গ্যাংস্টার_Gangstar পর্বঃ04

0
1251

গ্যাংস্টার_Gangstar পর্বঃ04
লেখা_রওনাক_ইফাত_জিনিয়া
.
.
.
রাতুলঃ (বেশ অবাক হয়ে)নীলা তুমি আমাকে ফোন দিয়েছ আমারতো বিশ্বাসই হচ্ছেনা?

আমিঃ জীবনের প্রথম ও শেষবারের মত ফোন দিলাম।কি ভেবেছিলেন আমি আপনার হাতের পুতুল যখন যেভাবে খুশি চালাবেন আর আমি চলব?আমার জীবনটা শেষ করেও শান্তি হয়নি এখন আমার পরিবারটা শেষ করার জন্য লেগেছেন।এইসবকিছুর জন্যতো আমিই দায়ী তাইনা?আমি না থাকলেতো আর এসবকিছু হতনা আর ভবিষ্যতেও কিছু হবেনা।

রাতুলঃ এসব কি বলছ তুমি?আমিতো….

আমিঃ আপনার কোন কথা শুনার ইচ্ছে আমার নাই।আমি বেঁচে থাকলেই যত ঝামেলা মরে গেলেতো আর হবেনা।আমার সুন্দর জীবনটা আপনি নষ্ট করলেন।কত আশা ছিল সব আজ শেষ।আজ আপনি যা করেছেন তারপর তো আমার আর কিছুই বাকি রইলনা।শুধু আপনার জন্য আজ আমার বাবাকে মানুষ এতগুলো কথা শুনিয়েছে বলেছে আমার পুরো পরিবারই নাকি খারাপ। আর এসবকিছুতো আপনি আমার জন্য করেছেন তাইনা?আজকের পর থেকে আর আমার পরিবারকে অপমানিত হতে হবেনা।সবকিছুর মূল তো আমি তাই স্থায়ী একটা সমাধানের ব্যবস্থাও আমি নিজেই বের করেছি।যদিও একটু দেরী হয়ে গেছে কিন্তু ব্যাপার না আর দেরী করবনা।

রাতুলঃ কি বের করেছ তুমি?আর এভাবে কেন কথা বলছ কি হয়েছে তোমার?কন্ঠ এমন লাগছে কেন নীলা তোমার?

আমিঃ স্থায়ী সমাধান বের করেছি আর আমার কিছুই হয়নি।এতদিন ঠিকছিলাম না আমি এখন ঠিক আছি।একটা অনুরোধ করার জন্য ফোন দিয়েছি যদিও জানি কাজ হবেনা তবুও শেষ ইচ্ছা বলতে পারেন আমার অবর্তমানে দয়াকরে আমার পরিবারটাকে আর জ্বালাবেন না।তাদেরতো কোন দোষ নেই দোষতো আমার।কারন আমি এই পৃথিবীতে এখনও রয়েছি তবে চিন্তা করবেন আর কিছুক্ষন মাত্র তারপর সব ঝামেলা শেষ।

রাতুলঃ নীলা কি হয়েছে? তোমার কন্ঠ এমন কেন লাগছে?আর কিসব বলছ তুমি নীলা?এই কথা বলছনা কেন?নীলা?এই নীলা?তুমি আমার কথা শুনতে পাচ্ছো?
.
.ফোনটা কেটে দিলাম আর ফোনটা বন্ধ করে দিলাম।ঐ লোকের সাথে কথা বলার বিন্দুমাত্রও রুচি নেই আমার।আর মাত্র কিছুক্ষন তারপর সব শেষ।জীবনে কখনও ভাবিনি আমি আত্নহত্যা করব কিন্তু আজ এরথেকে ভাল আর কোন পথ খুজে পেলামনা।আমার ভাগ্যটাই খুব খারাপ আর এতটাই খারাপ যে বেঁচে থাকতেও শান্তি পেলামনা আর যেভাবে মরে যাব তাতেওতো আমার আত্নাটা শান্তি পাবেনা অপআত্না হয়ে ঘুরে বেড়াবে।না এইকাল আমার হল আর না মরার পরেরকাল আমার হবে।অনেকটা সময় পার হয়ে গেছে আর এখন খুব ঘুম পাচ্ছে মনে হচ্ছে কতবছর ঘুমাইনি।আজকেই শেষ ঘুম ঘুমাব আমি।ভাবিনি জীবনটা এভাবে শেষ হবে।কেন করলেন আমার সাথে এমন রাতুল কি দোষ করেছিলাম আমি?কেন আজ আমাকে এমন একটা মৃত্যু বেছে নিতে হল?আজ আপনার জন্যেই আমাকে এই পথে চলতে হচ্ছে কারন আর কোন পথ নেই চলার।ধীরে ধীরে গভীর ঘুমে তলিয়ে যাচ্ছি।চোখ দিয়ে পানি পড়ছে।বাবা-মা আর নিরব ভাইয়াকে খুব মনে পড়ছে।sorry বাবা-মা আর ভাইয়া তোমাদের ছেড়ে যেতে খুব কষ্ট হচ্ছে কিন্তু কি করব বল আমি বেঁচে থাকলে না নিজে শান্তিতে থাকতে পারব আর না তোমরা শান্তিতে থাকতে পারবে?তাই আমি চলে যাওয়াই ভাল।জানি আমাকে খুব ভালবাস তোমরা আর আমি বাসি তাই দূরে চলে যাচ্ছি ক্ষমা করো আমায়।
.
.মাথা খুব ব্যাথা করছে চোখ মেলে তাকাতে পারছিনা অনেক কষ্টে তাকালাম।তাকিয়ে দেখি আমি হাসপাতালের বেডে শুয়ে আছি কিন্তু এটা কিভাবে সম্ভব?তারমানে আমি বেঁচে আছি?কিন্তু আমি বেঁচে আছি কিভাবে?আমারতো বেঁচে থাকার কথা না তবে কিভাবে হল এসব?
.
.ভালভাবে তাকিয়ে দেখি রাতুল আমার পাশে বসে কোন একটা কাগজ দেখছে আর নার্স দেখলাম কিন্তু আমার পরিবারের কাউকে দেখছিনা।আল্লাহ্ যেই লোকের কাছ থেকে মুক্তি পাবার জন্য নিজের জীবনটাই ত্যাগ করেছিলাম তাকেই কেন আবার আমার সামনে আনলে?যদি আমাকে বাঁচানোরই ছিল আল্লাহ্ তবে যার জন্য আমার এই মরে যাওয়ার পথ গ্রহণ করতে হয়েছিল তাকেই কেন চোখ মেলে প্রথম দেখতে হল?কেন করছ তুমি আমার সাথে এমন?নার্স আমাকে চোখ মেলা অবস্থায় প্রথম দেখল আর খুব খুশি হয়ে বলল-

নার্সঃ ভাই দেখুন ভাবির জ্ঞান ফিরেছে।

(রাতুল বেশ অবাক হয়ে “কি” বলে সাথে সাথে আমার দিকে তাকাল।আমি চোখ সরিয়ে অন্যদিকে তাকালাম)

রাতুলঃ এখন তোমার কেমন লাগছে?এই মেয়ে তুমি এমন একটা কাজ কিভাবে করলে?তুমি অসুস্থ তাই বেঁচে গেলে নয়ত আগে একটা ঠাস করে চড় দিয়ে পরে কথা বলতাম।মরে যাওয়ার খুব শখ তোমার তাইনা?জীবনে যদি আর কোনদিন এমন কিছু করেছ সত্যি সত্যি সেদিন তোমাকে মেরে পরে আমিও মরব।কি ভেবেছিলে এত সহজে আমার হাত থেকে তুমি মুক্তি পাবে?ভুল।যতদিন আমি বেঁচে আছি ততদিন তোমাকেও বেঁচে থাকতে হবে।আর আমার মৃত্যুর পর সে অন্য কথা।বললে নাতো এখন কেমন লাগছে তোমার?কি ব্যাপার কথা বলছনা কেন?

(এই লোকের কোন কথারই উত্তর দেয়ার ইচ্ছে নেই তাই চুপ করেই ছিলাম।কিন্তু বাবা-মা কোথায় আর এই লোকটা এখানে কিভাবে?)

আমিঃ সিস্টার আমার বাবা-মা কেউ আসেনি তারা কোথায়?

রাতুলঃ তারা বাহিরেই আছে।নার্স আগে ডাক্তার শামীমকে এই সংবাদটা দেন আর তাকে বলুন একবার এসে সব দেখতে যদি সবঠিক থাকে তবে বাহিরে যারা আছে তাদের ভিতরে নিয়ে আসবেন।

নার্সঃ আচ্ছা ভাই।আপনি ভাবির পাশে বসুন আমি এক্ষুনি ডক্টরকে নিয়ে আসছি।
.
.(রাতুল আমার পাশে বসে চুপ করে আমার দিকে তাকিয়ে আছে বুঝতে পারছি তাই আমি অন্যদিকে তাকিয়ে আছি।একটু পরেই ডক্টর এল আর আমার সবকিছু পরীক্ষা করে বলল)

ডাক্তারঃ এখন কেমন লাগছে?

আমিঃ জ্বী ভাল।

ডাক্তারঃ বিয়ের একদিন না যেতেই রাতুলের উপর কি বিষয়ে আপনার এত রাগ হল যে রাগের বশে নিজেকেই শেষ করতে যাচ্ছিলেন?আপনি জানেন এই একদিন আপনার স্বামী আপনার কাছ থেকে এক মিনিটের জন্যেও সরেনি।

আমিঃ আমার স্বামী?

ডাক্তারঃ জ্বী।উনি যে আপনাকে কতটা ভালবাসে তা উনাকে দেখে বুঝেছি।আচ্ছা পরে এসব কথা বলা যাবে এখন রেস্ট নিন।

আমিঃ ডক্টর আমার বাবা-মা?

ডাক্তারঃ নার্স উনাদের বল এখন ভেতরে আসতে পারেন।আর রাতুল সাহেব এবার আপনিও একটু চিন্তামুক্ত হোন এখন ভয়ের আর কিছুই নেই আর চাইলে কাল বাসায় নিয়ে যেতে পারেন।

রাতুলঃ sorry ডক্টর তখন আপনার সাথে ঐভাবে কথা বলার জন্য।আসলে আমার মাথা ঠিক ছিলনা তাই..

ডাক্তারঃ আরে এসবের দরকার নেই আমি বুঝতে পারছি তখন আপনার মনের উপর দিয়ে কি যাচ্ছিল।তবে উনার দিকে একটু খেয়াল রাখবেন উনি মনে হয় কোন বিষয়ে একটু বেশিই হতাশায় ভুগছে।

রাতুলঃ জ্বী ডক্টর।ধন্যবাদ
.
.তারপর রাতুল ডাক্তারের সাথে রুম থেকে বেরিয়ে গেল আর মা-বাবা,ভাই ও খালাসহ সবাই রুমে ঢুকল।মা আমাকে দেখে জড়িয়ে ধরে সে কি কান্না।আমার নিজেরও খুব কান্না পাচ্ছিল।ভাই আর বাবাও কাঁদছিল।

মাঃ কেন আমাদের এত বড় শাস্তি দিতে যাচ্ছিল মা আর কিভাবে তুই এমন একটা কাজ করার কথা চিন্তা করেছিলি?একবার ভেবে দেখেছিস তো কিছু হলে আমাদের কি হত?

আমিঃ আমাকে ক্ষমা কর মা তখন আমি এছাড়া আর কোন পথ খুজে পাচ্ছিলাম না।

বাবাঃ আর যদি কোনদিন এমন কিছু করার কথা ভাবিস তবে খুব খারাপ হয়ে যাবে।আমি তোরে কোনদিন ক্ষমা করবনা।

আমিঃ আমাকে ক্ষমা কর বাবা আসলে আমার জন্য তোমাদের এত অপমানিত হতে দেখে আমি আর সহ্য করতে পারিনি।

নিরব ভাইঃ তুইতো আমাদের ঘরের আলো।তোর কিছু হলে আমরা যে বাঁচবনা তা তুই বুঝসনা?

আমিঃ আর কখনও এমন হবেনা দয়াকরে আমাকে তোমরা ক্ষমা করে দাও।
.
.(তারপর নার্স সবাইকে চলে যেতে বলল।শুধু একজন সাথে থাকতে পারবে তাই মা রয়ে গেল।আমি মাকে বললাম)

আমিঃ মা এই খারাপ লোকটা এখানে কিভাবে আর উনাকে কে বলেছে এসব?তোমরা কেউ না থেকে যারজন্য আজ এমন একটা ঘটনা ঘটেছে উনি কেন আমার পাশে বসেছিল?মা ডাক্তার আমার কেন বলেছে উনি আমার স্বামী?কি হল মা কথা বলছ না কেন?
(চলবে)
.

Rownak Ifat Xenia

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here