গল্প_পাঠিকা_যখন_প্রেমিকা❤❤পর্ব_নং_১

0
711

গল্প_পাঠিকা_যখন_প্রেমিকা❤❤পর্ব_নং_১

Writer_Sumon.


রাবেয়াঃ- হ্যালো ভাইয়া। আসসালামু আলাইকুম।কেমন আছেন আপনি……?????
ফারহানঃ- আলহামদুল্লিাহ্ ভালো আছি আপনি…???
রাবেয়াঃ- আপনার নাম কি ফারহান ভাইয়া…..????
ফারহানঃ- জি আমার নাম ফারহান।
রাবেয়াঃ- আসলে আপনার নামটা খুব সুন্দর।
ফারহানঃ- শুকরিয়া।
রাবেয়াঃ- আচ্ছা ভাইয়া আপনি যদি কিছু মনে না করেন তাহলে কি আমি আপনাকে মেসেঞ্জারে ফোন দিতে পারি।

কেন জানি মানা করতে পারলাম না।
ফারহানঃ- ওকে দেন।

এভাবেই ফারহান আর রাবেয়ার মেসেঞ্জারে প্রথাম কথা হয়।একসময় তাদের মাঝে বন্ধুত্বের সম্পর্ক গড়ে উঠে।

আপনাদের তো আমার পরিচয়টাই দেওয়া হয় নাই। আমি হলাম ফারহান। সবে মাত্র ইন্টার প্রথম বর্ষে উঠবো। আর যার সাথে এতক্ষণ কথা বলছিলাম সে হলো আমার জীবনের সবচেয়ে দামি জিনিস। তার নাম হলো রাবেয়া। সে তার বাবা আর মায়ের এক মাত্র সন্তান। অবশ্য তার একটি বড় ভাইয়া আছে। চলুন এখন গল্পে ফেরা যাক।

ফারহানঃ- হ্যালো। কেমন আছেন…..???
রাবেয়াঃ- আলহামদুলিল্লাহ ভালো আছি আপনি….???
ফারহানঃ- আপনাকে একটা কথা বলবো যদি কিছু মনে না করেন…..????
রাবেয়াঃ- হুমমম বলেন…..???
( অনেক আগ্রহ নিয়ে বললল)
ফারহানঃ- আসলে কেন জানি আপনার সাথে কথা বলতে আমার খুব ভালো লাগে। একটি দিন যদি আপনার সাথে কথা না বলি তাহলে কেন জানি খুব খারাপ লাগে।???
রাবেয়াঃ- ওওওহ তাই। একটা সত্যি কথা বলব…..???
ফারহানঃ- হুমমম বলেন…….☺☺☺
রাবেয়াঃ- আসলে আমারো কেন জানি খুব ভালো লাগে আপনার সাথে কথা বলতে। আপনার সাথে কথা না হইলে আমারো খুব খারাপ লাগে আমার।
ফারহানঃ- তাই বাবু……..?????
( ভয়ে ভয়ে বাবু বললাম)
রাবেয়াঃ- ওই বাবু কে হুমমমম……????? ???
ফারহানঃ- আসলে আপনাকে কেন জানি বাবু বলতে মন চাইলো তাই বললাম। ???

এভাবেই তারা অনেকদিন কথা বলতে থাকে। একসময় তাদের দুজনের মনে ভালোবাসার জন্ম হয়। কিন্ত তারা কেউ যানে না যে তারা দুজন দুজনকে খুব ভালোবাসি। কেউ কারো কাছে তা প্রকাশ করেনা। কারণ দুজনেই একই ভয় পায় যদি ও আমাকে ছেড়ে চলে যায়। এইরকমি একদিন ফারহান রাবেয়াকে বললো….

ফারহানঃ- বাবু তোমাকে একটা কথা বলবো। তুমি যাদি রাগ করো তাহলো কিন্তু বলবো না…….???
রাবেয়াঃ- না আপনি বলেন……???? ☺☺☺
( রাবেয়া এখনো মাঝে মাঝে আমাকে আপনি বলে ডাকে)
ফারহানঃ- আসলে আমি আপনাকে ভালোবাসি… ??
রাবেয়াঃ- আমিও তো আপনাকে ভালোবাসি।
ফারহানঃ- সত্যি বলছেন……??????
( অনেক আগ্রহ নিয়ে)
রাবেয়াঃ- হুমমম তবে ভালো বন্ধু হিসেবে।
এখনই জয়েন করুন আমাদের গল্প পোকা ফেসবুক গ্রুপে।
আর নিজের লেখা গল্প- কবিতা -পোস্ট করে অথবা অন্যের লেখা পড়ে গঠনমূলক সমালোচনা করে প্রতি মাসে জিতে নিন নগদ টাকা এবং বই সামগ্রী উপহার।
শুধুমাত্র আপনার লেখা মানসম্মত গল্প/কবিতাগুলোই আমাদের ওয়েবসাইটে প্রকাশিত হবে। এবং সেই সাথে আপনাদের জন্য থাকছে আকর্ষণীয় পুরষ্কার।

গল্পপোকার এবারের আয়োজন
ধারাবাহিক গল্প প্রতিযোগিতা

◆লেখক ৬ জন পাবে ৫০০ টাকা করে মোট ৩০০০ টাকা
◆পাঠক ২ জন পাবে ৫০০ টাকা করে ১০০০ টাকা।

আমাদের গল্প পোকা ফেসবুক গ্রুপে জয়েন করার জন্য এই লিংকে ক্লিক করুন: https://www.facebook.com/groups/golpopoka/?ref=share


এই কথাটা শুনার পর ফারহানের মন খুব খারাপ হয়ে গেলো সে কত কিছু ভেবেছিলো। কিন্তু সেগুলো কিছুই হলো না। ফারহান আর রাবেয়া আরো কিছুক্ষণ কথা বললো তারপর ফারহান বিছানায় গিয়ে শুয়ে শুয়ে ভাবতে লাগলো।

রাবেয়াকি আমাকে শুধু বন্ধু মনে করে ভালোবাসে….???।কিন্তু আমিতো তাকে সত্যি খুব ভালোবাসি। কিন্তু রাবেয়াকে যদি বলি যে আমি তোমাকে সত্যি ভালোবাসি তাহলে যদি রাবেয়া আমাকে ছেড়ে চলে যায়। তখন আমি কী করবো। আমি কাকে নিয়ে বাচব।রাবেয়া এখন আমার জীবনের একটি অংশ হয়ে গিয়েছে
তাকে ছাড়া যে আমি কিছু ভাবতে পারি না। তবে কি আমি কখনো রাবেয়াকে আমার মনের কথাটি বলতে পারবো না। আল্লাহ আমাকে তুমি সাহায্য করো। আমি যে রাবেয়াকে খুব ভালোবাসি। আমি যে ওকে নিজের জীবন সঙ্গী হিসেবে চাই। আমি ওকে হারাতে চাই না আল্লাহ।

ফারহান এসব ভাবছে আর কান্না করতেছে। ফারহান কান্না করতে করতে তার বালিশ ভিজিয়ে ফেলেছে।

আর এদিকে রাবেয়া ভাবতেছে………

আমিতো ফারহানকে ভালোবাসি তাহলে কেন ওকে বলতে পারি না। আমি যে ওর সাথে কথা না বলে থাকতে পারি না। আচ্ছা ফারহান কি আমাকে ভালোবাসে যেমনটা আমি ওকে ভালোবাসি। তবে কি আমি ওকে বলে দিব যে আমি ওকে ভালোবাসি।কিন্তু ও যদি আমাকে খারাপ মনে করে। না না আমি বলবো না।
( মন খারাপ করে বললো)

এভাবেই তাদের কথা চলতে থাকে। কেউ কারো সাথে কথা না বলে থাকতে পারেনা। মনে হচ্ছে যতদিন যাচ্ছে তাদের ভালোবাসে বারতেছে। তারা একে ওপরের থেকে দূরে থাকলেও তাদের মাঝের ভালোবাসাটা কোনদিন কমেনি বরং বারতেছ……
এভাবেই দেখতে দেখতে ১ টি মাস কেটে গেলো। কেউ কাউকে ভালোবাসার কথা বলেনা। কিন্তু দুজনের মাঝেই প্রিয়জনকে হারানোর ভয় কাজ করতেছে।

এমন একদিন রাবেয়া আর ফারহান কথা বলতেছিলো তখনি হঠাৎ করে রাবেয়া বললো…….

রাবেয়াঃ- আচ্ছা ফারহান তুমি কি আমাকে শুধু বন্ধু মনে করে ভালোবাসো না প্রেমিক আর প্রেমিকার মতো….??
প্লিজ তুমি সত্যি করে বলো…..?????

আমি কি বলবো ভাবে পাচ্ছি না। কিন্তু একনা একদিনতো
সত্যি কথাটা বলতেই হবে। না আমি আজকে রাবেয়াকে সব সত্যি কথা বলে দিব। আমি ওকে হারাতে চাই না।

ফারহানঃ- আসলে আমি তোমাকে বন্ধু মনে করে ভালোবাসি না। আমি তোমাকে একজন প্রেমিক আর প্রেমিকার মতো ভালোবাসি। আমি তোমাকে হারাতে চাই না তাই কোন দিন তোমাকে ভালোবাসি কথাটা বলার সাহস পাইনি। জানো প্রতি রাতে আমি তোমার কথা মনে করে কান্না করি। আর আজকে তুমি যখন বললা যে আমি তোমাকে কি মনে করি ভালোবাসি তাই আমি আর নিজেকে আটকে রাখতে পারলাম না। তোমাকে সব সত্যি কথা বলে দিলাম। এখন তুমি যেইটা বলবা সেইটাই হবে।

( ভয়ে ভয়ে সব বলে দিলাম )

রাবেয়াঃ- না তুমি আমাকে ফোন দেও তাহলে আমি তোমাকে আমার মনের কথা বলবো।

রাবেয়াকে ফোন দেওয়ার পর………..

রাবেয়াঃ- আসলে আমিও তোমাকে খুব ভালোবাসি। কোনদিন বলিনি যদি তুমি আমাকে ছেড়ে চলে যাও।
ফারহানঃ- কেন তুমি কি আমাকে বিশ্বাস করো না…..???
রাবেয়াঃ- তোমাকে আমি নিজের থেকেও বেশি বিশ্বাস করি। আচ্ছা তুমি আমাকেই কেন ভালোবাসো আর আমি তো দেখতে বেশি ভালো না…..?????
ফারহানঃ- তুমি একজন পর্দাশীল মেয়ে। সবচেয়ে বড় কথ হলো তুমি নিজের পরিবারের সদস্যদের খুব ভালোবাসো আর সেবা যত্ন করো। তারপর তুমি নামাজ পরো। কুরআন শরীফ পরো। আরো অনেক বিষয় আছে।আর সবচেয়ে বড় কথা হলো ভালোবাসতে কোন কারণ লাগেনা এটি হলো মনের আর বিশ্বাস করার বিষয়। যদি এ দুটো থাকে তাহলেই হবে বাবু।
রাবেয়াঃ- আচ্ছা বুঝলাম। কিন্তু আমিতো দেখতে খারাপ।
ফারহানঃ- শুনো ভালোবাসতে হলে মনের প্রয়োজন। মুখ দিয়ে কি হবে। আমি তোমাকে ভালোবাসি। এখন তুমি যেইরকমি দেখতে হওনা কেন আমার তাতে কোন সমস্যা নাই। আমি তোমাকেই ভালোবাসি আর তোমাকেই বিয়ে করবো।
রাবেয়াঃ- আই লাভ ইউ বাবু। তুমি খুব ভালো। তবে আমি আল্লাহর কাছে দোয়া করব যেন আমি তোমাকেই নিজের জীবন সঙ্গী হিসেবে পাই।
ফারহানঃ- আই লাভ ইউ টু বাবু। আচ্ছা তুমি এখন কি করতেছো….??????
রাবেয়াঃ- বাবু আমিতো এখন কাজ করতেছি। আচ্ছা বাবাু আমার কাজ করা শেষ হলে আমি তোমাকে ফোন দিব। এখন রাখি আল্লাহ হাফেজ।
ফারহানঃ- ওকে বাবু আল্লাহ হাফেজ।

এই বলে রাবেয়া ফোন কেটে দিলো। আজকে আমি খুব খুশি। কারন আমি আমার মনের মানুষকে পেয়েছি। আমার যে কি খুশি হচ্ছে তা বলে বুঝাতে পারবো না। এভাবেই শুরু হলো আমাদের ভালোবাসা।

বিকেলে রাবেয়া ফোন দিলো। তারপর……..

#__________________অসমাপ্ত_____________________

গল্পটি লাগলে লাইক আর কমেন্ট করবেন এবং পরের পর্বের জন্য অপেক্ষা করুন।

সকলের সুস্থতা কামনা করে আজকের পর্বটি এখানেই শেষ করছি ধন্যবাদ।

বিঃদ্রঃ ভূলত্রুটি ক্ষমার চোখে দেখবেন…….????

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here