হঠাৎ_পাওয়া পর্ব_১

1
2354

হঠাৎ_পাওয়া
পর্ব_১
Written by Avantika Anh
.
মা- তুই রেডি হস নি কেনো?
আমি- যাওয়ার ইচ্ছে করছে না
মা- কোনো কথা না তৈরি হয়ে নে
আমি- আচ্ছা
.
আশেপাশে সবাই আনন্দে মেতে কেনোই থাকবে না বিয়ে বাড়ি বলে কথা । আজ আমার এক কাজিনের বিয়ে । আসতেই হবে বলে আসা । আমি বাড়ির বাইরে খুব একটা আসা হয় না । বিয়ে বাড়ি বলে আম্মু কিছু টা জোড় করেই সাজিয়ে দিলো । নীল শাড়ি পড়েছি । এক সময় এই সব সাজা গোজা , শাড়ি পড়া টা অনেক শখের ছিলো । অর্নবের সাথে রিলেশনে থাকাকালে কতোই না স্বপ্ন বুনতাম । তার পছন্দমতো সাজা সব টাই ছিলো প্রতিদিনের কাজ । সে সব ভেঙ্গে যেদিন অন্য একজনের হাত ধরে গেলো সেদিন আমি কাঁদি নি । যারা জানতো রিলেশনের কথা তারা কিছুটা অবাক হয়েছিলো হবে নাই বা কেনো যে মেয়ে একটু তেই কেঁদে ফেলে সে কাঁদছে না কেনো । সেদিন অর্নবের সামনে খুব কেঁদেছিলাম কিন্তু আমার চোখের পানির চেয়ে তার কাছে একটা স্মার্ট এবং সুন্দর মেয়েকে ভালোবাসা বড় ছিলো ।
.
সেদিন বড্ড অবাক হয়েছিলাম যে অর্নব বলতো “আমার চোখের পানি তার সহ্য হয় না । সে কীভাবে এসব বললো” তারপর থেকে রোজা রাতে কাঁদতাম । এখন অনেকটাই নিজেকে গুছিয়ে নিয়েছি ।
.
একা দাড়িয়ে ছিলাম । বিয়ে বাড়িতে কেউ একা ছাড়ে না । সব কাজিন দের সাথে দাড়িয়ে আমিও গল্পে যোগ দিলাম । কিছু সময় পর গল্পের মাঝে একজনের সমাগম হলো । ছেলেটি আর কেউ নয় অর্নব । বরের কাজিন সে । আমি দেখে অবাক হই নি কিন্তু অর্নব ঠিকই অবাক হয়েছে । কারণ টা হলো ও কখনো ভাবেই নি আমার সাথে ওর দেখা হবে । আমি মেঘলাকে (ফুপাতো বোন) নিয়ে অন্য দিকে গেলাম । কোন এক কারণে মেঘলা অন্য দিকে গেলো । দেখলাম অর্নব আমার দিকেই আসছে । আমি অন্য দিকে যেতে লাগলাম ।
অর্নব- আনহা (ডাক দিলো)
আমি- জ্বী বলুন
অর্নব- আপনি করে বলছো যে
আমি- অপরিচিত দের আপনি বলাটাই শ্রেয় তাই না
অর্নব- আমি অপরিচিত?
আমি- ও না সরি ভুলে গেছিলাম আপনি তো বরের ভাই তাই না
অর্নব- এখনো রেগে ?
আমি- রাগবো কেনো ?
অর্নব- আসলে আমি ভুল করেছিলাম
আমি- আমার না কাজ আছে পরে কথা হবে
অর্নব- পালাচ্ছো ?
আমি- যা ই ভাবেন আপনার ব্যাপার
অর্নব- বদলে গিয়েছো
আমি- যেমন?
অর্নব- আগের থেকে সুন্দর কিন্তু বাচ্চার মতো স্বভাব টা আর নেই ।
আমি- মানুষ কে বদলাতে হয় । নাহলে তার থেকে ভালো কাউকে পেলে তার প্রিয় মানুষ গুলো তাকে ছেড়ে চলে যায় ।
অর্নব- সরি
আমি- সরির কিছু নেই বাই ।
.
চলে আসলাম । জানি কথা বাড়ালে আবার এক মায়ায় জড়াবো কিন্তু আর কোনো মিথ্যে সম্পর্কে জড়াতে চাই না । এক সময় যাকে সবটা দিয়ে ভালোবাসলাম সে-ই যখন ধোঁকা দিলো আর মায়া চাই না ।
.
একা বসে ছিলাম । ভালো লাগছিলো না তাই গেম খেলছিলাম । কে জানি পাশে এসে বসলো । তাকালাম না ।
.
পাশের লোকটি- মানুষ এখন মজা করছে আর আপনি বসে আছেন আর গেম খেলছেন ।
.
আমি তাকিয়ে দেখি ওটা আর কেউ না অর্নব ।
আমি- ভাই আপনার কি হয়েছে ?
অর্নব- আমি তোমার ভাই কবে হলাম ?
আমি- যেদিন জান্নাতের হয়েছিলেন সেদিন । তা বিয়ে হলো আপনাদের ?
অর্নব- জান্নাত একটা শিল্পপতির ছেলেকে বিয়ে করে ফেলেছে ।
আমি- ও খুব ভালো । জান্নাতও আপনার মতোই । এখন আমাকে গেম খেলতে দেন
অর্নব- আনহা আমাকে কি আরেকটা সুযোগ দেওয়া যায় না ?
আমি- নিশ্চুপ
অর্নব- কিছু বলো
আমি- শুনুন আমি এসবে আর জড়াতে চাই না
অর্নব- আচ্ছা
.
.
আমি উঠে আসলাম….
রাজ ভাইয়া- কি রে ছেলে পছন্দ নাকি?
আমি- আরে না
রাজ ভাইয়া- হুম দেখি দেখি
আমি- বেশি বকলে তোমার গফ রে কমু তুমি বিয়াতে ২ টা মাইয়ার লগে টাংকি মারছো ।
রাজ ভাইয়া- হারামি আইচ্ছা কমু না । বইন শুন তোরে না
আমি- কি
রাজ ভাইয়া- আমার এক বন্ধু পছন্দ করছে ওইটা কথা বলবি?
আমি- দুরর না একদম না আমি এসবে একদম ইন্টারেস্ট না
রাজ ভাইয়া- হুহ সব না তোর বিয়া যার লগে হইবো বেচারা সারা জীবন না না শুনবো
আমি- তোরে কইছে আমি অনেক রোমান্টিক
রাজ ভাইয়া- ওমা গো তাই নাকি তাইলে কথা বল ওর লগে
আমি- ভাবির নাম্বার ০১৭…………. এটা না
রাজ ভাইয়া- না না কথা বলা লাগবে না যা বইন তুই যা
আমি- আইচ্ছা
.
.
আমি গেলাম বউ এর কাছে । রাজ ভাইয়া তার বন্ধুর কাছে গেলো ।
অভি- কি রে রাজি হলো ?
রাজ- না
অভি- হালা কোনো কাজের ই না তুই ।
রাজ- দুর হ তাও তো আমি যাইয়া কইলাম । ওয় আমার বোন তাও তোর কথা শুইনা ওরে কইলাম ওয় রাজি হয় না । শুন তোর ব্যাপার তুই দেখ ।
অভি- ওকে বস আমিই দেখবো । সব ঠিক ঠাকলে জ্বলদি তুই আমার শালা হবি
রাজ- আগে পটা আমার বোন রে
অভি- যাস্ট ওয়েট এন ওয়াচ ।
রাজ- তোর প্রতিদ্বন্দীও আছে ওই যে ওই ছেলেটা নাম অর্নব ।
অভি- ব্যাপার না আমি দেখে নিবো । তুই যাস্ট একটা কাজ কর কোনো মতে ওরে একা করে দে
রাজ- ওকে বস ।
.
.
কিছু সময় পর রাজ ভাইয়া আসলো আর কি একটা আনতে বললো চাচির কাছে থেকে । আমি গেলাম ।
.
গিয়ে দেখি ওখানে কেউ নাই ।
আমি ফিরে আসছিলাম ।
অভি- আনহা
আমি- জ্বী
অভি- আসলে কিভাবে বলবো ভাবছি
আমি- আমার উত্তর না
অভি- বাট কেনো ?
আমি- এসব ভাল্লাগে না আর আমি এমনে এখনো ছোট
অভি- হায় রে পিচ্চি
আমি- হুম । নাইস টু মিট ইউ ভাইয়া আমি এইবার ভাগলাম ।
.
তাড়াতাড়ি পালাইলাম । ওইহানে যাইয়া রাজ ভাইয়ারে কইলাম ।
আমি- ভাবি রে আজ কি বলি দেখিস । কই পাঠাইছিলি ।
রাজ- সরি
আমি- হুহ
রাজ- বইন বলিস না
আমি- হুহ
রাজ- ও বইন
আমি- আচ্ছা আচ্ছা ।
.
কিছু সময় পর অর্নব জিজ্ঞেস করলো “কই গেছিলা?”
আমি- যেখানেই যাই আপনাকে কি বলে যেতে হবে ?
অর্নব- না মানে ।
.
কিছু না বলে চলে আসলাম । অনুষ্ঠান শেষ হয়ে গেলো আমি বাড়ি ফিরবো এমন সময় কে জানি হাত ধরলো ।
.
সে আর কেউ না অর্নব।
আমি- হাত ছাড়ুন প্রব্লেম কি আপনার ?
অর্নব- আনহা আমি তোমাকে আবার আমার লাইফে ফিরে চাই
আমি- আমি চাই না
অর্নব- একটা সুযোগ দেও প্লিজ
আমি- না মানে না
.
কই থেকে অভি ভাইয়া আসলো ।
.
অভি- আনহা কোনো প্রব্লেম নাকি ?
আমি- না
অর্নব- আনহা একবার ভাবো
আমি- না না না
অর্নব- কিন্তু
অভি- ওই ব্যাটা জ্বালাস কেনো ওরে
অর্নব- আপনি বলার কে
অভি- ওর ভাই এর বন্ধু
অর্নব- তো
আমি- চুপ কোনো কথা না আমি গেলাম আর আমার উত্তর না ই আর না জ্বালালে হ্যাপি হবো । অভি ভাইয়া আপনিও চলুন
অভি- ওকে
.
কিছু না বলে চলে আসলাম….
.
(কাল্পনিক গল্প)
চলবে….

1 COMMENT

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here