Crush যখন বর?43/44/45

0
2999

Writer -Afnan Lara
Crush যখন বর?
#Part_43
সারাদিন ধরে দুজনে মিলে ঘুরলো,,
শিশির -আমি শেষ,হাঁটতে হাঁটতে
তনু-আমিও?
হোটেলে এসেই শিশির শুয়ে পরলো,
তনু change করতে গেলো,
বের হয়ে ফোন নিয়ে মাকে ফোন করলো,
তনু-মা ভালো আছো??
মা-তোদের ছাড়া ভালো লাগে না,
তনু-হুম চলে আসবো তাড়াতাড়ি,
মা-শিশির কই?
তনু-ঘুমাচ্ছে
মা-আচ্ছা,,
তনু গিয়ে বারান্দাতে দাঁড়ালো,,ভালো লাগছে,হঠাৎ তনু খেয়াল করলো ওর দিকে কেউ তাকিয়ে আছে,বাম সাইডে তাকাতেই দেখলো পাশের রুমের বারান্দাতে কেউ দাঁড়িয়ে আছে তনুর দিকে তাকিয়ে,কান টুপি দেওয়ায় মুখ টা ভালো করে দেখা যাচ্ছে না,তনুর ভয় লাগলো,
তনু সরে গেলো,গিয়ে শিশিরের পাশে বসলো,
তনু-এ্যাই
শিশির -হুমমমমমম
তনু-আমার ভয় করছে
শিশির-কেন?
তনু-আমার কেন জানি মনে হচ্ছে কেউ আমদের ফলো করতেছে,
শিশির-কে ফলো করবে,??
ভয় পেও না তো,শিশির তনুকে টান দিয়ে বিছানায় নিয়ে আনলো,
শিশির-আসো ভয় দূর করে দিই
শিশির তনুর গায়ের জামাটা খুলে ফেললো,তনুর সেদিকে খেয়াল নেই,ওর ঐ লোকটার কথা মনে পড়ছে,কেমন করে তাকিয়ে ছিলো,তন্ময় নাতো?নাহ ও হবে কেন?ও তো জেলে, তাহলে কে??
শিশির আলতো করে তনুর গলায় কামড় দিলো, তনুর হুস আসলো,
তনু-কে!!!!?
শিশির-কে?তোমার জামাই,
তনু-ওহ!একি!!!আমার গায়ের জামা?
শিশির-নিচে ফেলে দিসি,এখন খেয়াল করলা????
তনু-শুনুন না আমার ভয় করছে,আমরা চলুন বাসায় চলে যাই,আমার এখানে ভ,,,,য়
শিশির আর কইতে দিলো না মুখ চেপে ধরেছে,
শিশির-shhhhhhh,চুপ,কোনো কথা না,
শিশির আস্তে আস্তে তনুর সারা গায়ে চুমু খেতে লাগলো,
তনু শিউরিয়ে উঠতে লাগলো,কথা যে বলবে তাও উপায় নাই,শিশির মুখ চেপে ধরে আছে,
শিশির তনুর দুহাত চেপে ধরে তনুকে কিস করতে লাগলো,
তনু চোখ বন্ধ করে ফেলেছে,
তনু কিছুক্ষন পর চোখ খুলে বাইরের দিকে তাকিয়ে দেখতে লাগলো,
শিশির নিজের মতন করে তার মায়াবতীকে আদর করছে,
তনু শিশিরকে জড়িয়ে ধরে শিউরিয়ে উঠছে শিশিরের প্রতিটা স্পর্শে
হঠাৎ তনু খেয়াল করলো পর্দার আড়ালে কারোর ছায়া,তনু শিশিরকে খাঁমছে ধরে ইশারা করলো,
শিশির তাকিয়ে ছায়াটা দেখতে পেলো,উঠে গেলো দেখতে,
তনু চাদর টেনে নিয়ে নিজেকে ঢেকে ফেললো,
শিশির-কে??কে ওখানে?
লোকটা চলে গেলো,শিশির পর্দা সরিয়ে কাওকে দেখলো না,শিশির রুমে এসে গ্লাস লক করে পর্দা টেনে দিলো,
তনুর ভয়ে গলা শুকিয়ে গেছে,
শিশির-এই নেন পানি,
তনু পানি নিয়ে খেয়ে নিলো,
শিশির-ভয় পেও নাতো,কিচ্ছু হবে না,
তনুর ফোনে মেসেজ আসলো,তনু ফোন চেক করেই চিৎকার দিয়ে উঠলো,
শিশির-কি হয়সে,
শিশির ফোন হাতে নিয়ে দেখলো ওর ফোনে unknown number থেকে একটা গলা কাটা মানুষের ছবি পাঠিয়েছে,,তনু ভয়ে কাঁপছে,শিশির তনুকে জড়িয়ে ধরে ফোন সরিয়ে ফেললো,
শিশির তনুকে নিজের দিকে ফিরিয়ে ঠোঁটে চুমু খেলো,মূলত এখন তনুর থেকে এই ভয় দূর করা উচিত,শিশির সেটাই করছে,
শিশির তনুর ঘাড়ে তাকিয়ে দেখলো দাগ হয়ে গেছে চুমুর,
শিশির মুচকি হাসলো,
তনু -কি??
শিশির-ভালোবাসার দাগ বসে গেছে আপনার কাঁধে,
তনু-ইস?????
শিশির আদরে ভরিয়ে দিলো তনুকে,তনু ঐ ছায়ার কথা ভুলে গেছে, শিশির ভুলিয়ে দিয়েছে,অনেকক্ষন পর তনু হাঁপিয়ে উঠলো, শিশির ও,দুজনে হাঁপাচ্ছে,তনু খিলখিল করে হেসে দিলো,
শিশির -এই হাসিতে পাগল করিও না আমাকে
তনু-হাসছি কেন কালকেই দেখিয়েন,
তনু শিশিরের বুকে মুখ গুজে ঘুমিয়ে পরলো,,
পরেরদিন সকালে♥
দরজা নক করার শব্দে তনুর ঘুম ভাঙলো,তনু শিশিরকে উঠালো
তনু-এ্যাই,উঠেন কে জানি দরজা নক করছে,আমার গায়ে কিছু নাই,এ্যাই
শিশির -উম,কালকে ঠিকমতো ঘুমাই নাই,আরেকটু ঘুমাই,
তনু-উঠেন না
শিশির উঠলো,তনু চাদর পেঁচিয়ে বাথরুমে চলে গেলো,শিশির গিয়ে দরজা খুললে,waiter আসছে Breakfast নিয়ে,
শিশির-কি ভাই??কাপলদের Disturb করেন কেন?
Waiter -সরি স্যার,এই নিন,
শিশির খাবার নিয়ে দরজা আটকালো,
তনু জামা পরে বেরিয়ে এলো,
শিশির-Fresh হয়ে খেয়ে নাও,
তনু-হুম,
শিশির fresh হয়ে towel পরে আয়নার সামনে এসে hang হয়ে গেলো,তনু একটা জায়গাও খালি রাখে নাই,সবখানে দাগ বসিয়ে দিসে,শিশির তনুর দিকে তাকাতেই তনু এক দৌড়ে বাথরুমে গিয়ে দরজা লক করে ফেললো,
শিশির-বের তো হতেই হবে,তোমার কপালে দুঃখ আছে তনুর বাইচ্ছা,
তনু-না বের হমু না
শিশির-দেখি কতক্ষন থাকেন বাথরুমে,
চলবে♥

Writer -Afnan Lara
Crush যখন বর?
#Part_44
তনু -?বউ হিসাবে একটু একটু দুষ্টুমি করতেই পারি
শিশির-হ্যাঁ আমি তো আর মানা করি নাই,তো বের হন, দুষ্টুমির পুরস্কার দিবো
তনু-না, প্লিস,???লাগবে না আমার পুরস্কার ?
শিশির আস্তে করে সাইডে গিয়ে দেওয়ালে হেলান দিয়ে দাঁড়িয়ে রইলো,
তনু কোনো আওয়াজ না পেয়ে একটু দরজা খুলে উঁকি মেরে দেখলো না শিশির মনে হয় চলে গেছে,
তনু পা বারনোর সাথে সাথে শিশির এসে ঝাঁপটে ধরলো,
তনু-????
শিশির-????
শিশির তনুকে দেওয়ালের সাথে শক্ত করে চেপে ধরলো,
তনু-????
শিশির-আমার চাইতেও বেশি চালাক না তুমি
তনু-আমি কি তা বলছি,তনু এটা বলেই শিশিরের দিকে তাকিয়ে আবার হেসে দিলো????????
শিশির-??
শিশির তনু গালে কামড় বসাতে গেলো,কিন্তু দিলো না,আজকে ঘুরতে যাবে, এই দাগ নিয়ে বের হতো পারবে না,শিশির ওর গাল থেকে মুখ সরিয়ে গলায় কামড় দিলো,
তারপর ঠোঁটে??????
তনু শক্ত করে ধরে আছে শিশিরকে,
শিশির থামলো,থেমে তনুর দিকে তাকালো,
তনু-?
শিশির-চলো ঘুরতে যাই
তনু-কই যাবেন??
শিশির-হিমচড়ি,,
তনু-?ওকে
তনু লং থ্রি পিস পরে নিলো,পিংক কালার,,
শিশির T-Shirt পরলো,
দুজনে হোটেল থেকে বেরিয়ে গিয়ে রোডে আসলো,
ইরা-Mis tonu
তনু-উফ!এটা আবার এইদিকে আসছে কেন?
ইরা-কই যাচ্ছেন?
তনু-এইতো এমনি এদিকে যাবো,
ইরা-ওও
তনু শিশিরের হাত ধরে হাঁটা শুরু করলো,
তনু-এখন যদি বলি হিমচড়ি যাবো আমাদের সাথে যাওয়ার জন্য পাগল হয়ে যাবে
শিশির-হুম
একটু হেঁটে বাস নিলো,
তনু শিশিরকে ঝাঁপটে ধরে পিক তুলতেই আছে,
শিশির-???
তনু-ঐ পিক আপ দিয়ে ট্যাগ না করলে কিলাই দাঁত ভেঙে দিবো
শিশির-জী ট্যাগ করবো
তনু শিশিরের গাল ধরে চুমু দিয়ে দিলো,উম্মাহ!?
শিশির-আরে লোকে দেখছে,
তনু-তো কি হয়ছে???কিস তো করি নাই,?
হিমচড়িতে আসি পৌঁছালো,
শিশির-মাগো মা আর পারবো না এতো উপরে উঠতে,
তনু-উপরে উঠে গেছে
তনু-আহারে আমার জামাইটা,
শিশির -????
তনু-?
শিশির অনেক কষ্টে উপরে উঠে শিড়িতে বসে পরলো,
তনু -এই শুনো না
শিশির-?কি
তনু-তেঁতুল খাবে ঐ যে ঐ লোকটা বিক্রি করতেছে
শিশির-আচ্ছা দাঁড়াও আনতেছি,,
শিশির তেঁতুল এনে দিলো, তনু হাতে নিয়েই খাওয়া শুরু করলো,
ঐদিকে আজ সেই ছায়া মানে ঐ লোকটিও এসেছে,সে সুযোগ খুঁজচ্ছে,,
শিশির আর তনু উপরে উঠে চারিদিক দেখছে,
শিশির তনুর খুশি দেখে তনুকে পিছন থেকে জড়িয়ে ধরলো,
তনু মুচকি হাসলো,,
একজন photographer পিক টা সাথে সাথে তুলে ফেললো,
উনি এসে পিকটা শিশিরের হাতে দিলো,
উনি-নাইস কাপল,পিকটা সুন্দর আসছে তাই তুলে ফেললাম,এই নিন
তনু-?ইস আমি কেমন দাঁত বের করে হেসে আছি??
শিশির-ওয়াও অনেক সুন্দর হয়সে,
শিশির লোকটার সাথে কথা বলতে লাগলো,তনু আরেক দিকে তাকিয়ে দেখলো সমুদ্র দেখা যাচ্ছে তনু সেদিকে দেখতে গেলো,জায়গাটা ঢালু হওয়ায়,তনু বেশি কোনে গেলো না,,কিন্তু ছোটবেলা থেকেই তনুর কোনে দাঁড়িয়ে নিচের দিকে তাকানোর শখ,তনু আস্তে আস্তে কোনে গেলো,দেখার জন্য,ঐ জায়গাটার কিনারায় শুধু ছোট একটা বেড়া ছিলো,তনু দাঁড়িয়ে নিচের দিকে তাকালো,
তনু-মাগো মা কলিজা কাঁপতেছে এতো নিচ কেন,
ঐ লোকটি এগোচ্ছে,,ঠাস!!!!
ধাক্কা দিয়ে ফেলে দিলো নিচে,,,
লোকটি আর কেউ নয় সিয়াম,
সিয়াম জোরে জোরে হাসতে লাগলো,
সিয়াম-তুই আমার না হলে আর কারও হবি না,কারও না,হাহাহাহা
শিশির দৌড়ে আসলো,শিশির কাঁপতেছে নিচের দিকে তাকিয়ে,
শিশির-তনু!!!!!!
চলবে♥

Writer -Afnan Lara
Crush যখন বর?
#Part_45
শিশির বসে বসে চিৎকার দিতেছে,উঠে সিয়ামকে ধরে একটা ঘুষি দিলো,এবার শুরু হলো মাইর,
শিশির-প্রথম থেকে আমার তনুর পিছে লাগছস তুই,মেরে ফেলবো তোকে,,
২টা গার্ড এসে শিশিরকে ছাড়িয়ে নিলো,
শিশির চিৎকার দিচ্ছে,,কাঁদতে কাঁদতে শেষ হয়ে যাবে,,
তনু-আরররররে sisuuuuu,Sssisuuu,উঠান না কচু?
শিশির তনুর আওয়াজ পেয়ে বাম সাইডে তাকালো,বাম সাইডে করা একটা গর্তে তনুর মাথা দেখা যাচ্ছে, কিন্তু তনু তো পড়ছে পাহাড়ের নিচে তাইলে,
তনু-উঠান না ব***
শিশির চোখ মুছে গর্তের কাছে গিয়ে তনুর হাত ধরে ওকে টেনে উপরে তুললো,,
সবাই হা করে তনুর দিকে তাকিয়ে আছে,
তনু-কি হয়সে??
শিশির তনুকে শক্ত করে জড়িয়ে ধরলো
সিয়াম-এটা কেমনে সম্ভব? আমি তো ওরে পাহাড়ের নিচে ফেলে দিসি
শিশির-তুমি এখানে তো পড়লো কে???
একটা লোক দৌড়ে আসলো,
লোকটি-এই যে শুনুন আপনারা কেউ আমার Wife কে দেখসেন,আমি অনেকক্ষন ধরে খুঁজে পাচ্ছি না,
শিশির-উনি কেমন জামা পরেছেন??
লোকটি-পিংক কালারের লং থ্রি পিস,এই যে একদম আপনার wife এর মতন সেম জামা পরেছিলো,
শিশির মাথায় হাত দিয়ো বসে পরলো,
তনু-কি হয়সে??আর সিয়াম ভাইয়া এখানে কেন???
শিশির-তুমি গর্তে পরলা কেমনে?
তনু-আমি কোনে দাঁড়িয়ে নিচে দেখসিলাম,উড়নাতে পা পেঁচিয়ে গর্তে পরে গেসিলাম,
সিয়াম-(আমি তো তনুকে দেখেই ধাক্কা দিসিলাম,তাইলে,ওহহ আমি ঐদিকে তাকিয়ে আসার সময় একটা লোকের সাথে ধাক্কা খায়সিলাম তখনই তনু গর্ত গিয়ে পরলো আর তনুর জায়গায় ঐ মেয়েটি এসে পরলো,আর আমি চেহারা না দেখেই ধাক্কা দিলাম,shit!!!)
গার্ড-আপনার wifeকে এই লোকটি পাহাড় থেকে ফেলে দিসে,
লোকটি-What!! লোকটি নিচে তাকালো এতো গভীর যে উনার দেখেই কলিজা কেঁপে উঠলো,
তনু ব্যাপারটা বুঝতে পেরে নিচে বসে পরলো,
আমার জন্য আজ একটা বিনা অপরাধী একজন মারা গেলো,আমার জন্য,,
ততক্ষনে পুলিশ এসে পরলো,,
সিয়াম কে ধরে নিয়ে যাওয়া হলো,,
তনু-না এভাবে আমি একজন বিনা অপরাধীর শাস্তি হতে দিতে পারি না,তনু সিড়ি দিয়ে নামা শুরু করলো,
শিশির-দাঁড়াও তনু,পাগলামো করো না,তুমি পাবা না তাকে,
তনু কোনো কথায় শুনছে না,তনু জায়গা টা ফলো করে সিঁড়ি দিয়ে নেমে যাচ্ছে,,
পুলিশ -Mr.Sisir আমার একটা ফোর্স নিয়ে যান,
তনু দৌড়ে দৌড়ে আসতেছে,
শিশির-আমি কিভাবে বুঝাবো এভাবে খুঁজে আজ পর্যন্ত কাউকে পাওয়া যায়নি,
তনু দেখলো সামনে জঙল,তাও পা বারালো
তনু-পিংক কালার জামা পরছে তাইলে খুঁজে পেতে পারি যদি allah দেয়,,
তনু পাহাড় টার সামনে দাঁড়ালো,জঙলে ঘেরা,শিশির দৌড়ে আসতেছে,
তনু পাহাড়ে উঠা শুরু করলো,
শিশির-তনু Stop,পারবা না এমন করে,,
তনু শিশিরের দিকে তাকিয়ে আবার পাহাড়ে উঠা ধরলো,অনেকটা উঠার পর ওর মনে হলো ও গোলাপি কিছু দেখেছে,মুখে হাসি নিয়ে আরও এগিয়ে গেলো
পুলিশের ফোর্স রাও তনুর পিছু পিছু উঠতেছে,শিশির ও,
তনু আর একটু এগোতেই দেখতে পেলো মেয়েটাকে,একটা গাছে সাথে আটকে আছে,তনু চিৎকার দিলো,
ফোর্স -ম্যম কি হয়সে??
তনু-পেয়ে গেছি
তনু ওখানে কোনো রকম গিয়ে মেয়েটার হাত ধরলো,Alhamdulillah,Pulse এখনও চলতেছে,আপনারা Fast ওকে হসপিটালে নিয়ে যান,,তনু দেখলো মেয়েটার গায়ের জামা ছিঁড়ে গেছে,
তনুর নিজের ওড়না দিয়ে পেচিয়ে দিলো,সবাই নামলো মেয়েটাকে নিয়ে,
তনু নেমে গিয়ে শিশিরের কাছে গেলো,
শিশির বুঝতে পেরে জ্যাকেট টা খুলে দিলো,
তনু জ্যাকেট টা পরে নিলো
লোকটা-আমি কিভাবে ধন্যবাদ দিবো জানি না, আপনি আমার wifer প্রান বাঁচিয়েছেন,
তনু-আজ ওর জায়গায় আমি হতাম, ও আসায় আমি বেঁচে গেছি,ওর কিছু হয়ে গেলে আমি নিজেকে ক্ষমা করতে পারতাম না,
সবাই হসপিটাল গেলো,
Doctor -আপনারা আর একটু দেরি করলে উনাকে আমরা বাঁচাতে পারতাম না,,
লোকটি-পুলিশ অনেকক্ষন ধরে যাচাই বাচাই করতে করতে আমার wifer কিছু হয়ে যেতো ভাগ্যিস আপনি জেদ ধরে ওরে বাঁচাতে ছুটে গেসিলেন,
শিশির তনুকে ধরে Proud Feel করতেছে,মুচকি হাসছে,
তনু-?যাক ভালো হয়ছে,আমি না থাকলে কি করতেন Live দেখে নিলাম,
শিশির-তুমি চুপ ছিলা কেন??আমার জানটা বের হয়ে যাচ্ছিলো
তনু-হ আমি চুপ ছিলাম, গলা ফাটায় চিল্লাইছি তাও তো শুনেন নাই,
চলবে♥

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে