নিশি_কাব্য ৩য় পর্ব-

0
637

নিশি_কাব্য ৩য় পর্ব-
লেখা-Rudro Khan Himu

দুই দিন পর
=হাই
-হ্যালো ম্যাম
=কেমন আছেন স্যার?
-পৃথিবীর সবচেয়ে সুইট একটা মেয়ের সাথে কথা বললে যতটুক ভাল থাকা যায়
=চাপা মার!
-সত্যি কথা বললে সেটা যদি চাপা হয়ে তবে তো আমার কিছু করার নেই
=তাই?
-ও হ্যা শোন, তোমার সাথে আমার কিছু জরুরী কথা আছে।
=আপনার কি এমন জরুরী কথা আছে আমার সাথে
-আছে কিছু কথা। তোমার আমার এইম ইন লাইফের সাথে ফিউচার ইন লাইফ রচনা লিখব। আচ্ছা আমাদের প্রথম দেখা যেন কোথায় হয়েছিল মনে আছে?
=মনে না থাকার তো কোন কারণ নেই। আমার জানের সাথে আমার প্রথম যেখানে দেখা হয়েছিল সেই স্থান এবং সময়টা কি আমি ভুলে যেতে পারি?
-আগামীকাল বিকার ৫টার দিকে ওখানে আসতে পারবে?
=পারব
-ঠিক যেমন প্রথম দিন যে শাড়িটা পরে এসেছিলে ঠিক সেটা পড়েই আসবে।
=ওটা পড়েই আসতে হবে?
-হুমম। আচ্ছা আমি একটু বিজি আছি, রাখছি
=ওকে বাই
-বাই
পরদিন বিকাল ৫টা
=এভাবে তাকিয়ে কি দেখছ?
-তোমাকে
=আমাকে আবার নতুন করে দেখার কি হল?
-না, তোমাকে যখন দেখি তখন প্রতিবারই নতুন করে দেখি। তবে আজকে সেই প্রথম দিনের সাথে মেলাতে চেষ্টা করছি
=তো কিছু খুজে পেলে?
-[চুপ]
=উত্তর দিচ্ছ না কেন?
-কি খাবে অর্ডার কর
=তুমি কর
এখনই জয়েন করুন আমাদের গল্প পোকা ফেসবুক গ্রুপে।
আর নিজের লেখা গল্প- কবিতা -পোস্ট করে অথবা অন্যের লেখা পড়ে গঠনমূলক সমালোচনা করে প্রতি সাপ্তাহে জিতে নিন বই সামগ্রী উপহার।
আমাদের গল্পপোকা ফেসবুক গ্রুপের লিংক: https://www.facebook.com/groups/golpopoka/


-না ঐ দিন আমি অর্ডার করেছিলাম আজ তুমি কর
খেতে খেতে
=কি ব্যাপার চুপ করে আছ যে?
-এমনি
=তুমি না কি জরুরী কথা বলবে?
-হুমম বলব
=তো বল তোমার জরুরী কথা। নাকি তোমার জরুরী কথা হচ্ছে এভাবে চুপ করে বসে থাকা?
-খাওয়া শেষ কর
=এবার বল তোমার সিরিয়াস কথা
-আমি আমাদের এই রিলেশনশীপটা আর টানতে চাচ্ছি না
=রিলেশনশীপ টানতে চাচ্ছি না মানে কি?
-টানতে চাচ্ছি না মানে টানতে পারছি না। আমি বেশ কয়েকদিন ধরে অনেককিছু নিয়ে ভেবেছি। দেখলাম না আর সম্ভব না
=[কাদো কাদো কন্ঠে] এগুলো কি বলছ তুমি?
-আমি ঠিকই বলছি। দেখ আমি কয়েকদিন ধরে আমাদের সেই প্রথম পরিচয়ের দিন থেকে বর্তমান সময় পর্যন্ত ভেবেছি। প্রথম যেদিন তোমার সাথে আমার দেখা হয় সেদিন আমি খুব সাধাসিধে একটা ছেলে ছিলাম। দেখতে স্মাটনেস বলতে যা বোঝায় তার কিছুই আমার মাঝে ছিল না। আমার ড্রেসআপ, গেটআপ তোমার পছন্দ হয়নি। এই কারণেই তুমি বলেছিলে আসলে আমি খুবই দু:খিত।সবারই তো নিজস্ব একটা পছন্দ থাকে…… আমি আসলে যেরকম ছেলে প্রত্যাশা করি সেরকম ছেলে আপনি নন। তারপর এক বছর পরে যখন তুমি আমাকে অন্যরকম দেখলে তখন তুমি আমার সাথে যোগাযোগ করলে। আমার কথা শুনে মুগ্ধ হলে। আমার প্রেমে পড়ে গেলে। তো তুমি তো কখনই আমার মনটাকে দেখতে চাওনি। আমার মনটাকে ভালবাসতে চাওনি, বুঝতে চাওনি। আমার বাইরের চাকচিক্য কেমন তাই তোমার কাছে মূখ্য বিষয়। একটা মানুষের মূল জিনিস হচ্ছে তার মন। আমি দেখতে আজ যত সুন্দরই হই না কেন কয়েকবছর তো আমার এই সৌন্দর্য থাকবে না। আর আমার সৌন্দর্য্য যখন কমতে থাকবে তখন নিশ্চয়ই তোমার ভালোবাসার পরিমাণও কমতে থাকবে। কারণ তুমি তো আমার মনের ভিতরটাকে কখনও দেখতে চাওনি এবং চাইবেও না। আর এই ধরনের মন-মানসিকতার একটা মেয়ের সাথে সারাজীবন একসাথে কাটানো তো অনেক দূরের কথা, তাকে আমার সাধারণ একজন ফ্রেন্ড হিসেবেও আশা করি না। সো ইটস ওভার। আর তোমার সেইদিনের সেই আচরণে আমি মনে অনেক বড় আঘাত পেয়েছিলাম। আজকে আমার যে পরিবর্তন দেখছ তার মূল কারণ তোমার ঐ কথাগুলো, ঐ আচরণগুলো। থ্যাংকস তোমাকে আমার এই পরিবর্তন আনার জন্য। অনেক কথা হয়েছে, ভালো থেকো তোমার নিজের মত করে আর পারলে সেই সাথে দৃষ্টিভঙ্গিটাকে চেঞ্জ কর। শুধুমাত্র বাইরে থেকে দেখে একজন মানুষকে বিচার করো না, তাকে ভিতর থেকে দেখার চেষ্টা কর। আসি। গুড বাই ফর টোটাল লাইফ।
ফুচকার দোকান থেকে বেরিয়ে আসি আমি। রিক্সায় উঠে হঠাৎ করে বিকালটাকে কেন জানি অনেক সুন্দর মনে হচ্ছে। নিশির সাথে কথা শেষ করার পর আর একবারও ওর দিকে তাকাইনি। জানি তাকালেই ওর জলভরা চোখ দেখতে পাব। ওর জলভরা চোখের ছবিটা চোখের সামনে নিয়ে এই সুন্দর বিকালে ঘুরে বেড়াতে চাই না।
চলবে ?
( নিশির সাথে এমন টা করা কি ঠিক হয়েছে। পাঠকদের মতামত জানতে চাই)

এখনই জয়েন করুন আমাদের গল্প পোকা ফেসবুক গ্রুপে।
আর নিজের লেখা গল্প- কবিতা -পোস্ট করে অথবা অন্যের লেখা পড়ে গঠনমূলক সমালোচনা করে প্রতি সাপ্তাহে জিতে নিন বই সামগ্রী উপহার।
শুধুমাত্র আপনার লেখা মানসম্মত গল্প/কবিতাগুলোই আমাদের ওয়েবসাইটে প্রকাশিত হবে। এবং সেই সাথে আপনাদের জন্য থাকছে আকর্ষণীয় পুরষ্কার।

▶ লেখকদের জন্য পুরষ্কার-৪০০৳ থেকে ৫০০৳ মূল্যের একটি বই
▶ পাঠকদের জন্য পুরস্কার -২০০৳ থেকে ৩০০৳ মূল্যের একটি বই
আমাদের গল্পপোকা ফেসবুক গ্রুপের লিংক:
https://www.facebook.com/groups/golpopoka/

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here