নিশি কাব্য ৫ পর্ব-

0
1069

নিশি কাব্য ৫ পর্ব-
লেখা- Rudro Khan Himu

নিশির জন্য অপেক্ষা করছি আমাদের পছন্দের ফুসকা দোকান টায় হাতে নিশির ডায়েরীটা । আজকে সবকিছু ঠিকঠাক করে ফেলবো আমাদের মাঝের সব ভুল- বুঝে বুঝি । প্রতিদিন খুব তাড়াতাড়ি চলে এসে আজকে কেন এতো ধারে করছে। হয়তো আমি আজ নিশির জন্য অপেক্ষা করছে তাই আমার কাছে এমন মনে হচ্ছে।
৪ ঘন্টা অপেক্ষা করে পরের ও এখন নিশি আসে নেই।
এখন খুব চিন্তা হচ্ছে আবার নিশির তো কিছু সমস্যা হয়েছে নাকি। কিছু ভালো লাগছে না বার বার মনে হচ্ছে কেন যায়ে নিশি কে ও ভুল টা উপলব্ধি করতে বলেছিলাম। এমন সময় নিশির বান্ধবী রশ্মি আসে আমাকে যায় বললো আমি বিশ্বাস করতে পারছিনা।
–ভাইয়া আপনি কি নিশির কোন খবর জানেন?
— না। কিন্তু এখন তো আমি নিশির জন্য অপেক্ষা করছি।
–হয়তো নিশি আর আপনার সামনাসামনি এসে আর ধারাতে পারবে না। নিশি এখন হাসপাতালে ভর্তি।
— কেন কি হয়েছে আমার নিশির? কথাটা শুনে নিঃশ্বাস বন্ধ হয়ে আসতে লাগলো আমার।
— আপনি এটা ও জানেন না। সাকিব গতকাল নিশি কে জোর করে ওর বন্ধুর বাসায় নিয়ে গেছিল। অমানুষিক নির্যাতন করছে। ওর বন্ধুরা মিলে নিশি কে ধর্ষণ করছে।
এখন নিশির অবস্থা খুব খারাপ ।জ্ঞানফিরে নেই এখন ও।
সাব্বির ভাইয়া এটা আপাকে জানান দরকার ছিল তাই বললাম।
— এখন আমার মাথায় ঘুরছে । চোখ দিয়ে জল গড়িয়ে পড়ছে। বাকরুদ্ধ হয়ে আসছে শুধু একটা কথাই বললাম রশ্মি আমার নিশিকে কোন হাসপাতালে ভর্তি আছে?

এখনই জয়েন করুন আমাদের গল্প পোকা ফেসবুক গ্রুপে।
আর নিজের লেখা গল্প- কবিতা -পোস্ট করে অথবা অন্যের লেখা পড়ে গঠনমূলক সমালোচনা করে প্রতি সাপ্তাহে জিতে নিন বই সামগ্রী উপহার।
আমাদের গল্পপোকা ফেসবুক গ্রুপের লিংক: https://www.facebook.com/groups/golpopoka/


— কুমিল্লা জেলা হাসপাতালে ভর্তি ছিল। অবস্থা অনেক খারাপ দেখে ঢাকা নিয়ে গেছে। এখন ঢাকা মেডিকেল কলেজে ভর্তি করছে।
— এই অবস্থায় সাথে সাথে বাসে উঠলাম। এখন আর চোখ দিয়ে জল গড়িয়ে পড়ছে না সব জল শুকিয়ে গেছে। কথা বলতে পাচ্ছি না । মেডিকেল এসে এক দূরে নিশির কাছে চলে আসলাম। নিশির অবস্থা আরো খারাপ হয়ে গেছে। ICU তে নিয়ে যাচ্ছে একটু ভালো করে নিশি কে দেখতে পারলাম না। মুখ টা একটু দেখতে দেখতে ICU তে নিয়ে গেল ?।
মানুষ কত পশু হয়তে পারে। নিশি মৃত্যুর সাথে লড়াই করছে। আমার বাকরুদ্ধ হয়ে গেছে এদিক ওদিক ঘুরছি। নিশির বড় ভাই আসে আমার হাত ধরে বলল।
— দেখ ভাই তুমি যদি এমন করে তাহলে কি হবে । নিজেকে একটু সামলাও ।
–হ্যা ভাইয়া আমি ঠিক আছি। আপনি চিন্তা করবেন না। আর নিশি আমাকে ছেড়ে কোথাও যেতে পারবে না।
— সাব্বির তুমি যদি আগে থেকে একটু নিশি কে বুঝতে । তাহলে এমন হতে না।
— ভুল টা আমারই বেশি আমার ঠিক হয়ে নেই নিশির সাথে এমন ব্যাবহার করার। অন্যভাবে উপলব্ধি করেন চেষ্টা করে উচিত ছিল।
–সেই যাই হোক এখন আমার বোন টা ভালো হয়ে ওঠলে হবে আর কিছু চাই না আমি।

ডাক্তার এসে বলল এখন নিশির অবস্থা আগের চেয়ে অনেক ভালো । কথা টা শুনে প্রাণ ফিরে আসলো।
এমন করে ৭ দিন নিশির পাশাপাশি রাতদিন জাগে ছিলাম। নিশির মুখের কথা শুনের জন্য অপেক্ষা করছি। জ্ঞানফিরে আসলে কেমন জানি অস্বাভাবিক ব্যবহার করে। পাগলের মত চিৎকার করে। ছেলেদের একদমই দেখতে পারে । ডাক্তার এসে আমাকে আর নিশির বড় ভাই কে ডাকে তার ঘরে নিয়ে গেল।
— দেখান এখন আপনাদের ধৈর্য্য ধরতে হবে। আসলে আমি একটা কথা বলতে চাই। আপনার মানসিক ভাবে একটু বুঝতে চেষ্টা করুন।
— আমরা প্রস্তুত আছি ডাক্তার সাহেব আপনি বলেন।
–আসলে নিশির মানসিক অবস্থা খুব খারাপ হয়ে পড়েছে। নিশি কখনো মা হতে পাবে না।
— এটা কি বলেন আপনি! আমাদের দুজনের তখন বাকরুদ্ধ হয়ে আসছে। দু’জন শুধু দু’জনের দিকে তাকিয়ে ছিলাম।
— এখন নিশির মানসিক অবস্থা ভালো না তাই এইসব কথা কিছুই জান নিশি জানত না পারে।
আর ওর সাথে খুব ভালো ব্যবহার করতে হবে। শিশুদের মত করে রাখতে হবে। মানুষের আজেবাজে কথা ওর কান জানেন না আসে।

ডাক্তারের কথা গুলো শুনে নিজেদের কান কে বিশ্বাস করতে পারছিলাম না।
নার্স এসে বলল নিশির মানসিক অবস্থা এখন একটু ভালো ভাইয়া সাথে কথা বলতে চায়।
শাহিন ভাই নিশির সাথে দেখা করতে গেল। আমি ভাইয়ার সাথে সাথে গেট পর্যন্ত গেলাম । দূর থেকে নিশি কে দেখছি। শাহিন ভাই আমার কথা নিশি কে সব বললো
নিশি আমাকে দেখার জন্য পাগলের মত হয়ে গেল।
তারপর আমি যায়ে নিশির হাত ধরলাম।
আমাকে ক্ষমা করে দাও । সেই দিন তোমার সাথে এমন ব্যাবহার করে ঠিক হয় নাই। আমাদের প্রতিযোগিতা করে ও একদমই ঠিক হয় নেই ‌। নিশি প্লিজ তুমি আমাকে ক্ষমা করে দাও। অজান্তেই চোখ বেয়ে জল গড়িয়ে পড়ছে।

আমি তোমাকে বিয়ে করতে চাই?

–হাহাহ এই প্রথম আমি কেউ কে দেখলাম হাসপাতালে বিয়ে প্রস্তাব দিয়ে।
–নিশি আমি তোমাকে মন থেকে সত্যি ভালোবাসি। কান্না জড়ানো কন্ঠে-
Diamond ring, wear it on your hand

It’s gonna tell the world, I’m your only man

Diamond ring, diamond ring

Baby, you’re my everything, diamond ring

Red, red rose brought it home to you

Blood red rose, tells me that you’re true

Red, red rose, blood-red rose

Like a fire inside that grows, blood-red rose

When you’re hungry, I will fill you up

When you’re thirsty, drink out of my loving cup

When you’re crying, I’ll be the tears for you

There is nothing that I wouldn’t do for you

When you’re hungry, I will fill you up

When you’re thirsty, drink out of my loving cup

When you’re crying, I’ll be the tears for you

There is nothing that I wouldn’t do for you

You know, I bleed every night you sleep

‘Cause I don’t know if I’m in your dreams

I want to be your everything…

Diamond ring, wear it on your hand

It’s gonna tell the world, I’m your only man

Diamond ring, diamond ring

Baby, you’re my everything, diamond ring

Darling, you’re my everything, diamond ring

Now you’ve got it on your string

Diamond ring

“I love you so much ??”””

— সাব্বির আমি ও তোমাকে অনেক বেশী ভালোবাসি।
চলবে ?

এখনই জয়েন করুন আমাদের গল্প পোকা ফেসবুক গ্রুপে।
আর নিজের লেখা গল্প- কবিতা -পোস্ট করে অথবা অন্যের লেখা পড়ে গঠনমূলক সমালোচনা করে প্রতি সাপ্তাহে জিতে নিন বই সামগ্রী উপহার।
শুধুমাত্র আপনার লেখা মানসম্মত গল্প/কবিতাগুলোই আমাদের ওয়েবসাইটে প্রকাশিত হবে। এবং সেই সাথে আপনাদের জন্য থাকছে আকর্ষণীয় পুরষ্কার।

▶ লেখকদের জন্য পুরষ্কার-৪০০৳ থেকে ৫০০৳ মূল্যের একটি বই
▶ পাঠকদের জন্য পুরস্কার -২০০৳ থেকে ৩০০৳ মূল্যের একটি বই
আমাদের গল্পপোকা ফেসবুক গ্রুপের লিংক:
https://www.facebook.com/groups/golpopoka/

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে