Crush যখন বর?Season_2Part_28/29/30

0
2620

Writer-Afnan Lara
Crush যখন বর?Season_2Part_28/29/30
শিশির-আমি
তনু-???
শিশির-আমি তোমাকে,,,,
তনু-????
শিশির-ভালোবাসি না?
তনু-?
তনু হাত ছাড়িয়ে চলে গেলো,
শিশির-আরে রসগোল্লায়ায়া,দাঁড়াও,,
তনু-ভালোবাসতে হবে না,,লাগবে না আমার,,তনু গিয়ে খাটে বসলো,,মাথাটা ধরে আছে,,কাত হয়ে শুয়ে পরলো,,শিশির এসে আর কিছু বললো না,কাঁথা টেনে দিলো,,
ওর পাশে বসে ওর দিকে তাকিয়ে থাকলো,তনু যে পাশে শুয়েছে তার সামনে বিরাট আয়না,শিশির আয়নায় তাকিয়ে তনুকে দেখতেছে,এমন ভাবে তাকিয়ে আছে তনুর ঘুম উড়ে গেসে,
তনু-কি এমন করে তাকিয়ে আছেন কেন?
শিশির-মন চাইসে,,
শিশির তনুকে জড়িয়ে ধরলো,,
তনু-ছাড়েন,,আমাকে ভালো না বাসলে আমাকে টাচ করার অধিকার নাই,
শিশির-তাই নাকি?জোরাজোরিতে জীবনে আমার সাথে 1st হয়সো??
তনু-হুহ
শিশির তনুর দুহাত চেপে তনুর গলায় কামড় দিলো,,হালকা মুখ লাগিয়ে চুষে নিলো গলায়,,,তনু চোখ বন্ধ করে আছে,,এত শক্তি শিশিরের তনু ছাড়াতেই পারতেছে না,,
শিশির-চুপচাপ শুয়ে থাকতে পারো না
তনু- না,এমন disturb করলে পারি না,
শিশির -আমি disturb করি?
তনু-হ্যাঁ
শিশির-আর একবার বলো দেখি?
তনু আর বললো না,শিশিরের দিকে চোখ বড়বড় করে তাকিয়ে আছে,
শিশির-হাহাহা,,শিশির তনুকে নিজের দিকে ফিরিয়ে মুখ টিপে ধরলো তনুর,,
শিশির-কি বেবি?? ভয় পাইসো??
তনু-একদম না হুহ,,ছাড়েন চিৎকার দিব,
শিশির -পাশের লোকরা অন্য কিছু ভাববে ?????
তনু-ছিঃ,ছিঃ
তনু উঠে দাঁড়িয়ে গেলো,,বালিশ নিয়ে সোফায় শুয়ে পরলো,,
শিশির এসে তনুর থেকে বালিশ নিয়ে চলে গেলো,
তনু-????
তনু তাও সোফায় বালিশ ছাড়া শুয়ে পরলো,,শিশির এসে ওড়না নিয়ে নিলো
শিশির-আর কিছু নিতাম?নাকি নিজ থেকেই বিছানায় আসবা?
তনু-সাহস কত,
এবার শিশির এসে তনুর জামাতে হাত দিলো,
তনু চিৎকার দিয়ে বিছানায় চলে গেলো,
শিশির-হাহাহা,,
তনু-আম্মুউউ আমাকে এই কোন জল্লাদের সাথে বিয়ে দিসো???
শিশির-আমি কি কাটাকাটি করসি??
তনু-করতে কতক্ষন?
শিশির-??ঠিক
তনু চোখ বড়বড় করে খাটের এক কোনে শুয়ে পড়লো,,
শিশির এসে গায়ের সাথে লেগে শুলো,,তনু সরে যেতে নিয়ে আবার খাট থেকে পড়ে যাওয়া ধরলো,শিশির একহাত দিয়ে টেনে কাছে নিয়ে এলো,,
শিশির-এই ভুল আর কখনও হবে না,,
শিশির তনুকে জড়িয়ে ধরে শুয়ে পরলো,
পরেরদিন সকালে♥♥
তনু আর শিশির রেডি হয়ে বের হলো,,
তৃনা-তনু কেমন আছিস এখন??আর তোর মাথায় কি হয়সে?
শিশির-চোট পেয়েছিলো,,
তৃনা-আহারে,তুই আমাকে কস নাই কেন??
তনু-আমি মানা করসিলাম,
সবাই খেতে বসছে,,
তৃনা আর শুভ তনু শিশিরের দিকে তাকিয়ে মুচকি হাসতেছে,
শিশির-কি??
তৃনা-মনে হয় সব ঠিক হয়ে গেসে তোদের মধ্যে???
তনু-কি মানে?
তৃনা তনুর গলার দিকে ইশারা করলো,শিশির তাকিয়ে চোখ কপালে,
তনু-কি হয়সে??
শিশির তনুর পিঠ থেকে শাড়ীর আঁচল নিয়ে গলা ঢেকে দিলো,কাল রাতে যে চুমু দিসিলো দাগ হয়ে আছে, তা পরিষ্কার বুঝা যাচ্ছে,,
তৃনা আর শুভ হাঁটতেছে,,
তনু-এ্যাই কি হয়সে??
শিশির-কাল যে চুমু দিসিলাম দাগ বসে আছে
তনু-কিহ?ইস ইজ্জত গেলো আমার,সব আপনার জন্য হয়সে,
শিশির-প্রথমে সুপারি বাগান দেখতে যাবো,তারপর জাফলং
তৃনা-ওকে????
রিকসা নিলো,,শিশির আর তনু বসে আছে,,আজ valentines day,রাস্তায় কাপল দেখা যাচ্ছে,,তনু মন খারাপ করে দেখতেছে,,
শিশির-কি গত বছরের valentines Dayr কথা মনে আছে??
তনু-ইসসস?,,গতবছর আমাকে দেখিয়ে রুনারে propose করে জড়িয়ে ধরেছে,,আমি দেখে একটা কণা নিয়ে শিশিরের মাথায় মারসিলাম,রাগ করে,,আমাকে পুরা এলাকা দৌড়ানি দিসিলো,পরে হিন্দুদেরর মন্দির পর্যন্ত গিয়ে হোচট খেয়ে পরে গেসিলাম,,আমাকে ধরে নিয়ে কাদাতে ফালাইসে,,নিজে নিজে যতবার উঠার চেষ্টা করসি,ততবার পড়ে গেসি,,৩০মিনিট পর আমাকে নিজেই টেনে তুলেছে,,
শিশির-হাহাহা,,???
তনু-??
শুভ তৃনাকে গোলাপ কিনে দিলো,,
তনু সুপারি বাগান দেখতেছে,,আর দেখলো শুভ তৃনাকে মাথায় গোলাপ পরিয়ে দিচ্ছে,তনু একদৃষ্টিতে তাকিয়ে আছে,,
শিশির খেয়াল করলো,,
তৃনা -শিশির এই দিকে আয়,,শিশির আসলো,
তৃনা-মেয়েটার প্রতি কি তোর একটুও ভালোবাসা নেই??আজ ভালোবাসা দিবস, কিছু না পারস একটা ফুল তো কিনে দিতে পারস,
শিশির-পারবো না,
তৃনা আর কিছু বললো না,,
সুপারি বাগান দেখা শেষে সবাই জাফলংয়ের জন্য রওনা দিলো,,
তনু রাস্তার কাপল দেখতেছে,আর মুখে হাসি,,
শিশির-তোমার হিংসা লাগে না??
তনু-না,ভালো লাগে,আমাকে দেওয়ার মানুষ নেই কিন্তু ওদের আছে,সেটা দেখেই ভালো লাগে,
জাফলং এ এসে নামলো সবাই,,,তৃনা শুভ হাত ধরে হাঁটতেছে,,
তনু পাথরের উপর বসে আছে,,
শিশির-হুম হ্যালো, শুনো সব গোলাপ আনবা,,আর তোমাকে টাকা বারিয়ে দিবো,,কাঁটা সব ফালায় দিবা,,আর Candle light থাকবে,,ঠিক আছে,,খেয়াল রাখবা আমার আগে যেন তনু না ঢুকে,,
কর্মচারী -ওকে স্যার,,
শিশির-আজকের Valentines তোমার জন্য সেরা valentines day হবে তনু,,আর সেটা আমার পক্ষ থেকে,,
শিশির-চলো পাহাড়ে উঠবো,,চা বাগান দেখবো,,
তনু-ওকে,,সবাই পাহাড়ে উঠা ধরলো,,শিশির তনুর হাত ধরে উঠতেছে,,
কর্মচারী-আপনারা সাবধানে থাকবেন,বন্য প্রানী আছে অনেক,,
শিশির-হুম
তনু ভয়ে শিশিরের হাত শক্ত করে ধরলো,,পাহাড়ে উঠে সবাই হা করে তাকিয়ে আছে,এত সুন্দর দৃশ্য,সত্যি মনমুগ্ধকর????
চলবে♥
“এখনই জয়েন করুন আমাদের গল্প পোকা ডট কম ফেসবুক গ্রুপে।
আর নিজের লেখা গল্প- কবিতা -পোস্ট করে অথবা অন্যের লেখা পড়ে গঠনমূলক সমালোচনা করে প্রতি সাপ্তাহে জিতে নিন বই সামগ্রী উপহার।
আমাদের গল্প পোকা ডট কম ফেসবুক গ্রুপে জয়েন করার জন্য এখানে ক্লিক করুন



Writer-Afnan Lara
Crush যখন বর?
#Season_2
#Part_29
তৃনা শুভ দুষ্টুমি করতেছে,,তনু তাকিয়ে হাসতেছে,,শিশির তনুর কাছে এসে দাঁড়ালো,
তনু-কি?
শিশির তনুর হাত ধরে টেনে নিয়ে গেলো,,অনেকটা পথ এসে তনুর হাত ছাড়লো,,
তনু-এখানে কেন আসছেন??
শিশির হাঁটুগেড়ে বসে পিছন থেকে এক গুচ্ছ গোলাপ নিয়ে তনুকে দিলো,তনু তো হা করে তাকিয়ে আছে,আমার জন্য??
শিশির-নাহ,রুনা তো নেই,,তাহলে ওরেই দিতাম,,এখন তুমি রাখো,,আর হ্যাঁ পায়ে ব্যাথা করতেছে তাই নিচে বসছি,তুমি আবার অন্য কিছু ভাববা নাহ,
তনু-?,
তনু ফুল নিয়ে লাফাতে লাগলো,,
শিশির-পড়ে যাবা,চলো,,শিশির হাত ধরে আবার নিয়ে এলো,,
তৃনা-ওয়াও,এত ফুল??
তনু-??
শিশির-খুশি??
রাতে সবাই রিসোর্টে চলে আসলো,,
তনু রুমে ঢুকতে যাবে তখনই কর্মচারী পথ আটকালো,
কর্মচারী -ম্যাম,ওয়েট
তনু-কেন??
শিশির এসে পিছন থেকে চোখ বেঁধে দিলো,,
তনু-আম্মুউউউ
শিশির-চুপ,তোমার জামাই,,
তনু-ওহ চোখ বাঁধলেন কেন??
শিশির-চুপ,, শিশির তনুর হাত ধরে রুমে নিয়ে গেলো,,তনুর চোখের বাঁধন খুলে দিলো,,
তনু হা করে দেখতেছে পুরো রুমটা,,রুমটা যেন একটা গোলাপ বাগান,এত্ত গোলাপ?খাটে তো সব গোলাপের পাপড়ি??তনু নিচের দিকে তাকালো,,ফুলের রাস্তা গিয়ে বারান্দার দিকে গেসে,,
শিশির বিরাট একটা গোলাপের তোড়া এনে তনুর হাতে দিলো,,
শিশির-মিসেস আর গোলাপ লাগবে??
তনু খুশিতে লাফাইতেছে,,শিশির হাত ধরে বারান্দায় নিয়ে গেলো,,চেয়ার টেবিল ফুল দিয়ে সাজানো,,Candle Light,,শিশির চেয়ার টেনে দিলো, তনু বসলো,
মোমবাতির আলোতে তনুকে অনেক সুন্দর লাগছে,,শিশির কিছুক্ষন তাকিয়ে রইলো,,তনু হাতের ফুলগুলো দেখতেছে,,খাবার খেয়ে নিলো দুজনেই,,তনু ফুলগুলো ধরে বারান্দার কোনে দাঁড়িয়ে আছে,,শিশির ফুলের মালা এনে তনুর মাথায় লাগিয়ে দিতে লাগলো,,
তনু যেন স্বপ্ন দেখতেছে,,
শিশির-এত খুশি হওয়ার কিছু নেই,তৃনা বললো তাই,,তুমি নাকি কান্না করে দিবা,,তাই,,
তনু-আমি জানি সব আমার জন্য নিজের মন থেকে করসেন
শিশির -মোটেও না,,রুনাকে দিতাম,,
তনু রাগ করে হাত থেকে ফুল রেখে দিয়ে চলে যেতে নিলো শিশির পিছন থেকে হাত ধরে ফেললো,,শিশির এসে তনুর কাঁধে মাথা রাখলো,,কাঁধে নাক লাগাতেই তনু কেঁপে উঠলো,,শিশির শক্ত করে তনুর হাত ধরে আছে,,গোলাপের ঘ্রান আর তনুর গায়ের ঘ্রান একসাথে হয়ে অন্যরকম ঘ্রান সৃষ্টি হয়সে,,শিশির যেন পাগল হয়ে যাবে,আজ আটকাতে পারবে না নিজেকে,,তনুর চোখ থেকে পানি এক ফোঁটা গিয়ে শিশিরের হাতে পরলো,,
শিশির তনুর দিকে তাকালো,
তনু-ভালোবাসেন না তাহলে কেন ভালোবাসার লোভ দেখান?
শিশির আরও শক্ত করে গায়ের সাথে লাগালো তনুকে,,তনুর পিঠ শিশিরের বুকের সাথে লেগে আছে,,শিশির হাতে একটা গোলাপ নিয়ে তনুর পিঠে ছোঁয়ালো,,পিঠ থেকে পেটে নিলো,,
তনু প্রতিটি ছোঁয়ায় কেঁপে কেঁপে উঠতেছে,,শিশির তনুকে নিজের দিকে ফিরালো,,দুজনেই দুজনের দিকে তাকিয়ে আছে,,মুখে হাসি নেই,,কিন্তু আজ দুজনেই দুজনের মাঝে হারিয়ে যেতে চাচ্ছে,,শিশির তনুকে কোলে তুলে নিলো,,নিয়ে বিছানায় নামিয়ে দিলো,,
খাটে ফুল ,শিশির এক মুঠো ফুল নিয়ে তনুর গায়ে মারলো ,
তনু চোখ বন্ধ করে ফেললো,,
শিশির-তোমার কি মনে হয়??এখন আমি কি করবো??
তনু-আমি কি জানি?কখন কি করেন আপনি,
শিশির তনুর কাছে এগিয়ে গেলো,,তনুর গায়ের দিকে তাকিয়ে দেখতেছে,
তনু-এমন করে তাকান কেন?লুচু
শিশির-নিজের বউকেই তো দেখতেছি
তনু গায়ে হাত দিয়ে বসে আছে,শিশির তনুর হাত ধরে সরিয়ে দেখতেছে,,তনুর পেট থেকে শাড়ী সরালো,,
তনু-???আআআআআপননি কি
শিশির-চুপ,,
শিশির তনুর কাছে এগিয়ে গিয়ে চুলের মুঠি ধরে তনুর মুখ উঁচু করে গলায় চুমু দিলো,,তারপর থুতনিতে,,বাতাসে সব মোমবাতি নিভে গেসে,,হালকা চাঁদের আলো,,শিশির তনুর মুখ ধরে কিস করতে লাগলো,,?
তনু শিশিরের হাত ধরে আছে,,আরেক হাত দিয়ে শিশিরকে ধরলো,,
শিশির ১০মিনিট পর তনুকে ছেড়ে দিলো,,তনুর মুখ ধরে আরেকদিকে ফিরিয়ে কাঁধের থেকে ব্লাউজ সরিয়ে কাঁধে চুমু খেলো,,
শাড়ী সরাতে শিশিরের মনে হলো এসবের সময় এখন হয়নি,,
শিশির তনুকে ছেড়ে দিয়ে পাশে শুয়ে পরলো,,
তনু-এসবের মানে কি?
শিশির -কি আবার.?
তনু -আমার সাথে মজা করেন আপনি??
শিশির-কোনোদিন কি serious ছিলাম?
তনু -অনেক হয়সে,আমাকে বিয়ে করসেন কেন তাহলে,রুনাকেই করতেন,,আপনার প্রতি কি আমার কোনো অধিকারই নাই??
শিশির-সব পাচ্ছ
তনু-তাই নাকি??আদো?
শিশির-shut up তনু,মেজাজ গরম করবা না,
তনু উঠে চলে গেলো বারান্দায় গিয়ে সব ছুঁড়ে মারলো, এক কোনে গিয়ে বসলো,,
শিশির আসলো না,,ঘুমিয়ে গেলো,,তনু আর রুমে আসলো না
পরেরদিন ♥
তনু আর শিশির রেডি হয়ে নিসে,,কেউ কারও সাথে কোনো কথা বলেনি,,বাসার যাওয়ার জন্য রওনা দিসে সবাই,,
তনুর রাগে কষ্টে নিজেকে শেষ করে দিতে মন চাইতেছে,,তনুর চোখ গেলো জানালায় আটকে থাকা একটা ব্লেডের দিকে,
শিশির ফোনে কথা বলতেছে, তনু ব্লেডটা হাতে নিয়ে ৩-৪টা টান দিয়ে দিসে হাতে,
শিশির-I will call you back,,
শিশির ফোন রেখে তনুর হাত থেকে ব্লেড নিয়ে জানালা দিয়ে ছুঁড়ে মারলো,,
শিশির জানে এটা তনুর অভ্যাস,, তনুর দিকে অগ্নি দৃষ্টিতে কিছুক্ষন তাকিয়ে থাকলো,,পকেট থেকে রুমাল নিয়ে তনুর হাত শক্ত করে ধরে বেঁধে দিলো,
তনু চোখ মুছে রুমাল খুলে নিয়ে জানালা দিয়ে ফেলে দিলো,
শিশিরের তো রাগ আরও বেড়ে গেসে,,চুপচাপ আরেকদিকে তাকিয়ে থাকলো,
হোটেলে♥♥
তৃনা-তনু খাস না কোন??
তনু-খিধে নেই,
রাত ৯টায় বাসায় পৌঁছালো দুজনে,
তনু-আমি আমাদের বাসায় যাচ্ছি,,
শিশির-যাওয়ার দুঃসাহস দেখাবা না,
মা-মেয়েটার হয়ত মা বাবার কথা মনে পড়তেছে,,গিয়ে দিয়ে আয় যা,
শিশির-না মানে না,এরপর যদি ওর মন চায় যেতে পারে
তনু শিশিরের দিকে তাকিয়ে থেকে চলে গেলো,
তনু-যা খুশি করুক,,ভালেবাসে না আবার ঢং,,আর আসবো না ফিরে
চলবে♥
“এখনই জয়েন করুন আমাদের গল্প পোকা ডট কম ফেসবুক গ্রুপে।
আর নিজের লেখা গল্প- কবিতা -পোস্ট করে অথবা অন্যের লেখা পড়ে গঠনমূলক সমালোচনা করে প্রতি সাপ্তাহে জিতে নিন বই সামগ্রী উপহার।
আমাদের গল্প পোকা ডট কম ফেসবুক গ্রুপে জয়েন করার জন্য এখানে ক্লিক করুন



Writer-Afnan Lara
Crush যখন বর?
#Season_2
#Part_30
তনু একা একা বাসায় চলে গেলো,,
রাত ১১টা♥
মা-তনু,তনু,শিশির এসেছে,তনু ঘুমিয়ে গেসে,,
শিশির এসে ঠাস করে দরজা লাগিয়ে দিলো,তনু ভয় পেয়ে ঘুম থেকে উঠে গেলো,
তনু-?কে?চোখ ডলে ডলে দেখলো শিশির দাঁড়িয়ে আছে,,তনু আবার শুয়ে পরলো,,শিশির এসে হাত ধরে উঠিয়ে বসালো
শিশির-একটা চড় মারবো ধরে,,এত সাহস দেখাও কেন তুমি??
তনু-ছাড়ুন তো,তনু ছাড়ানোর চেষ্টা করতেছে,,শিশির হাত ছেড়ে দিয়ে নিজের গায়ের shirt খুলতে লাগলো,তনু কিছুটা ভয় পেলেও পরে ভাবলো নাহ কিছুই করবে না,,
শিশির Shirt খুলে তনুকে খাটের সাথে চেপে ধরে হাত বেঁধে দিলো,
তনু-এ্যাই কি করতেছেন টা কি,,হাত বাঁধেন কেন??আম্মুউউউউ,,
শিশির তনুর গায়ের ওড়না নিয়ে তনুর মুখ বেঁধে দিলো,
তনু কথা বলেই যাচ্ছে,,
শিশির এবার ঠান্ডা মাথায় বসলো তনুর দিকে তাকিয়ে,,তনু শুয়ে থেকে তাকিয়ে আছে,,
শিশির-আর একদিন হাত কাটার সাহস দেখাবা তো কেটে টুকরা টুকরা করে দিব,,নেহাত আমি আজ নিজেকে control করতে পেরেছি,নাহলে দিতাম কয়েকটা চড় বসিয়ে,,শয়তান মেয়ে,
তনু আড় চোখে তাকিয়ে আছে,শিশির তনুর মুখ টিপে ধরলো,
শিশির-কি তাকাই আছো কেন??
শিশির এগিয়ে গিয়ে মুখ থেকে ওড়না সরিয়ে চুমু দিয়ে দিলো,তনুর পিঠে হাত দিয়ে চেইন খুলে ফেললো জামার,,তনু চোখ বড়বড় করে তাকিয়ে আছে,,শিশির জামা খুলে ছুঁড়ে মারলো,তনু লজ্জায় আরেকদিকে তাকিয়ে রইলো,শিশির চুপ করে তাকিয়ে আছে,
তনু ও চুপ,,শিশির তনুর গলায় কামড় দিলো,,তারপর গালে,,হাতে,,
তনু হাতের বাঁধন খোলায় ব্যস্ত,শিশির বুঝতে পেরে আস্তে করে বাঁধন খুলে দিলো,,তনু সাথে সাথে শিশিরকে খাঁমছে ধরলো,,নখ মনে হয় পুরো শিশিরের পিঠে ঢুকিয়ে দিসে,কিন্তু শিশিরের একটুও ব্যাথা লাগলো না,,বরং তনুর গায়ে কামড় টা আরও মিষ্টি করে দিলো,তনু হালকা করে আহ করে উঠলো,,
শিশির তনুর চোখ হাত দিয়ে ঢেকে তনুর থুতনিতে কামড় দিলো,,পেটের কাছে গেলো,,পেটে আঙুল দিয়ে শিশির লিখলো,
তনু শক্ত করে বিছানার চাদর ধরে আছে,,
তনু-চোখে দেখি না
শিশির-দেখতে হবে না,
শিশির নিজের নাম লিখে কামড় দিলো পেটে,,তারপর তনুর কাছে আসলো,,তনুকে শক্ত করে ধরে চুমু দিতে লাগলো,,তনুর হাতের বাঁধন ছেড়ে দিয়ে শিশির নিজের হাত দিয়ে তনুর হাত চেপে ধরে রেখেছে,,
রাত ♥১টা
তনু শিশিরকে জড়িয়ে ধরে ঘুমাচ্ছে,,শিশির তনুর মাথায় হাত বুলিয়ে দিলো,,তনুর হাত নিয়ে দেখলো কাটা দাগ,
শিশির-ইচ্ছে করতেছে মেরে আলুর ভর্তা বানিয়ে দিই,, একটু জোরে টাচ করলেই নাক দিয়ে রক্ত বের হয়,হাত দিয়ে বের হয়,,?
শিশির-হিহি,,দাঁড়াও মজা দেখাইতেছি, শিশির তনুকে ধাক্কা দিয়ে সরিয়ে দিতে যাবে ওর চোখ গেলে তনুর মিষ্টি মাখা মুখের দিকে,,
শিশির-থাক কাল থেকে জ্বালাবো,আজ ঘুমাক,,
পরেরদিন ♥
শিশির ঘুম থেকে উঠে দেখলো তনু নেই,Fresh হয়ে বের হলো,,তনু রান্নাঘরে,,
শিশির-তনু আমার লেট হচ্ছে আমি আসি,
তনু-আর একটু দাঁড়ান,
তনু দৌড়ে এসে শিশিরকে খাবার দিলো,,
শিশির-রুমে গিফট আছে,,দেখে নিও,
তনু এক দৌড়ে রুমে গেলো,,একি?ময়লা জামা কাপড়,,একটা কাগজ,,
রসগোল্লাআয়ায়ায়ায়া,এগুলা ধুয়ে শুকিয়ে রেখো,,বাই সুইট হার্ট
তনু পিছনে তাকালো,
শিশির-হিহিহি,,
শিশির চলে গেলো,,
তনু জামা কাপড় ধুয়ে ছাদে মেলে দিলো,
রুনা তনুদের বাসায় আসলো,,
রুনা-তো কেমন আছো?
তনু-ভালো
রুনা-শিশিরের দোকান কেমন চলে?
তনু-দোকান??কিসের দোকান?
রুনা-ওমা,শিশির তো বললো ওর চাকরি শেষ,,
মা-কে বলসে??শিশির তো আগে যে অফিসে কাজ করতো এখনও সেটায় আছে
রুনা-ওওওও,,
রুনা তনুকে নিয়ে আলাদা রুমে গেলো,,
রুনা-শিশির কি তোমাকে টাচ করসে?
তনু-মানে??
রুনা-মানে ঐসব করসে??
তনু-এসব কেমন কথা?(?)হুম উনি আমার স্বামী করতেই পারে,,
রুনা-ওও
রুনা চলে গেলো,,
তনু শিশিরদের বাসায় আসার জন্য বের হলো,ফোন নিয়ে শিশিরের number খুঁজতে লাগলো,শিশিরকে কল দিয়ে বলে দিবে যে ও বাসায় আসতেছে,,একটা বাইক আসতেছে খুব জোরেসোরে,,
তনু তাকিয়ে সরতে যাবে তার আগেই শিশির টান দিয়ে কাছে নিয়ে এলো,
শিশির -মন কই থাকে তোমার? মরার শখ হয়সে??এমন করো কেন??রাস্তায় ফোন ধরা লাগলো??একটা চড় মারবো,
তনু চোখ বন্ধ করে দাঁড়িয়ে আছে,
শিশির-চলো!!!!
শিশির হাত ধরে বাসায় নিয়ে গেলো,,
শিশির shirt খুলতেছে আয়নার সামনে দাঁড়িয়ে দাঁড়িয়ে,,তনু রুমে ঢুকে একবার শিশিরের দিকে তাকিয়ে মুচকি হেসে বিছানা করতে লাগলো,,
শিশির-কি ম্যাডাম কাল রাতের কথা মনে পড়সে নাকি??
তনু-???
শিশির-হুম পা টিপো
তনু -?পারুম না
শিশির -কি বললা?
তনু -আসতেছি,
তনু বসে বসে শিশিরের পা টিপতেছে,,শিশিরের ফোনে কল আসলো,
শিশির-হ্যালো,,ওও,,শিশির লাইন কেটে তনুর দিকে তাকালো
শিশির-তুমি রুনারে বলসো যে আমার দোকান নেই??
তনু-হ্যাঁ,ও বলে আপনার নাকি দোকান আছে,
শিশির-shit,এই মাইয়া(না থাক,,এখন সত্যিটা বলে দিলে আর তনুরে জ্বালাতে পারবো না)
তনু-কি?
শিশির-কিছু না,,বাই রুনার সাথে মিট করবো,
শিশির উঠে দাঁড়ালো তনু এসে পথ আটকালো,
তনু-আপনি রুনাকে ভালোবাসেন??
শিশির-,,,সরো
তনু-বলতে হবে
শিশির-হ্যাঁ বাসি,
তনু দাঁড়িয়ে থাকলো শিশির চলে গেলো,,
শিশির এখন রুনার সাথে দেখা করতে নয়,,তনুর মাথার x-ray report টা আনতে বের হয়সে,কারন সিলেট থেকে আসার সময় Report টা আনতে মনে ছিলো না,ওরা কুরিয়ারে পাঠিয়ে দিসে,,Report টা নিয়ে শিশির একটু টেনশনে আছে,,তনুর ১বছর আগে accident হয়ে ছিলো,মাথায় চোট পেয়েছিলো,
চলবে♥

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে