কে কোথায় যায়? পর্ব ১৪

0
561

কে কোথায় যায়? পর্ব ১৪
পরদিন ঠিক সময়ে বন্ধুদের থেকে আড়াল হয়ে শুভা নির্দিষ্ট চেম্বারে হাজির হলো।ডাক্তার শুভাকে দেখে গম্ভীর মুখে বললো,
———‘দিনকাল কেমন যায়?’
শুভা মুচকি হেসে বললো,
——–‘কেমন যাবে আবার?তিনদিনের ট্রিপে বন্ধুদের সাথে গেছিলাম।এই যা খুশি!’
ডাক্তার সাহেব চুপটি করে রইলেন।খানিক পর বললেন,
———–‘দিন দিন ক্যান্সার যেমন বাড়ছে, পাশাপাশি বাড়ছে এই রোগটি সম্পর্কে সচেতনতা। ক্যান্সার মানেই মৃত্যু নয় এটা আজ মানুষ বুঝতে পেরেছে। সচেতনতার কারনে ক্যান্সারের বিরুদ্ধে লড়াইয়ের সুযোগও বাড়ছে। প্রাথমিক অবস্থায় ধরা পরলে এবং চিকিৎসা করলে ক্যান্সার পুরোপুরি সেরেও যেতে পারে অথবা ক্যান্সারকে নিয়ন্ত্রণে রাখা অনেক সহজ হয়। বাড়ন্ত অবস্থায় ধরা পড়লেও বিশেষজ্ঞ ডাক্তারের পরামর্শ নিয়ে রোগীর কষ্ট অনেকটা কমানো যেতে পারে।’
শুভা কতক্ষণ চুপ রইলো!ডাক্তার সাহেব এক নিশ্বাসে এত কথা বলার পর সে ধীরেসুস্থে বললো,
——-‘টিউমার মানেই কি ক্যান্সার ডাক্তার সাহেব?’
ডাক্তার সাহেব মিষ্টি হেসে জবাব দিলেন,
——–‘টিউমার হল শরীরের অস্বাভাবিক টিস্যু পিণ্ড, যার কোষ অতি দ্রুত এবং অনিয়ন্ত্রিতভাবে বৃদ্ধিপ্রাপ্ত হয়। কোষের ধরন ও আচরণভেদে টিউমার সাধারনত দুই ধরনের হয়ঃ
১. বিনাইন: এটি বিপজ্জনক নয়;
২. ম্যালিগনেন্ট: এটি বিপজ্জনক টিউমার।
ক্যান্সার হচ্ছে এক ধরনের ম্যালিগনেন্ট টিউমার। অতএব, শরীরে পিণ্ড বা টিউমারের আচরণ যদি ম্যালিগনেন্ট টিউমারের বৈশিষ্ট্যের মতো না হয় কিংবা রোগীর যদি ক্যান্সারের অন্যান্য লক্ষণসমূহের কোনটাই না থাকে, তাহলে এটি নিয়ে দুশ্চিন্তার কিছু নেই।’
শুভা নিশ্বাস ছাড়লো!আসলেই কি তার জীবনের প্রদীপ নিবে আসতে শুরু করেছে?সে চেম্বারে চুপ করে বসে রইলো।
টিউমার মানেই কিন্তু ক্যান্সার নয়। স্বাস্থ্য নিয়ে মানুষের সচেতনতা দিন দিন বৃদ্ধির পাশাপাশি নানা রকম রোগের ভীতি যোগ হচ্ছে। আজকাল অনেকেই ছোট একটি টিউমার হলেই ক্যান্সার হল ভেবে দুঃশ্চিন্তাগ্রস্থ হয়ে পড়েন। অনেক সময় চিকিৎসক বুঝিয়ে বলার পরও ভয় কাটতে চায় না। আমাদের টিউমার বা ক্যান্সার সম্বন্ধে প্রাথমিক কিছু ধারণা না থাকার কারনে অনেক পরীক্ষার পরও ভয় থেকে যায়, রিপোর্টে সঠিক আছে কিনা? তাই টিউমার বা ক্যান্সার সম্বন্ধে প্রাথমিক কিছু তথ্য জেনে রাখতে হয়!জানবা?’
শুভা নির্বিকার ভাবে বললো,
——–‘জ্বী, কেন নয়?’
ডাক্তার সাহেব ঢোক গিলে বললেন,
——–‘সুনির্দিষ্ট­ভাবে ক্যান্সারের কারণ এখনও জানা যায়নি তবে নানান কারণে বিভিন্ন ধরনের ক্যান্সার হতে পারে। ক্যান্সার বৃদ্ধির জন্য আমাদের বদলে যাওয়া জীবনযাপন অনেকাংশে দায়ী। উচ্চ ক্যালোরি যুক্ত খাবার, যেমন ফাস্টফুড এবং খাদ্যতালিকায় ফাইবার জাতীয় খাবার কম পরিমাণে থাকার কারণে ক্যান্সারের সম্ভাবনা বেড়ে যাচ্ছে। অতিরিক্ত পরিমানে মিষ্টি জাতীয় খাবারের কারণে বয়স্ক ব্যক্তি এমনকি বাচ্চাদের মধ্যেও স্থূলতার পরিমাণ বৃদ্ধি পাচ্ছে। এটাও ক্যান্সারের একটি বড় কারণ। এ ছাড়াও ধূমপানসহ বিভিন্ন তামাকজাত দ্রব্য গ্রহণ এবং পরিবেশ দূষণ ক্যান্সার বৃদ্ধি পাওয়ার জন্য বিশেষভাবে দায়ি।
কোন কোন ক্যান্সার সবচেয়ে বেশি পরিলক্ষিত হয়?ছেলেদের ক্ষেত্রে মুখগহ্বর ও ফুসফুসের ক্যান্সার এবং এগুলো মূলত ধূমপান ও অন্যান্য তামাকজাতদ্রব্য গ্রহণের ফলে হয়। অপরদিকে মহিলাদের ক্ষেত্রে স্তন ক্যান্সার এবং জরায়ু মুখের ক্যান্সার সবচেয়ে বেশি হয়। বর্তমানে পিত্তথলির ক্যান্সার আক্রান্তের সংখ্যাও ব্যাপকভাবে বৃদ্ধি পাচ্ছে।’
ডাক্তাট সাহেব কথাগুলো বলে শুভাকে জিজ্ঞেস করলেন,
——–‘ আচ্ছা তোমার কি জ্বর, শারীরিক দূর্বলতা, কাশি, ওজন হ্রাস পাওয়া, ক্ষূধামন্দা ইত্যাদি হয়?’
শুভা সরু গলায় বললো,
——-‘হুম।খানিকটা এমনই হয়!’
ডাক্তাট সাহেব আশ্বাস দিয়ে বললেন,
——-‘এগুলো অল্প দিনে না ভাল হলে তবে সাবধান হতে হবে এবং জরুরিভাবে ডাক্তার দেখাতে হবে।’
শুভা বাচ্চাসুলভ হয়ে বললো,
———‘আমি কি বাচবো ডাক্তার সাহেব?’
ডাক্তার সাহেব স্লান হেসে বললো,
——–‘এমন কথা বলতে নেই।আল্লাহ চাইলে তুমি বাচবা!’
তামিম একা একা বসে আছে বারান্দায়!সারাটাদিন ধরে শুভার খোজ নাই,ভালো লাগছে না ওর!তামিম আনমনে বসে বসে বারান্দর রেলিং ধরে বলছে,
———-‘ভালবাসা হল ক্যান্সারের চেয়েও মারাত্মক অসুখ। ক্যান্সার হয়,লোক মারা যায়। ভালবাসা না মেরে সারা জীবন খুঁচিয়ে খুঁচিয়ে রক্ত বের করে যায়।’
চলবে…..
©ইভা আহমেদ চৌধুরী
এখনই জয়েন করুন আমাদের গল্প পোকা ফেসবুক গ্রুপে।
আর নিজের লেখা গল্প- কবিতা -পোস্ট করে অথবা অন্যের লেখা পড়ে গঠনমূলক সমালোচনা করে প্রতি সাপ্তাহে জিতে নিন বই সামগ্রী উপহার।
শুধুমাত্র আপনার লেখা মানসম্মত গল্প/কবিতাগুলোই আমাদের ওয়েবসাইটে প্রকাশিত হবে। এবং সেই সাথে আপনাদের জন্য থাকছে আকর্ষণীয় পুরষ্কার।
▶ লেখকদের জন্য পুরষ্কার-৪০০৳ থেকে ৫০০৳ মূল্যের একটি বই
▶ পাঠকদের জন্য পুরস্কার -২০০৳ থেকে ৩০০৳ মূল্যের একটি বই
আমাদের গল্পপোকা ফেসবুক গ্রুপের লিংক:
https://www.facebook.com/groups/golpopoka/

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে