Crush যখন বর?Season_2 Part_16/17/18

0
2970

Writer-Afnan Lara
Crush যখন বর?Season_2 Part_16/17/18
শিশির অফিসে গেলো,,
তনু-হ্যালো
শিমুল-ভুলে গেসো আমাকে?
তনু-না ভুলার কোনো কাজ করেছো??
শিমুল-ওও,তাই ভুলে গেলা,
তনু- I’m married now,So don’t disturb me,,তনু লাইন কেটে দিয়ে Block করে দিলো,,
শিশিরের গায়ের shirt খাটে রাখা,,তনু গিয়ে shirt টা হাতে নিলো,,ইচ্ছেমত ঘ্রান নিলো,শিশির কল করলো
তনু কিছুটা ভয় পেয়ে shirt টা হাত থেকে ফেলে দিলো,
তনু-ইস ভয় পেয়ে গেসিলাম,ভাবসি আইসা পরসে,হ্যালো
শিশির-তোমাকে কি আনতে যাইতে হবে আজ?
তনু-না,আজকে আমাদের এখানে থাকতে হবে,নিয়ম
শিশির-ওকে,
তনু শিশিরের shirt টা নিয়ে সারা রুম চক্কর দিলো,,বিকালে শিশির বাসায় আসলো,
শিশির -তনু
তনু-হুম
শিশির-আমার Shirt এখানে খাটে রেখে গেসিলাম,এখন পাচ্ছি না,
তনু-সারছে?
শিশির-কই??
তনু-ইয়ে মানে,না মানে আসলে ???
তনু দৌড় দেওয়া ধরলো শিশির খপ করে ধরে দরজা লাগিয়ে দিলো,
শিশির-আমি 100% sure তুমি কিছু একটা করেছো,কি করছো?
তনু-আমি,,,????
শিশির-Shirt দাও
তনু-জানি না কই?
শিশির -ঠিক আছে,শিশির রুম খুঁজে আলমারির একটা কোনে shirt টা পেলো,একিইইইই!!!!??
তনু-??
শিশির-আমি বাসায় না থাকলে এসব করো?
তনু-না আসলে?
তনু shirt এ puppy দিসিলো,Lipstick এর দাগ বসে গেসে,কাজের চাপে ধোওয়া হয়নাই তাই লুকিয়ে রাখসিলো,
শিশির-লুচু মাইয়া
তনু-আমি না আপনি
শিশির-আমি এমন কোনো কাজ করি নাই
তনু-আমি তো shirt পরি না,
শিশির-যাও ধুয়ে আনো,
তনু গিয়ে ধুয়ে শুকাতে দিয়ে আসলো,
রুমে আসলো
শিশির-আসো পা টিপে দাও
তনু-কিহ?
শিশির-কি?স্বামী সেবা করো,,চকলেট এনে দিব,,
তনু দৌড় দিয়ে এসে পা টিপতে লাগলো,,,
শিশির-আহা কি শান্তি
১০মিনিট পর ♥?
তনু-?চকলেট দেন
শিশির-আমার কাছে কি আছে এখন??কাল দিব,
তনু-যাই আমি,
শিশির হাত ধরলো, আমার মাথা টিপে দাও,
তনু- পারব না
শিশির-চকলেট দিব না,
তনু এসে মাথা টিপতে লাগলো শিশিরের সামনে বসে,,শিশির তাকিয়ে হাসতেছে,,
তনু-এত হাসার কি আছে??
শিশির-নিচের দিকে কিছু দেখা যাচ্ছে ??
তনু চোখ বড়বড় করে নিজের গায়ের দিকে তাকালো,শাড়ী সরে গেসিলো,তনু লাফ দিয়ে উঠে শাড়ী ঠিক করলো,বেয়াদপ stupid, লুচু
শিশির-তুমি বিকালে কি করসিলা,
তনু মুখে হাত দিয়ে রুম থেকে বেরিয়ে গেলো,,
তারপর চা নিয়ে এনে শিশিরের হাতে দিলো,
শিশির-ধন্যবাদ,হাত টিপে দাও,
তনু বুকে হাত দিয়ে দাঁড়িয়ে গেলো,
শিশির-হাহাহা,, আচ্ছা দেখা গেলেও তাকাব না??
তনু-সেরা ল*****
শিশির হাসতে হাসতে শেষ,
তনু এসে হাত টিপতে লাগলো,,
শিশির খেয়াল করলো তনু শিশিরের কাঁধে মাথা রেখে ঘুমিয়ে গেসে,শিশির কিছুক্ষণ তাকালো,তনুকে ঠিকমত কখনও দেখে নাই,তনু শিশিরের সামনে থাকলে মুখ চতুর দিকে ফিরাতো,
শিশির তনুর মুখ থেকে চুল সরালো,গায়ের রঙ উজ্জ্বল শ্যামলা,,গালে দুটো তিল,,টানা টানা চোখ,,
শিশির গাল ধরে টিপে দিলো,তনু জেগে গেলো,এমন অবস্থা দেখে সরে গেলো,
শিশির-পিঁপড়া পরসে সরিয়ে দিসি,
তনু উঠে চলে গেলো,
শিশির-রাত ৯টা বাজে এখনও আসতেছে না কেন??তনু তনু,আমার ঘড়ি টা পাচ্ছি নাহ,
তনু মায়ের সাথে কথা বলতেছিলো,
তনু আসলো,,এই নেন ঘড়ি,,শিশির ঘড়ি নিয়ে তনুর হাত ধরে ফেললো,
শিশির-বসো এখানে
তনু-কেন?
শিশির-আমি বলসি তাই,,তনু পাশে বসে রইলো,শিশির ফোন টিপতেছে,,
তনু বসতে বসতে ঘুমিয়ে গেলো,,শিশির বুঝতে পেরে কাঁথা টেনে গায়ে দিয়ে দিলো,,
শিশির-ভাবলাম রুনার সাথে মিথ্যা প্রেম করার Acting করব,এত তাড়াতাড়ি ঘুমিয়ে গেলো,,সকালে তো বলসি রুনার সাথে দেখা করবো কিন্ত আসলে তো আমি যাই নাই?
শিশির নিজেও শুয়ে পরলো,দুজনের মাঝে আরেকটা মানুষের দূরত্ব,, শিশির তনুর দিকে তাকালো,পিঠ দেখা যাচ্ছে,,শিশিরের শ্বাস -নিশ্বাস বেড়ে গেসে,হাত তনুর পিঠ পর্যন্ত নিয়ে আবার সরিয়ে নিলো,কাঁথা টেনে তনুর পিঠ ঢেকে দিলো,,
তারপর উঠে বারান্দায় দাঁড়ালো,,পকেট থেকে ফোন হাতে নিলো,,ওয়ালপেপারে তনুর পিক,,শিশির ছাড়া কেউ জানে না তার ফোনের সব জায়গা জুড়ে তনু আছে,,শিশির তনুর ছবি দেখে ফোন রেখে দিলো,,ব্যাগ থেকে বিরাট এক প্যাকেট চকলেট নিয়ে ড্রেসিং টেবিলের ড্রয়ারে রেখে দিলো,,তনুর দিকে তাকালো,গভীর ঘুমে আছে মনে হয়,,শিশির এসে ঘুমিয়ে পরলো,,
পরেরদিন ♥♥
তনু গোসল করে বের হয়ে আস্তে আস্তে হেঁটে বারান্দায় গেলো,নইলে চুলের পানিতে শিশির ঘুম থেকে জেগে যাবে,,
শিশির উঠলো,,দেখলো তনু বারান্দায়,
তনু বারান্দায় দাঁড়িয়ে চুল ঝেড়ে দিল,,
শিশির-ইসসসস
তনু পিছনে তাকালো,সরি আপনি এখানে??আমি দেখি নাই
শিশির-চিমটি কাটার জন্য আসলাম ভিজায় দিল আমাকে??
শিশির এগিয়ে তনুকে গ্রিলের সাথে লাগিয়ে ফেললো,আস্তে আস্তে হাত নিয়ে তনুর কোমড় ধরলো,
তনু-শিশি,,,,র
শিশির-চুপ,,
চলবে?
“এখনই জয়েন করুন আমাদের গল্প পোকা ডট কম ফেসবুক গ্রুপে।
আর নিজের লেখা গল্প- কবিতা -পোস্ট করে অথবা অন্যের লেখা পড়ে গঠনমূলক সমালোচনা করে প্রতি সাপ্তাহে জিতে নিন বই সামগ্রী উপহার।
আমাদের গল্প পোকা ডট কম ফেসবুক গ্রুপে জয়েন করার জন্য এখানে ক্লিক করুন



Writer-Afnan Lara
Crush যখন বর?
#Season_2
#Part_17
শিশির জোরেসোরে একটা চিমটি দিলো তনুর পেটে,,,,তনু চিৎকার দিল শিশির মুখ চেপে ধরলো,,কিছুক্ষন পর,,,,
তনু-সবসময় চিমটি দেন কেন??ব্যাথা পাইসি আমি
শিশির-কই দেখি,,সত্যি তো লাল দাগ হই গেসে,শিশির হাত দিয়ে চেপে ধরে ঘষে দিল,,
শিশির-হুম এখন ঠিক আছে,,যাও আমার জন্য নাস্তা তৈরি করো, আজ তো বাসায় যাবো,
তনু চলে গেলো,,
খাওয়া শেষে শিশির আর তনু শিশিরদের বাসায় আসলো,,
শিশির-আমি যাই অফিসে,,
তৃনা-ওমা বউরে গুড বাই puppy দিবি না?
শিশির-না দিমু না,,যা তোর জামাইর কাছে,,
শিশির চলে গেলো,
তৃনা-তো বল,শিশির কি কি আদর করলো,
তনুর চড়ের কথা মনে পরলো,,তারপর হাত পা টিপা,তারপর সকালের চিমটি,তনু চোখ বড়বড় করে তাকিয়ে আছে,
মুনা-কি হয়সে??
তৃনা-মনে হয় Over loaded আদর করসে আমাদের বলা যাবে না?
তনু এক দৌড়ে রুমে চলে গেলো,,
বিকালে♥
তৃনা-আয় আমরা খেলুম
তনু-কি?মুনা আর তৃনা হাসতেছে,তনুকে ধরে চোখ বেঁধে দিলো,,
তনু-আরে চোখ বাঁধলা কেন?
তৃনা-নে খুঁজ আমাদের
তনু কোনোরকম হেঁটে হেঁটে খুঁজতেছে,,
মা-তৃনা মুনা এদিকে আয় তো,কাজ আছে,,
তৃনা-তনু দাঁড়া আমরা আসতেছি,,
তনু দাঁড়িয়ে আছে,,ওর মনে হলো মুনা ডাকলো,নিচে সিঁড়ি জানতো না পা বারাতেই পরে যাওয়া ধরলো শিশির এক হাত দিয়ে ধরে ফেললো,
শিশির নিজেও ভয় পেয়ে গেসে,কল্পনাও করেনি তনু পরে যাওয়া ধরবে,,
শিশির-তনু ঠিক আছো??তোমার চোখ বাঁধা কেন?শিশির তনুকে সামনে দাঁড় করিয়ে চোখের বাঁধন খুলে দিলো,,
তনু তাকিয়ে দেখলো সে সিঁড়ির সামনে,
শিশির -আমি না আসলে কি হতো??কে বাঁধছে তোমার চোখ??
তনু-আমি বেঁধেছি,,
শিশির -মিথ্যা বলতে হবে না,,শিশির তনুর হাত ধরে রুমে নিয়ে এলো,,
বসে থাকো এখানে,
শিশির fresh হয়ে আসলো,,তনু নেই,ডাইনিং এ খাবার দিতেছে শিশিরের জন্য,শিশির এসে বসলো খাওয়ার জন্য,,আর কোনোদিন এমন খেলা খেলবা না,দরকার হলে আমার সাথে খেলবা তাও এভাবে খেলবা না,,আজ পড়ে গেলে কি হতো??
মা-কিরে মেয়েটারে এত বকতেছস কেন?
শিশির -কানামাছি খেলতে গিয়ে আজ সিড়ি দিয়ে পড়া ধরছিলো,
মা-কিরে?
তনু-হয়সে তোমরা সবাই মিলে এখন বকো আমাকে,
মা-হাহাহা,আহারে মেয়েটার মুখের অবস্থা দেখার মতো?
শিশির খেয়ে রুমে আসলো,,তনু রুমে ঢুকলো শিশির পিছন থেকে এসে চোখ বেঁধে দিলো,
তনু-কি?
শিশির-আমাকে খুঁজো দেখি,,
তনু খুঁজতেছে,,খাটের Stand ধরলো,
তনু-এটা শিশির না,শিশির তো চওড়া,,এটা তো কাঠি,আর নরম,শিশির তো লোহা,,তনু পিছন ফিরতেই বুঝতে পারলো শিশির ওর একদম সামনে,,
এত সামনে যে শিশিরের নিশ্বাস এসে তনুর মুখে পরতেছে,তনু আস্তে করে হাত উঠিয়ে শিশিরের মুখে রাখলো,
তনু-ধরছি,,
শিশির তনুর হাত টা নিয়ে টান দিলো,,
তনু চোখের বাঁধন খুলতে গেলো শিশির হাত ধরে আটকালো,,
শিশির-একটা কথা বলো আমি এখন কোথায় তাকিয়ে আছি?
তনু- আমার বিচ্ছিরি ঠোঁটের দিকে,
শিশির-হাহাহা,
শিশির তনুর চোখের বাঁধন খুলে দিলো,,
তনু -এবার আপনি,,
তনু শিশিরের চোখ বেঁধে দিলো,
নিজে গিয়ে এক কোনে গিয়ে দাঁড়ালো,,শিশির একটা ফুল নিলো টব থেকে,,লম্বা,,ওটা হাতে নিয়ে সারা রুমে হাঁটতে লাগলো,তনু যে কোনে আছে,শিশির সে কোনের সামনে এসে দাঁড়িয়ে গেলো,
তনু -এই যা বুঝলো কিভাবে?আমি তো ঠিক মত চোখ বেঁধেছি,
তনু আস্তে আস্তে পা টিপে টিপে সরতে লাগলো,শিশির এসে ফুল দিয়ে পথ আটকালো,,
শিশির-নড়বেন না মিস তনু
শিশির তনুর কাছের দিকে যাচ্ছে,,যেতে যেতে দেওয়ালের সাথে মিশে গেলো,শিশির মুচকি হেসে ফুল দিয়ে তনুর কপালে ছোঁয়ালো,আস্তে আস্তে কপাল থেকে গলায়,তনু জোরে জোরে শ্বাস নিতেছে,,ফুল পেটের উপর দিয়ে গেলো,তনু সরতে চাইলো শিশির এক হাত তনুর সাইডের দেওয়ালে রাখলো,
তনু-মা ডাকতেছে,,
শিশির-হুমম,
শিশির চোখের বাঁধন খুলে ফেললো,,হুম যান,,২০মিনিটের বেশি বাইরে থাকা চলবে না,আমার যেন আবার ডাকা না লাগে,
তনু চলে গেলো,,মা তার শাড়ীগুলা দেখাচ্ছে,,শিশিরের বড় ভাই বিয়ে করে বউ নিয়ে চলে গেলো,একটু খবর ও নেই না,,শাড়ীগুলা ওর বউ এর জন্য রাখসিলাম ওরা তো আসেই না,,এগুলা তুই রাখ
তনু-একদিন আসবে,রেখে দাও
মা-না ওর অধিকার নেই,তোর আছে,,রাখ,,,বাহ এটা তো অনেক সুন্দর,
মা-এটা তোর বাবা দিসিলো,,এগুলা এখন আমি পরলে সবাই হাসবে,জোয়ানকালে ভালো লাগত,এখন তোকে মানাবে,,
তনু শাড়ীগুলা নিয়ে রুমে আসলো,
শিশির একবার তাকালো,আবার ফোন টিপতে লাগলো,
তনু-মা দিসে এগুলা
শিশির-ভালো হয়সে,
তনু-আচ্ছা আপনার ভাইয়া একদিন ও আসে নাই বাসায়?বিয়ের পর
শিশির-ওর কথা বলবা না আর,,,ওর জন্য আমার মা বাবা অনেক কষ্ট পেয়েছে,,বউ নিয়েই থাকুক,
চলবে♥
“এখনই জয়েন করুন আমাদের গল্প পোকা ডট কম ফেসবুক গ্রুপে।
আর নিজের লেখা গল্প- কবিতা -পোস্ট করে অথবা অন্যের লেখা পড়ে গঠনমূলক সমালোচনা করে প্রতি সাপ্তাহে জিতে নিন বই সামগ্রী উপহার।
আমাদের গল্প পোকা ডট কম ফেসবুক গ্রুপে জয়েন করার জন্য এখানে ক্লিক করুন



Writer-Afnan Lara
Crush যখন বর?
#Season_2
#Part_18
তনু শাড়ীগুলো আলমারিতে রেখে দিলো,,
শিশির-যাও নুডুলস খাবো,বানিয়ে আনো,
তনু-?,
তনু গিয়ে নুডুলস বানিয়ে শিশিরকে দিলো,,তনু আয়নায় দাঁড়িয়ে নিজেকে দেখতেছে,তনু খেয়াল করলো শিশির ও তাকিয়ে আছে,,তনু চোখ বড়বড় করে তাকালো
শিশির-শুনো
তনু-কি?
শিশির-কাল আমার Frd একটার বাসায় দাওয়াত,,সকালে রেডি হয়ে থাকিও,
তনু-আচ্ছা
তনু-হ্যালো, ও তো কি করো,,,, তনু কথা বলতে বলতে বারান্দায় চলে গেলো,
কথা বলা শেষে পিছনে ফিরতেই ধাক্কা খেলো শিশিরের সাথে,
শিশির-কার সাথে কথা বলসো??
তনু-জিনিয়া
শিশির-এত মিষ্টি করে??
তনু শিশিরের হাতে নিজের ফোন দিলো,,আমি আপনার মতন না,
তনু চলে গেলো,,
রুমে আসলো না,,১ঘণ্টা হয়ে গেসে,
শিশির রুম থেকে বেরিয়ে মুনার রুমে গেলো, তনু মুনার সাথে কথা বলতেছে,
শিশির-মুনা তোরে মা ডাকতেছে,মুনা চলে গেলো
শিশির তনুর হাত ধরে টেনে রুমে নিয়ে গেলো,এনে খাটে বসিয়ে দিলো,
শিশির-বলসিলাম না ২০মিনিটের বেশি বাইরে থাকবা না?
তনু-হুম,আমার ইচ্ছা হয়সে তাই থাকসি,
শিশির-আমার মাথা গরম করবা না,,Next এমন করলে
তনু-আবার চড় মারবেন??
শিশির-হ্যাঁ মারবো,,বউকে ৩বার সতর্ক করার পর ও যদি সে না মানে তখন তাকে মারার হাদীস আছে,,
তনু-হুহ,,
শিশির চকলেট এনে হাতে ধরিয়ে দিলো,তনু হা করে তাকিয়ে আছে
শিশির -ফোন নিয়ে বসলো,এত হা করে দেখার কি আছে খাবা নাকি ফেরত দিয়ে আসতাম,
তনু তো প্যাকেট খুলে খাওয়া শুরু করলো,,৫-৬টা খাওয়ার পর শিশির এসে হাত থেকে চকলেট গুলো নিয়ে নিল,
তনু সারা মুখে লাগিয়ে ভূত হয়ে বসে আছে,,
শিশির-আর একটা খেলে তোমাকে নিয়ে হসপিটালে যেতে হবে,কাল খাবা এগুলা,তনু থ হয়ে বসে রইলো,আরও কয়েকটা খাইলে ভালো হইতো,ধুর?
তনু উঠতে গেলো শিশির এসে পাশে বসলো,,,শিশির তনুর মুখে লেগে থাকা চকলেট গুলার দিকে তাকিয়ে আছে,
তনু-(এখন কি এগুলা চেটে খাবে নাকি)?
শিশির-একদম না,আমি এত পাগল না,ধরো টিসু,মুছো,খবিশ
শিশির উঠে চলে গেলো,
তনু-কি রে বাবা,এ কেমন জামাই??কোথাই ভাবলাম আজ হয়ত চকলেট চেটে খেতে গিয়ে কিস করে দিবে সেটা না করে হাতে টিসু ধরিয়ে দিলো??
পরেরদিন ♥♥
তনু মায়ের সেই সুন্দর শাড়ীটা নিয়ে পরলো,,
শিশির বাথরুম থেকে বেরিয়ে তাকালো,,শিশির হাতে এক মগ পানি নিয়ে আসতেছে তনুর দিকে, তনু শাড়ী একটু উপরে তুলে দৌড় মারলো,এক দৌড়ে খাটের উপরে,
তনু-এই একদম ভিজাবেন না আমাকে,কি সমস্যা বলেন
শিশির-এ্যাই তুমি এই পাতলা শাড়ী পরে যাবা??সব দেখা যাইতেছে,,
তনু নিজের দিকে তাকালো,কই কি দেখা যাইতেছে,
শিশির হাত ধরে টেনে নামিয়ে গায়ে পানি ঢেলে দিলো,
শিশির-এবার দেখো কি দেখা যাইতেছে,
তনু-ইসসস,আপনাকে কি জন্মের সময় মধু খাওয়াই নাই??করলার জুস খাওয়াইসে??
শিশির-নাহহ,করলার বিচির ভর্তা করে খাওয়াইছে,
তনু-হুহ,তনু আরেকটা শাড়ী নিয়ে বাথরুমে গেলো,,
শিশির-আর কতক্ষন??
শিশির গিয়ে দরজা ধাক্কাতে লাগলো,,
তনু-আর একটু,
শিশির আরেকবার ধাক্কা দিলো,শিশিরের এমনিতেও অনেক শক্তি,ধাক্কার সাথে সাথে দরজা খুলে গেলো,
তনু তো চোখ বড়বড় করে তাকিয়ে আছে,
শিশির-সরি,শিশির আরেক দিকে ফিরে দাঁড়ালো,
তনু শাড়ী নিয়ে দাঁড়িয়ে আছে,
শিশির-কি হয়সে??
তনু-এই শাড়ীটাতে কুচি হয় না ঠিক মত
শিশির এবার তনুর দিকে তাকাল,তনু হাত দিয়ে গা ঢেকে ফেললো,
শিশির এসে নিচে বসে কুচি ঠিক করে দিলো,,সেপটিফিন নিয়ে আটকে দিলো,
তনু-বাহ এই trick টা তো সেই
শিশির-আমি ভিডিওতে দেখসিলাম
তনু-এসবের?
শিশির-হ্যাঁ,বউয়ের যাতে Help করতে পারি,,
শিশির কুচি করে উঠে দাঁড়ালো,তনু আড় চোখে তাকিয়ে আছে শিশিরের দিকে,,কারন শিশির তনুর দিকে সরাসরি তাকিয়ে আছে,
তনু-নির্লজ্জ কোথাকার
শিশির-?এমন ভাবে থাকলে কোন ছেলে তাকাবে না??আর আমি তো হই তোমার husband
তনু-কচু,যান এখান থেকে,
শিশির-??শিশির তনুর দিকে এগিয়ে গেলো,
তনু-এ্যাই এ্যাই
শিশির-ভীতুর ডিম,শিশির হাসতে হাসতে বেরিয়ে গেলো,
তনু আঁচল ঠিক করে বের হলো,
শিশির আর তনু রিকসাতে উঠলো,,
শিশির তনুর পিছন থেকে আঁচল টেনে মাথায় ঘোমটা দিয়ে দিলো,
শিশির-আমি তোমাকে বোরখা কিনে দিব,এখন থেকে বোরখা পরে বের হবা,
তনু-?
শিশিরের frd এর বাসায় আসলো,,
শরীফ-তনু ভাবী,কেমন আছেন??
তনু-ভালো,,
শিশির-আমার ভাবী কই??
শরীফ-রান্না করে,,
তনু সেদিকে গেলো,,
শিশির আর শরীফ কথা বলতে লাগলো
শরীফ-তো শেষমেষ তনুকেই বিয়ে করলি,আমরা যখন বলতাম তখম তো দৌড়ানি দিতি
শিশির-মা জোর করলো তাই
শরীফ-ভালোবাসোস তাই করছোস
তনু উঁকি মারলো,
শিশির-আমি ওরে ভালোবাসি না,
তনু কথাটা শুনে আবার চলে গেলো,,
শরীফ-ভালোবাসোস, শুধু বুঝস নাহ,
সিয়া -শিশির ভাইয়া টেবিলে আসেন,খাবার রেডি,
শিশির আর তনু বসলো,,
সিয়া -ভাবী দেখি একদম চুপচাপ
শিশির-অনেক বকবক করে,,
সিয়া -কই তেমন কোনো কথায় বললো না,
শরীফ-ভাবী আমার ভদ্র,তোমরা আমার ভাবীরে নিয়ে মজা করবা না,
চলবে♥

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে