নেশালো সে পর্ব-০২

0
2080

#নেশালো_সে💖
#লেখনীতে:#তানজিল_মীম💖

০২.

“অবাক চোখে তাকিয়ে আছি আমি আয়াফের দিকে’!!যেন উনি কি বললেন সব মাথার উপর দিয়ে গেল’!!জোরে জোরে নিশ্বাস ফেলে বলে উঠলাম আমিঃ

————“মানে কি,আপনি আপুকে পালিয়ে যেতে সাহায্য করেছেন কিন্তু কেন??😳

“এদিকে আয়াফ ভাবছে অন্যকিছু…….

“যার জন্য বিয়ে আসরে নিজের হবু বউকে পালিয়ে যেতে সাহায্য করলো’!!তাকে কি পাবে কখনো’!!তবে আদিবাকে পালিয়ে যেতে সাহায্য করার পিছনে দুটো কারন ছিল’!!এক হলো আদিবা নিজেও অন্য আরেকজনকে ভালোবাসতো’!!আর দু নাম্বার কারনটা ছিল আয়াফও চাচ্ছিল না বিয়েটা করতে’!!কিন্তু এমনটা হোক চায় নি আয়াফ’!!এইভাবে আফিয়ার সাথে বিয়ে হয়ে যাবে,এতকিছু করেও শেষ পর্যন্ত নিজের বিয়েটা আটকাতে পারলো না আর ভাবতে পারছে না আয়াফ সবকিছু এলোমেলো লাগছে তার কাছে’!!কেন যে সেদিন দেখা হয়েছিল তার সাথে’!!আয়াফের ভাবনার মাঝখানে আফিয়া বলে উঠলঃ

————“এই যে মিস্টার “করলোর জুস” কোন ভাবনার মাঝে হারিয়ে গেলেন….

“আচমকা নিজের এমন অদ্ভুত নাম শুনে আয়াফ একটা রাগী লুক নিয়ে বলে উঠলঃ

————-“কি বললে তুমি? আমি কি….

“এই রে খাইছে মুখ ফসকে সত্যি কথা বলে দিলাম তো’!!কাঁপা কাঁপা গলায় বলে উঠল আফিয়াঃ

————–“কি বলেছি কিছু বলিনি আগে আপনি বলুন আপনি আপুকে পালিয়ে যেতে সাহায্য করেছেন কেন?

————–“ভালো লেগেছে তাই করেছি একদম বেশি কথা বলবে না সরো ঘুমাবো আমি বলেই আফিয়া কে ধাক্কা মেরে সরিয়ে দিয়ে বিছানায় শুয়ে পরলো আয়াফ”!!

“এদিকে আয়াফের কান্ডে অবাক আফিয়া’!!আফিয়া রেগে আয়াফের সামনে এসে বললোঃ

————“কথার উওর না দিয়ে এইভাবে ঘুমালে কি করে হবে,,আর আপনি বিছানায় ঘুমালে আমি কোথায় ঘুমাবো…..

“আয়াফ এতক্ষণ চোখ বন্ধ করে থাকলেও আফিয়ার লাস্ট কথাটা শুনে বিরক্ত মাখা মুখ নিয়ে বলে উঠল সেঃ

————-“যেখানে ইচ্ছে সেখানে ঘুমাও কিন্তু আমায় ডিস্টার্ব করবে না…..

“বলেই কাঁথা মুড়ি দিয়ে শুয়ে পরলো আয়াফ’!!আর আফিয়া হাবলার মতো শুধু তাকিয়ে রইল আয়াফের মুখের দিকে’!!

_____________________

“আজকে আয়াফের অফিসে একটা গুরুত্বপূর্ণ মিটিং আছে’!!এমনিতেই অনেকটা লেট হয়ে গেছে তার’!!এর জন্য ড্রাইভার এর উপর ভিষণ রেগে আছে আয়াফ কারন ড্রাইভারের জন্য এমনটা হয়েছে তারওপর ঢাকার রাস্তায় অসম্ভব জ্যাম,,সব মিলিয়ে একরাশ বিরক্ত মাখা মুখ নিয়ে গাড়িতে বসে মোবাইল টিপছে সে’!!হর্ঠাৎ কিছুটা দূর যেতেই ড্রাইভার গাড়ি থামিয়ে দিল’!!অবশ্য থামিয়ে দিয়েছে বললে ভুল হবে’!!গাড়ি নিজে নিজেই থেমে গেছে’!!আচমকা গাড়ি থেমে যাওয়ায় আয়াফ অবাক হয়ে ড্রাইভারকে বললোঃ

————“কি হয়েছে গাড়ি থামালে কেন?

————“স্যার মনে হয় গাড়ির তেল শেষ হয়ে গেছে…

“মুহূর্তে মধ্যে আরো মেজাজ বিগড়ে গেল আয়াফের’!!এমনিতেই অনেকটা দেরি হয়ে গেছে’!!তারওপর আবার আর ভাবতে পারলো না আয়াফ’!মুখে মাস্ক পড়ে গাড়ি থেমে বেরিয়ে গেল’!!ইচ্ছে করছে গাড়িটাকে ভেঙে চুরে ফেলতে’!!আয়াফ ড্রাইভারকে গাড়িতে তেল ভরার জন্য বলে গাড়ি থেকে নেমেই হাঁটা ধরল’!!রাগ যেন সপ্তম আকাশে উড়ে গেছে তার’!!এমন সময় সামনের দিক দিয়ে একটা মেয়ে পড়নে তার গর্জিয়াস রেড কালারের গাউন,,চুলগুলো কোমড় পর্যন্ত খোলা রেখেছে,,ঘন কালো লম্বা চুল তার, দু-হাত মুঠো ভর্তি করা লাল কাঁচের চুরি’!!কিন্তু মুখ তার ওড়নার দিয়ে ঢাকা, চোখ ছাড়া আর কিছু দেখা যাচ্ছে না,,কিন্তু চোখ দুটোকেই অসম্ভব সুন্দর করে আঁকা! আয়াফ মেয়েটার মায়াবী চোখ দেখেই থমকে দাঁড়িয়ে পরলো কিছুক্ষণের জন্য,,কয়েক মুহূর্তের জন্য তার চোখ আঁটকে যায় মেয়েটার উপর’!!উল্টো দিকে মেয়েটা দৌড়ে এদিকেই আসছে’!!আয়াফ অপলক ভাবে তাকিয়ে আছে মেয়েটার দিকে’!!একপ্রকার দৌড়ে এসে মেয়েটা আয়াফের সাথে ধাক্কা লাগতেই মেয়েটা মুখ থেকে শুধু দুই শব্দ বের করে বললোঃ

———–“সরি,সরি….বলেই দৌড় সে…..

“মেয়েটার পিছনে আরো পাঁচ সাতটা ছেলেমেয়ে দৌড়াচ্ছে!হয়তো ধরার চেষ্টা করছে একে একে সবাই আয়াফকে টপকে চলে যেতে লাগলো’!!আর আয়াফ এখনো প্রথম মেয়েটার উপর অপলক দৃষ্টিতে তাকিয়ে রইল’!!যেন তার নেশা হয়ে গেছে এমন’!!এক কথায় বলতে গেলে “লাভ এট ফাস্ট সাইড”!!ঘোর লাগানো মুহূর্তে চলে গেল আয়াফ’!!সেদিনের মতো সেখানে থমকে গেল আয়াফ’!!চোখ বন্ধ করলেই আয়াফের চোখের সামনে সেই মেয়েটার মুখটা ভেসে আসছে’!!শুধু বার বার মেয়েটার সেই চোখ দুটোই ভাসছে আয়াফের সামনে’!!মুখ না দেখেই আয়াফ ভালোবেসে ফেলে ওই মেয়েটাকে…….

||

“এক মগ পানি মুখে পরতেই লাফ দিয়ে উঠলো আয়াফ’!!যেন আচমকা কি হলো সব তার মাথার উপর দিয়ে গেল’!!মিটমিট চোখে তাকালো আয়াফ’!!সামনেই আফিয়াকে দেখে মেজাজ বিগড়ে গেল তার’!!এত সুন্দর স্বপ্নের মাঝখানে পানি ফেলে দিলো আফিয়া’!!আয়াফ রেগে চেঁচিয়ে বলে উঠলঃ

———–“হোয়াট দা হেল এগুলো কি করছো তুমি…

———–“কি করছি দেখেন নি নাকি….

————“তুমি আমার মুখে পানি দিয়েছো কেন….

————-“আমার ঘুমের বারোটা বাজিয়ে এখন আসছে মুখে পানি দিয়েছেন কেন বলতে…

“আয়াফ অবাক হয়ে বললোঃ

————“মানে….

————“এতো মানে বুঝাতে পারবো না উঠুন আগে……..

“বলেই আয়াফকে একপ্রকার জোরজবরদস্তি করে উঠলাম আমি’!!আয়াফ বিরক্ত মাখা মুখ নিয়ে বিছানা থেকে উঠে চলে গেল ওয়াশরুমে,রাগে গা পুরো জ্বলে যাচ্ছে তার মানবতার খাতিরে কিছু বলছে না বলে মেয়েটায় মাথায় উঠে নাচছে তার……রাগে ফুসফুস করতে করতে চলে গেল আয়াফ…..

||

“এদিকে আমি আয়াফ যেতেই বিশ্বজয় করা এক হাসি দিয়ে বিছানায় শুয়ে পরলাম’!!কাল সারারাত ঘুমাতে পারি নি আমি,,ওই সোফায় ঘুমানো যায় নাকি…..ভেবেই ঘুমের রাজ্যে পাড়ি জমালাম আমি!

…………

“পাক্কা একটা ঘন্টা পর ওয়াশরুম থেকে শাওয়ার নিয়ে বেরিয়ে আসলো আয়াফ’!!মাথায় টাওয়াল দিয়ে চুল মুছতে মুছতে….হর্ঠাৎই চোখ গেল তার বিছানায় ঘুমিয়ে থাকা আফিফার দিকে,,এখনো কালকের বিয়ের পোশাকে আছে সে’!!আয়াফ মনে মনে বললোঃ

———–“কি শয়তান মেয়ে আমায় ঘুম থেকে উঠিয়ে এখন নিজে ঘুমিয়ে পরেছে!একবার ভেবেছিল আয়াফ ও আফিয়ার মতো মুখে পানি মেরে ঘুম ভাঙাবে কিন্তু আবার ভাবলো না থাক!কাল সারারাত ঘুমাই নি হয়তো,ভেবে দীর্ঘশ্বাস ফেললো সে’!!আয়নার দিকে তাকিয়ে রইল কিছুক্ষণ আয়াফ….

“ঘড়িতে তখন সবেমাএ ৭ঃ০০টা বাজে…..

“হর্ঠাৎই কি ভেবে আয়াফ চলে যায় তার আলমারির কাছে’!!ছোট্ট একটা বাক্স বের করলো তার জামাকাপড়ের ভিতর থেকে,,সেই বাক্সটা থেকে বের করলো আয়াফ ছোট্ট একটা ঝুমকা’!ঝুমকাটা আর কারো নয় সেই মেয়েটার,সেদিন যখন মেয়ের সাথে ধাক্কা লেগেছিল আয়াফের সাথে তখন কোনোভাবে মেয়েটার কান থেকে পড়ে যায় ঝুমকোটা আয়াফের পায়ের কাছে!সেদিন থেকে এখনো ঝুমকো টা আয়াফের কাছেই আছে’!!ঝুমকাটা হাতে নিয়ে বলে উঠল আয়াফঃ

————“কোথায় আছো তুমি “মায়াবতী” আর কি কখনো দেখা হবে না আমাদের…..

“এমন সময় আফিয়াকে নড়তে দেখে চটজলদি আয়াফ ঝুমকাটা আবারো বাক্সে ভিতর রেখে সযত্নে আলমারিতে গুছিয়ে রাখলো………

__________________________________________

_______________________

“সকালে ঘুম ভাঙল আমার ৯ঃ০০টায়…..

“বিছানায় শোয়া থেকে উঠে বসলাম আমি’!!এখন খুব ভালো লাগছে’!!!আশেপাশে চোখ বুলাতে বুলাতে দেখলাম কেউ নেই,হয়তো আয়াফ অনেক আগেই চলে গেছে’!!এসব ভেবে বিছানা থেকে উঠে সোজা ওয়াশরুমে চলে গেলাম আমি’!!ফ্রেশ হয়ে আয়নার সামনে দাঁড়াতেই দরজায় নক করলো কেউ…….

“হাল্কা কেঁপে উঠলাম আমি’!!পরক্ষণেই নিজেকে সামলে নিয়ে চলে আসলাম আমি দরজার সামনে’!!দরজার খুলতেই আরিশাকে দেখে হাল্কা হাসলাম’!!আমায় দেখেই মিষ্টি করে হাসি দিয়ে বলে উঠল সেঃ

————-“গুড মর্নিং ভাবি….

“আরিশার কথা শুনে আমিও হালকা হেঁসে বলে উঠলামঃ

————-“গুড মর্নিং….

“আমার অগোছালো চুল দেখে আরিশা বলে উঠলঃ

————“ভাবি তুমি এখনো তৈরি হও নি,তাড়াতাড়ি তৈরি হয়ে চলে আসো নিচে একসাথে নাস্তা করবো….

————“তুমি যাও আমি আসছি….

————“ঠিক আছে ভাবি তাড়াতাড়ি এসো অপেক্ষায় রইলাম কিন্তু…..

“আমি মুচকি হেঁসে বললামঃ

———–“ঠিক আছে…..

“আরিশাও আর কিছু না বলে চলে গেল নিচে’!!আমিও তাড়াতাড়ি তৈরি হয়ে চলে আসলাম নিচে……

||

“নিচে আয়াফসহ সবাই ছিল’!!আমিও চুপচাপ সবার সামনে বসলাম’!!সবাই আমায় দেখে খুশি হলো শুধু আয়াফ বাদে’!!তারপর সবাই মিলে একসাথে ব্রেকফাস্ট করে নিলাম!ব্রেকফাস্ট শেষে আয়াফ চলে গেল তার কাজে!মানে অফিসে…

“আর আমি আর আরিশা রুমে এসে অনেক গল্প করলাম’!!

____________________

“দুপুর দুটো….

“আয়াফ সবেমাএ অফিস থেকে ফিরে এসে রুমে বসলো’!!প্রচুর ক্লান্ত সে’!!এমন সময় হুট করে ওয়াশরুম থেকে চেঁচিয়ে বেরিয়ে আসলো আফিয়া…..

“হুট করে কোনোকিছু না বলেই আফিয়া জড়িয়ে ধরল আয়াফকে’!!ঘটনাটা আচমকা হয়ে যাওয়াতে আয়াফ পুরো ভ্যাবাচেকা খেয়ে গেল…..
!
!
!
!
!
!
!
!
!
!
!
!
#চলবে…………

~ ভুল-ত্রুটি ক্ষমার সাপেক্ষ!!🖤🥀
আর গল্প কেমন লাগছে অবশ্যই কমেন্ট করে জানাবে!!🥰🥀

#TanjiL_Mim♥️

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে