নেশালো সে পর্ব-০৭

0
1686

#নেশালো_সে💖
#লেখনীতে:#তানজিল_মীম💖

০৭.

“গাড়িতে বসে আছি আমি’ আর আয়াফ’!!আয়াফ ড্রাইভ করছে’!!বিষয়টা অনেকটাই অদ্ভুত লাগছে’!!ইদানীং আয়াফের আচরণও যেন কেমন হয়ে গেছে’!!আগের মতো তেমন ঝগড়া করে না,অনেক সুন্দরভাবে কথা বলে আমার সাথে’!!যেটা মটেও ভালো লাগে না আমার’!!করলার জুস আয়াফই তো ভালো ছিল’!!হর্ঠাৎ করে কমলার জুস হয়ে গেল কেন?একরাশ নীরবতা নিয়ে গাড়িতে বসে আছি আমি’!!কিছুক্ষণ আগেই আমরা সবাইকে বিদায় জানিয়ে চলে এসেছি’!!এতে মনটা খুব খারাপ লাগছে’!!আচ্ছা মেয়েদের জীবনটা এমন কেন হয়?’বড় হয় যাদের কাছে তাদের বাড়ির অতিথি হয়ে যেতে হয় একদিন’!!!সত্যি অদ্ভুত জীবন মেয়েদের’!!

||

“এদিকে ড্রাইভিং করতে করতে আড়চোখে তাকাচ্ছে আয়াফ আফিয়ার দিকে’!!সে বুঝতে পেরেছে আফিয়ার মন খারাপ’!!গাড়ি ড্রাইভ করতে করতেই আয়াফ বলে উঠলঃ

———“মন খারাপ?’

“আচমকা আয়াফের মুখে এমন কথা শুনে হাল্কা চমকে উঠলাম আমি’!!তারপরও নীরবে বলে উঠলামঃ

———-“একটু…

———–“ওহ!

“বলেই আয়াফ তার ড্রাইভিং এ মনোযোগ দিলো’!!আমিও আর কিছু না বলে কাঁচের জানালার দিকে মাথা হেলিয়ে দিয়ে চোখ বন্ধ করে নিলাম’!!সকালে খুব তাড়াতাড়ি ঘুম থেকে উঠে পড়ায় ঘুমের রেশ এখনও যায় নি আমার’!!তাই চোখ বন্ধ করতেই চোখে ঘুম মামা এসে কলিং বেল বাজালো আমার’!!কিছুক্ষনের মধ্যেই ঘুমের দেশে পাড়ি জমালাম আমি’!!

.

“উল্টোদিকে আয়াফ যেন এটারই অপেক্ষা করছিল’!!আয়াফ আফিয়াকে নিজের কাছে টেনে তার বুকের সাথে মিশিয়ে নিলো’!!যেন কতোদিনের ইচ্ছে আজ পূরণ করতে পেরেছে সে’!!আনমনেই হাসলো আয়াফ’!!আফিয়ার চুলগুলো খুলে দিল আয়াফ’!!এতে আফিয়ার ঘন কালো লম্বা চুলগুলো বাতাসে উড়ছে ভীষণ’!!আফিয়ার চুলের মাতাল করা ঘ্রাণে পাগল হয়ে যাচ্ছে আয়াফ’!!সাথে অনুভব করছে তার ভালো লাগাগুলো’!!একরাশ ভালো লাগা নিয়ে আয়াফ ড্রাইভ করছে’!!আর আফিয়াও ঘুমের ঘোরে আরাম পেয়ে আয়াফকে জড়িয়ে ধরে শান্তিতে ঘুমাচ্ছে’……

“বেশকিছুক্ষন পর…..
আয়াফ গাড়ি থামিয়ে দিল’!!আচমকা গাড়ির থামিয়ে দেওয়াতে চট করে ঘুমটা ভেঙে গেল আমার’!!হর্ঠাৎই মনে হলো কাউকে জড়িয়ে ধরে আছি আমি’!!মুহূর্তেই আয়াফের কথা মনে পড়তেই শুকনো ঢোক গিললাম’!!তাড়াতাড়ি আয়াফকে ছাড়িয়ে উওেজিত মাখা মুখ নিয়ে বলে উঠলাম আমিঃ

———–“সরি সরি আমি আসলে বুঝতে পারি নি কখন আপনাকে জড়িয়ে ধরেছি….

———–“it’s okk…

———–“বিশ্বাস করুন আমি জেনে বুঝে কিছু করি নি ঘুমের মাঝে কখন চলে গেলাম বুঝতেই পারি নি (উওেজিত হয়ে)

———–“ঠিক আছে বললাম তো…

“কে শুনে আয়াফের কথা আমি আমার মতো বক বক করেই চলেছি অতিরিক্ত নার্ভাস হয়ে গেলে যা হয় আরকি….

“এদিকে আয়াফ আফিয়ার বক বক শুনে বিরক্ত মাখা মুখ নিয়ে আফিয়ার দু-কাধ চেপে ধরে বললঃ

————“বললাম তো ঠিক আছে এতো বক বক কেন করো তুমি!

“আচমকা আয়াফের এমন কাজ আর কথা শুনে চোখ বড় বড় করে তাকালাম আমি’!!তারপর ঠোঁটে হালকা হাসি রেখে বলে উঠলামঃ

———-“আই এম সরি,,

———-“আর কতোবার সরি বলবে তুমি….

“বিনিময়ে চুপ আমি’!!হর্ঠাৎই মনে হলো আমার চুল খোলা’!!আশ্চর্য চুল খুলে গেল কি করে আমি তো শক্ত করে খোঁপা করে এসেছিলাম’!!আমি আয়াফের দিকে সন্দেহজনক চোখে তাকিয়ে বললামঃ

————“আমার চুল কি করে খুলে গেল!আর আমি আপনার ওতোটা কাছে কি করে গেলাম আমি তো ঠিক মনে আছে আমি জানালার দিকে মুখ করে ঘুমিয়ে ছিলাম…..

“আফিয়ার এমন সন্দেহের ভাব দেখে কিছুটা ঘাবড়ে যায় আয়াফ’!!পরক্ষণেই আয়াফ বিষয়টা সামলে নেওয়ার জন্য বলে উঠলঃ

———–“আমি কি জানি তুমি ঘুমের মধ্যে চলে এসেছো আমি তো আমার মতো ড্রাইভ করছিলাম তোমার দিকে তাকিয়ে ছিলাম নাকি,,ঘুমালে তো ব্যাঙের মতো লাফালাফি করো তুমি…

“বলেই গাড়ি থেকে নেমে যায় আয়াফ!

“এদিকে আমি হাবলার মতো বসে রইলাম আয়াফের কথা শুনে’!!পরক্ষণেই আয়াফের বলা কথা কি আমি ব্যাঙ,,ভেবেই রেগেমেগে গাড়ি থেকে নেমে গেলাম আমি’!!উদ্দেশ্য হচ্ছে আয়াফ দু-চারটা কথা শোনা নো……

“গাড়ি থেকে নামতেই অবাক আমি’!!কারন আমরা তো বাড়িতে এখনো আসি নি’!!মাঝরাস্তায় গাড়ি থামিয়ে দিয়ে কোথায় যাচ্ছে আয়াফ’!!ভেবেই চটজলদি আয়াফের সামনে দাঁড়িয়ে পরলাম আমি’!!তারপর বলে উঠলামঃ

———–“আমরা তো বাড়ি আসি নি তাহলে গাড়ি থামিয়ে কোথায় যাচ্ছি…..

———–“চল আমার সাথে, গেলেই দেখতে পাবে!

“বলেই আমার হাত ধরে হাঁটা শুরু করল আয়াফ’!!আর আমি অবাক দৃষ্টিতে আয়াফের দিকে তাকিয়ে রইলাম’!!আফিয়াকে এইভাবে তাকিয়ে থাকতে দেখে আয়াফ বলে উঠলঃ

———–“এইভাবে আমার মুখের দিকে না তাকিয়ে থেকে সামনে তাকিয়ে হাঁটো…..

“সাথে সাথে চোখ সরিয়ে ফেললাম আমি’!!ছিঃ ছিঃ আয়াফ কি ভাবলো আমায়….

_____________________

“বেশকিছুক্ষন পর আমরা এসে পৌছালাম একটা এতিমখানার সামনে’!!আমি রীতিমতো অবাক আয়াফ আমায় এইরকম একটা জায়গায় গিয়ে আসবে’!!আমি হা হয়ে তাকিয়ে আছি আয়াফের দিকে’!!আস্তে আস্তে আমরা ভিতরে প্রবেশ করলাম’!!ভিতরে ঢুকতেই একদল ছেলেমেয়েরা এসে ঘিরে ধরলো আয়াফকে’!!আয়াফও খুশি মনে সবাইকে জড়িয়ে ধরল’!!আমি অল্প দূরত্বের দূর থেকে দেখছি ওদের’!!আয়াফ খুব সুন্দর ভাবে হেঁসে হেঁসে সবার সাথে কথা বলছে’!!আয়াফকে অসম্ভব সুন্দর লাগছে এই মুহুর্তে’!!এই করলার জুস যে এত সুন্দর হাসতে জানে জানতাম না তো’!!এই মুহূর্তে আয়াফকেও একদম বাচ্চাদের মতো লাগছে’!!হর্ঠাৎই বাচ্চাগুলোর মাঝখান থেকে একটা মেয়ে বলে উঠলঃ

———–“আয়াফ ভাইয়া ওই আপুটা কে আমাদের ভাবি নাকি…..

“এতক্ষণ পর আয়াফের মনে পরলো তার সাথে আফিয়াও আছে’!!আয়াফ হাল্কা হেঁসে বললোঃ

———–“হুম তোমাদের ভাবি ওয়েলকাম করো সবাই……

“আয়াফের কথা শোনার সাথে সাথে সব বাচ্চারা আমার দিকে এগিয়ে আসলো’!!আমিও খুব খুশি হয়েছি বাচ্চাদের এমন কাজে’!!তারপর সারাদিন বাচ্চাগুলোর সাথে মজা করেই কেটে গেল আমাদের’!!

“বিকেল_৫ঃ০০টা……

“বাচ্চাগুলোর কাছ থেকে বিদায় জানিয়ে রওয়ানা দিবো আমরা’!!আয়াফ একটা মধ্যবয়স্ক লোকের কাছে কিছু টাকা দিয়ে বললোঃ

———–“সবার খুব ভালোভাবে খেয়াল রাখবেন কিন্তু….

“লোকটিও মুচকি হেঁসে বললোঃ

———–“কিছু চিন্তা করো না!

“বিনিময়ে আয়াফ আর কিছু না বলেই বাচ্চাগুলোর সামনে দাঁড়িয়ে বললোঃ

———-“আজকে তাহলে আসি,আবার আসবো আমি….

“বাচ্চাগুলো মনখারাপ নিয়ে বললোঃ

———-“তাড়াতাড়ি আসবে কিন্তু ভাইয়া,,আর ভাবিকেও নিয়ে আসবে সাথে…

“আয়াফ তার মাথা চুলকিয়ে একবার আফিয়ার মুখের দিকে তাকিয়ে বললোঃ

———-“ঠিক আছে….

“সবাই আয়াফের কথা শুনে খুশি হয়ে আয়াফকে জড়িয়ে ধরল’!!আয়াফ ওদেরকে জড়িয়ে ধরে বললঃ

———-“কেউ বেশি দুষ্টুমি করবে না কিন্তু….

———-“ঠিক আছে ভাইয়া…..

“অবশেষে সবাইকে বিদায় জানিয়ে আমরা রওয়ানা হলাম বাড়ির উদ্দেশ্যে’!!আবারো আমি আর আয়াফ হেঁটে গাড়ি পর্যন্ত চলে আসলাম’!!গাড়ির কাছে আসতেই হর্ঠাৎ কি হলো আমার কে জানে হুট করেই আয়াফকে জড়িয়ে ধরলাম আমি’!!তারপর প্রচন্ড বেগে খুশি হয়ে বলে উঠলামঃ

———–“থ্যাংক ইউ সো মাচ, এত সুন্দর একটা দিন উপহার দেওয়ার জন্য…..

“হর্ঠাৎ আফিয়া জড়িয়ে ধরাতে আয়াফ কিছুটা ঘাবড়ে গেলেও পরক্ষনেই নিজেকে সামলে নিয়ে মুচকি হাসলো সে’!!

_____________________

“লজ্জা মাখা মুখ নিয়ে বসে আছি গাড়িতে’!!কিছুক্ষণ আগে কি করেছি ভাবতেই লজ্জায় মাথা কাটা যাচ্ছে আমার’!!হুট করে কি হলো কে জানে আমি আয়াফকে জড়িয়ে ধরলাম’!!ভাবতেই লজ্জা লাগছে খুব’!!

“এদিকে আয়াফ আফিয়ার এমন লজ্জা মিশ্রিত মুখ দেখে ভিতরে ভিতরে খুব মজা পাচ্ছে!কিন্তু কিছু বলছে না’!!আফিয়ার লজ্জা মিশ্রিতভাব কমানোর জন্য আয়াফ বলে উঠলঃ

———–“ওটা আমার দাদুভাইর তৈরি এতিমখানা!আমি যখন খুব ছোট ছিলাম তখন থেকেই দাদুভাইর সাথে প্রায় আসতাম এখানে’!!তারপর হর্ঠাৎ দাদুভাই মারা যাওয়ায় বাবাই সব দায়িত্ব নেয় এখানের’!!তবে দাদুভাই মারা যাওয়ার পরও এখানে আসা বন্ধ হয় নি আমার’!!ওখানকার বাচ্চাগুলোকে আমার খুব ভালো লাগে’!!ওদের সাথে সময় কাটাতে আরো বেশি ভালো লাগে’!!আমার যখন খুব মন খারাপ হয় তখন ওখানে যাই আবার যখন খুব খুশি হই তখনও আসি’!!কেন জানি না নিজের প্রতিটা মুহূর্তে ওদের সাথে টাইম স্পেন করতে ভালো লাগে খুব’!

“এতটুকু বলে থামলো আয়াফ’!!এতক্ষণ আয়াফের কথাগুলো মন দিয়ে শুনলেও শেষের কথাটায় বলে উঠলাম আমিঃ

———-“তাহলে আজকে কেন এসেছেন এখানে কোন মুডে ছিলেন ভালো না খারাপ….

“মুচকি হাসলো আয়াফ’!!তারপর বললোঃ

———–“আজকে আমি খুব খুশি!

———–“কারন টা জানতে পারি কি….

———–“বলবো একদিন…..

“অবাক হলাম আমি আয়াফের কথায়’!!তবে কিছু বললাম না!নেমে আসলো আবারো কুটকুটে নীরবতা’!!

___________________________

“বেশ কয়েকঘন্টা পর আমরা এসে পৌঁছালাম বাড়িতে’!!আমরা আসতে আসতে প্রায় রাত হয়ে গেছে’!!আমাদের দেখে আম্মু আব্বু আর আরিশা খুশি হয়ে আসলো আমাদের সামনে’!!আরিশা তো আমায় জড়িয়ে ধরে বললোঃ

————“কেমন আছো ভাবি,বাপের বাড়ি গিয়ে আমাদের ভুলে গেছো একদম তাই না….

“হাসলাম আমি!তারপর বলে উঠলামঃ

———–“ভুলে কেন যাবো!ভুলে গেলে আসতাম নাকি….

———–“তা অবশ্য ঠিক!তা কেমন কাটলো তোমাদের….

————“আলহামদুলিল্লাহ ভালো!এমন সময় শাশুড়ী মা বলে উঠলেনঃ

———–”এখন ছাড় ওকে আগে ফ্রেশ হয়ে আসুক কতোটা রাস্তা জার্নি করে এসেছে….

“আরিশাও শাশুড়ির কথা শুনে ছেড়ে দিলো’!!আমি কিছুক্ষন শাশুড়ী মায়ের সাথে কথা বলে চলে আসলাম উপরে’!!আমার আসার অনেক আগেই আয়াফ রুমে এসে ফ্রেশ হয়ে গেছে!!এত তাড়াতাড়ি ফ্রেশ হয়ে গেল ভাবতেই অবাক লাগছে খুব’!!

.

“মাঝখানে কাটলো কয়েকটা দিন’!আনন্দ, ঝগড়া আর খুনশুটির মধ্যেই কেটেছে আয়াফের সাথে আমার’!!এখন আয়াফকে অসম্ভব ভালো লাগে আমার’!!ওর সাথে সময় কাটাতেও খুব ভালো লাগে’!!হয়তো ভালোবেসে ফেলেছি আমি’ আয়াফকে….

__________________________________________

_______________________

“ডাইনিং সেরে আমি আরিশা আর শাশুড়ী মা বসে গল্প করছি’!!আয়াফ অনেক আগেই চলে গেছে হয়তো এতক্ষণে ঘুমিয়েও পড়েছে’!!এই মুহূর্তে নিজেকে সত্যি খুব ধন্য মনে হচ্ছে’!!কতো ভালো ওনারা’!!আসলেই বিয়েটা হয়ে ভালোই হইছে কতো ভালো তাঁরা’!!এতো অল্প সময়ে আমায় কতোটা ভালোবেসে ফেলেছে’!!হর্ঠাৎই শাশুড়ী মা বলে উঠলেনঃ

———-“অনেক রাত হয়ে গেছে এখন গিয়ে ঘুমা,কালকে ভার্সিটি যেতে হবে না’!!

“আমিও হাল্কা হেঁসে হুট করেই শাশুড়ী মাকে জড়িয়ে ধরে বললামঃ

———-“তুমি খুব ভালো মা,,

“হাসলেন উনি!তারপর আমার মাথায় বুলিয়ে দিয়ে বললোঃ

———–“পাগলী মেয়ে….

“হাসলাম আমি’!

……

“অন্যদিকে রুমের মধ্যে পায়চারি করছে আয়াফ’!!তার এই মুহুর্তে ইচ্ছে করছে আফিয়ার সামনে গিয়ে কতক্ষণ ওকে কথা শোনাতে’!!এই মেয়েটা যে কবে তার ফিলিংসগুলো বুঝতে পারবে ভেবে পায় না আয়াফ’!!তবে আয়াফ ভেবে নিয়েছে আজকে রুমে আসুক কড়া করে কথা শুনিয়ে দিবে আফিকাকে রোজ রোজ এই আফিয়ার দেরি করে রুমের আসার বিষয়টা একদম পছন্দ হয় না আয়াফের’!!একরাশ হতাশ নিয়ে বলে উঠল আয়াফঃ

———–“কবে যে তুমি বুঝবে মায়াবতী আমার অনুভূতি……

||

———“ঠিক আছে এখন তাহলে আমি ঘুমোতে যাচ্ছি,তোমরাও যাও!এতক্ষণ পর সোফায় বসা থেকে উঠে দাঁড়িয়ে কথাটা বলে উঠলাম আমি’!!আমার কথা শুনে শাশুড়ী মাও বলে উঠলঃ

———-“ঠিক আছে যা….!!

———–“হুম গুড নাইট আম্মু,আর গুড নাইট মিস ননদিনী…..

———–“গুড নাইট'(শাশুড়ী মা)

———-“গুড নাইট ভাবি'(আরিশা)

“তারপর আমিও আর কিছু না বলে সিঁড়ি বেয়ে উপরে উঠলাম’!!রুমে ঢুকতেই আয়াফ…….
!
!
!
!
!
!
!
!
!
!
!
!
#চলবে…………

~ ভুল-ত্রুটি ক্ষমার সাপেক্ষ!!🖤🥀
আর গল্প কেমন লাগছে অবশ্যই কমেন্ট করে জানাবে!!🥰🥀

#TanjiL_Mim♥️

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে