ক্ষুদে গল্প-মেঘেদের সাথে একদিন

0
463

ক্ষুদে গল্প-মেঘেদের সাথে একদিন
লেখা-সানজিদা আক্তার
ঢাকা টু চিটাগং এর প্লেনে বসে আছি।অল্প কিছুক্ষনের মাঝেই হয়তো প্লেনটি ওই নীল আকাশে উড়াল দিবে।সাদা সাদা মেখের উপর তার যান্ত্রিক শরির আর কৃত্রিম পাখা মেলে ভেসে যাবে মেঘ চিরে।শুধু এইসব দেখার জন্যই প্লেন জার্নি করছি।ফ্যামিলি ট্যুরে চিটাগং যাওয়ার কথা বেশ কদিন। যদিও সবাই ট্রেনে যাবে, আসলে যাবে না, অলরেডি সকাল ৭টার ট্রেনে রওনা হয়ে গেছে। আমি আর আমার এক ফ্রেন্ড প্লেনে যাবো। অনেক কষ্টে রাজি করিয়েছি বাবা কে,কিন্তু পেত্নিটা শেষ সময়ে অসুস্থ হয়ে পরেছে।তাই এখন একাই যেতে হচ্ছে আমার,বাবা শুনলে কি হবে আমার আল্লাহ মালুম।এখন এসব নিয়ে ভেবে ভয় পাওয়ার থেকে মেঘদের নিয়ে ভাবাই ভালো। ইশ্, প্লেন উরতে শুরু করার পর যদি ঝুমঝুমিয়ে বৃষ্টি হতো!
আচ্ছা,প্লেনের ছাদে বৃষ্টি হলেও কি টিনের চালে বৃষ্টি পরলে যেমন শব্দ হয়,তেমন শব্দ হয়?দেখতে কেমন হবে?মেঘের ভিতর এতো পানি থাকে কেমনে, তা কি দেখা যাবে?

-এই যে আপনার সিট পাশের টা, একটু সরে বসুন!
আচমকা কোন পুরুষালি কন্ঠে আমার আকাশ কসুম কল্পনা মেঘের মতোই উরে গেলো।
শ্যাম বর্নের ছিপছিপে গড়নের এক ২৫-২৬ এর ছেলে দাঁড়িয়ে আছে। পরনে নেভি ব্লু জিন্স আর সাদা টি-শার্ট, যেটা ঘামে ভিজে চুপচুপে হয়ে আছে।দেখে মনে হচ্ছে তাকে ভুতে তারা করছিলো, যে ভাবে হাপাচ্ছে।ভুতে তারা করার কথা ভাবতেই বেশ হাসি পেলো।
-আজব!বললাম সরে বসতে,আর আপনি পাগলের মতো হাসছেন কেন?
– কি বললেন? আমি পাগল? আপনি পাগল, মামদো ভুতের নাতি। বসুন!
-আজিব!
মনে হচ্ছে ছাগল টাকে প্লেনের জানালা দিয়ে বের করে দেই।আমাকে পাগল বলা,কত্তো সাহস। এটা বাসের জানালা না তাই বেচে গেলে বাচ্চু।হু..
-আপনার কি বিরবির করার রোগ আছে?
-কি?
-নাহ, কিছু না।
_হু
-আমি মেঘ!
-আমি কি করবো,,
_না,মানে আপনার পরিচয়?
-কেন, বিয়ের ঘটকালি করবেন? নাকি আমার নামে মামলা করবেন?
আমার এমন প্রশ্নে মেঘ বাবু হাওয়াই মিঠাইর মতো চুপসে গেলেন।পুরো জার্নিতে আর একটা কথাও বলে নি।আর আমি? আমি মেঘেদের নিয়ে কল্পনা করেই জার্নি শেষ করে দিলাম।সময় এত্তো কম,ধুর।বৃষ্টি দেখাও হলো না,তাতে কি_ মেঘের আড়ালে সূর্যের লুকচুরিও দেখার মতো ছিলো।
.
.
-এই যে কল্প রাণী?
এয়ারপোর্ট থেকে বের হওয়ার সময় আচমকা এই নাম শুনে থমকে গেলাম। এই নামে তো আমাকে আমার এক ফ্রেন্ড ডাকে। যদিও তার সাথে আমার কখনো দেখা হয়নি,ফেসবুকে পরিচয়। তাহলে কে? আমাকেই ডাকছে নাকি অন্য কাওকে? কৌতুহল বসত পিছনে ফিরে দেখি, আরে এ যে ওই মেঘ কুমার!
.
.
আমাকে অবাকের শেষ সীমানায় রেখে কখন পাশ কেটে চলে গেছে আমি জানিনা। নাহ,সে আমার ওই ফ্রেন্ড নয়।তাহলে কি করে জানলো এই নাম। উত্তর আমি আজও পাইনি, যানিনা কখনো পাবো কিনা।….
সমাপ্তি

এখনই জয়েন করুন আমাদের গল্প পোকা ফেসবুক গ্রুপে।
আর নিজের লেখা গল্প- কবিতা -পোস্ট করে অথবা অন্যের লেখা পড়ে গঠনমূলক সমালোচনা করে প্রতি সাপ্তাহে জিতে নিন বই সামগ্রী উপহার।
শুধুমাত্র আপনার লেখা মানসম্মত গল্প/কবিতাগুলোই আমাদের ওয়েবসাইটে প্রকাশিত হবে। এবং সেই সাথে আপনাদের জন্য থাকছে আকর্ষণীয় পুরষ্কার।

▶ লেখকদের জন্য পুরষ্কার-৪০০৳ থেকে ৫০০৳ মূল্যের একটি বই
▶ পাঠকদের জন্য পুরস্কার -২০০৳ থেকে ৩০০৳ মূল্যের একটি বই
আমাদের গল্পপোকা ফেসবুক গ্রুপের লিংক:
https://www.facebook.com/groups/golpopoka/

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here