Crush যখন বর?Season_2 Part_13/14/15

0
2845

Writer-Afnan Lara
Crush যখন বর?Season_2 Part_13/14/15
তৃনা আসলো তার জামাই নিয়ে,এসে তনুকে জড়িয়ে ধরলো,
তৃনা-শিশির মিয়া তাহলে বিয়া করতেছো তনুরে
শিশির-আম্মু জোর করায় করতেছি
তৃনা-তাই নাকি??তোর মতের সাথে কেউ নিজের মত দিয়ে পারে না,,আর চাচি তো,,নিজে রাজি সেটা স্বীকার কর,,
শিশির-হুহ,
মার্কেটে♥♥
শিশির দূরে বসে বসে গেমস খেলতেছে,,
তনু একটা লেহেঙ্গা নিয়ে আয়নার সামনে দাঁড়ালো,
শিশির-ছিঃ এসব কেমন লেহেঙ্গা ?
তনু-আরেকটা নিয়ে ধরলো,
মুনা-বাহ এটা সুন্দর,
শিশির-একটা লেহেঙ্গা ও সুন্দর নাই,,
তনু at last একটা নিলো,এটা দেখে তনু নিজেই হা করে তাকিয়ে আছে,,
শিশির-যাক একটা পাওয়া গেলো,
তনু-মা এটায় নাও,
মা-শিশির এদিকে আয় শেরওয়ানি Choice কর,
শিশির তনুর দিকে একবার তাকালো,,
তনু দেখতে লাগলো,,,
কর্মচারী-ম্যাম আপনারা যে লেহেঙ্গা টা নিসেন সেটার সাথে ম্যাচিং শেরওয়ানি আছে,,
শিশির-কই দেখি,
তনু-বাহ সুন্দর,,
শিশির-হুম এটা আগে দেখালেই হতো,,মা এটা নিয়ে নাও,,
শিশির -দাঁড়াও কল আসছে,,হ্যালো কি ফুল??
ফুল গোলাপ আনবেন,,আর ঝিলিক বাতি নীল আনবেন,Fresh rose হতে হবে,,ঠিক আছে
মা-কে কল দিসে রে?
শিশির-ডেকোরেশনের লোক,,ফুল আর বাতির কথা,
মা-তনুরে যদি একবার ask করতি
শিশির-আমি ওর পছন্দেই বলসি সব,তনু হেঁটে হেঁটে গায়ে হলুদের ornaments দেখতেছে,,
বিকালে ওরা বাসায় আসলো,,শিশির তনুকে বাসায় দিয়ে আসলো,,
গায়ে হলুদ ১০তারিখ,,,
৯তারিখে সবাই ব্যস্ত হয়ে পড়েছে সাজানোর জন্য,তনু বাসা থেকে বেরিয়ে রোডে গেলো,, এইদিনগুলির জন্য ছোট থেকে কত স্বপ্ন ছিলো,,তনু একটু হেঁটে উঁকি মেরে শিশিরদের বাসার দিকে তাকিয়ে দেখলো নীল ঝিলিক বাতিতে পুরো বাসা সাজানো হয়েসে,তনু খুশিতে লাফ দিলো,,
শিশির মেসেজ দিলো,আস্তে নতুন বউ পড়ে যাবেন
তনু-এই যা আমাকে দেখলো কিভাবে?
শিশির-ভালো করে দেখো আমি বাসার সামনে,
তনু আরেকবার তাকিয়ে দেখলো দাঁত বের করে হেসে দাঁড়িয়ে আছে
তনু এক দৌড়ে বাসায় চলে আসলো,,
পরেরদিন গায়ে হলুদে♥♥♥♥♥♥♥♥♥♥♥
তনুদের বাসার সামনের বড় উঠানে stage করা হয়সে,,
Stage-এ শিশির আর তনু বসে আছে,সবাই এসে এসে হলুদ লাগিয়ে দিচ্ছে,
শিশির-এ্যাহ রে, আমাকে ভূত বানায় দিসে
তনু-হাহাহা
তৃনা দুহাতে হলুদ লাগিয়ে আসতেছে,
শিশির-বইন মাফ কর
তৃনা-আমাকে কেমন হলুদ লাগাইছস মনে আছে??
তৃনা এসে ভালো করে লাগিয়ে দিলো,,
তনু হাসতে হাসতে শেষ,,
শিশির-খুব হাসি পাচ্ছে??
হলুদ শেষ, সবাই খাওয়তে ব্যস্ত,,,তনু উঠে গেলো,,শিশির ও উঠে গিয়ে তনুর হাত ধরে হাসি মুখে সবার সামনে দিয়ে তনুর রুমে নিয়ে গিয়ে তনুকে বিছানায় ফেললো,দরজা লাগিয়ে দিলো,
তনু-এ্যাই এসবের মানে কি??
শিশির পাঞ্জাবির হাতা উঠাইতেছে,
তনু-আম্মুউউ,
শিশির-চুপ,শিশির তনুর কাছে এসে দুহাত বিছানার সাথে চেপে ধরলো,,এবার তনুর সারা মুখে নিজের মুখের সব হলুদ ঘষে ঘষে লাগিয়ে দিলো,
তনু চোখ বন্ধ করে আছে,,শিশির কিছুক্ষণ তনুর দিকে তাকিয়ে রইলো,, তনু চোখ খুলে তাকিয়ে আছে,,শিশির তনুর ঠোঁটের দিকে তাকালো,,
তনু-কি?কি দেখতেছেন?
শিশির-মানুষের ঠোঁট এত বিচ্ছিরি কি করে হতে পারে?
তনু-কিহ??আমার ঠোঁট বিচ্ছিরি?
শিশির-তা নইতো কি,,রুনার ঠোঁট টা আহা উমমম
তনু-ছিঃ,বেরিয়ে যান আমার রুম থেকে
শিশির-থাকার শখ নাই,হুহ
শিশির দরজা খুলে বেরিয়ে গেলো,,
তনু-বেয়াদব,কুত্তা,এখন বসে বসে এ হলুদ উঠাতে হবে,
তনু দরজা বন্ধ করতে যাবে শিশির এসে দাঁড়ালো
তনু-আবার কি?
শিশির-যাইতেছি বাসায়,কাল দেখা হচ্ছে,,
তনু-যান তো,তনু দরজা লাগিয়ে দিলো,,
উফ হলুদ উঠতেছেই না,ধুর,কেমন লাগে??
মা-আরে সমস্যা নাই কাল পর্যন্ত চলে যাবে
তনু-গেলেই ভালো,,
তনু গায়ে হলুদের ছবি post দিলো fbte,,
শিশির মেসেজ দিলো,তুমি ছবি গুলা কেন দিসো?
তনু-কি হয়সে?
শিশির-তোমাকে আমি বলসি না নিজের ছবি দিবা না
তনু-কি হয়সে দিলে
শিশির-মানা করসিলাম আমি,ডিলেট দাও
তনু-দিমু না,
শিশির-৫মিনিটের মধ্যে আমি যেন আর না দেখি
তনু গেলো ডিলেট করতে তনুর খালাতো বোন হাত থেকে ফোনটা নিয়ে চলে গেলো,
তনু-আরে আমার ফোন
বোন-ছবি দেখে দিয়ে দিব,
মা এসে তনুকে বিয়ের জিনিস পত্র দেখাতে নিয়ে গেলো,ছবি ডিলেটের কথা তনু ভুলে গেলো
চলবে ♥
“এখনই জয়েন করুন আমাদের গল্প পোকা ডট কম ফেসবুক গ্রুপে।
আর নিজের লেখা গল্প- কবিতা -পোস্ট করে অথবা অন্যের লেখা পড়ে গঠনমূলক সমালোচনা করে প্রতি সাপ্তাহে জিতে নিন বই সামগ্রী উপহার।
আমাদের গল্প পোকা ডট কম ফেসবুক গ্রুপে জয়েন করার জন্য এখানে ক্লিক করুন



Writer-Afnan Lara
Crush যখন বর?
#Season_2
#Part_14
শিশির তো রাগে শেষ,বাসা থেকে বের হওয়া ধরলো,,
মা-শিশির কই যাস?থাক এখানে এখন নিয়মকানুন আছে সেগুলা পুরা করতে হবে,মা আর ফুফুরা ধরে বসিয়ে দিলো,
রাত ১১:৩০বেজে গেসে,ধুর,কাল ওর খবর আছে,,
পরেরদিন ♥♥♥♥♥♥♥♥♥♥♥♥
তনুকে গোসল করিয়ে পার্লারে পাঠানো হলো,তনুর ফোন বোনের কাছে,তনুর খবর নেই,শিশির মেসেজের উপর মেসেজ দিতেছে,
তনুকে রেডি করানো হলো,,লাল লেহেঙ্গা,, গয়না,, গোমটা,,সাজটা মিডিয়াম,, অসুম্ভব সুন্দর লাগছে,,তনুকে Party center-এ নিয়ে যাওয়া হলো,
শিশির মুখ গোমড়া করে রেডি হলো,রাগে ফেটে যাচ্ছে,,
শেরওয়ানি পরলো,,মাথায় পাগড়ী,,আয়নার সামনে দাঁড়ালো,
মা-নজর যেন না লাগে,,মা টিকা লাগিয়ে দিলো,,
মুনা-কিরে ভাই মুখ এমন রাখছস কেন??
ভাবিরে দেখবি??তনু ভাবির বোন পিক দিসে,শিশির ফোন নিয়ে ছুঁড়ে মারলো,,
মুনা-এমন করছোস কেন?কি হয়সে?
শিশির গিয়ে গাড়ীতে বসলো,party center -এ আসলো,,তনু Stage -এ বসে আছে,,
শিশির তনুর দিকে তাকালো,,তারপর ওর পাশে গিয়ে বসলো,,
টিয়া-কিরে দুলাভাইের মুড অফ নাকি??আমি তো জানতাম উনি হাসিখুশি থাকে সবসময়,,
তনুর মনে পরলো কালকের কথা,ইস একদম ভুলে গেসি,এত কাজের ভিতর মনে ছিলো না,আজ আমাকে মেরেই ফেলবে,তনু শিশিরের দিকে তাকালো,শিশির এমন মুখ করে আছে,এখন stageএ মানুষ না থাকলে এখনই চিবিয়ে খেয়ে ফেলতো আমাকে,,তনু ওর বোনের থেকে ফোন নিয়ে দেখলো আল্লাহ গো ১২৮টা মেসেজ? আমি শেষ,, পিক ডিলেট করলাম
জুঁই-তনু তোর জামাইটা সেই,,How hot!
নিশু-বডি দেখছস??
জুঁই-আহা সুখ রে
তনু-ছিঃ যা এখান থেকে,,
হুজুর আসলো,,
কবুল♥♥♥কবুল ♥♥♥কবুল♥♥
কবুল♥♥♥কবুল ♥♥♥কবুল♥♥
সাইন করলো দুজনেই,,বিয়ে সম্পন্ন♥♥♥♥♥♥
বিকালে বাসায় আসলো সবাই শিশির আর তনুকে নিয়ে,,শিশিরের রুম সাজানো হচ্ছে,,,শিশির আর তনুকে সোফায় বসিয়ে একেক করে মিষ্টি খাওয়াচ্ছে,,
মা-তনু শিশিরকে মিষ্টি খাওয়াও
তনু শিশিরকে খাইয়ে দিলো,,তারপর শিশির খাইয়ে দিলো,
তৃনা-কিরে মুখটা বাংলার ৫এর মত করে রাখছোস কেন??
শিশির কিছু বললো না,,তনুর দিকে শক্ত চোখে তাকালো,,
মেহমানরা কথা বলতে বলতে, তাদের বিদায় দিতে দিতে রাত ১০টা বেজে গেসে,,
তনুকে মুনা আর তৃনা শিশিরের রুমে খাটের মাঝখানে বসিয়ে দিলো,গোলাপ দিয়ে সাজানো
তনু শুধু দেখতেছে,,
তৃনা-আসি বইন,,,?Best of luck
মুনা-All the best
তনু-তোমরা এমন করে বলো কেন আমার ভয় করে, সবাই হাসতে হাসতে চলে গেলো,,১০মিনিট পর শিশির আসলো,ঠাস করে দরজা লাগালো,,
তনুর কলিজা কেঁপে উঠলো,,শিশির এসে দাঁড়িয়ে আছে,,
তনু আস্তে করে নেমে শিশিরের সামনে গেলো,,
তারপর সালাম করতে যাবে শিশির সরে গেলো,,
তনু মুখ তুলে তাকালো,
তনু-আমি আসলে
শিশির সজোরে কষিয়ে একটা থাপ্পড় বসিয়ে দিলো,,তনু গিয়ে নিচে পড়লো,,তনু এটার জন্য মোটেও প্রস্তুত ছিলো না,,তনু খেয়াল করলো নাক থেকে রক্ত বের হচ্ছে,,চোখ মুছে শিশিরের দিকে তাকালো,,
শিশির ফোন নিয়ে মেসেজ বের করে তনুর মুখের সামনে ধরলো,
শিশির-কইবার মেসেজ দিসি??
তনু কিছু বললো না
শিশির-Ans me!!!!
তনু-১২৮
শিশির-একটা মেসেজ ও চোখে দেখো নাই??এত বিজি ছিলা??
তনু কাঁদতেছে,,
শিশির-একদম কাঁদবা না,জেনে শুনে এমন করো,,সবসময়,,
শিশির গিয়ে খাটের সব ফুল ছুঁড়ে মারলো,,,
তনু নিচে বসে কাঁদতেছে,আর নাক মুছতেছে,,
শিশির-যাও এখান থেকে বারান্দায় গিয়ে শোও,আমার খাটে তোমার জায়গা নেই,অধিকার হারিয়েছো,,এটা নতুন না যে তুমি আমাকে চিনো না,,জেনে শুনেও কেউ এমন ভুল করে না,,
তনু আস্তে আস্তে উঠে বাথরুমে গিয়ে মুখ ধুয়ে টিসু দিয়ে নাক চেপে রক্ত বন্ধ করলো,,তারপর বারান্দায় গিয়ে গুটিশুটি মেরে বসলো,,
শিশির খাটে ফুল দেখে আর খাটে ঘুমাইনি,,রকিং চেয়ারে বসে ঘুমিয়ে গেলো,
তনু কাঁদতে কাঁদতে ঘুমিয়ে গেলো,,
পরেরদিন সকালের আলো তনুর চোখে পড়তেই তনু উঠে গেলো,,শিশির ঘুমাচ্ছে,,৪:৪০বাজে,,তনু গোসল করে নিলো,,,নামাজ পড়ে রুম থেকে বের হলো,,
মা-একি এত তাড়াতাড়ি উঠলি??
তনু-কি কাজ বলো আমি করে দিচ্ছি,,
মা-দেখি,তোর নাকের নিচে কেমন রক্ত জমে আছে,,কিছুর সাথে ধাক্কা খেয়েছস??
তনু-হ্যাঁ দরজার সাথে,,
মা-আহারে,,বুয়া বরফ এনে দাও
তনু-কিছু হবে না,ঠিক হয়ে যাবে
মা বরফ লাগিয়ে দিলো,
মা-যা শিশিরের কি লাগবে দেখ,,তোর এখন কাজ করতে হবে না,,বুয়া আছে,,
চলবে♥
“এখনই জয়েন করুন আমাদের গল্প পোকা ডট কম ফেসবুক গ্রুপে।
আর নিজের লেখা গল্প- কবিতা -পোস্ট করে অথবা অন্যের লেখা পড়ে গঠনমূলক সমালোচনা করে প্রতি সাপ্তাহে জিতে নিন বই সামগ্রী উপহার।
আমাদের গল্প পোকা ডট কম ফেসবুক গ্রুপে জয়েন করার জন্য এখানে ক্লিক করুন



Writer-Afnan Lara
Crush যখন বর?
#Season_2
#Part_15
তনু রুমে গেলো,শিশির উঠে মনে হয় বাথরুমে গেসে,,তনু বিছানা করে রুম পরিষ্কার করলো,শিশির বের হলো টাওয়েল পড়ে,,আলমারি থেকে জামা নিয়ে আবার বাথরুমে গেলো,,
আবার বের হয়ে দেখলো তনু নেই,ডাইনিং এ আসলো,তনু খাবার সার্ভ করতেছে,,
মা-তনুটা নতুন নতুন আমাদের বাসায় আসলো,আর এখনই দরজার সাথে লেগে মেয়েটার নাক থেকে রক্ত যাচ্ছে,,শিশির কথাটা শুনে থমকে গেলো,কাল রাতের কথা মনে পরলো,,
তনু শিশিরের পাশে বসলো,,
মা-আজ তনুদের বাসার সবাই আসবে,,কত কাজ,,খাওয়া শেষে যে যার কাজে গেলো,তনু মুনার সাথে কথা বললো,,
তৃনা ঠেলে শিশিরের রুমে পাঠিয়ে দিলো,,
তনু রুমে এসে দেখলো শিশির ফোন টিপতেছে,,তনু বারান্দায় গিয়ে দাঁড়ালো,,আমার দোষ,,,শিশির তো এসবের ক্ষেত্রে সিরিয়াস, আমি কেন ভুলে গেসিলাম,,তনু কাঁদতেছে দাঁড়িয়ে দাঁড়িয়ে,,শিশির খেয়াল করলো তনু কাঁদতেছে,শিশির এসে টিসুর বক্স এগিয়ে দিলো,তনু একটা টিসু নিয়ে শিশিরের দিকে তাকালো,
শিশির আরেকদিকে তাকিয়ে তনুকে টান দিয়ে জড়িয়ে ধরলো এক হাত দিয়ে
তনু কিছুটা অবাক হলো,,
শিশির বাইরের দিকে তাকিয়ে আছে আর তনুকে শক্ত করে ধরে আছে,,
শিশির-সরি,,Next time আর এমন করবা না,,আমার যেগুলা সয্য হয়না সেগুলা করবা না,,শিশির তনুকে কোলে তুলে নিলো,
তনু যেনো সপ্ন দেখতেছে,
শিশির কোলে তুলে এনে খাটে নামিয়ে দিয়ে একটা spray আনলো,তনুর নাক ধরে spray করলো,,
শিশির-রক্ত যাওয়া অফ হয়ে যাবে,,Rest নাও,কাল রাতে তো মেবি ঘুমাও নাই,,
তৃনা-ভাইয়ায়ায়ায়ায়া
শিশির -কি হয়সে?
তৃনা-তনুরে নিয়ে যাবো,আজ রাত ছাড়া আর পাবা না,,
শিশির-তনু এখন ঘুমাবে,
তৃনা-আহারে কাল রাতে তো জেগে ছিলো,,আমরা তো ভুলেই গেসিলাম,
শিশির-শয়তান মাইয়া তোর জামাইরে কইতাছি দাঁড়া,,
তৃনা তনুর কাছে আসলো,চল তোকে সাজানোর জন্য পার্লারের লোক আসছে,
তনু কে নিয়ে তৃনা চলে গেলো,,
শিশির কাজে বিজি হয়ে গেলো,,
দুপুরে তনুদের বাসার সবাই আসলো,,তনুকে পিংক কালারের শাড়ী পরানো হয়েছে,,চুলে খোঁপা,আর শিশির হালকা পিংক কালারের পাঞ্জাবি পরেছে,
অনুষ্ঠান শেষে শিশির আর তনু মিলে তনুদের বাসায় আসলো,,তনুর রুম হালকা সাজানো হয়েছে,,
রাতে তনু রুমে এলো,,তনু বালিশ নিয়ে বারান্দায় যাওয়া ধরলো,,
শিশির-কই যাও?
তনু-ঘুমাতে
শিশির-কাল তো রাগ করে বলসিলাম,এখানে শোও,,
তনু-লাগবে না,
শিশির-আরেকবার বলো তো কথাটা,
শিশির পাঞ্জাবির হাতা উঠাচ্ছে,,তনু চুপচাপ খাটে এসে এক কোনে শুয়ে পরলো,,শিশির হাত ধরে টেনে উঠিয়ে বসালো,
তনু-কি হয়সে?
শিশির -এই নাও
তনু-এটা তো আপনি রুনার জন্য কিনেছেন,,
শিশির-Earrings গুলো রুনার পছন্দ হয়নি তুমি রেখে দাও,
তনু-নিব না
শিশির-ফেলে দাও,
শিশির গিয়ে খাটের আরেক পাশে বসে রুনাকে কল করলো,,(Acting) খালি ফোন নিয়ে তনুকে দেখিয়ে দেখিয়ে কথা বলতে লাগলো,
হুম সোনা,,ঠিক আছে দেখা করবো,
তনু-হুহ,,তনু ঘুমিয়ে পরলো,,শিশির উঁকি মেরে দেখলো তনু ঘুমিয়ে গেসে,ফোনটা রেখে সেও ঘুমিয়ে গেলো,,
পরেরদিন ♥♥
হালকা পানির ছিঁটায় শিশিরের ঘুম ভাঙলো,
শিশির-কে রে??শিশির চোখ খুলে দেখলো তনু ভয় নিয়ে দাঁড়িয়ে আছে শিশিরের দিকে,,চুল ভিজা,,টপটপ করে পানি পড়তেছে,,লাল টুকটুকে শাড়ী পরেছে তনু,শিশির কিছুক্ষণ অবাক চোখে তাকিয়ে থাকলো,,খাট থেকে উঠে তনুর কাছে গেলো,,তনু ভয়ে পিছচ্ছে,,
তনু-আজকে না জানি আবার মারে,
শিশির এগোতে এগোতে তনুকে আলমারির সাথে মিশিয়ে ফেললো,,
তনু-সরি,
শিশির-হুম,,শিশির আলমারির আয়নার দিকে তাকিয়ে খেয়াল করলো তনুর পিঠ দেখা যাচ্ছে,, ব্লাউজের ফিতা লাগায়নি,শিশির তনুকে টান দিয়ে আলামারির দিকে ফিরালো,ব্লাউজের ফিতা ধরলো,
তনু চোখ বন্ধ করে আছে,,আর কাঁপতেছে
শিশির-এত ভয় পাওয়ার কিছু নেই,,ফিতা লাগাও নি তাই লাগিয়ে দিতেছি,আর হ্যাঁ পিঠে এত পানি কেন??ঠিকমত মুছো নাই
তনু-না আমার হাত ওতদূর যায় না,,
শিশির-হাহাহা,তার মানে পিঠ এমন ভিজা থাকে??সবসময় গোসল করার পর?
তনু-না আম্মু মুছে দেয়,,
শিশির-আমাদের বাসায় তো মা থাকবে না,আর আমার মায়ের কাছে গিয়ে কি বলতে পারবা যে পিঠ মুছে দাও
তনু-হুম, হেভিট করতেছি,
শিশির-আচ্ছা আমি মুছে দিব,
তনু-না
শিশির-হুহ
শিশির Shirt নিয়ে বাথরুমে গেলো,
তনু মায়ের কাছে গেলো,
মা-বাহ শাড়ীটা বেশ,
তনু-ফুফু শাশুড়ি দিসে,,
মা-হুম,,ভালো চয়েস✌?
শিশির লাল shirt পরে বের হলো,শিশির আর তনু একসাথে টেবিলে বসলো,,
বাবা-কি মানিয়েছে দুজনকে
মা-হুম??
শিশির খেয়ে রুমে গেলো,,তনু আমাকে অফিসে যেতে হবে,,
তনু-ঠিক আছে,,
শিশির যাওয়ার আগে তনুর দিকে তাকালো,২মিনিট ধরে তাকিয়ে রইলো
তনু-কিছু বলবেন?
শিশির-আজ রুনার সাথে দেখা করবো???
তনু-হুহ
চলবে♥

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে