মেয়েটা অসত্বী  ১১ শেষ পর্ব

0
2466

মেয়েটা অসত্বী  ১১ শেষ পর্ব

লেখক/ ছোট ছেলে

<><><><><><><><>

উঠুন উঠুন বলছি হাতমুখ ধুঁয়ে টেবিলে নাস্তা রাখা আছে খেয়ে আসুন

আমি/ তুমি খাবেনা

রিমি/ পরে খাবো আগে আপনি খেয়ে নিন

আমি/ আরে না আগে তোমাকে খেতে হবে

আগে তুমি খেয়ে ঔষধ খাও তারপর আমি খাবো

রিমি/ না না তা কি করে হয় আপনি খেয়ে নিন তারপর আমি খাবো

আমি/ আচ্ছা ঠিক আছে দুজন একসাথে খাবো চলো

রিমি/ না না নীলা দেখলে খুব রাগ করবে

আমি/ আর কোন কথা শুনবনা আমি
চলো

রিমিকে জোর করে খাওয়ার টেবিলে বসালাম

দুজনে খাচ্ছি

 

ঠিক তখন নীলাও চলে আসলো

নীলা/ বাহ্ দারুনতো স্বামী স্ত্রী দুজনে খাওয়ার টেবিলে

আমি/ আরে তুমি এত সকালে এখানে

নীলা/ কেন এসে বুঝি বিপদ বাড়িয়ে দিলাম

দেখতে এলাম কাজের মেয়ের সঙ্গে তোমার সংসারটা কেমন চলছে

আমি/ নীলা ঠিকভাবে কথা বলো
এমনিতে রিমির শরীর খারাপ আবার যদি কিছু একটা হয়ে যায় এখন

রিমি চলে যাচ্ছে

নীলা/ বলো আমরা বিয়ে কবে করছি

আমি/ বিয়ে মানে কি এমন তো কথা ছিলোনা

নীলা/ কিব বলতে চাও তুমি
আমাকে বিয়ে করবেনা

 

আমি/ না কখনওই না তুমি হয়তো এটা ভুলে গেছো আমি অন্য আরেকটা মেয়ের স্বামী

নীলা/ অন্য আরেকটা মেয়ের স্বামী মানে

তাহলে আমার সাথে কেন রাত কাটালে

আমাকে কেন তোমার বুকে টেনে নিলে

আমি/ ছোট্র একটা ভুল যে ভুলে আমার জীবন থেকে অনেক গুলো সুখের দিন হারিয়ে গেছে

নীলা/ভুলটা তোমার ছিলো আমার নয়

আমি/ ভুলটা আমার ছিলো কিন্তু তোমারও তো প্রয়োজন ছিলো টাকা

যার জন্য তুমি আমার সাথে রাত কাটালে

শোন এসব কথা বাদ দাও তুমি তোমার মত থাকো আমাকে আমার মত থাকতে

রিমি আড়ালে দাঁড়িয়ে আমাদের সব কথা শুনছে

অনেকক্ষণ ধরে নীলার সাথে আমার কথা কাটাকাটি চলছে

কিন্তু রিমি কোথায় তাকে তো দেখা যায়না

আমি/ রিমি এই রিমি রিমি

কি ব্যপার মেয়েটা আবার কোথায় গেলো

মনের ভিতর-ই সন্দেহ জাগলো

 

না ভিতরে গিয়ে দেখি

 

আমার পিছনে নীলাও আসতে লাগলো

রিমির ঘরে গিয়ে দেখি রিমি চিত হয়ে শুয়ে আছে

আমি/ রিমি এই রিমি কথা বলো

নীলা/ ধ্রুব ওকে হাসপাতাল নিয়ে যেতে হবে

ও অনেক গুলো বিষ খেয়েছে

আমি/ বিষ

নীলা/ হুমমমম বিষ আর দেরি করা ঠিক হবে ওকে এখন-ই হাসপাতাল নিয়ে যেতে হবে

আমি/ তুমি একটা গাড়ীর ব্যবস্থা করো আমি ওকে নিয়ে আসতেছি

নীলা একটা গাড়ি নিয়ে আসলো

রিমিকে গাড়িতে উঠালাম
তারপর হাসপাতাল

রিমি ভিতরে বিষের জ্বালায় ছটপট করে আর আমি তাকে হারানোর ব্যথায় বাহিরে ছটপট করি

নীলা আর আমি বাহিরে বসে রইলাম

নীলা আমাকে একটু শক্ত করার জন্য

নীলা/ দেখ ওর কিছু হবেনা
ও আবার ঠিক হয়ে যাবে তোমার বুকে ফিরে আসবে

নীলার কথা শুনে একটু ভরসা পেলাম

কিছুক্ষণ পর ডাঃ বেরিয়ে আসলো

নীলা/ ধ্রুব ডাঃ

আমি দৌড়ে গিয়ে

 

আমি/ ডাঃ আমার রিমি

 

ডাঃ/ দেখুন ভয়ের কিছু নেই একটু পরে আপনারা ওর সাথে দেখা করতে পারবেন

কিছুক্ষণ বাহিরে অপেক্ষা করার পর মনকে আর বোঝাতে না পেরে ডাঃ কে বলে ভিতরে গেলাম

ভিতরে গিয়ে রিমির পাশে পাশে বসে কাঁদতে লাগলাম
আর বলতে লাগলাম

আমি/ রিমি কেন এমন করলে আমিতো তোমাকে হারাতে চাইনি
তুমি কেন চলে যেতে চাইলে আমাকে একা করে না ফেরার দেশে

খুব ভালোবেসে ফেলেছি তোমাকে শুধু বলতে পারিনি

কিছুক্ষণ পর রিমির হাত আমাকে স্পর্শ করলো

আর রিমি গুনগুন করে বলতে লাগলো

রিমি/ এই যে সাহেব কে বললো আপনাকে এত সহজে আমি ছেড়ে চলে যাবো

দেখুন আমি এখনও বেঁচে আছি আপনার বুকে মাথা রেখে ঘুমাবো বলে

আপনার ভালাবাসা আমাকে এখনও বাঁচিয়ে রেখেছে শুধু আপনার জন্যে

এই প্রথম অনেক ভালোবাসব নিয়ে রিমির কপালে একটা চুমু খেলাম

নীলা দাঁড়িয়ে আমার আর রিমির সব কথা শুনলো

 

সব শুনে রিমিকে বললো

 

নীলা/ বোন জানি আমার কোন ক্ষমা নেই তোমার উপর অনেক অন্যায় অত্যাচার করেছি পারলে ক্ষমা করে দিও
বোন ভেবে
আর কখনও আসবোনা তোমার ভালোবাসার ভাগ নিতে

নীলা আমার রিমির হাত এক করে দিয়ে চলে যাচ্ছে

আমিও রিমির বুকে মাথাটা রাখলাম

রিমি/ আহহহহহহ

আমি/ ব্যথা পেলে অসত্বী বউ

রিমি/ হুমমমম আদর্শবান স্বামী অনেক পাইছি

বলে রিমি আমাকে জড়িয়ে ধরলো

যাক অবশেষে জায়গা করে নিতে পারছি রিমির বুকে

সমাপ্ত

আপনারও দোয়া করবেন যেন আমরা সুখী হতে পারি

ছোঁটঁ ছেঁ লেঁ

#ধ্রুব

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে