Crush যখন বর?part 25/26/27

0
3360

Writer -Afnan Lara
Crush যখন বর?
#Part_25
শিশির তনুর খুব কাছে চলে আসলো,শিশির তনুর ঠোঁট স্পর্শ করলো,সাথে সাথে তনু শিশিরকে খাঁমছে ধরলো,
তনু কাঁপতেছে,তার Crush বরের থেকে পাওয়া ভালোবাসা,
তনুর ইচ্ছা ছিলো সে kiss করার সময় Normal থাকবে,
তা আর হয়লো কই,
আসলে অনেকদিন ধরে কিছুর জন্য প্রস্তুত থাকলে যেদিন দিনটা আসে সেদিনই গন্ডগল হয়ে বসে,
আজ তাই হলো,তনু শিশিরের হাত খাঁমছে দাগ করে ফেলছে,তার উপর শিশিরের চুল Maybe অর্ধেক ছিঁড়ে ফেলছে,শিশির পাগল হয়ে ওরে ছাড়ছে
শিশির-এই এমন করো কেন?
তনু-????sry
শিশির -এতোদিন তো নিজে থেকে ভালই কিস করসো,আজ এমন করো কেন?মাগো আমার চুল শেষ,আমি কি তোমাকে মেরে ফেলতাম?
তনু-??এ্যা???আমাকে আগে কোনো ছেলে কিস করে নাই আমি কি জানি???এ্যা??
শিশির-হয়ছে থামো,
বাচ্চা মেয়ে আবার বউ হয়ছে
তনু-আপনি বাচ্চা, আমি তো তাও কিস করাইছি জোর করে আর আপনি তো সেটাও পারেন নি,
শিশির-এখন তো করসি,তাও আমার চুল ছিঁড়ে ফেলছো
তনু-সরি??
মায়ের কল আসলো
শিশির-হ্যাঁ মা
মা-তোরা কাল সকালে রিনু আন্টির বাসায় চলে আসিস
শিশির -কেন?
মা-আবিরের বিয়ে,কাল গায়ে হলুদ
শিশির-ওয়াও কবে ঠিক হলো,
মা-আসিস বলবো,তনুরে ফোন দে
তনু-হ্যাঁ মা
মা-শোন মা হলুদ শাড়ী পরে আসবি,আর শিশিরকেও হলুদ পরাবি,ও হলুদ পরতে চায় না,জোর করে পরাইস
তনু-আচ্ছা
শিশির -কি বললো?
তনু-হলুদ
শিশির-এই আমি পরবো না,আমি ঐ কালার hate করি,
তনু-আপনি পরবেন,নাহলে আমি পরায় দিবো
শিশির-??
|
রাতে?
শিশির কাজ সেরে রুম থেকে বেরলো,তনু কই?
নাহ বাসায় তো নাই,ছাদে গেসে মনে হয়,
ছাদে গেলাম, গিয়ে দেখি দাঁড়িয়ে তারা দেখতেছে,
পাশে দাঁড়ালাম,তনু এখন শিশিরের দিকে তাকালো,
শিশির -হঠাৎ ছাদে আসলা?
তনু-এমনি রাতের আকাশ দেখার ইচ্ছা হলো,
শিশির তনুর খোঁপা থেকে খুলে দিলো,
তনু অবাক হয়ে শিশিরের দিকে তাকালো
শিশির -বাতাসে খোলা চুল উড়তে দেখলে ভালো লাগে
তনু চুল দিয়ে একটা বারি দিলো শিশিরের মুখে, শিশির চোখ বন্ধ করে ফেললো,
তনু মুচকি হেসে এক দৌড় দিলো,শিশির পিছন পিছন দৌড়াতে লাগলো,
তনু শিশিরের দিকে তাকিয়ে দৌড়াচ্ছে,হঠাৎ slip খেয়ে পড়ে যাওয়া ধরলো ছাদ থেকে,শিশির এক টান দিয়ে তনুকে নিজের বুকে নিয়ে এলো,
তনু খুব ভয় পেয়েছে,ভয়ে শিশিরকে জড়িয়ে ধরলো
শিশির-পাগলী এতো ভয় পাও কেন,আর অন্ধকারে কেউ এমন দৌড়ায়?আর একটুর জন্য আমি তোমাকে হারিয়ে ফেলতাম,
তনু-আচ্ছা একটা কথা বলি?
শিশির-বলেন
তনু-আমাকে ভালোবাসেন?
শিশির বলতে গিয়েও পারলো না,কেন পারলো না,সে নিজেও জানে না,চুপ হয়ে রইলো,
তনু শিশিরের বুকে মুখ লুকালো,
শিশির অবাক হয়ে তাকিয়ে রইলো,
শিশির-রাগ করবা না?
তনু-৪বছর ধরে রাগ করসি Mr,Sisir রাগ ভাঙায় নি কখনও,তাই রাগ করবো না,
শিশির-তাই বুঝি?
তনু-হুহ,লাগবো না বলার,
শিশির চুপ হয়ে রইলো,কি জানি কেন সে বলতে পারছে না যে সেও তনুকে ভালোবাসে,
তনুর চুল উড়ে উড়ে শিশিরের মুখে পড়ছে,শিশির তনুকে জড়িয়ে ধরে চোখ বন্ধ করলো,
শিশির খেয়াল করলো তনু ঘুমিয়ে গেসে,দাঁড়িয়ে থেকেও কেউ ঘুমাতে পারে?শিশিরের তা জানা নেই,
শিশির হেসে দিলো তনু পাগলামি গুলা মনে করে,
তনুকে কোলে তুলে বাসায় চলে আসলো,

পরেরদিন
তনু -উফ কোনটা পরবো?ধুর
এই যে শুনুন
শিশির-জী বলুন
তনু-কোনটা পরতাম?
শিশির-তোমার যেটা ভালো লাগে
তনু-?Choose করে দেন
শিশির-নেট টা পরো
তনু-ওকে☺
শিশির-নানানা
তনু-কি?
শিশির-নেট টা তে পেট দেখা যাবে,অন্যটা পরো,
তনু-?পেট দেখা গেলে কি?
শিশির-কি মানে?যেটা বলসি করো,
তনু-হুহ,
একটা জরজেট শাড়ী পরলাম,হলুদ কালার,লাল পার,
চুল ছেড়ে দিলাম,
আর উনাকে জোর করে হলুদ পাঞ্জাবি পরালাম,
শিশির হাতে ঘড়ি পরে পরতে তনুর কাছে এসে তনুকে দেখে Hang হয়ে গেলো,
তনু-কি?
শিশির-আআআ??
তনু-কি?
শিশির-আচ্ছা চলো দেরি হয়ে যাবে
তনু-ওকে
দুজনেই Wedding center গিয়ে পৌঁছালাম,
মা এসে আমাদের দুজনকে নিয়ে গেলো,
শিশির-কিরে ভাই তুই দেখি অনেক বড় হইয়া গেছস,, বউ কেমন??
আবির- ভালই
তনু সবাইকে সালাম দিতেছে,আর কানায় কানায় তার Crush বরকে দেখছে,
শিশির ও দেখতেছে তার অপ্সরীকে,
আবির-ভাইয়া Meet My best friend সিয়াম,
শিশির সিয়াম কে দেখেই shock খেলো,
শিশির-হাই?
সিয়াব-হাই,তা তনু কেমন আছে?
আবির-তোমরা দুজন দুজনকে চিনো?
সিয়াম-তো চিনি না?আমি তনুর আত্নীয়,
শিশির-উনি তনুর চাচাতো ভাইয়া,
সিয়াম-??.তা তনু কই?
শিশির-আছে,
সিয়াম-ডাকো দেখি,
আবির-হ্যাঁ ভাই আমিও দেখবো ভাবিকে
শিশির-তনু!
তনু-আসতেছি,
তনু আসলো,এসেই সিয়াম কে দেখে ভয়ে ওর মুখ কালো হয়ে গেলো,
সিয়াম-তনু ভালো আছো?
তনু-জী,
সিয়াম তনুর পা থেকে মাথা পর্যন্ত দেখতেছে,তনুর কাছে নজর টা খারাপ লাগলো,
চলবে?.

Writer -Afnan Lara
Crush যখন বর?
#Part_26
শিশির বুঝতে পারলো,
শিশির-তনু যাও আম্মুর কাছে যাও
তনু-আচ্ছা
আবির-কিরে ভাই তোর হাতে কি হয়সে,বিলাই আঁচড় দিসে নাকি??
শিশির-????
আবির-বাহ আমাগো হিজলা Bro ভাবীরে লাগে ভালই সুখে রাখসে
শিশির-হারামি,চুপ থাক,
আবির-আমরা আমরাই তো
ঐদিকে সিয়াম ফুলতেছে,তার মানে তনু আর শিশিরের সব ঠিক?না এটা হতে পারে না,
সিয়াম ওখান থেকে চলে গেলো,হল এ আসলো,
তনু সবার সাথে কথা বলতেছে,
সিয়াম-তনু
তনু-জী ভাইয়া বলেন
সিয়াম-শিশির তোমাকে ডাকে
তনু-আমাকে?
শিশিরের মা-যা মা হয়তো কোনো দরকার
তনু-ওকে,
তনু হল থেকে বের হতেই সিয়াম তনুকে টান দিয়ে হলের পিছনের সাইডে নিয়ে এলো,
তনু-ভাইয়াাা!কি করতেছেন,আমার হাত ছাড়ুন,
তনু শিশির বলে চিৎকার দিতেই সিয়াম মুখ চেপে ধরলো,
সিয়াম-চুপ একদম চুপ,
তনু-????
সিয়াম-খুৃব সুখে রাখছে না শিশির তোকে?
তনু হাত দিয়ে ধাক্কানোর চেষ্টা করছে পারতেছে না,
সিয়াম-আমিও সুখে রাখতে পারতাম,আরও বেশি সুখে,তা হতে দিলি না,সিয়াম তনুকে এবার আলতো করে ধরলো,
সিয়াম-I love you baby,বিশ্বাস করো,আমি তোমায় সুখে রাখবো
তনু সিয়ামকে জোরে ধাক্কা দিয়ে ফেলে দিলো,তনু দৌড়াতে লাগলো,সিয়াম উঠেই তনুর শাড়ীর আঁচল ধরে ফেললো,
সিয়াম-আজ যেতে দিবো না,
তনু চিৎকার করতেছে,সিয়াম তনুর শাড়ী টানতেছে,,
হলের পিছনের সাইড আর হলে জোরে গান বাজনা চলতেছে তাই তনুর চিৎকার কেউ শুনতে পেলো না
সিয়াম তনুকে ধাক্কা দিয়ে নিচে ফেলে দিয়ে ওর দিকে এগোতে লাগলো,
শিশির -তনু কই?আর সিয়াম কেও তো দেখছি না,আমার তনু ঠিক আছে তো?
শিশির হলের দিকে গেলো,
শিশির-মা তনু কই?
মা-তনু?তুই তো মাত্র তনুকে ডাকলি
শিশির-আমি?কই কখন?
মা-ঐ যে তনুর চাচাতো ভাই,ও আসি বললো তুই তনুকে ডেকেছস,
শিশির-বুঝছি,
শিশির তনুকে খুঁজতে লাগলো,
সিয়াম তনুর গাল ধরে নিজের কাছে আনলো,তনু তখনই সিয়ামের হাতে কামড় বসিয়ে দিলো,
সিয়াম চিৎকার দিয়ে উঠলো,
তনুুু কামড় টা জোরে দিসিলো,
তনু উঠে দৌড় মারলো,
সিয়াম বসে নেই,সেও পিছন পিছন গেলো
তনু গিয়ে করিডোরের সামনে এলো,এটা পার হলেই হল রুম,তনু যেই পা বারালো সিয়াম পিছন থেকে হাত ধরে সাইডের রুমে নিয়ে তনুকে ফ্লোরে ছুঁড়ে মারলো,
সিয়াম -এখন আমি কিছু করতে পারবো না, যদি তুমি সজ্ঞেনে থাকো,সিয়াম একটা ফুলের টব নিলো,
তনু চিৎকার দিতে লাগলো,
শিশির- তনুর আওয়াজ না?
শিশির করিডোরের ওখানেই ছিলো,দৌড়ে আসতে লাগলো,সিয়াম টব নিয়ে তনুর মাথায় জোরে আঘাত করলো,তনু Last বার চিৎকার দিলো,???Sisu????
শিশির রুমের সামনে এসে থমকে গেলো,ওর পা চলছে না,
সিয়াম তনুর কাছে গেলো,হাসতে লাগলো,তনুর হাত ধরলো
সিয়াম-কিছু হবে না,আমি এখন তোমাকে হসপিটাল নিয়ে সুস্থ করে আমি তোমায় বিয়ে করে ফেলবো আর ঐ শিশির টের ও পাবে না,
শিশির দরজা ধাক্কাতে গিয়ে দেখলো,দরজা খোলা,দরজা খুলেই দেখলো তনু নিচে পড়ে আছে,সিয়াম ওর হাত ধরে আছে,
শিশির গিয়েই সিয়ামকে ধাক্কা মেরে সরিয়ে দিলো,
শিশির-তনু,তনু,তাকাও আমার দিকে,শিশির তনুর হাত ধরলো,তনুর হাত টা নিচে পড়ে গেলো,শিশির চিৎকার দিলো,তনু!সবাই চলে আসলো,সিয়াম ততক্ষনে পালিয়ে গেছে,
শিশির কাঁদতে কাঁদতে তনুকে কোলে তুলে নিলো, কোলে করে এনে গাড়ীতে বসলো,
আবির-ভাই আমি drive করতেছি,
শিশির তনুর দিকে চেয়ে রইলো,
শিশির -আমার ভুলের জন্য আজ তোমার এই অবস্থা,তনুর মাথা থেকে রক্ত বের হচ্ছে,শিশিরকে সবাই বলেছে ক্ষত জায়গায় চেপে ধরে রাখতে,শিশির চেপে ধরে রাখছে কিন্তু ওর যেন জানটা বের হয়ে যাচ্ছে,
হসপিটালে আনা হলো,তনুকে ICU তে নেওয়া হলো,
শিশির পাগলের মতন কাঁদতেছে,
মা-কাঁদিস না সব ঠিক হয়ে যাবে,
শিশির মাথায় হাত দিয়ে নিচে বসে পরলো,ওর গায়ের পাঞ্জাবি টা হলুদ থেকে লাল হয়ে গেছে,
Doctor -A+ রক্ত লাগবে
শিশির-আমার A+
Doctor -আসুন,
শিশির তনুর দিকে তাকালো,
doctor -টেনশন নিয়েন না,ঠিক হয়ে যাবে,,,আপনারা ঠিক টাইমেই নিয়ে এসেছেন,

বিকালে
তনু চোখ খুলেই শিশিরকে খুঁজতে লাগলো,
তনু-Sisu কই?
শিশির এসেই তনুকে জড়িয়ে ধরলো,
তনু শিশিরকে ধরে কেঁদে দিলো,
চলবে♥

Writer -Afnan Lara
Crush যখন বর?
#Part_27
তনু কাঁদতে কাঁদতে বললো,আমি আপনাকে অনেক বার ডেকেছি??আমি বুঝিনি সিয়াম ভাইয়া এমন করবে
তনু কাঁদতে কাঁদতে শিশিরের কাঁধে মাথা রাখলো, জড়িয়ে ধরা অবস্থায়
শিশির-সরি,আমার দোষ,আমি তোমাকে কেন একা ছাড়লাম,শিশির তনুর কপালে চুমু দিলো,তনুর চোখের পানি মুছে দিলো,
শিশির-কেঁদো না,সব ঠিক আছে,ঠিক হয়ে যাবে,আমরা আজই বাসায় চলে যাবো,
তনু আবার কেঁদে দিলো,
শিশির শক্ত করে জড়িয়ে ধরলো তনুকে,তনু যেন প্রশান্তি পেলো,,
মা আসায় শিশির তনুকে ছেড়ে দিলো,
মা-কিরে মা,কেমন লাগছে এখন?
তনু-ভালো
মা-এতো কাঁদস কেন?কিছু হয়নি,সব ঠিক আছে,
তনু-?
শিশির ডাক্তারকে বলে তনুকে আর মা বাবাকে নিয়ে বাড়ি ফিরলো,
তনু রুমে ঘুমাচ্ছে,
তনুর সেই আগের ঘটনা আবার মনে পড়ে গেলো,চিৎকার দিয়ে উঠে গেলো,
শিশির-কি হয়ছে?তনু ঠিক আছো,
তনু শিশিরকে দেখে বুঝতে পারলো সেটা স্বপ্ন ছিলো,
তনু-কিছু না,
শিশির-আসো ঘুমাও, তোমার ঘুমের প্রয়োজন
শিশির তনুর মাথায় হাত বুলাতে বুলাতে ওকে ঘুম পারিয়ে দিলো,তনু শিশিরের বুকে ঘুমিয়ে গেলো,

পরেরদিন সকালে,
শিশির তনুর আগে উঠলো ঘুম থেকে,উঠেই দেখলো তনু শিশিরের বুকে এখনও,
শক্ত করে shirt ধরে আছে,
শিশির আলতে করে হাতটা ছুটালো,তারপর ওকে শুইয়ে দিয়ে উঠে গেলো,
শিশির তৈরি হলো না,আজ তনুকে নিয়ে বিয়ে বাড়িতে যাবো না ওর আগের কথা গুলো মনে পড়ে ক্ষতি হয়ে যাবে,আর আমি নিজেও যাবো না তনুকে একা রেখে,
মা-শিশির তুই আজ যাস না,তনুর কাছে থাক,এক কাজ করি আমিও যাবো না,তোর বাবা যাক,গিয়ে বিয়ে দেখে আসুক,
শিশির -না তুমি না গেলে আন্টি রাগ করবে,তোমরা যাও আমি আছি তনুর সাথে,
মা-আচ্ছা,,
তনু উঠলো,
উফ মাথাটা ধরছে?উনি কই?খাট থেকে নামলাম,বারান্দায় বসে আছে,
আরে আজ তো আবির ভাইয়ের বিয়ে,
শুনুন
শিশির আমাকে দেখে চমকে উঠলো,
শিশির-আরে উঠলা কেন?
তনু-আপনারা বিয়ে বাড়িতে যান নাই?আপনি যান নাই?
শিশির-আম্মু আব্বু গেসে,আমি যায় নি,
তনু-কেন?আপনি যান,বুয়া আছে তো
শিশির-না আমি তোমাকে ছেড়ে যাবো না,
শিশিরের ফোন আসলো,,
হ্যালো আবির
আবির-ভাই এটা কি তুই আমার বিয়েতে আসবি না?এটা কিন্তুু ঠিক হচ্ছে না,
শিশির-জানস তো তোর ভাবীর অবস্থা কেমন,ওরে রেখে আমি আসি কিভাবে?
আবির-তুই ভাবীকে নিয়ে আয়,আমি গার্ড রাখসি,ওরা তোদের আশেপাশেই থাকবে,তুই আয় নইলে বিয়া করুম না,ফোন কেটে গেলো
তনু-চলুন যাই
শিশির তনুর দিকে তাকালো,
দুজনে রেডি হয়ে নিলো,,
তনু একটা লাল শাড়ী পরলো,,Half Silk এর,শিশির লাল পাঞ্জাবি পরলো,,তনু রেডি হয়ে আয়নার সামনে দাঁড়িয়ে রইলো,,
শিশির এসে দেখলো তনু আয়নার দিকে তাকিয়ে আছে,গম্ভীর হয়ে
শিশির তনুর পিছনে দাঁড়িয়ে জড়িয়ে ধরলো,
তনু আয়নায় শিশিরের দিকে তাকালো,
শিশির-কি হয়ছে?মন খারাপ?
তনু-নাহ
শিশির -তাহলে?
এটা বলেই তনুর ঘাড়ে চুমু দিলো,
তনু চোখ বন্ধ করে ফেলছে,
শিশির তনুকে নিজের দিকে ফিরালো,
শিশির-কিছু বলবা?
তনু-না,চলুন যাই
শিশির -ওকে,,
গাড়ীতে তনু আর কোনো কথা বলেনি,চুপচাপ ছিলো,
ওরা বিয়ে বাড়ি গিয়ে পৌঁছালো,
আবির খুশিতে শিশিরকে জড়িয়ে ধরলো,
আবির-Thanks ভাই,ভাবী এখন কেমন আছেন?
তনু-হুম ভালো,
শিশির সারাদিনে খেয়াল করলো তনুর মন খারাপ,হয়তো কালকের ব্যাপারে,
বাসায় চলে আসলো দুজনে,মা বাবাকে রিনা আন্টি আসতে দিলো না,
তনু গিয়ে চুপচাপ বারান্দায় চলে গেলো,
শিশির-কি হয়ছে??মন খারাপ কেন?সারাদিনে আমার অপ্সরীর মুখে সেই উজ্জ্বল হাসিটা দেখি নি,
তনু-এমনি,
তনু বারান্দা থেকে উঠে চলে এলো,
শিশির laptop নিয়ে বারান্দায় বসে পরলো,
তনু আলমারী খুললো,শাড়ী change করতে হবে,
নিজের শাড়ী খুঁজতে খুঁজতে তনুর চোখ চলে গেলো শিশিরের কালো shirt টার দিকে,
ছোটবেলা থেকে তনুর ইচ্ছা ছিলো সে বিয়ের পর বরের shirt পরবে,
তনু shirt টা নিলো,উঁকি মেরে দেখলো শিশির কই,হুম কাজে বিজি,আমি গিয়ে পরে দেখে আবার রেখে দিবো,
তনু চুপচাপ বাথরুমে গিয়ে shirt টা পরলো,
তনু-ধুর, বাথরুমের আয়না তো ছোট আমার নিচের দিক দেখাই যাচ্ছে না?
দরজা টা হালকা ফাঁক করে দেখলাম উনি এখনও বারান্দায়,আমি পা টিপেটিপে বের হয়ে আয়নার সামনে দাঁড়ালাম,বাহ perfect! কি জোস লাগতেছে আমাকে,
মডেলিং এ নাম দিলে এতোদিনে কতকিছু হয়ে যেতাম,
shirt টা লম্বা আমার হাঁটু পর্যন্ত,থাক আমার ইচ্ছা পুরুন হয়েছে,এবার যাই change করে আসি,পিছনে ফিরে পা বারাতেই শিশিরকে দেখে একটা shock খাইলাম
তনু-আআআপপপনি?
শিশির-বাহ আমার shirt পরে ভালই মডেলিং হচ্ছে,
তনু-?????
তনু তাড়াতাড়ি করে একটা ওড়না এনে লুঙীর মতো পেঁচিয়ে হাঁটু ঢেকে ফেললো,
শিশির-ওমা আমি হাঁটু দেখলে কি হবে?
তনু-কিছু না,আমি যাই change করে আসি,
তনু চলে যাওয়ার সময় শিশির হাত ধরে ফেললো,
শিশির-আমি করে দি,
তনু-কি?
শিশির -Change
তনু-নাহ আমি পারবো,
শিশির মুচকি হেসে একটান দিয়ে নিজের কাছে নিয়ে এলো,
চলবে♥

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে