে ধরলো!!এতে বেশ অবাক আফিয়া’!!চোখের ইশারায় বললো আফিয়াঃ

———–“কি হয়েছে…..

“আয়াফ আফিয়ার চোখের ভাষা বুঝতে পেরে বলে উঠলঃ

———–“বলছি!

“বলছি” কথাটা কানে বাজতেই আফিয়া চুপটি বসে রইলো গাড়িতে’!!আচমকা আয়াফ তার হাত দিয়ে আফিয়ার কপাল স্পর্শ করল’!!এতে আফিয়া হাল্কা কেঁপে উঠল’!!আয়াফ তার হাতের আঙুল নামাতে নামাতে চোখ পর্যন্ত নিয়ে আসলো’!!তারপর আফিয়ার চোখে থাকা কাজল থেকে একটু কাজল তার হাতে লাগিয়ে নিল’!!আফিয়া রীতিমতো অবাক হচ্ছে আয়াফের কাজে’!!সে আসলে বুঝতেই পারছে না আয়াফ ঠিক কি করতে চাইছে!!চোখ বন্ধ করে আছে আফিয়া’!!আয়াফ আফিয়ার চোখে তাকিয়ে রইল কিছুক্ষন’!!তারপর তার হাতে থাকা কাজল আফিয়ার কানের পিছনে লাগিয়ে দিলো’!!তারপর হাল্কা তার ঠোঁট আফিয়ার কানে স্পর্শ করে বলে উঠল আয়াফঃ

———-“কারো নজর না লাগে……

“চোখ বড় বড় হয়ে গেছে আফিয়ার সে ভাবতেই পারে নি আয়াফ এমন কিছু একটা করবে’!পরক্ষণেই মুচকি হেঁসে বললো আফিয়াঃ

————“এখন তাহলে আসি!

———–“হুম!আর হা শুনো আমি এসে নিজে যাবো তোমায় কোথাও যাবে না কিন্তু….

“আফিয়াও মুচকি হেঁসে বললোঃ

————“ঠিক আছে…..

“তারপর আয়াফও আর দাঁড়ালো না চললো তার কাজে আর আফিয়াও চললো তার গন্তব্যে……

_______________________

“এক্সাম শেষে আফিয়া দাঁড়িয়ে আছে ভার্সিটির করিডোরের সামনে’!!কাট -ফাটা রোদ্দুর থেকে বাঁচতেই এখানে দাঁড়িয়ে আছে’!!কিছুক্ষন আগেই আয়াফ ফোন করেছিল তাকে কিছুক্ষণের মধ্যেই আসছে আয়াফ’!!!আফিয়া অপেক্ষা করছে আয়াফের’!!আফিয়ার বন্ধুরাও চলে গেছে অনেক আগেই’!!একদম কুটকুটে নীরবতায় বিরাজ করছে পুরো ভার্সিটি’!!দু-একজন দেখা গেলেও আবার কিছুক্ষনের মধ্যেই বিলিন হয়ে যাচ্ছে তারা’!!হর্ঠাৎই গাড়ির থামার শব্দে আফিয়া চমকে উঠলো’!!সাথে এটাও বুঝতে পেরেছে আয়াফ এসেছে’!!আফিয়াও মুচকি হেঁসে হাঁটা শুরু করল সেদিকে’!!

“গাড়ির কাছে আসতেই আফিয়া অবাক কারন ড্রাইভার নেই’!!আয়াফই ড্রাইভ করছে’!!আফিয়াকে কিছুটা অবাক হয়ে বললোঃ

———-“আপনি,ড্রাইভার কোথায়…..

———–“আসলে একটা জায়গায় যাওয়ার আছে তাই ড্রাইভার আনি নি!তুমি আসো তাড়াতাড়ি….

“বিনিময়ে আফিয়া শুধু বললোঃ

———–“ওহহ…..

“তারপর আফিয়াও বসে পরলো গাড়িতে!আফিয়া বসতেই আয়াফ বলে উঠলঃ

————“কেমন হয়েছে এক্সাম….

“আফিয়া হাল্কা হেঁসে বললোঃ

————“ভালো!আচ্ছা আমরা কোথায় যাচ্ছি…..

————“গেলেই দেখতে পাবে!

“তারপর আর কোনো কথা হয় নি দুজনের মাঝে!

||

“প্রায় ২ ঘন্টা পর আমাদের গাড়ি এসে থামলো এয়ারপোর্টের সামনে’!!আয়াফ গাড়ি থেকে নেমে বললোঃ

———–“তুমি বসো আমি একটু আসছি!

———–“কোথায় যাচ্ছেন আপনি!

———–“বললাম তো আসছি…..

———-“ঠিক আছে….

“তারপর আয়াফ চলে গেল এয়ারপোর্টের ভিতরে!আর আমি চুপচাপ বসে আছি গাড়িতে…..

“বেশকিছুক্ষন পর আয়াফ এয়ারপোর্ট থেকে বেরিয়ে আসলো’!!পাশে তার তিনজন মানুষ একটা মেয়ে আর দুটো ছেলে’!ওদের দেখেই আমি বুঝে গেছি এরা আয়াফের বন্ধু’!!আয়াফ ওদের তিনজনকে গাড়ির সামনে নিয়ে এসে বললোঃ

———-“মিট তোদের ভাবি….

“আমি হাল্কা হেঁসে বলে উঠলামঃ

———-“আসসালামু আলাইকুম আপু এন্ড ভাইয়ারা….

“ছেলে দুটো মিষ্টিভাবে কথা বললেও মেয়েটা বললো না’!!অবশ্য এতে আমার কিছু যায় আসে না’!!তারপর সবাই মিলে চললাম বাড়ি ফেরার উদ্দেশ্যে’!!আয়াফ ড্রাইভ করছে আর তাদের বন্ধুেদর পরিচয় দিচ্ছেঃ

“একজনের নাম রিমন,আর আরেকজনের নাম আরমান আর মেয়েটার নাম জুলি’!!সবাই কিছুদিনের জন্য ঘুরতে গিয়েছিল বাহিরে’!!আয়াফকেও বলেছিল কিন্তু বিয়ের চক্করে পড়ে আর হলো না’!!সবাই হাসি খুশি ভাবে কথা বলছে আমার সাথে শুধু জুলি ছাড়া’!!দু-একবার হ্যাঁ হুম করলেই পরক্ষণেই চুপ হয়ে যাচ্ছে’!!ব্যাপারটা খুব একটা ভালো লাগছে না আমার’!!নিশ্চয়ই “ঢাল মে কুচ কালা হে”………

__________________________________________

_______________________

“বেশ কিছুক্ষণ পর আমরা এসে পৌছালাম বাড়িতে’!!আয়াফের বন্ধুরা রুমে ঢুকেই আম্মুকে জড়িয়ে ধরে বললঃ

———–“কেমন আছো আন্টি…..

“উনিও মুচকি হেঁসে বললেনঃ

———-“এই তো ভালো তোরা….

“তারপর সবাই মিলে একসাথে গল্প করতে শুরু করে দিল’!!আমি নীরব দর্শকের মতো শুধু দাঁড়িয়ে রইলাম’!!এমন সময় শাশুড়ী মা বলে উঠলেনঃ

———-“কি হলো আফিয়া তুই একা একা দাঁড়িয়ে আছিস কেন?

———-“তেমন কিছু নয় আম্মু তোমরা কথা বলছিলে তাই আর কি?আমি তাহলে রুমে গেলাম তোমরা গল্প কর….

“উনিও মুচকি হেঁসে বললোঃ

———–“ঠিক আছে….

“তারপর আমিও আর কিছু না বলে চলে গেলাম উপরে’!!সবচেয়ে অবাক করার বিষয় যেটা হলো আয়াফ একবারও আমার দিকে তাকালো না’!!জুলির সাথে হেঁসে হেঁসে দিব্বি কথা বলছে’!!রাগ হচ্ছে খুব’!!মুহূর্তেই মনে হলো আমি কি জ্বেলাস ফিল করছি!

||

“এভাবে কাটলো অল্প কিছুদিন’!!আয়াফ এখন প্রায় ইগনোর করছে আমায়’!!যেটা একদম সহ্য হচ্ছে না আমার’!!আগের মতো এখন আর ভার্সিটিতে দিয়ে আসে না’!!কারন উনি নাকি ওনার বন্ধুদের সাথে টাইম স্পেন করতে চায়’!!রাতেও খুব দেরি করে রুমে আসে!!সেটা একদমই সহ্য হয় না আমার’!!তারপরও ওই জুলির সাথে বেশি মেশামেশি করে’!!এসব ভাবতে ভাবতে রুমের মধ্যে পায়চারি করছি আমি’!!উদ্দেশ্য হলো আজকে একবার শুধু রুমে আসুক আয়াফ’!!বুঝিয়ে দিবো বউ থাকতে অন্য মেয়েদের সাথে মিশামিশি করলে তার পরিনতি কি হয়’!!সেদিন আমি দেরি রুমে আসায় অনেক কথা শুনিয়ে ছিল না আজকে আমিও দেখিয়ে দিবো এই আফিয়া কি জিনিস?

———-“তুমি শুধু একবার রুমে আসো চান্দু,আজকে তোমার একদিন কি আমার যে কয়দিন লাগে ‘হুহ’😤
!
!
!
!
!
!
!
!
!
!
!
!
#চলবে…………

[ভুল-ত্রুটি ক্ষমার সাপেক্ষ!!🤍
আর গল্প কেমন লাগছে অবশ্যই কমেন্ট করে জানাবে!!আর “ঈদ মোবারক” গাইস!!সবাইকে “তানজিল মীম” এর পক্ষ থেকে পবিত্র ঈদুল ফিতরের জন্য রইলো অনেক শুভেচ্ছা’ আর অভিনন্দন!]🥰🥰

#TanjiL_Mim♥️

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে