Crush যখন বর?part22/23/24

0
3442

Writer -Afnan Lara
Crush যখন বর?
#Part_22
চোখ খুলে ওর দিকে চেয়ে রইলাম,ও আমার দিকে চেয়ে রইলো,তারপর চলে যাওয়া ধরলো,আমি হাত ধরে ফেললাম,
তনু-কি?
শিশির -ওর মুখের সামনের চুল গুলো কানে গুজে দিলাম,
ওর কাছে যাচ্ছি,হ্যাঁ সজ্ঞেনে যাচ্ছি, ও পিছোচ্ছে,যেতে যেতে দেওয়ালের সাথে লেপটে গেলো
এক হাত ওর পাশে দেওয়ালে রেখে আরেক হাত দিয়ে ওর মুখ টা উঁচু করলাম,আমার প্রতিটা স্পর্শে ও অবাক হচ্ছে,
ওর মুখের কাছে মুখ নিয়ে প্রানভরে ওর গায়ের ঘ্রান নিলাম,বুঝতে পারলাম তনু শ্বাস -নিশ্বাস জোরে জোরে নিচ্ছে,কানের কাছে মুখ নিয়ে বললাম, ,,,,,, কি?ভয় লাগে?,,,আমি কিন্তু বেশি Romantic নাহ,,,,তবে বউকে আদর টা ভালো করে করবো,I promise ♥
তনু লজ্জায় মুখ নিচু করে ফেললো,
শিশির -ওর কানের মধ্যে কামড় বসিয়ে দিলাম,
তনু শিশিরের shirt চেপে ধরলো,শিশির তনুকে কোলে তুলে নিলো,
বিছানায় শুইয়ে দিলো,শিশির তনুর চুলের ভিতর হাত দিয়ে ওর ঠোঁটে কিস করতে গিয়েই মনে পরলো,,,
[নাতাশা-জান বলো তুমি আমাকে ছাড়া কাউকে কিস করবা না even কিচ্ছু করবা না,
শিশির-আচ্ছা জান,
নাতাশা-কথা দাও,তোমার মায়ের কসম,,,,
শিশির-মায়ের কসম আমি দি না,
নাতাশা -ওওও আমাকে লাভ করো না,
শিশির-আচ্ছা ওকে,,তুমি তো আমার বউ হবা]
শিশির থেমে গেলো,তনুকে ছেড়ে উঠে বারান্দায় চলে গেলো,
তনু চেয়ে রইলো,
তনু-জানি আমি,আমাকে ভালোবাসতে পারবেন না কখনও,শুধু শুধু ভালেবাসার লোভ দেখান,তনু খুব কাঁদলো বসে বসে,তারপর ঘুমিয়ে গেলো,
|
বিকালে উঠলাম,মাথা টা ধরছে,উফ,উঠতে গেলাম,
মাথাটা ঘুরে উঠলো, পড়ে যাওয়া ধরলাম শিশির এসে ধরে ফেললো
শিশির -কি হলো?
তনু-ঠিক হয়ে দাঁড়িয়ে উনার হাত টা সরিয়ে দিলাম,কিছু না,
আস্তে আস্তে হেঁটে রুম থেকে বেরিয়ে গেলাম,ভেজা চুলে ঘুমাইসি তখন তাই মনে হয় জ্বর আসছে,দূর্বল লাগতেছে,
বুয়াকে বলে চা এনে খাইলাম,উফ মাথা ব্যাথা কমতেছে না??
শিশির এসে পাশে বসলো
শিশির-কি হয়ছে??মাথায় হাত দিয়ে দেখি গায়ে জ্বরে পুড়ে যাচ্ছে,তুমি বসো আমি ঔষুধ আনতেছি
তনু-থাক,আমার খেয়াল রাখতে হবে না,আমি নিজেই নিজের খেয়াল রাখতে পারি,খায়সি আমি ঔষধ,
মা-কিরে তনু মা??কি হলে,আহারে মেয়েটার দুদিন পরই অসুখ হয়,?কার নজর লাগছে,
তনু-আরে মা এতো টেনশন নিও না তো,আসো বসো,
শিশির উঠে চলে গেলো,
শিশির নিজের রুমে গেলো,আজ নিজেকে শেষ করে দিতে ইচ্ছা করছে,নাতাশাকে দেওয়া একটা ওয়াদার ফল আজ তনু ভুগছে,কি করবো আমি?গ্লাস নিয়ে ভেঙে ফেললো,
তনু-শুধু শুধু জিনিস ভাঙেন কেন??আমি কারোর কাছ থেকে কোনো অধিকার চাই নি,সে আমাকে বিয়ে করেছে এটাতেই আমি ধন্য,মুখ চেয়েই বাকি জীবন কাটিয়ে দিতে পারবো,
সবাই তো সব পায় নাহ,
তনু এটা বলেই চলে যাওয়া ধরলো শিশির এসে তনুর হাত ধরে টেনে শক্ত করে জড়িয়ে ধরলো,কান্না করে দিলো,তনু আজ ধরলো না,সে শক্ত হয়ে দাঁড়িয়ে রইলো,
শিশির -আমাকে ক্ষমা করে দাও,আমি তোমার যোগ্য হতে পারিনি
তনু- দূরে চলে যাবো আমি,আর কষ্ট পেতে হবে না,
শিশির -কি বলছো এসব?
তনু-শিশিরকে সরিয়ে দিলাম,কিছু না,
এটা বলেই তনু চলে গেলো রুম থেকে,
|
রাত ৯টা
শিশির -এখনও আসতেছে না কেন??
আবার মীমের রুমে ঘুমাইলো না তো,
সোফার রুমের সামনে দিয়ে যাওয়ার সময় দেখলাম,সোফায় এলোমেলো হয়ে ঘুমিয়ে আছে,ওর তো জ্বর,ইস,এই ঠান্ডায় কিছু গায়ে দেয়নি,কোলে তুলে আমার রুমে নিয়ে এলাম,গায়ে এখনও জ্বর আছে,
|
পরেরদিন ♥
শিশির ঘুম থেকে উঠলাম,
তনু কই?
মা ও মা
মা-কি?
শিশির -তনু কই??
মা-জানি না,কেন রুমে নেই?
শিশির -না,কালকের কথা মনে পরলো,কোথাও চলে যায় নি তো,এখন ওরে কই খুঁজবো আমি,,ফ্লোরে বসে পরলাম,তনু??তনু????
কল আসলো,
নাতাশার মায়ের Number উনি এখন আমাকে কল দিলো কেন?
হ্যালো
নাতাশার মা-শিশির তাড়াতাড়ি চলে আসো,তোমার বউ আমার নাতাশারে মেরে ফেলবে,pls,
শিশির -কি মানে???আমার বউ,,,,তনু,ও আপনাদের বাসায় এলো কই থেকে???
নাতাশার মা-আরে আমরা নাতাশাকে mental hospital থেকে release করে ঢাকায় নিয়ে আসি,তনু কেমনে Address পাইসে জানি না,এখন নাতাশাকে রুমে নিয়ে দরজা বন্ধ করে ফেলছে,pls তাড়াতাড়ি আসো
শিশির -address দিন
|
শিশির ২০মিনিটে বাসায় গিয়ে পৌঁছালো,
দরজা খুলতেই পারছে না দেখে বাসার পিছন দিয়ে জানালার কাছে গিয়ে দেখলো???????
তনু নাতাশার চুলের মুঠি ধরে বলতেছে
তনু-ফকিন্নি মাইয়া?তোর মতন মেয়ে মরেও শান্তি দিবি না, আমার আগেই বোঝা উচিত ছিলো যে তুই কিছু একটা করছস,নাতাশার হাত মুচড়ে ধরলাম,কসম দিছস না?? আমার জামাইরে??তোর জন্য আমারে এখনও টাচ করতেও ভয় পায়,,কসম উঠায় নে,এখন,মন থেকে উঠা, নইলে আজ তোরে মেরে ফেলবো,
নাতাশা-কেউ বাঁচাও আমাকে
তনু-এই চুপ,কসম উঠা,কসম উঠা,
নাতাশা-ওকে ওকে,কসম উঠায় নিলাম,যা খুশি করো তোমারা যাও
তনু-যাও মানে কি?আমার জামাই আমারে আদর সোহাগ করবো তোর কথাতে???ফকিন্নি!!!মন থেকে উঠা নইলে চুল একটাও তোর মাথায় থাকবো না,
নাতাশা-হ্যাঁ ওকে মন থেকে উঠাইলাম,
তনু-smile
নাতাশা-???
তনু-হুম,
শিশির হা করে তাকিয়ে রইলো,এটা কি ছিলো????
তনু জানালার দিকে তাকাতেই শিশির কে দেখতে পেলো,
নাতাশা কে ছেড়ে বাসা থেকে বেরিয়ে গেলো,
শিশির পিছন পিছন গিয়ে হাত ধরে ফেললো,
তনু-?????
শিশির -তুমি এ ব্যাপারে জানলা কিভাবে?
চলবে?

Writer -Afnan Lara
Crush যখন বর?
#Part_23
তনু-হুহ
শিশির -আরে বলো না,
তনু-বাসায় যাবো ক্ষিধা লাগছে,
শিশির -ওকে,ওর হাত ধরে গাড়ী তে বসলাম
তনু-কই যাচ্ছেন?
শিশির -Restaurant
তনু-?ঢং
শিশির তনুকে নিয়ে বসালো,কি খাবা বলো,Waiter,,,!
তনু-হ্যাঁ ভাইয়া লিখুন,,,
*chicken fry
*chicken soup
*chicken rice
*chicken masala
*chicken kabab
শিশির-??
তনু-???কি??নাতাশা রে নিয়ে তো কত Restaurant এ গেসেন,কখনও আমাকে কিছু খাওয়াইছেন?হুহ
শিশির-আমি কি তোমাকে কিছু বলছি??
তনু-??,,ভাইয়া আর দুটো কফি দিবেন
শিশির-হ্যাঁ বলো এসব করলা কেমনে?
তনু-কমু না,খাবার আসুক,খামু,You তো shut up,বিয়ার আগে সব কুকাম কইরা রাখসে,আর কি করছেন ঐ নাতাশার লগে???কিস করেন নাই তো??
শিশির-আরে না ঐসবের দিকে যায় নি,
খাবার আসলো,তনু খায়তেই আছে,খায়তেই আছে,
শিশির বসে বসে তনুর খাওয়া দেখছে
তনু-খান আমি আপনার জন্য ও Order করসি,সকাল থেকে তো কিছু খান নাই মনে হয়
শিশির-?খাবো কিভাবে,হুট করে বাসা থেকে চলে আসছো,আমাকে বলো নাই কেন?
তনু-বললে আসতে দিতেন???আপনার তো নাতাশার জন্য আবার দরদ
শিশির-এই এতো খোঁচা মারো কেন?
তনু-তো কি করবো?বিয়ের আগে এতো কিছু করছেন কেন???হুহ
শিশির -আরে আমি কি জানতাম তুমি আমার বউ হবা?
তনু-হ্যাঁ মাথায় তো নাতাশা ঘুরতো
শিশির-????
খাওয়া শেষে,,
বাসায় আসতেছি দুজনে,শিশির গাড়ী চালাচ্ছে,
মা কল দিলো,
তনু-হ্যালো মা
মা-শোন আমি আর তোর বাবা তোদের রিনু আন্টির বাসায় আসছি,কাল যাবো,তোরা চিন্তা করিস না,
তনু-ওকে,
শিশির কি বললো মা?
তনু-রিনু আন্টির বাসায় গেছে,কাল আসবে
শিশির -ও
দুজনেই বাসায় আসলাম,,
শিশির তনুর হাত ধরে টেনে নিয়ে গেলো
তনু-হুহ পিরিত ?
শিশির রেগে গেলো,তনুকে দেওয়ালের সাথে ঠেকে ধরলো
শিশির-কি বললা???
তনু-আলগা পিরিত
শিশির-আর একবার বলো,
কথাটা একদম তনুর কাছে গিয়ে বললো,
তনুর শ্বাস নিশ্বাস বেড়ে গেলো,
তনু-সসসস
শিশির-বলো(কথাটা দুষ্টুমির সুরে বললো)
তনু-সত্যি বালুপাসা
শিশির-ও তাই নাকি?
তনু-হ
শিশির-তাহলে সত্যি ভালোবাসা দেখাই?
তনু-উহু,
শিশির -কেন?এতোদিন তো আমাকে পাগল করে দিতেছিলা
তনু-ছাড়ুন তো,আমার দম বন্ধ হয়ে আসতেছে,
শিশির-হাহা ছাড়ুম না,এমনি করেই কথা বলো
তনু-আচ্ছা, আপনি কি এখনও নাতাশাকে লাভ করেন?
শিশির-কথাটা শুনে তনুর হাত জোরে চেপে ধরলো,
তনু-আহহহহ!লাগতেছে,ছাড়ুন
শিশির-এটা কি বললা??তোমার কি মনে হয়?
তনু-মনে হয় ভালোবাসেন,
শিশির কথাটা শুনে ছেড়ে দিলো তনুকে,চলে গেলো রুম থেকে,
তনু-?
তনু freeze থেকে একটা চকোলেট নিলো,Catberry Bubbly????
শিশিরের কাছে গেলো,শিশির খাটে বসে বসে ল্যাপটপ দেখতেছে,
তনু শিশিরের পাশে বসলো,
চকোলেট টা নিয়ে খেতে লাগলো,
কিছুক্ষন পর
তনু-খাবেন?
শিশির তনুর দিকে তাকালো,সারা মুখে চকলেট লাগায় কেয়ামত করে ফেলছে,
শিশির হা করে তাকায় থাকলো,
তনু-কি?
শিশিরের নেশা এসে পরলো,সে ল্যাপটপ রেখে দিয়ে তনুর দিকে ফিরে বসলো,তনুর চুলের ভেতর হাত দিয়ে মুখ টা ধরে নিজের কাছে আনলো,,
তনু চোখ বড়বড় করে তাকিয়ে আছে,
শিশির জিহ্বা দিয়ে চেটে চেটে চকলেট গুলা খেতে লাগলো,তনু নড়াচড়া করতেছে তাও সরতে পারছে না, শিশির এক হাত দিয়ে ওর মাথা ধরে আছে আরেক হাত দিয়ে ওর হাত চেপে ধরে আছে,তনু যেন মরে যাবে,আসলে কি এটা বাস্তব নাকি সপ্নে দেখছে,তনু শিশিরকে চিমটি দিলো আরেক হাত দিয়ে,
শিশির-ব্যাথা পেলো কিন্তুু ছাড়লো না বরং চেপে ধরলো হাতটা
তনু-নাহ এটা দেখি সত্যি,
শিশির তনুর দিকে এগচ্ছে,এবার তনুর ঠোঁট স্পর্শ করলো হাত দিয়ে,
তনু চোখ বন্ধ করে আছে,
শিশির -তনু
তনু-হুম
শিশির -টাইম লাগবে?
তনু-হ্যাঁ, আজ আমার ভয় করছে,
শিশির-মুচকি হেসে দিয়ে তনুকে ছেড়ে দিয়ে ওর পাশে বসে পরলো,
শিশির-বোকা মেয়ে,আমাকে তো চিনো তুমি,তাহলে ভয় লাগে কেন?
তনু-না আসলে আপনি আমার কাছে আসলে আমার অন্যরকম লাগে,ভয় লাগে,ভালো ও লাগে
শিশির-এতোদিন তো নিজে থেকে কাছে আসতা,আজ যখন আমি কাছে যেতে নিলাম তখন উনার ভয় লাগে
তনু-??হুহ,,সরুন আমি ঘুমাবো,
শিশির-এখন??আমার জন্য রান্না করো যাও
তনু-???কি খাবেন?
শিশির -যা বানাবা
তনু-আচ্ছা
আজ তনু রাঁধবে?জীবনে ভাত আর আলু ভর্তা আর ডাল রান্না শিখেছে?মাংস রাঁধছিলো একবার এক পাতিল পানি সহ serve করসে,এগুলা তো আর শিশিরকে খাওয়ানো যাবে না,
Youtube দেখি পারি কিনা,
হ্যাঁ আমি মরিচ খেতে পারি না,এখন উনি কি ঝাল খান?
এই যে শুনুন
শিশির-জী বলুন
তনু-আপনি ঝাল কেমন খান?
শিশির-খাই ভালই খাই
তনু-ওকে
ঝাল দিলাম,বুয়া এদিকে আসো,Taste করে দেখো,
বুয়া-আপা আমি আজ রোজা রাখসি
তনু-ও,আচ্ছা আমি taste করে দেখি,এক চামচ নিলাম দেখতে মজা হয়ছে,খেলাম
চলবে?

Writer -Afnan Lara
Crush যখন বর?
#Part_24
আল্লাহ গো!!!!!!!!!!!!!
ঝাললললললল!!!!!
পানি পানি পানি,
বুয়া এসে পানি দিলো,
এক জগ খায়সি,ঝাল যাচ্ছে না???
শিশির তনুর চিৎকার শুনে রুম থেকে বেরিয়ে এলো,
শিশির -কি হয়সে?
বুয়া-আপা ঝাল খেয়ে ফেলছে,এখন ঝাল কমতেছে না,
তনু সারা বাড়ি দৌড়াচ্ছে ঝাল এ,
(অন্য গল্পের মতো এখন নায়ক নায়কা কে কিস করে ঝাল কমাবে না?কাহানি মে Twist হে)

শিশির চিনির Box এনে তনুর হাতে দিলো,
শিশির-নাও খাও ঝাল কমবে
তনু অগ্নি দৃষ্টিতে তাকালো শিশিরের দিকে,ওর কলার ধরে রুমে নিয়ে খাটে ধাক্কা দিয়ে ফেলে ওর উপরে উঠে গেলো
শিশির-আরে কি করছো
তনু-তোর দেখি Feelings -teelings কিছু নাই,বউ ঝালে মরে যাইতেছে আর তুই আমারে চিনি খাইতে দেস,তুই থাকতে আমি চিনি খাবো কেন??তনু কথা গুলো শিশিরের জামার কলার টানতে টানতে বললো
শিশির-আরে আমার জামা ছিড়ে যাবে তো
তনু-যাক
এটা বলেই হাত দিয়ে শিশিরের গাল ধরে ঠোঁটে ঠোঁট মিলিয়ে দিলো,শিশির চোখ বড়বড় করে তাকিয়ে আছে,
তনুর চোখ থেকে পানি পড়তেছে ঝালে,পানি গিয়ে শিশিরের মুখে পড়লো,
শিশির তনুকে আঁকড়ে ধরে ওকে বিছানায় শুইয়ে দিলো,এবার শিশির তনুর উপর,দুজন এখনও দুজনকে ছাড়ে নি,তনু তো শিশিরকে জোঁকের মতন ধরে আছে,,
১০মিনিট পর,শিশির ছাড়লো তনুকে,

দুজনে হাঁপাচ্ছে,,
শিশির তনুর দিকে তাকালো,তনুও তাকালো শিশিরের দিকে,দুজন দুজন কে দেখছে,
বুয়া-আপা আপা,
তনু-আসতেছি,
তনু মুচকি হেসে উঠে যাওয়া ধরলো শিশির আঁচল ধরে ফেললো
তনু-কি?
শিশির-আচ্ছা ঐ খাবার খেয়ে যদি আমার ঝাল লাগে?
তনু-চিনি খাওয়াবো,
শিশির-নাহ আমি তো মিষ্টি খাবো
তনু-দেখা যাবে,

এটা বলেই তনু চলে গেলো রান্না ঘরে,স্বাদ হয়ছে বাট ঝাল টা বেশি দিয়ে ফেলছি,আজ আর খাবো না নইলে মরেই যাবো ঝালে,
খাবার রেডি করে নিলাম,
এই যে শুনুন
শিশির-জী বলুন
তনু-খাবার রেডি
শিশির-ওকে
শিশির খেতে লাগলো
তনুর মুখ লাল হয়ে গেছে ভয়ে,কেমন হয়ছে কে জানে
শিশির তনুর দিকে তাকালো
শিশির-ওয়াও,অনেক মজা হয়ছে
তনু-ঝাল?
শিশির-আমি এমন ঝালই খাই,তুমিও খাও
তনু-না না না,মরে যাবো,অনেক ঝাল,
শিশির-তাহলে এই ঝাল দিয়ে মেরে ফেলি?
তনু-ঢং তখন তো চিনির box এনে দিছিলেন
শিশির-আমি কি জানি কিস করলে ঝাল যাবে?
তনু-হ্যাঁ ধোয়া তুলসি পাতা
শিশির -তাই না,

শিশির তনুর মাথা ধরে নিজের কাছে এনে যেই কিস করতে যাবে বুয়া এসে পরলো, ছেড়ে দিলো তনুকে,
খাওয়া শেষে শিশির গিয়ে বিছানায় শুতে গেলো,
অনেকক্ষন হলো,
শিশির-এখনও আসতেছে না কেন?
বাইরে এসে দেখি ওমা???
সোফায় পা তুলে বসে বসে আচার খাচ্ছে,
শিশির-একি
তনু-কি?
শিশির-এতো আচার খাইতেছো কেন?পেট ব্যাথা করবে তো,
তনু-আমার খিধা লাগছে,ঝাল খাবার গুলা তো আর খাইতে পারবো না
শিশির-তাই বলে আচার?বাবু হবে নাকি?
তনু-??এখনও তো কিছুই হইলো না,বাবু হবে কেমতে?
শিশির-?কি মেয়েরে বাবা,খাওয়া বাদ দাও,পেটে অসুখ হবে,
তনু-না খাবো,
শিশির এবার গিয়ে তনুর হাত থেকে আচারের Box টা নিয়ে নিলো,
তনু-আরে কি করছেন?
শিশির-কোলে তুলে আমার রুমে নিয়ে এলাম,
তনু-আরে আমার হাতে আচার লেগে আছে,হাত তো ধুতে দিন,
শিশির-উহু
ওরে খাটে নামিয়ে দিলাম,তনু হাত উপরে করে রাখসে,
শিশির তনুর হাত টা নিয়ে চেটে আচার খেতে লাগলো,
তনু -ছাড়ুন,কাতুকুতু লাগে,
শিশির নিজের মতন করে অনেক মজা করে খেতে লাগলো,
তনু খিলখিল করে হেসে দিলো,
তনুর হাসিতে শিশির যেন পাগল হয়ে যাবে,সে তনুর হাত ছেড়ে তনুর কাছে আসলো,
তনু নিজের আঙুল দিয়ে শিশিরের ঠোঁট মুছে দিলো,তেল লেগে ছিলো,
শিশির-Wanna kiss me?
তনু-Yeah
শিশির তনুর চুলের ভিতর হাত দিয়ে তনুকে ওর আরো কাছে নিয়ে এলো,তনু চোখ বন্ধ করে ফেললো,
শিশির এই প্রথম নিজের থেকে তনুকে কিস করতে যাচ্ছে
চলবে?
Next part kal peye jaben?

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে