4.3 C
New York
Tuesday, November 19, 2019
Home Love At 1st Sight $2 ♥Love At 1st Sight $2 Part - 2

♥Love At 1st Sight $2 Part – 2

Love At 1st Sight $2
Part – 2
writer-Jubaida Sobti
স্নেহা লাইব্রেরী থেকে বেরিয়ে নিচে নামলো…
মার্জান : স্নেহা এইদিকে আয়… কোথায় গিয়েছিলি…?
স্নেহা : এইতো একটু ঘুরে দেখছিলাম..
মার্জান : আয় তোকে পরিচয় করিয়েদি..
ও হচ্ছে শায়লা..ও জারিফা, ও রিফাত..আর Guys…ও হচ্ছে স্নেহা…….?
স্নেহা সবার সাথে পরিচয় হয়ে অনেক মজা করে..যেনো স্নেহা তাদের অনেক পুরোনো বান্ধবী…সহজে মিশে যায় তাদের সাথে…
মার্জান : চল এবার যাওয়া যাক…?
স্নেহা এদিক ওদিক তাকাতে লাগলো..
মার্জান : এই মেয়ে কি দেখছিস?..?
স্নেহা : রাহুলকে খুজছি! কোথায় গেলো বলতো?..দেখতে পাচ্ছি না যে!
জারিফা : Listen sneha! তুই আমাদের তোর দোস্ত বলেছিস তো..?এই অধিকারে একটা কথা বলছি… ঐ রাহুলকে তুই ভুলে যা…
শায়লা : হে রে কোনো লাব নেই এসব করে.. আর তোকে তো বললই যে রাহুলের গার্লফ্রেন্ড আছে,
স্নেহা : ভুলে যাবো মানে কেনো ভুলবো?.. ?গার্লফ্রেন্ড আছে তাতে কি হয়েছে…
শোন…আমি যাচ্ছি রাহুলকে খুজতে আমার সাথে কে যাবি বল?..
[সবাই চুপ!??]
স্নেহা : হা করে তাকিয়ে আছিস কেনো সবাই? কেউ তো কিছু বল?…
রিফাত : স্নেহা তুই রাহুলকে এখন খুজতে গিয়ে লাব নেই…?ঐ দেখ রাহুল তার গার্লফ্রেন্ড নেহা কে সাথে করে নিয়ে আসছে…
স্নেহা তাকাতেই দেখলো…নেহা রাহুলের হাত ঝরিয়ে…একসাথে..পার্কিং এর দিকে এগুচ্ছে…?রাহুলকেও অনেক খুশিখুশি লাগছে..
জারিফা : দেখলি..এবার?
স্নেহা : এবার তোরা দেখ আমি কি করি…?
মার্জান : কি করবি?…
স্নেহা : just wait and see?
স্নেহা দৌড়ে রাহুল আর নেহার পাশে গিয়ে দাঁড়ালো..
রাহুল স্নেহাকে দেখে অবাক হয়ে গেলো..?
[মার্জান, জারিফা,রিফাত,শায়লা সবাই দূর থেকে তাকিয়ে আছে স্নেহা কি করতে গেলো তা দেখার জণ্য??]
স্নেহা : এই যে হিরো! ?শুনলাম তোমার নাকি গার্লফ্রেন্ড আছে?…
[রাহুল নেহার দিকে একবার তাকিয়ে আবার স্নেহার দিকে তাকালো..]
স্নেহা : ও হে!শুনেছি তোমার গার্লফ্রেন্ডটা নাকি দেখতে ততোটা ইয়ে না?…i mean তোমার সাথে মানায় না… কি দেখে প্রেমে পড়েছো ওর হে?..
নেহা : How dare you?…তোমার সাহস কিভাবে হলো ওর সাথে এভাবে কথা বলার?..? আর কে তুমি?…
স্নেহা : just shut-up ok?..আমি কি তোর সাথে কথা বলছি?.. তুই কেনো নাক গলাচ্ছিস?..?
নেহা : ?Look rahul! ও আমাকে?
রাহুল : Listen! তুমি এসব বলে কি বোঝাতে চাচ্ছো?..
স্নেহা : আমি বোঝাতে চাচ্ছি যে আমার মতো মেয়ে থাকতে ??তুমি ঐ পেত্নীটার পেছন কেনো নিবা..
নেহা : what! ? u called me পেত্নী ?
রাহুল : I think u don’t know who is neha! right?..
স্নেহা : আরে ধুর ওকে জানার কি আছে! ?
নেহা : Listen ? i am neha!
স্নেহা : Oh my god?? are you neha!….
নেহা : Yes i m neha..শুনতে পেরেছো?..?
স্নেহা : [হাসি চেপে রেখে] Sorry Sorry Sorry?? আসলে আমি চিনতে পারিনি…
রাহুল : [নেহাকে টেনে ]ওকে নেহা চলো!
স্নেহা : bye! রাহুল 
[রাহুল পিছন ফিরে স্নেহার দিকে একবার তাকালো..
স্নেহা রাহুলকে একটি চোখ টিপ মারে?]
রাহুল আর নেহা চলে যাওয়ার পর মার্জানরা সবাই দৌড়ে আসে,
মার্জান : স্নেহা! তুই কি এমন বলেছিস যে নেহা ক্ষেপে গেছে?..
স্নেহা : বলেছি রাহুলের সাথে ওকে একদমি মানাই না তাই ক্ষেপে গেছে…
জারিফা : ডিরেক্ট বলেছিস?
স্নেহা : হে! ?লুকিয়ে বলতে যাবো কেনো?..
পেয়ার কিয়া হে বস্ কই চোরি নেহি কি…?
শায়লা : বাব্বা! ?মানতে হবে স্নেহা তুই তো…একদম জমিয়ে দিয়েছিস..
মার্জান : আমার তো ভয় করছে কোন সময় নেহা এসে তোর সাথে আমাদের ও লাঠি নিয়ে পেটানো শুরু করে আল্লাহ জানে???!
[সবাই একসাথে হেসে গল্প করে হোষ্টেলে ফিরে যায়!]
সন্ধায় স্নেহা পড়ার টেবিলে বসে মুখে হাত দিয়ে চিন্তা করতে লাগলো…
হঠাৎ, মার্জান ও এসে পাশে বসলো,
মার্জান : কি ভাবছিস রে ?..
স্নেহা : রাহুলকে ?
মার্জান : এই রাহুলের ভুত তোর ঘার থেকে আর নামবেনা বুঝতে পেরেছি..
স্নেহা : বুঝতেই যখন পেরেছিস তাহলে এতো বক বক না করে সরে যা?
এমনিতে মাথা খারাপ হয়ে আছে রাহুলের সাথে ভার্সেটি ছাড়া আর কোথাও দেখা করা যাচ্ছে না…?
মার্জান : পাগলী একটা! ? আচ্ছা শোন তোকে একটা আইডিয়া দেই..
স্নেহা : ??
মার্জান : সত্যি Joss আইডিয়া কিন্তু!
স্নেহা : কি??
মার্জান : তুই রাহুলকে ফেসবুকে নক দিয়ে ট্রাই করে দেখতে পারিস…..যদিও বা রিপ্লে দিলেও দিতে পারে…মনে তো হয়না দিবে বলে?
স্নেহা : [এক লাফে উঠে মার্জানকে কিস্ দিতে লাগলো ] আরে কি joss আইডিয়া দিলি…??আগে বলিসনি কেনো..রিপ্লে দিবে না মানে ওর বাপের থেকে ও রিপ্লে দিতে হবে!
মার্জান : ?? আকাশের তারা পেলেও বোধহয় মানুষ এমন খুশি হবে না..যেমন রিয়েক্ট তুই করলি…
স্নেহা দৌড়ে মোবাইল হাতে নিয়ে বসে পড়লো… রাহুল লিখে সার্চ দিতেই সবার শুরুতে রাহুলের আইডি এসে হাজির…? স্নেহার খুশির ঠিকানার শেষ নেই…রিকোয়েষ্ট পাঠিয়ে দিয়েছে ধুম করেই.. আর বসে বসে রাহুলে ছবি দেখছে..?
[রাত ১২:০০টা বেজে ৩০ মিনিট,]
মার্জান : স্নেহা! ?? দেখ আর কতোক্ষণ জেগে থাকবি এইভাবে..?
ও যদি রিকোয়েষ্ট এক্সেপ্ট করার হতো তাহলে অনেক আগেই করে ফেলতো..
স্নেহা : তুই জানিস আমি এই পর্যন্ত কয়টা মেসেজিং করেছি..?? না মেসেজের রিপ্লাই দিচ্ছে না রিকোয়েষ্ট এক্সেপট করছে…?
মার্জান : আচ্ছা হয়তো এমন ও হতে পারে আজ ও ফাইন্ড ফ্রেন্ডস চেক করেনি… আর নয়তো এমন ও হতে পারে..ইচ্ছে করে এক্সেপট করেনি…?কারণ ওর ফলোয়ারস্ দেখ…
স্নেহা : কিন্তু?!
মার্জান : আরে বোকা কিন্তু কিন্তু করে কি হবে!…জেগে থাকলে কি রিকোয়েষ্ট এক্সেপট করে ফেলবে?..
স্নেহা :??
মার্জান : যা গিয়ে ঘুমিয়ে পর! কাল আবার ভার্সেটি… যেতে লেট হয়ে যাবে নয়তো..
[স্নেহা ও আর কিছু না বলে মোবাইল রেখে ঘুমিয়ে পড়ে…]
[সকালে ঘুম থেকে উঠতেই আগে ফেসবুকে ঢুকে দেখে… রাহুল এক্সেপ্ট করেছে কিনা… মনটা আবার ও খারাপ করে ফেললো স্নেহা! কি আর করার উঠে গিয়ে ভার্সেটি যাওয়ার জন্য তৈরী হয়..]
মার্জান : বাব্বা ?আজ আমার আগে তৈরী…
স্নেহা : ??
মার্জান : By the way আজ কিন্তু তোকে দারুণ লাগছে ড্রেসটাই…??
স্নেহা : হয়েছে অনেক..এবার যাবি?..
মার্জান : Ok ?let’s go..!
ভার্সেটি পৌছে স্নেহা ক্লাসে ঢুকলো!..দেখে রাহুল ক্লাসে নেই!…
বাইরে বেরুতে যাবে ঠিক সেই সময় দেখে রাহুল ঢুকছে…স্নেহাকে দেখতেই রাহুল চোখ থেকে সানগ্লাসটা খুলে নিলো…
স্নেহা : ???
রাহুল গিয়ে সিটে্ বসতেই দেখে…স্নেহা এসে তার পাশের সিটে্ বসে যায়…
রাহুল : Shame on u! তোমার কি জ্ঞান বুদ্ধি কিছু নেই?..
স্নেহা : না নেই! তো?..
রাহুল : দেখো এইখানে আরো অনেক সিট্ আছে তুমি গিয়ে ঐখানে..বসতে পারো…
স্নেহা : কেনো ?তোমার কি এইডস আছে?..নাকি কোনোরকম ছোয়াছুয়ি রোগ আছে?…
রাহুল : Just shut-up..
স্নেহা : you shut-up!
[রাহুল স্নেহার দিকে হা করে তাকিয়ে আছে কি মেয়েরে বাবা!…?]
স্নেহা : কাল তোমাকে রিকোয়েষ্ট পাঠিয়েছিলাম এখনো এক্সেপ্ট করোনি কেনো?..?
রাহুল : that’s my matter! ?
স্নেহা : ও হিরো…একবার জো মে কমিটমেন্ট কারদেতি হু…ফির মে আপনে আপকিভি নেহি সুনতি,
রাহুল : Oh really ?..
স্নেহা : ইয়াহ! আরে কিসের এতো পার্ট দেখাও হে?..আমাকে তো সালমান খান ও প্রপোজ করছিলো..কিন্তু আমি..
রাহুল : কিন্তু তুমি রিজেক্ট করেছো তাই না?…?
স্নেহা : হে! বুঝতেই তো পেরেছো! আমিও কতোটা সেলেব্রিটি ?
রাহুল : How funny! ??
স্নেহা : ??
রাহুল : ওহ অটোগ্রাফ হবে মেম?..?
স্নেহা : অনেক মজা লাগছে তাই না?
রাহুল : এক্সুলি তোমার না একটা নিকনেম দেওয়া উচিৎ ?? ড্রামাকুইন নামের…
পার্ফেক্ট মানামে নামটা তোমার সাথে..
স্নেহা : [রেগে] ওহ রিয়েলি! হাউ সুইট! থেংক ইউ..?
হঠাৎ,ক্লাসে টিচার আসাতে সবাই দাঁড়িয়ে যায়,
ক্লাসে টিচার,লেকচার দিতে লাগলো… আর স্নেহা কিছুক্ষণ পর পর…রাহুলকে গুতাতে লাগলো…
স্নেহা : [ ফিসফিস করে] দেখো আমি তোমাকে কাল সন্ধায় রিকোয়েষ্ট পাঠিয়েছি…আজ সকাল পর্যন্ত হয়ে গেলো… তুমি এখনো এক্সেপ্ট করোনি…
রাহুল একটি তেডি স্মাইল দিয়ে ? অন্যদিকে ফিরে যায়,,
স্নেহা : কি হলো Answer দিচ্ছো না কেনো?..
রাহুল : What’s wrong with you sneha! বললাম তো that’s my matter..
স্নেহা : মানে এক্সেপ্ট করবা না?..রাইট?..
রাহুল : ইয়াহ! রাইট!
স্নেহা ওকে ফাইন! বলে হঠাৎ রাহুলকে একটি চিমটি দিলো…
রাহুল : [চিৎকার করে] আআহ!?
স্যার : এই তোমরা দুজন!…অনেক্ষণ ধরে দেখছি ক্লাসে মনোযোগ নেই…আর কথা বলেই যাচ্ছো!?
রাহুল : সরি! স্যার…?
স্যার : No need Sorry… out of my class!..?
স্নেহা : [খুশি হয়ে] স্যার আমিও?
স্যার : Yes… you too..?
স্নেহা : Thank you sir!?
স্নেহা থেংক ইউ বলাতে স্যার [Shocked ]? হয়ে যায়…তাকে ক্লাস থেকে বের করে দিচ্ছি আর সে বলে থেংক ইউ..
রাহুল আর স্নেহা দুজনেই ক্লাস থেকে বেরিয়ে যায়!
রাহুল : এইভাবে চিমটি মারার কি দরকার ছিলো হুম! ?
স্নেহা : তোমারও এইভাবে ওভাররিয়েক্ট করার কি দরকার ছিলো হুম!?
রাহুল : মোটেও ওভাররিয়েক্ট ছিলো না…?
স্নেহা : আচ্ছা তাই ?লেগেছে অনেক..? দেখি দেখি…
[স্নেহা রাহুলের হাত ধরে মাঝতে লাগলো ]
রাহুল : Stop the drama! nonsense ?
এই বলে রাহুল চলে যায়,…স্নেহাও রাহুলের পিছপিছে দৌড়ে আসে…
রাহুল স্নেহাকে দেখে ও নাদেখার ভাব করে মাঠের দিকে এগিয়ে যায়…
[স্নেহা রাহুলকে দেখে Blushing হতে লাগলো আর মুচকি মুচকি হাসতে লাগলো ]
কিছুক্ষণ পর,
রাহুল : What?…?
স্নেহা : যতোক্ষণ এক্সেপ্ট করবে না আমি তোমাকে এইভাবে ডিস্টার্ব করতে থাকবো ?
রাহুল : ওকে! আমিও দেখি করো কি করবা!…
এই বলে রাহুল আবার হাটা শুরু করে…একটু পর রাহুল খেয়াল করলো স্নেহা আর তার পিছু পিছু আসছে না…তাহলে কি চলে গিয়েছে?.. পিছন ফিরে রাহুল দেখলো
[স্নেহা…ঝর্ণার ধারে বীটের উপর গিয়ে দাঁড়িয়ে আছে..]
রাহুল একটু অবাক হলো…স্নেহা ওখানে গিয়ে কেনো দাঁড়িয়েছে..? আবার ভাবতে লাগলো তাতে আমার কি?..
আবার হঠাৎ থেমে গিয়ে রাহুল ভাবতে লাগলো… মেয়েটিকি পাগল নাকি?…?
রাহুল : [পিছন ফিরে দৌড়ে স্নেহার কাছে আসে,] Hey what are doing?.. ???
স্নেহা : কেনো তোমার চোখ নেই চোখে দেখতে পাচ্ছো না কি করছি?..??
রাহুল : ???
স্নেহা : [ কেঁদে কেঁদে ]কাল সকালে নিউজে আসবে…রাহুল নামের একটি ছেলে স্নেহা নামের একটি মেয়ের রিকোয়েষ্ট এক্সেপ্ট না করাতে মেয়েটি পানিতে ঝাপ দিয়ে সুইসাইড করেছে??
রাহুল : Listen this is not funny! ok?
স্নেহা : তোমাকে অনেক জালিয়েছি ক্ষমা করে দিও?
রাহুল : দেখো স্নেহা! নিচে নামো!
স্নেহা : কেনো নামবো?.. হুম?..জান দিয়ে দিচ্ছি তাও বলছো না যে হে যাও এক্সেপ্ট করবো রিকোয়েষ্ট..?
রাহুল : Ok? Oky fine…আমি এক্সেপ্ট করবো…
স্নেহা : সত্যি?..?
রাহুল : দেখো কেউ এসে দেখে ফেলবে…আর ফালতু কথাবার্তা ছড়াবে.. So please!
স্নেহা : তোমাকে এতো সহজে বিশাস করা যায় না? আগে এক্সেপট করো… তারপর নামবো…
রাহুল : [রাগান্বিত ?চোখে স্নেহার দিকে তাকিয়ে পকেট থেকে মোবাইল বের করে স্নেহার রিকোয়েষ্ট এক্সেপ্ট করলো] See ? এবার নামো..
স্নেহা : কই দেখছিনা তো আরো কাছে এনে দেখাও না…?
রাহুল স্নেহাকে মোবাইল আরো কাছে এনে দেখালো..?
স্নেহা : How sweet dear?..
আচ্ছা আমাকে নামতে একটু সাহায্য করো না… ?[ স্নেহা হাত বাড়িয়ে দিলো ]
[রাহুল একটু বিরক্তিকর ?হয়ে স্নেহার হাত ধরলো… স্নেহা রাহুলের দিকে তাকিয়ে মিটিমিটি হাসতে?? লাগলো…আর রাহুল রাগান্বিত ভাবে তাকিয়ে রইলো ]
[স্নেহা চাইলেই আস্তে করে নামতে পারতো কিন্তু স্নেহা সজোড়ে রাহুলের গায়ের উপর ছুড়ে পড়ে…]
স্নেহা : ??? [Blushing ]
রাহুল : Dramaqueen?
[with tedi smile?]
স্নেহাকে ধাক্ষা দিয়ে সরিয়ে চলে যায় রাহুল… ?
আর মনে মনে হাসতে থাকে রাহুল…কি আজিব মেয়েরে বাবা এতো ড্রামা কেমনি করতে পারে
চলবে।।।

Comments are closed.

- Advertisment -

Most Popular

Love At 1st Sight-Season 3 Part – 70 [ Ending part ]

♥Love At 1st Sight♥ ~~~Season 3~~~ Part - 70 Ending part Writter : Jubaida Sobti সময় ঘনাতে লাগলো, মান-অভিমান সব ভুলে এই রাতটিতেই রাহুল তার...

ব্ল্যাকমেল ও ভালোবাসা

দোস্ত দেখ মেয়েটা সিগারেট খাচ্ছে! আমি একবার ওই দিকে দেখে বললাম- কুয়াশার কারণে তোর এমন মনে হচ্ছে। তারপর বললাম খেলার মাঝে ডিস্টার্ব করিস নাহ, এমনিতে...

অভিমান ও ভালোবাসা

সুন্দরী মেয়ে হাত ধরে হাটার ফিলিংসটা অন্যরকম, মেয়েটির সাথে হাঁটতে হাঁটতে জমিন থেকে উপরে উঠতে লাগলাম। আকাশে ভাসমান একটা রেস্তোরায় গেলাম, কোনো ওয়েটার নাই। মেনু দেখে...

ভালবাসা_ও_বাস্তবতা

ভালবাসা_ও_বাস্তবতা #লেখক-মাহমুদুল হাসান মারুফ #সাব্বির_অর্নব ঢাকা শহরে এত জ্যাম, বিকালটা শেষ হতেই যেন থমকে যায় রাস্তা গুলো। এত মানুষ,  এত গাড়ি তার উপর আবার মেট্রোরেলের কাজ। এই...

Recent Comments

গল্প পোকা on দুই অলসের সংসার
গল্প পোকা on মন ফড়িং ❤৪২.
গল্প পোকা on গল্পঃ ভয়
গল্প পোকা on গল্পঃ ভয়
গল্প পোকা on গল্পঃ ভয়
Samiya noor on গল্পঃ ভয়
Samia Islam on গল্পঃ ভয়
শূন্য মায়া on মন ফড়িং ❤ ৪০.
Siyam on বিবেক
Sudipto Guchhait on My_Mafia_Boss পর্ব-৯
মায়া on মন ফড়িং ৩০.
মায়া on মন ফড়িং ৩০.
মায়া on মন ফড়িং ২৬.
Shreyashi Dutta on  বিয়ে part 1
Sandipan Biswas on  বিয়ে part 1
Paramita Bhattacharyya on অনুরাগ শেষ পর্ব
জামিয়া পারভীন তানি on নষ্ট গলি পর্ব-৩০
সুরিয়া মিম on খেলাঘর /পর্ব-৪২
গল্প পোকা on মন ফড়িং ২১
গল্প পোকা on নষ্ট গলি পর্ব-৩০
গল্প পোকা on Love At 1st Sight Season 3 Part – 69
গল্প পোকা on Love At 1st Sight Season 3 Part – 69
গল্প পোকা on খেলাঘর /পর্ব-৪২
মায়া on মন ফড়িং ২১
গল্প পোকা on মন ফড়িং ❤ ২০.
গল্প পোকা on খেলাঘর /পর্ব-৪২
গল্প পোকা on খেলাঘর /পর্ব-৪২
গল্প পোকা on মন ফড়িং ❤ ১৬. 
Foujia Khanom Parsha on মা… ?
SH Shihab Shakil on তুমিহীনা
Ibna Al Wadud Shovon on স্বার্থ