নিশি কাব্য ১২ পর্ব-

0
416

নিশি কাব্য ১২ পর্ব-
(রোমান্টিক সংসারে গল্প)
লেখা-Rudro Khan Himu

দেখি মহারানী ঘুম থেকে ওঠে বসে চুপ করে বসে
আছে!! আমি কাছে যেতেই অন্যদিকে মুখ
ঘুড়িয়ে নিলো। ( ও আচ্ছা অভিমান করছে) ( মেয়েড়া
অভিমান করলে ভাঙায় কিভাবে?) আমি নিজেই কথা
বললাম..
এখনই জয়েন করুন আমাদের গল্প পোকা ফেসবুক গ্রুপে।
আর নিজের লেখা গল্প- কবিতা -পোস্ট করে অথবা অন্যের লেখা পড়ে গঠনমূলক সমালোচনা করে প্রতি সাপ্তাহে জিতে নিন বই সামগ্রী উপহার।
আমাদের গল্পপোকা ফেসবুক গ্রুপের লিংক: https://www.facebook.com/groups/golpopoka/



— একা একা চলে আসলে কেন? (সাব্বির)
– চুপ।( নিশি)
— না মানে আর আমাকে না বলে বাসায় চলে আসলা কেন?
– চুপ
— ভাল ভাল। আচ্ছা কথা বলছো না কেন??
– কি কথা বলবো? যাও ঐ সুন্দরি মেয়ের কাছে
যাও, আমি তোমার কে?
— ইশ রে! আমার বউ টা কতোইনা রাগ করছে রে।
রাগ করেনা লক্ষীশোনা!!
– এসবে কাজ হবেনা! আর শুনো তুমি আমাকে
বউ ডাকবানা,
<< তাইলে কি বাবুর আম্মু ডাকবো? <এ!! তুমি এত নির্লজ্জ বেহায়া কেন!! <<মা বলতেন, আপন ঘড়ে লজ্জা করতে নেই, এজন্য! <ওসব শুনতে চায়না! যাও ভাগো! << যাব কই? <জাহান্নামে <<তাইলে সুন্দরি তিশার বাসায় যাই? <কিহ?? <<তুমিও তো বললে!! <আমি বলছি?? আচ্ছা মনে মনে যেহেতু ঐ মেয়েকে নিয়েই ভাবনা তাইলে আর কি যাও!! <<আচ্ছা যাই!! তুমি কি যাবা কি কি করি দেখতে? < আমার বয়েই গেছে দেখার জন্য! << তাইলে পড়ে কি বলে খুঁচা মারবা? পুরাতন আইটেম বাদ, নতুন কিছু চায়!! < ফাজিল,, << সবসময় ছিলাম! << দুষ্টু, বান্দর, হুনুমান, কলাগাছ, রিড়াল <<পুতুল বউ, বাবু শোনা, - << হুহ!! <<আচ্ছা চলো খাবার দিবা!! <<সেটা যে হবার নয় গো... - কেন?? <<আজ তোমার খাবার বন্ধ!! << তো খাবো কি? << কেন হাওয়া খেয়ে থাকবে? << মানে কি এসবের?? <<মানে তো নায়! তুমি সুন্দরি তিশার কাছে যাচ্ছ সেখানে খেয়ে নিও!! কত্ত কিচ্ছু রান্না করছে সেই মেয়ে, বাব্বাহ... <<দ্যাখো খুদা লাগছে কিন্তু! তুমি জানো আমি খুদা সইতে পারিনা! কেন শাস্তি দিচ্ছ?? << প্যানপ্যানানি শুনতে মন চাচ্ছেনা যাও তো.. <<কিহ!! আমি... আচ্ছা ভাল.. আমি দেখাব মজা... বিয়ে করেও যদি না খেয়ে থাকা লাগে, তাইলে সবায় কে বলব তোরা বিয়ে করিস না! এমন দজ্জাল বিউ ঘড়ে তুলিস না, জ্বলেপুড়ে মরবি!! এটা বউ না আস্ত একটা পাষান্ড!! বিয়ে না করায় ভাল ছিল! শুধু আগাছা বয়ে বেড়ানো!! ধুর রুমের গুষ্টি পিণ্ডি!! থাকো আমি বাইরে থেকেই খেয়ে নেবো!!এরপরে মাথায় আগুন আর পেটে আকাশ সমান খুদা নিয়ে বেড় হলাম রাস্তায়!! আর তানভীরকে কল দিলাম! তানভীর সাথে খুলে বলতেই শালা মহাখুশি!! <<ডিয়ার মামা, চিন্তা বাত কারিঙ্গে, চালিয়ে মেরা সাত আমি- কই যাব << আই,য়ে না ব্যাটা.. << আচ্চা চল.. << তুমহারে লিয়ে আজ মেরা বহাত মজা করিঙ্গে, লেকেন তুমিহারা ফোন অফ করলিয়ে! মাতলব ভাবি কল নাহি দিয়েঙ্গে, সামঝে?? << শালা হারামী তুই জানিস না, বাংলা আর ইংলিশ ছাড়া আমি অন্য ভাষা বুঝিনা! শালা ইন্ডিয়ার দালাল! যাহ ফোন অফ করলাম! চল আগে খাই খুদা লাগছে.. -- চালিয়ে মেরা সাথ মেরা ভাই!! - শালা আবার.. - আচ্ছা হাহাহা চল দোস্ত!! বল কি কি খাবি? - এখানে না হোটেলে? - রাগছিস কেন?? - রাগবো না!! তোর ভাবি এমন একটা জঘন্য কাজ করল আর তুই কিছুই বললি না!! তুই ও সালা স্বার্থপর। -- হাহাহা,, মামা আজকে বিল তুই দিবি!! কারন তোর মেজাজ খারাপ তায় - এ আর নতুন কিহ!! -- চেতিস ক্যান!! ভাবি দেখবি ২ ঘন্টা পরে বলবে ওগো ওমুকের বাপ, ঘড়ে আসো, আমি আর পারতেছিনা, প্লিজ তাড়াতাড়ি!! - তবেরে শালা... -- শুনেক!! খাওয়া হলে আমরা, মুভি দেখবো তারপর ( রাতের পাখি) - না তোর ভাবি বুঝলে আমার আর ঘড়েই ফিরতে দেবেনা! সারাজীবন রাস্তায় কাটাতে হবে! - মামা কি যে বল না!! - গেলে তুই যাবি টাকা আমি দিবো!! -- হাহাহা আচ্ছা!! শালা ভিতু!! . . খাওয়া শেষ করে সেই মাপের আড্ডা দিয়ে ড্রিংক করে মাথা সেই ভার... তানভীর আবার ড্রিংক করতে পারেনা!! বমি আসে ওর! তায় পুরাটা একায় ঝাড়লাম.. ফোন অন করতে ভুলেই গেছি অন করে দেখি ২.৪৮ বাজে.. আর মিসড কল ৬৫ টা, মেসেজ ৫০ টা... সব সরি সরি টাইপের মেসেজ... --- কিরে শালা.. আজ না বউ য়ের সাথে রাগ করে বাসা থেকে বেড় হলাম!! তাইলে এত রাতে আমি এখানে কেন?? মালের নেশায় ( ড্রিংক) মাথা আওলাঝাওলা!! তানভীর গাড়ি করে দিয়ে গেল!! ---কলিং বেল দিতেই দোরজা খুলে দিল... -- তুমি ড্রিংক করছো??(নিশি) -- কিই না!! জীবনেও না! কোন দিন না..(সাব্বির) -- না তাইনা!! তাইলে গায়ে গন্ধ কিসের?? -- ও কিছুনা! পেট্রোলের গন্ধ গাড়িতে সিটে লেগেছিল! শালা ড্রাইভার এক্টা ফাজিল... -- থাক সিনেমা করা লাগবেনা!! বুঝেছি!! দেখি দেখি.. কি বেপার তোমার গা দিয়ে মেয়েলি গন্ধ কিসের?? -- সত্যি করে বল?? কই ছিলে এতক্ষণ?? ঐ সুন্দরি... ছিঃ ছিঃ ঘড়ে বউ রেখে পরকিয়া?? এই ছিল দেখার বাকি আজ তাও দেখলাম... আচ্ছা ভাল.. -- বাবু এমন করেনা!! আমি তেমন কিছুই করিনি! তুমি যা ভাবছো প্লিজ বাবু রাগ করেনা!! -- হয়ছে, সকালেই আমি বাপের বাড়ি যাচ্ছি! ফোন দিবানা! আনতে যাবানা! খোবোরবাদ উলড়া পালটা কিছু করবানা... -- এ সোনা বউ এসব কি বলছো?? তাইলে আমার কি হবে??? -- কেন রুমে সুন্দরি কে এনে ফষ্টিনষ্টি করবা.? - ছিঃ ছিঃ কি বল??আমি অন্য মেয়ের দিকে তাকাইনা পর্যন্ত!! -- থাক ঢং করা লাগবেনা!! ড্রিংক আর শার্ট এর গন্ধ মুখ খুলেছে,, -- হাই রে আমার সোনা বউ... ---- রাগ দেখিয়ে ছাদে আবারো... ---- আমি- পিছুপিছু!! মিষ্টি বউ , সোনা বউ, লক্ষীটা আমার এমন করেনা প্লিজ। - চুপ - বাবু আর আমি তেমন কিছুই করিনি!! বিশ্বাস কর। - চুপ - বাবু ও সোনা বউ একটু কথা বল প্লিজ!! - কাল আবার বাপের বাড়ি যাচ্ছি কেউ আটকাটে পারবেনা!! -- মেয়েদের এই এক প্রব্লেম কিছু হলেই বাপের বাড়ি... - হুজ সকালে দেখা হবে বাই... - বাই মানে?? তুমি কি ছাদেই থাকবা?? -- হুহ!! তুমি ঘুমাও সকালে সুন্দরির সাথে রিক্সা করে অফিসে যাওয়া লাগবে যে!! -- কিহ।।। ধ্যাত আমি ঘুমাতে গেলাম!! ----- রুমে এসে ঘুমাতে লাগিলাম!! শালা ঘুম যেন স্বার্থপর এলোই না কাছে!! বুঝলাম বউকে আদোর দিতে হবে... ---- আবার ছাদে---- -- আমি--- পিছন থেকে বউ কে জড়িয়ে ধরলাম। -- ঐ ছার বলছি!! আমাকে টাস করবি না তুই - ছিঃ কি ভাষা!! ছাড়বো না। - কামর খাবি কিন্তু তাইলে!! - হিহিহি তুমি কামড় দিবা?? - হুহ দিবো!! সিন্ধেহ?? -- না না!! তাইলে দাও... -- কিছুনা না বলে বউ য়ের ঠোটে একটা বসিয়ে দিলাম ছিঃ ( বুঝেন না?) বউ নীরব হয়ে গেল!! --- -- নিশি বলল-- পাগল একটা!! আমি জানতাম তোমার অফিসে কোন ভাল মেয়ে নাই! আর তিশার সাথে ও তোমার কোন সম্পর্ক নেই।আমি জানতাম তুমি কারও দিকে তাকাও না! বাসা থেকে বেড় হবার সাথেসাথে তানভীরকে বলেছিলাম, তোমাকে দেখতে... আমি- কিহ এসব তুমি জেনে শুনে করছো?? - হুহহ করছি তো..!! অভিমান দেখিয়ে ছাদের অন্য প্রান্তে চলে গেলাম!! - -- ইশ ভাব বাড়ছে... পিছন থেকে সোনা বউ কানে কানে বলল বাদর টাকে অনেক ভালবাসি... লাভ ইউ... আমি- কিহ শুনিনি? - সত্য?? আমি-.. হ্যা.. - লাভ ইউ - হেইট ইউ.. - কিহ... - কিছুনা... লাভ ইউ টু... হাহাহাহা . . তারপর নিশি কে জরিয়ে ধরে কানে বললাম - তোমার প্রতিটা জিনিস কে আমি ভালোবাসি। তোমার বকা গুলো , তোমার অভিমান মাখানো চেহারা টা , তোমার হাসির মূহুর্তে গুলো, তোমার ভালোবাসার স্পর্শ গুলো, সবাই অনেক বেশি ভালোবাসি। তোমার সব কিছুকে ভালোবাসি! ? আমার চোখের হাব ভাব দেখা নিশি বুঝতে পারছে। আমি এখন চুমু দিয়তে একটু একটু করে কাছে আসছি। <<"চুমু দিতে হবে না তোমার।" <<"এই বসন্তে তোমার ঠোঁটের উষ্ণ চুম্বন পেতে ইচ্ছে করে।" <<"সব ইচ্ছে সবসময় পূরণ হতে নেই।" <<"উঁহু..." <<"চল জোছনা দেখি?" <<"এখন রাত ৩ টায়?" <<"হ্যাঁ...আজ সারা রাত তোমার হাতে হাত রেখে কফির মগে চুমুক দিতে দিতে জোছনা দেখব।" <<"কফির মগে চুমুক না দিয়ে আমার ঠোঁটে চুমু দিলে ক্ষতি কি গো সোনা বউ?" <<"ক্ষতি অনেক....ওহ তুমি বুঝবে না..." <<"চার মগ কফিকে দুই মগে নিও...সাথে একটু ভালবাসা মিশিয়ে দিও।" <<"হা-হা-হা...আচ্ছা।" <<"ঠোঁটের প্রতিচ্ছবি আঁকা মগটাই করে আজ আমায় কপি দিও।" <<"ওই মগ তো আমার....আর তুমি তো ঐ মগে করে কিছু খাও না।" <<"আজ ঐ মগে খাব..." <<"কেন?" <<"ঠোঁটের প্রতিচ্ছবি আঁকা" ঐ জায়গাটা তোমার ঠোঁট মনে করে চুমু দিয়ে কফি খাব।" <<"হা-হা-হা.... অসভ্য।" <<"ছাঁদে গেলাম আমি..." হালকা বাতাসে একটু শীত লাগছে আমি নিশির জন্য ছাঁদে দাঁড়িয়ে আছি। নিস্তব্ধ রাত...ল্যাম্প পোস্টগুলো দাঁড়িয়ে আছে....জোনাকিরা আলো ছড়াচ্ছে.... বসন্তের শহর ফুলের গন্ধে সবাই ঘুমিয়ে আছে। --"এই নিশি কই তুমি?" --"দাঁড়াও আসছি..." --"কফি বানাতে এতসময় লাগে নাকি..." --"কফি বানানো শেষ।" --"তাইলে আসছ না কেন?" --"কফিতে ভালবাসা মিশাচ্ছি এখন।" --"হা-হা-হা..." ।ভালবাসায় মাখামাখি আমাদের জীবন। নিজেকে খুব সুখী মনে হয়। আমাদের ছোট সংসার....সারাক্ষণ ভালবাসার কুপিবাতি জ্বলে থাকে। --"এই সাব্বির দরজাটা একটু খোলে দাও না!" --"দরজা খোলা...ধাকা দাও তুমি..." "--আমার দুই হাতে দুইটা কফির মগ..." --"দাঁড়াও আমি আসছি..." --"এই নাও।" --"হু...তোমার কপালে টিপ!" --"হ্যাঁ..." --"শাড়িও পড়েছ দেখি..." -"হু,লাল শাড়ি...তোমার পছন্দের শাড়ি।" --"ঠোঁটে গোলাপী লিপিস্টিক দিয়েছ?"--"হ্যাঁ... তোমার পছন্দ তো তাই ।--"হুম।" --"এই গভীর রাতে সাজগুজ করেছ কার জন্য?" --"কেন...তোমার জন্যে..." "--একদম আমার স্বপ্নের রাজ্যে কন্যার মত লাগছে।" --"হিহিহিহি।" "--জান,পরীদের রাতে দেখতে সুন্দর লাগে।" --"হুম জানি।" "--জোছনার চেয়ে তোমার রূপের আলো বেশি জ্বলজ্বল করছে।" "--হা-হা-হা-হা।" "--চুমু খাব?" "--কফি খাও।" "--কফি খেয়ে শরীর উষ্ণ হচ্ছে না।" "--তাইলে চুমু খাও।" অনেক প্রতিক্ষার পর নিশির মিষ্টি ঠোঁটে ভালোবাসার পবিত্র স্পর্শ করলাম। চলবে ? এখনই জয়েন করুন আমাদের গল্প পোকা ফেসবুক গ্রুপে। আর নিজের লেখা গল্প- কবিতা -পোস্ট করে অথবা অন্যের লেখা পড়ে গঠনমূলক সমালোচনা করে প্রতি সাপ্তাহে জিতে নিন বই সামগ্রী উপহার। শুধুমাত্র আপনার লেখা মানসম্মত গল্প/কবিতাগুলোই আমাদের ওয়েবসাইটে প্রকাশিত হবে। এবং সেই সাথে আপনাদের জন্য থাকছে আকর্ষণীয় পুরষ্কার।▶ লেখকদের জন্য পুরষ্কার-৪০০৳ থেকে ৫০০৳ মূল্যের একটি বই ▶ পাঠকদের জন্য পুরস্কার -২০০৳ থেকে ৩০০৳ মূল্যের একটি বই আমাদের গল্পপোকা ফেসবুক গ্রুপের লিংক: https://www.facebook.com/groups/golpopoka/

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here