জোরপূর্বক ভালোবাসা পর্বঃ ০১

0
1563

জোরপূর্বক ভালোবাসা পর্বঃ ০১
– আবির খান

মাঃ তমা…উঠ ঘুম থেকে…কয়টা বাজে দেখেছিস….
তমাঃ মা আরেকটু ঘুমাই না..
মাঃ সকাল ৮ টা বাজে…আর আজ না তোর ভারসিটিতে প্রথম ক্লাস…উঠ তারাতাড়ি…
তমাঃ ওত্তেরি…আগে ডাক দিবা না…
মাঃ তুমি যে ঘুম কুমারী… সেই কখন থেকে ডাকছি কিন্তু তোমারতো উঠার কোন নাম নাই..
তমাঃ তুমিতো জানোই মা আমার একটু ঘুম বেশি…
মাঃ হুম জানি এখন উঠ তারাতাড়ি…আমি নিচে গেলাম… তুই ফ্রেশ হয়ে নিচে আস.. তোর বাবা ওয়েট করছে…
তমাঃ আচ্ছা মা আসছি…

এখনই জয়েন করুন আমাদের গল্প পোকা ফেসবুক গ্রুপে।
আর নিজের লেখা গল্প- কবিতা -পোস্ট করে অথবা অন্যের লেখা পড়ে গঠনমূলক সমালোচনা করে প্রতি সাপ্তাহে জিতে নিন বই সামগ্রী উপহার।
আমাদের গল্পপোকা ফেসবুক গ্রুপের লিংক: https://www.facebook.com/groups/golpopoka/


এই হলো আমাদের মিস তমা চৌধুরী..বাবামায়ের একমাত্র আদুরে মেয়ে…তমার বাবা এ শহরের নামকরা একজন শিল্পপতি… মানে ধনীর ও ধনী… তমার মা হাউজ ওয়াইফ…তমার বাবা-মা’র জীবনটা তমার মধ্যেই আটকে আছে..তমাই তাদের সব…তমার এবার নতুন ভারসিটিতে ভর্তি হয়েছে…আজ তার প্রথম ক্লাস…

তমা ফ্রেশ হয়ে ভারসিটির জন্য রেডি হয়ে নিচে নেমে এলো..এসে তমার বাবার কাছে গিয়ে বসলো..

তমাঃ গুড মর্নিং পাপাই…
বাবাঃ ভেরি গুড মর্নিং আমার প্রিন্সেসকে…তা আমার প্রিন্সেসটার আজ কেমন লাগছে শুনি?? প্রথম ভারসিটিতে যাচ্ছো..
তমাঃ একটুতো নারভাস লাগছেই…বাট তুমি আছোনা..
বাবাঃ সরি মা আমিতো আজকে তোর সাথে যেতে পারবো না..আমার খুব জরুরি একটা মিটিং আছে নিউইয়র্কে…১ সপ্তাহের জন্য যেতে হবে..

তমার মনটা খুব খারাপ হয়ে গেলো..
বাবাঃ কাছে নিয়ে…আরে আমার প্রিন্সেস দেখি মন খারাপ করে ফেলেছে…আচ্ছা যাও যাবো না নিউইয়র্কে…

তমা একটু ভেবে…মুখে হাসি নিয়ে…
তমাঃ না পাপাই তুমি যাও..আসলে আমি দেখছিলাম তুমি আমাকে ভালোবাসো কিনা…হি হি..
বাবাঃ ওরে বাবা…আমার প্রিন্সেস দেখি অনেক বড় হয়েগিয়েছে..তাও সরি মা..রাগ করিস না..আমি তারাতাড়ি ফিরে আসার ট্রাই করবো…
তমাঃ ওকে পাপাই…আই লাভ ইউ লট…
মাঃ ও আর আমাকে এক্টুও বুঝি ভালোবাসিস নাহ…
তমা ওর বাবা-মাকে একসাথে জরিয়ে ধরে আদর করে দিলো..
তমাঃ আমি তোমাদের দুজনকেই অনেক বেশি ভালোবাসি..

এরপর তমার তার মা বাবার সাথে ব্রেকফাস্ট করে বাবাকে বিদায় দিয়ে নিজের গাড়ি নিয়ে ভারসিটিতে চলে যায়…ড্রাইভারকে ২টার মধ্যে আবার ভারসিটিতে থাকতে বলে ভিতরে চলে আসে তমা…

এই প্রথম তমা ভারসিটিতে ঢুকেছে…এ শহরের সবচেয়ে দামি প্রাইভেট ভারসিটি এটা…মানে এখানে পড়ুয়া সবই বড় ঘরের..

তমার খুব ভালো লাগছে..তমা ভিতরে ঢুকতেই তার বাল্যকালের এবং সবচেয়ে কাছের বান্ধবীকে দাড়িয়ে থাকতে দেখে…খুব রাগী লুক নিয়ে দাড়িয়ে আছে…তমা আস্তে আস্তে বান্ধবীর কাছে যায়…

তিশাঃ এই তোর আসার সময়??
তিশাও একজন বড় ব্যবসায়ীর মেয়ে…দেখতে অনেক সুন্দর…তবে আমাদের তমার থেকে বেশি না…তমা দেখতে কেমন পরে জানতে পারবেন..

তমাঃ আরে আমার সুইটহার্ট বান্ধবীটা দেখি অনেক রাগ করে আছে..এইযে কান ধরেছি…সরি..খুবই ইনোসেন্ট ফেইস করে বলল…
তিশাঃ না এটা চিটিং..তুই এভাবে ইনোসেন্ট ফেইস বানিয়ে আমার রাগ কমাতে পারবি না…
তমাঃ আচ্ছা বাবু সরি আর লেট হবে না..আসলে বাবা বিডির বাইরে গিয়েছেতো তাই একটু লেট হয়েছে…
তিশাঃ ওহ..ওকে দেন তারাতাড়ি চল..ক্লাস স্টার্ট হয়ে যাবে একটু পরই..
তমাঃ ওকে চল…
তমা আর তিশা যাচ্ছে…হঠাৎই পিছন থেকে…

চলবে…?

এখনই জয়েন করুন আমাদের গল্প পোকা ফেসবুক গ্রুপে।
আর নিজের লেখা গল্প- কবিতা -পোস্ট করে অথবা অন্যের লেখা পড়ে গঠনমূলক সমালোচনা করে প্রতি সাপ্তাহে জিতে নিন বই সামগ্রী উপহার।
শুধুমাত্র আপনার লেখা মানসম্মত গল্প/কবিতাগুলোই আমাদের ওয়েবসাইটে প্রকাশিত হবে। এবং সেই সাথে আপনাদের জন্য থাকছে আকর্ষণীয় পুরষ্কার।

▶ লেখকদের জন্য পুরষ্কার-৪০০৳ থেকে ৫০০৳ মূল্যের একটি বই
▶ পাঠকদের জন্য পুরস্কার -২০০৳ থেকে ৩০০৳ মূল্যের একটি বই
আমাদের গল্পপোকা ফেসবুক গ্রুপের লিংক:
https://www.facebook.com/groups/golpopoka/

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here