নীলপরী (পর্ব ০৪)

0
722

নীলপরী (পর্ব ০৪)
#শান্তনা_ইসলাম
·
·
·
পরী বাসায় ঢুকতেই

ঃঃঠাসঠাসঠাসঠাস

পরীঃঃআহ,,,,,মা মারছো কেনো??

মাঃ মারবো না তো কি আদর করবো???কয়টা বাজে দেখিছিস???

পরীঃ৪ টা বাজে

মাঃঃ বাসায় আসার দরকার কি ছিলো থেকে গেলেই পারতি

পরীঃঃআগে বললেই পারতে তাহলে থেকে যেতাম

মাঃ কোন কলেজ ৪ টা পর্যন্ত খোলা থাকে শুনি,,,

পরীঃ কলেজে শেষে প্রাইভেটে গেছিলাম,,স্্যার খুব ভালোতো আজ বেশি করে পড়াইছে,,তাই লেট হয়ছে,,,

মাঃঃছিটারি আমার সাথে কম করে কর,,তোর চোখ মুখ দেখেই বুঝছি ,মিথ্্যা বলছিস,,,কোথায় গেছিলি সত্যি করে বলতো,,,

পরীঃঃবললাম তো পড়তে গেছিলাম

মাঃঃ আবার???
এখনই জয়েন করুন আমাদের গল্প পোকা ফেসবুক গ্রুপে।
আর নিজের লেখা গল্প- কবিতা -পোস্ট করে অথবা অন্যের লেখা পড়ে গঠনমূলক সমালোচনা করে প্রতি মাসে জিতে নিন নগদ টাকা এবং বই সামগ্রী উপহার।
শুধুমাত্র আপনার লেখা মানসম্মত গল্প/কবিতাগুলোই আমাদের ওয়েবসাইটে প্রকাশিত হবে। এবং সেই সাথে আপনাদের জন্য থাকছে আকর্ষণীয় পুরষ্কার।

গল্পপোকার এবারের আয়োজন
ধারাবাহিক গল্প প্রতিযোগিতা

◆লেখক ৬ জন পাবে ৫০০ টাকা করে মোট ৩০০০ টাকা
◆পাঠক ২ জন পাবে ৫০০ টাকা করে ১০০০ টাকা।

আমাদের গল্প পোকা ফেসবুক গ্রুপে জয়েন করার জন্য এই লিংকে ক্লিক করুন: https://www.facebook.com/groups/golpopoka/?ref=share


পরীঃঃধুর বাল,,প্রেম করতে গেছিলাম তোমার হবু জামাই এর সাথে,,হয়ছে এবার খুশিতো??

মাঃঃ কি বললি??

পরীঃঃশুনতে পাওনি বললাম ডেটিং এ গেছিলাম,,আমার যেখানে খুশি যাবো,,

মাঃঃশয়তানি,,হারামজাদ­­­ি তোরে আজ আমি মেরেই ফেলবো বলা শেষ না হতেই,,,রুহি উঠানের কোনে থেকে একটা লাঠি এনে মায়ের হাতে ধরিয়ে দিয়ে বললো

পরীঃঃকি করবে,,মারবে মারো,,মেরে ফেলো

মাঃঃঃখুব সাহস বাড়ছে তাইনা??

পরীঃঃপ্রেম করতে গেলে সাহস থাকতে হয়,,ভিতু হলে চলে না,,নাও নাও মারা শুরু করো

মাঃঃবেয়াদপ মেয়ে, বের হয়ে যা আমার বাসা থেকে,,তোর এ বাড়িতে কোন জায়গা নাই,,, দুধ কলা দিয়ে কালসসপ পুশছি,,বাবা মসর সম্মানের কথা একবারো ভাবিস না,,,কেমন মেয়ে তুই

পরীঃঃ ঐ তোমার বচন থামাবে,,,আমার ভালো লাগছেনা,,,আর আমি কি পালায় গেছি বা কারো সাথে খারাপ কাজ করছি যে বলছো মানসম্মান নস্ট করার কথা বলছো,,পুরো এলাকায় জিগ্গাসা করে দেখো কারো ক্ষমতা নাই আমার নামে একটা বাজে কথা বলার,,,আর বাসা থেকে বেড় হয়ে যাবার কথা বলছো???সত্যি একদিন চলে যাবো,,তখন হাজার খুজেও পাবেনা,,,,,

বলেই হনহন করে রুমে ঢুকে পড়লো পরী,,,

রুমে ঢুকে ঠাস করে দরজা লাগিয়ে দিল গোসল দিয়ে আসরের নামায পড়ে না খেয়েই বিছানায় শুয়ে পড়লো,,,,,,, নীলের সাথে সারাদিন কাটানোর কথা ভাবতে ভাবতে ঘুমিয়ে গেলো,

,মাগরিবের আযান শুনে পরীর ঘুম ভাংলো,,বিছানা থেকে উঠে নামায পড়ে রুম থেকে বের হয়ে সোজা রান্না ঘরে গেলো

মা পরীকে দেখেইঃ;ঃনবাবজাদির ঘুম তাহলে ভেঙেছি,,,,,,আমিতো জানি পেটে টান পড়লে হুরহুর করে চলে আসবেন,, নিন এবারে খেয়ে শক্তি বাড়িয়ে আবার প্রেম করতে লেগে পড়ুন,,

পরীঃঃধুর বাল,,অলটাইম খালি পেচাল পারতেই থাকে,,এতো বচন শুনতে আমার ভালো লাগেনা,,তোর খাবার তুই খা,,,খাবোই

না তোদের খাবা,,বলেই হনহন করে রাগে ফুসতে পুসতে রুমে আসলো

.
.

রুমে এসে ঠাস করে দরজা লাগিয়ে দিলো,,,নীল কে ফোন দিলো,,

নীল ফোন ধরতেই

পরীঃঃকোথায় আপনে??

নীলঃঃপ্রাইভেট পড়িয়ে বাসায় যাচ্ছি

পরীঃনা বাসায় যাবেন না

নীলঃবাসায় যাবোনা মানে???

পরীঃঃআমার সাথে দেখা করতে আসবে এখন

নীল ঃপাগল নাকি,,রাতের বেলা আমি যেতে পারবোনা,,তোমার এলাকার লোক দেখলে আমারে ধরে পিটাবে,,

পরীঃএতো কিছু জানি না,,আপনারে আসতে হবে মানে আসতে হবে,,

নীলঃঃকিন্তু এখন হটাত কি দরকারে??

পরীঃঃদেখতে মন চায়,,,,আর আমার ইচ্ছা হয়ছে তাই

নীলঃঃসারাদিনতো দেখলে,,,এখন আর দেখতে হবেনা,আমার তো আর রুপ বার হয়নি যে দেখতে হবে,আমি এখন রাতের বেলা আসতে পারবোনা

পরীঃঃআসবেন নাতো,,ঠিক আছে এবারে আমার থেকে খারাপ কেও হবে না,,দেখুন আমি কি করি

নীলঃঃকি করবে??এতো রেগে আছো কেন??আম্মা কিছু বলছে নাকি?

পরীঃকেও কিছু বলেনি,,আপনি এখন আসবেন এটাই জানি

নীলঃঃ ধুর গেলেতো কথা বলো না দুর থেকে দেকেই চলে আসতে হয়,,,আগেও কতোবার গেলাম,, দুর থেকে দেখেই চলে আসতে হয় তাও এক মিনিট মাত্র,,এতো কস্ট করে শুধু দেখতে তো যাবোনা,,আসলে কি করতে দিবে?

পরীঃঃসব

নীলঃঃমানে??তুমি এ কথা বলছো??সিরিয়াস লি??

পরীঃহুম,আমি বলছি,,,সব করতে দিবো

নীলঃঃআমি যানি তুমি মুখে ফটর ফটর করো,,বাট আসলে দিবেনা,,,, আমি যাবো না

পরীঃঃ বললাম তো দিবো

নীল ঃঃতবুও আসবো না,,আমার লাগবে না কিছু,,জানোনা এগুলো করা পাপ,,,এসব করতে হয় না বাবু মাথা ঠান্ডা করো

পরীঃঃতুই আসবি কি না??

নীলঃঃ না

পরীঃঃঠিক আছে আমি এখন রাস্তায় যাকে পাবো তার সাথেই সব করবো

নীল ঃঃসব করবে মানে??

পরীঃঃফিজিক্্যাল রিলেশন করবো
.
.

নীলঃঃপাগল হয়ছো তুমি,,ফাজলামি বাদ দাও

পরীঃঃআমি যে ফাজলামি করি না এটা তুমি ভালো করেই যানো,,,ভালো থেকো বাই,,,,
নীলঃঃওয়েট ওয়েট বাবু ফোন কেটোনা,,আমি আসছি,,আমি এখুনি আসছি,,,

.
.
পরীঃঃনা না আসতে হবে না,,,আমি যাকে পাবো তার সাথেই করবো আপনারে কস্ট করে আসতে হবে না,,আপনারে তো লোকে ধরে মারবে,আমার কারনে মার খেতে হবেনা,আমি অন্্য কারো সাথেই করবো

নীলঃঃচুপ থামো,,,মাথায় মাঝে মাঝে এতো ভুত চাপে কেন??আমার বউকে অন্য কেও ছুবে না,,ছুইলে আমি ছুবো,,আমি আসছি,,,১৫ মিনিট ওয়েট করো,,না না ওয়েট করা লাগবে না,,আমি সাইকেল চালিয়ে কথা বলতে বলতেই আসছি,,,

পরীঃহুমমম না আসা লাগবেনা,,

নীলঃঃচুপ,আমি আসছি,,,জান আসলে কি কি করতে দিবে??আমি কিন্তু সব করবো বলে দিলাম,আজ তোমারে আদরে আদরে ভরিয়ে দিবো

পরীঃঃহুমম,,

নীলঃসারাদিন খাইছো কিছু

পরীঃঃজানিনা

নীলঃঃতার মানে খাওনি,,আম্মু বকছে কি??

পরীঃঃআমিতো খারাপ মেয়ে যানো না,,আরো খারাপ হবো,,,

নীলঃঃএকটা চর দিবো,আমার পরী খারাপ হতে পারেনা,আমার পরী লক্ষী একটা মেয়ে,,সোনাটা আমার,, জান আজ তোমার মিস্টি ঠোটে কিন্তু কিস করবো,অনেকক্ষণ,, দিবেতো??

পরীঃঃহুম সবসবসব পাবে,,আজ যা চাইবে সব

কথা বলতে বলতে নীল পরীর বাসার সামনে চলে আসে,,,

নীলঃঃবাবু আমি চলে আসছি,,তোমার বাসার সামনের রাড্তায় দাড়িয়ে আছি,তুমি বারান্দার ওপর আসো,,,আার বাতিটা জালিয়ে দাও,আর ফোন কাটবেনা কেমন,,কথা বলতেই থাকো

পরী বাতি জালিয়ে বারান্দায় গেলো,,,

নীল রাস্তার ওপর সাইকেলে বসে থেকে পরীকে দেখতে লাগলো,
একটু পর

নীলঃঃ,,বাবু এবারে রুমে চল যাও

পরীঃঃমানে কিছু করবে না,

নীলঃঃচুপ,,এসব বিয়ের আগে করা পাপ বুঝলে

পরীঃঃতাহলে যে রাজি হলে,

নীলঃঃআমিতো জানি কোন বেপারে খুব রেগে আছো,মাথায় ভুত চাপছে,,তাই এসব উল্টা পাল্টা বকছো,,আর মনে হয় সারাদিন খাওনি তাই আরো রেগে আছো,,আর আমিতো জানি আমায় দেখলে রাগ থাকবেনা,,সব ফুস করে উড়ে যাবে,,তাইতো আসলাম,,, আর এতোক্ষণ মজা করে এগুলো বলছি তুমি কি বলো শোনার জন্্য,,,,,বাবুটা লক্ষিটা আমার,,,রুমে গিয়ে খেয়ে ঘুমিয়ে পড়বে,,,,,,

পরীঃঃনা,,

নীলঃঃআমার কথা না শুনলে কস্ট পাবো,,তুমি কি চাও আমি কস্ট পাই??

পরী’ঃনা,,,

নীলঃঃযাও রুমে যাও,

পরীঃঃআমায় এতোটা কেমনে বুঝো বলোতো??তোমার জায়গায় অন্য কেও থাকলে ঠিকি সুযোগ নিতো,,বাট তুমি পুরাই উল্টো,,তোমার এ কাজ গুলোর কারনে এতোবার ব্রেকাপ হবার পড়েও,,,ছাড়তে পারি না তোমার ডাকে

.
.

ফিরে না এসে থাকতে পারিনা,,,

নীলঃঃতাই??

পরীঃঃহুম,,ভালোবাসি,,­­আমার গোলাপিকে

নীলঃঃ আবার গোলাপি বলছো?

পরীঃঃ হুম,,তুমিতো জানো,,আমার তোমায় গোলাপি বলতে ভালো লাগে,,এটাতো আদরের ডাক,,,

নীলঃনীল তা বলে মেয়ে মানুষের নাম ধরে ডাকবে??আমার বন্ধুরা তাদের সামনেও ডাকো,,সবাই কতো খেপাি আমায় জানো?

পরীঃঃআমার কি দোষ??তোমার ঠোট টা যদি এতো গোলাপি না হতো আমিতো গোলাপি বলতাম না,, সব দোষ তোমার ঠোটের,,,

নীলঃঃতাহলে সিগারেট খেয়ে কালো করে ফেলবো,,

পরীঃঃএকটা লাত্থি দিবো,,৷আপনে জানেন না আপনার এই
গোলাপি ঠোট দেখেই ফিদা হয়ছিলাম ,গোলাপি ঠোটেরিতো প্রথম প্রেমে পড়ছিলাম,,,আর এটা ঐ ছাই খেয়ে নস্ট করলে একদম খুন করে ফেলবো,,

নীলঃতাই,,,আচ্ছা আমি এখন বাসায় যাবো,তুমি রুমে যাও

পরীঃঃওকে,, টাটা

ফোনটা কেটে দিলো,,

পরী রুমে গিয়ে সোজা রান্না ঘরে গেলো,,দেখলো কেও নাই,,,,, পরী খাবার নিয়ে খেয়ে রুমে চলে আসলো,,বিছানায় শুয়ে পড়লো,,

নীল ও বাসায় গিয়ে ফ্রেশ হয়ে খেয়ে শুয়ে পড়লো

পরী ঘুমিয়ে পড়লো,,হটাত মাঝরাতে পরীর ঘুম ভাংলো,,,কিছুতেই আর ঘুম আসছেনা,,,তাই নীলকে ফোন দিলো,,ফোন বেজে উঠায় নিলের ঘুম ভেঙে গেলো,, ফোন ধরেই,,

নীল এতো রাতে ফোন দিছো কেনো??ঘুমাচ্ছিলামতো,­­,

পরীঃঃঘুম আসছে নাতো,,কিস খেতে মন চাচ্ছে কিস দাও

নীলঃঃআল্লাহগো তুমি তুলে নাও আমায়,,, মাঝরাতে ফোন করে কিস চাইছে,,৷ এই এতো পেরা দাও কেন তুমি/?/শান্তিতে ঘুমাতেও দিবেনা?

পরীঃঃআমি পেরা দেই??লাগবে না যাও,,আর কোনদিন তোমায় পেরা দিবোনা,,ফোন দিবোনা,,গুড বাই,,,

নীলঃওয়েট থামো দিচ্ছি,,কয়টা দিবো বলো??

পরীঃঃজানিনা,,লাগবেনা

নীলঃঃসরি,,,কয়টা দিবো বলো

পরীঃঃ১০০

নীলঃএততো গুলো,,পাশের ঘরে দাদি শুনতে পাবে তো,

পরীঃঃশুনলে শুনুক,আমার চাই

নীল,,যো হুকুম মহারানি,

তারপর নীল কিস করতে শুরু দ
করলো,,

.

কিস করা শেষে

নীলঃ হয়ছে জান?

পরীঃঃহুম হয়ছে,,একটা গান শুনাওতো,,

নীল ঃঃএখন???

পরীঃঃহুমম,, ভালো গান শুনাবে,,,রোমানটিক গান,,,আমার বান্ধবিদের বি এফ রা রোজ ওদের কতো সুন্দর ওদের রোমানটিক ভালোবাসার গান শুনায়,,আর তুমি আমায় একদিন শুনাইছো তাও পেরা লাগে পেরা লাগে পেরা লাগেরে,,এই গান শুনাইছো,,,হায়রে আমার কপাল,, কারো বি এফ তার জি এফ কে পেরা লাগে শুনায়,,এটা মনে হয় তোমার মতো বি এফ এর দারাই সম্ভব,,, তোমারে ওসকার দেওয়া উচিত,,,বুঝলে,,,৷

নীলঃঃিহিহি বাবু এই একটা কথা বলবো,,রাগ করবে নাতো??

পরীঃঃহুম বলো….
·
·
·
চলবে………………

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here