Crush যখন বর?Part_19/20/21

0
3521

Crush যখন বর?
Writer-Afnan Lara
#Part_19
তনু চুপিচুপি উনার রুমে গেলাম,খাটে বসে বসে Laptop এ কাজ করসে,,???
তনু এই যে শুনুন
শিশির -হ্যাঁ বলো
তনু-শাড়ী Change করবো,??
শিশির-ও???
তনু শিশিরের সামনে গিয়ে শাড়ী খুলে ফেললো,
শিশির-পাগল হয়ে গেছে লাগে পুরা?
শিশির একটা শাড়ী আনলো,তনুকে পরিয়ে দিচ্ছে,,
তনু-ব্লাউজ পাল্টাবো না?
শিশির -???????
তনু-দেখুন আপনার জন্য আমার আজ এই অবস্থা, সো সব দায়িত্ব আপনার,হুহ
শিশির আচ্ছা ঐদিকে ফিরো,
তনু-ওকে?
শিশির -হুম, বোতাম সামনের দিকে,সো বোতাম খুলো
তনু-বারে সেটা হলে আপনাকে বলতাম?এক হাত দিয়ে বোতাম খুলতে অনেক সময় লাগবে
শিশির -????আস্তে আস্তে হাত দিয়ে বোতাম খুললাম,
তনু-চোখ বন্ধ রাখছে?
শিশির -খুলে ফেললাম,ইস
তনু-ভিতরের part টা খুলতে হয়বো না???আমারই এখন লজ্জা লাগছে?
শিশির -???ব্লাউজ পরিয়ে দিলাম,বোতাম? ???
তনু-???লাগান?
শিশির-চোখ off করে লাগাচ্ছে আর কাঁপতেছে
তনু-(এই পোলারে Romantic বানাতে আমার অনেক কাঠখড় পোড়াতে হবে)
শিশির-আর কিছু?
তনু-আবার কিস করি??
শিশির-???নানানানা
তনু -কি নানা?নানা আসলো কই থেকে?
শিশির-না মানে না
তনু-আপনার তখন ভালো লাগে নাই???সত্যি করে বলেন
শিশির-যাও rest নাও,
তনু-???(শোধ নিবো)
|
বিকালে?
তনু-উফ এক হাত দিয়ে কোনো কাজ করা যায়?শাড়ীর আঁচল টাও পড়ে যাচ্ছে খালি,এখন আবার কে কল দিলো,
হ্যালো
সিয়াম-তনু, আমি সিয়াম
তনু-ও ভাইয়া, বলো কেমন আছো?
সিয়াম-ভালো,তোর কি খবর, হাত ঠিক হয়ছে?
তনু-হুম,আর একটু বাকি,
সিয়াম-ওও,শুন কাল আমার Birthday,
তনু-ওও advance happy birthday
সিয়াম-না কাল আসবি তুই আমার এখানে,শিশিরকেও আনিস,
তনু-কিন্তু
সিয়াম -আসবি,বাই
তনু শিশিরের কাছে গেলাম,শুনুন সিয়াম ভাইয়া কাল তার birthday তে আমাদের invite করসে উনার বাসায়,
শিশির-ওও,কাল তো মা বাবা আসবে,
তনু-উনারা আসতে আসতে রাত হবে
শিশির-ওকে তাইলে যাবো
|
পরেরদিন ?
তনু শিশির ready হয়ে নিলো,সিয়ামের বাসায় গেলো,,সিয়ামের মা বাবা আর ছোট ভাই বোন থাকে,
তনু-কেমন আছো চাচী?
চাচী-ভালো,তোকে দেখে আরও ভালো লাগছে,শিশির এসে সালাম করলো,
চাচী-বেঁচে থাকো বাবা,সুখে থাকো,বসো তোমরা,
সিয়াম আসলো, তনুর দিকে অবাক হয়ে তাকিয়ে রইলো,Black silk শাড়ী পরেছে,সিয়াম চোখ নামাতে পারছে না
তনু-আরে ভাইয়া,Happy birthday, এই নাও তোমার gift,
শিশির-তনু আমার একটা Urgent কাজ এসে গেছে,যাবো আর আসবো,1hour লাগবে,Manage করতে পারবা?এখানে থাকতে পারবা একা?
তনু-ওকে,চাচী আছে, সমস্যা নাই,আপনি যান
শিশির-ওকে,
তনু হেঁটে হেঁটে রুমগুলা দেখতেছে,বাহ রিনা সিয়াম ভাইয়া দেখি সব একদম সুন্দর করে রাখছে,অনেক ভালো লাগছে দেখতে(রিনা সিয়ামের বোন),
রিনা-আসতেছি,তনু আপু আম্মু ডাকে,আমি আসতেছি,
তনু-আচ্ছা
তনু করিডোর দিয়ে হাঁটতেছে,তখনই একটান দিয়ে সিয়াম তনুকে নিজের রুমে নিয়ে গেলো,
তনু-ভাাাইইইয়য়য়াা!!
সিয়াম-মুখ চেপে ধরলাম,চুপ
তনু-?????
সিয়াম-হাত সরালাম,ওকে দেখতেছি,
তনু নিজেকে ছাড়ানোর চেষ্টা করতেছে এক হাত দিয়ে বাট পারতেছে না,সিয়াম শক্ত করে ধরে আছে,
তনু-ভাইয়া আমার হাত ছাড়ুন,আমার লাগতেছে,
সিয়াম-লাগতেছে শুনে ছেড়ে দিলাম,লাগতেছে??আমার ও না খুব লাগে যখন তোকে শিশিরের সাথে দেখি,আমার সয্য হয় না
তনু-মেজাজ টা খারাপ করে দিলো,ওখান থেকে চলে আসা ধরলাম,আবার টান দিয়ে আমাকে দেওয়ালের সাথে চেপে ধরলো,
তনু-আহহ?আমার হাত
সিয়াম -সরি সরি,ব্যাথা লাগলো জান??ওকে এই দেখো আলতো করে ধরেছি,
তনু-ছাড়ুন আমাকে আমি এখন চিৎকার দিবো,
সিয়াম-দাও,
তনু-চাচী!!!চাচী!!
সিয়াম-তোমার চাচী রান্নাঘরে,তোমার Sound ওতোদুরে যাবে না,
তনু-Pls আমাকে যেতে দিন,?হাত ছাড়ুন আমার
সিয়াম-ওর থুতনি উঁচু করে কিস করতে গেলাম,
তখনই শিশির এসে ধাক্কা দিলো, সিয়াম নিচে পড়ে গেলো,
তনু শিশিরকে দেখে জড়িয়ে ধরলো,
শিশির-আমার তখনই বোঝা উচিত ছিলো ঐ চাহনি দেখে,তনুকে একা রেখে গিয়ে ভুল করসি,বাসায় যে কালসাপ আছে সেটা জানতাম না,
সিয়াম-এটা ঠিক করলে না শিশির!
শিশির-এটা তোমার বাসা,তুমি তনুর জীবন বাঁচিয়েছো,সেজন্য ছেড়ে দিলাম,নাহলে তোমার হাঁড় আস্ত থাকতো না,শিশির তনুর হাত ধরে চলে আসলো,
তনু তাকিয়ে তাকিয়ে শিশিরকে দেখতেছে শুধু,শিশির এদিকে রাগে ফুলতেছে,ও তো তনুকে লাভ করে না,তাহলে ওর এতে রাগ হচ্ছে কেন??
|
বাসায় আসলো ওরা
তনু শিশিরের হাত ধরলো,
শিশির-কি?
তনু-বলছিলাম না Black পরিয়েন না
শিশির-?
তনু-শক্ত করে জড়িয়ে ধরলাম,যতোটা শক্ত করে ধরলে,পুরা দেহটার সাথে মিশে যাওয়া যায়,ততটা
শিশিরও ধরলো,বাট আলতো করে,
তনু-আমার চাইতেও শক্ত করে ধরতে পারবেন না জানি
শিশির -আমি ধরলে ব্যাথা পাবা হাতে,
এটা বলেই শিশির তনুকে কোলে তুলে নিলো,
তনু তাকিয়ে আছে শিশিরের দিকে,শিশির সামনের দিকে,
শিশির -আমার অপ্সরীকে কালো রং এ আগুন লাগতেছে
তনু-কে আমি?
শিশির-না ভুতনি
তনু-?হুহ
উনি কারে কইলো?
শিশির তনুকে বিছানায় শুইয়ে দিলো,চলে যাওয়ার সময় তনু হাতটা ধরে ফেললো,
শিশির -কি
তনু-ছেড়ে দিলাম,কিছু না,
শিশির-……বারান্দায় বসে রইলাম,আমি কেন এমন করতেছি তনুর সাথে,ও তো আমার থেকে স্বামীর অধিকার প্রাপ্য ?
চলবে?

Crush যখন বর?
Writer-Afnan Lara
#Part_20
রাত ২টা
শিশির উঠে বিছানায় আসলো, তনু এলোমেলো হয়ে ঘুমিয়ে আছে,ওর শাড়ী ঠিক করে গায়ে দিলাম,কাঁথা টেনে দিলাম,
কলিং বেল বাজলো,
শিশির দরজা খুললো
মা বাবা,কেমন আছো
মা-ভালো রে,তনু মা কই?
শিশির-ঘুমাচ্ছে, ভিতরে আসো,আমি ডেকে দিচ্ছি
মা-আরে না থাক,কাল সকালে ওর সাথে কথা বলবো,ঘুমাক,
শিশির-আচ্ছা,আসো তোমরা rest নাও,খাবার Ready আছে,
বাবা-আরে আমরা আজ আর কিছু খাবো না,Break এ নেমে খাইসি,
শিশির-ওকে,
শিশির রুমে আসলাম,পাশে শুয়ে পরলাম,সেই মিষ্টি ঘ্রান,প্রথম স্কার্ফ টার,আমি ভাবিও নি এটা তনুর ছিলো,
ওর কথা ভাবতে ভাবতে ঘুমিয়ে গেলাম,
|
পরেরদিন ?
তনু -ঘুম থেকে উঠলাম,একি উনি কই?বিছানা থেকে উঠে সোফার রুমে যেতেই
Surprise!!!
তনু-?মা বাবা?মাকে জড়িয়ে ধরলাম,কেমন আছো,সালাম দিলাম দুজনকে
মা-একি তোর হাতে কি হয়ছে?
তনু-ঐ পড়ে গেসিলাম,
মা-শিশির!?
শিশির-মা ও দেখে চলতে পারে না,
তনু-??
মা-কবে ভালো হবে এটা?
তনু-দুএকদিনে,
মা-আহারে???
শিশির-তনু আমি অফিসে যাই,আম্মুর কাছে থেকো
|
দুপুরে?
তনু-তারারুরুরুরুরুরুরুর,লাললালালালালা,উলালালালালালা্
শিশির-এই তনু চুপ করবা?
তনু-????আপনি কখন এলেন?(তনু বাথরুমে গোসল করার সময় গান গায়)
শিশির -অফিসে গিয়ে দেখি কোনো Important কাজ নেই তাই চলে এলাম,এতো চিল্লাও কেন?গোসল করতে গেলে
তনু-হুহ,
কিছুক্ষন পর
তনু-এহেম এহেম্
শিশির-????
তনু-এহেম এহেম এহেমমমমম!
শিশির -কিই????
তনু-আমি পারছি না তো
শিশির -কি?
তনু-শাড়ী খুলতে
শিশির-????গোসল করতে কে বলছে?
তনু-বারে কতোদিন হয়সে গোসল করি না??
শিশির-আসতেছি,তনু একটা Towel নিয়ে গায়ে জড়িয়ে নিলো,পরোনে ভেজা শাড়ী,
শিশির তো তনুকে দেখে Hang হয়ে গেলো,তনুর কাঁপনি দেখে ওর হুস আসলো,
শিশির এসেই শাড়ী খুললো,
শিশির-??
তনু চোখ বন্ধ করে রাখসে,?
তনুর ভেঁজা গায়ে হাত দিতেই শিশিরের গা শিউরিয়ে উঠলো সাথে তনুর ও,,
তনু আরেক দিকে ফিরে গেলো,
শিশির-কি হলো?
তনু-লজ্জা লাগে
শিশির-……..
মা-শিশির,তনু,কই তোরা?
শিশির-?বাথরুম থেকে বেরিয়ে এলাম,
মা -তনু কই?
তনু ও বেরিয়ে এলো, তনুর গায়ে ব্লাউজ, Towel জড়ানো,আর পরোনে পেটিকোট?
মা-আচ্ছা,আমি সোফার রুমে আছি,তনু ভিজা কাপড়ে বেশিক্ষন থেকো না
মা চলে গেলো,
তনু-ইস মা কি ভাবলো?
শিশির -?
হুম মা বলো কি হয়ছে?
মা-নাতি নাতনি আসবে কবে?
শিশির -?
মা-কি?বল
শিশির-মা কি বলো?বিয়ে হয়ছে দুদিন ও হয় নাই
মা-?
শিশির -আর তনু এখনও ছোট,সবে ১৮চলছে
মা-হুম সেটা ঠিক আছে,,
শিশির রুমে ঢুকতেই তনু পিছন থেকে জড়িয়ো ধরলো
শিশির-??তনু?
তনু-হিহিহি
শিশির -ছাড়ো আমার কাজ আছে
তনু-না ছাড়বো না
শিশির তনুকে পিছন থেকে এক টান দিয়ে সামনে আনলো,
শিশির -এই তুমি এতো বাচ্চামি করো কেন?
তনু-কই কি করলাম এখনও তো শুরু ই করি নাই
তনু শিশিরকে জোঁকের মতন ধরে আছে,
তনু-আচ্ছা একটা কথা বলুন তো
শিশির -?কি
তনু-আপনার Feelings teelings নাই??
শিশির -মানে?
তনু-এই যে আমি আপনার কাছে যেতে চাইলে আপনি দূরে চলে যান
শিশির -?থাকলেও কি বা থাকলেও কি?
তনু-কি মানে?আমি আপনার বিয়ে করা বউ?
শিশির -তো?
তনু-ধাক্কা দিয়ে বিছানায় ফেলে দিয়ে উপরে উঠে গেলাম,তো কি দেখাচ্ছি
শিশির -এই না না,সরো,
তনু-না সরুম না,
শিশির-সরো,মুটকি
তনু-কিহ??আমি মুটকি? তোর বউ মুটকি, তোর ১৪গুষ্টি মুটকি
শিশির অবাক হয়ে তাকিয়ে রইলো তনুর এই ভাষা দেখে
তনুর কিছুক্ষন পর হুস আসলো
তনু-ইস কি বলে ফেললাম,খাট থেকে নেমে রুম থেকে বেরিয়ে এলাম?ইস ধুর আমার মুখের কোনো লাগাম নাই
শিশির খাটে শুয়ে শুয়ে হাসতেছে,
চলবে?

Writer -Afnan Lara
Crush যখন বর?
#Part_21

শিশির কফি খাচ্ছে বসে বসে,,
হঠাৎ কাপ টা গায়ে পড়ে গেলো,ইস shirt টা Change করতে হবে?
Shirt খুলে ফেললাম,তনু তখনই রুমে ঢুকলো,দাঁড়িয়ে হা করে তাকিয়ে আছে
শিশির তনুকে দেখে ?
শিশির -কি??এমন করে চেয়ে আছো কেন?
তনু-Six Pack?
শিশির-ততততো
তনু-ততত কিছু না,উনার কাছে চলে গেলাম
শিশির -এই কি এতো কাছে আসতেছো কেন?
তনু-???????
শিশির -কি দাঁত বের করে হাসতেছো কেন?
তনু শিশির গলা জড়িয়ে ধরলো,মুখে দুষ্টুমির হাসি
শিশির-এই কি??
তনু নিজের ঠোঁট শিশিরের মুখ পর্যন্ত নিতেই থেমে গেলো কারন শিশির তনুকে আটকে দিছে মাঝখানেই,
তনু কি যেন ভাবলো, তারপর শিশিরকে ছেড়ে চলে গেলো,
শিশির-কি হলো এমন করলো কেন?
সারাদিনে শিশির রুমেই ছিলো,Laptop এ কাজ করেছে,কিন্তু তনুকে একবার ও দেখলো না,,কি হলো??
|
সন্ধ্যা?
শিশির রুম থেকে বেরিয়ে এলো,মা টিভি দেখছে
মা তনু কই?
মা-ও তো ছাদে গেসে
শিশির -এখন কেন গেসে?
মা-পাশের বাসার ছোট মাইয়া কতগুলা আসছে বাইরে বাজি ফোটানো হচ্ছে সেটা দেখতে গেসে,
শিশির -ও
আমিও ছাদে গেলাম,গিয়ে দেখি বাচ্চাদের সাথে লাফাচ্ছে বাজি নিয়ে,
আরে আরে সাবধানে হাতে লাগবে তো,
তনু আমার দিকে তাকিয়ে রইলো,তারপরে বাজি টা রেখে দিলো,
শিশির আর তনু দুজনেই দাঁড়িয়ে আছে, আকাশ দেখছে,
তনু চুপ,
শিশির এখন নিজের থেকে কথা বললো,
চলো বাসায় যাই,ঠান্ডা পরতেছে,
তনু-আরকটু থাকি,আপনি যান
শিশির -(তখন কি কষ্ট পেলো নাকি?)
ওর হাত ধরলাম,আমার দিকে তাকালো কিছুটা অবাক হয়ে,অবাক হওয়ারই কথা আমি তো এমন করি না সচরাচর
শিশির -কি হলো??
তনু-কই?
শিশির -সারাদিন দেখা দিলা না,হঠাৎ করে চুপচাপ হয়ে গেলা,
তনু-এমনি,কিছু না,
শিশির -বলো
তনু-কি বলবো?আমি তো আপনার কাছে বোঝা তাই না?আমাকে ভালোবাসতে পারবেন না কখনও,আমি কাছে আসতে গেলেই নাতাশার কথা মনে পড়ে তাই না?আর আমি কি বোকা, হাহাহা??
এটা বলেই তনু হাসতে লাগলো,
শিশির চুপ হয়ে শুনতেছে,
তনু হাসতে হাসতে কেঁদে দিলো,তারপর হাতটা ছাড়িয়ে নিলো, লাগবে না ভালোবাসার,আমি তো নাতাশা না যে আপনার ভালোবাসা পাবার যোগ্যতা রাখি,এটা বলেই কাঁদতে কাঁদতে চলে গেলো,
শিশির চুপ হয়ে দাঁড়িয়ে রইলো,হ্যাঁ আজ নিজেকে দোষী মনে হচ্ছে,সত্যি দোষী আমি,আমি এতদিন তাকেই দূরে ঠেলে রাখছিলাম যার দোষ ছিলো না কোনো কিছুতেই,নাতাশার শাস্তি আমি তনুকে দিছি,তনু তো নিজের জায়গায় ঠিক আছে,
অনেকক্ষণ পর বাসায় গেলাম,তনু রুমে নেই,বারান্দায় গেলাম,কই এখানেও তো নেই,কই গেলো,
বাইরে আসলাম,মীমের রুমে গিয়ে দেখি ঘুমিয়ে আছে,কাছে গেলাম,কাঁদতে কাঁদতে ঘুমিয়ে গেছে,চোখের পানি শুকায় নি এখনও,কোলে তুলে নিয়ে আমার রুমে নিয়ে আসলাম,
|
পরেরদিন সকাল?
তনু উফ মাথাটা ধরছে, উঠলাম,একি আমি তো মীমের রুমে ঘুমাইছি কাল,এখানে আসছি কখন?
শিশির তখনই ২টা কফি নিয়ে রুমে আসলো,
নাও খেয়ে নাও,
তনু কফি টা নিলো,
শিশির-অফিস যাবো আজ,আসতে আসতে বিকাল হবে
তনু-ওকে
শিশির কি বলবে তনুকে বুঝতেছে না,অফিসে চলে গেলো,কোনো কাজে মন বসছে না,উফ,তনুকে কল দিলো
তনু-হ্যালো
শিশির -হুম
তনু-কি?
শিশির-খায়সো?
তনু-হুম,আপনি?
শিশির -হ্যাঁ
তনু-……
শিশির -আচ্ছা বাই,কাজ আছে
তনু-ওকে
শিশির -একটা ফুলের দোকানে গেলাম,গোলাপ ফুলের তোড়া নিলাম,তনু গোলাপ অনেক পছন্দ করে,
নিয়ে বাসায় গেলাম
তনু তখন গোসল করে বের হয়েছে মাত্র,শিশির দরজা নক করলো
তনু গিয়ে দরজা খুললো,শিশির তনুকে দেখে হা হয়ে তাকিয়ে রইলো,
ভেজা চুল,নীল শাড়ী,অপ্সরীর মতন লাগছে,হ্যাঁ আমার অপ্সরী?
তনুর কথায় শিশিরের হুস আসলো,
তনু-কি?ভিতরে আসবেন না?
শিশির -ও হ্যাঁ
ভিতরে ঢুকেই তনুকে ফুলের তোড়া টা দিলো,তনু অনেক খুশি হয়ে হাতে নিলো,কিছুক্ষন পর আবার মুখ টা গম্ভীর করে চলে গেলো,
শিশির -কি পছন্দ হয়নি?
তনু-হুম হয়ছে,Thanks
শিশির-,,,,
তনু -বসেন খাবার দিচ্ছি,
শিশির -না খিধা নাই, মা যে টিফিন দিছে তা খায়সি
তনু-ওকে,
এটা বলেই তনু রুমে চলে গেলো,শিশির ও গেলো,তনু তোয়ালে নিয়ে বারান্দায় গেলো,শিশির আড়চোখে দেখতে লাগলো তনু চুল মুছতেছে,,তনুর গায়ের মিষ্টি ঘ্রান টা আজ অনেক বেশি আসতেছে,শিশির আস্তে আস্তে তনুর দিকে এগোচ্ছে
শিশির যেন পাগল হয়ে যাবে,তনু চুল পিছন দিকে ফিরাতেই শিশির চুলের বারি খেলো,চোখ বন্ধ করে রাখলো
তনু-সরি সরি আমি খেয়াল করি নি,
শিশির চোখ বন্ধ রেখেই হেসে দিলো,
চলবে♥

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে