নরপশু_বর ২য় খন্ড

0
2150

নরপশু_বর ২য় খন্ড
সত্য ঘটনা অবলম্বনে

Nusrat Haq
যখন আমি কনসিভ করি ব্যাপারটা বুজতে পারি নি আমি। আমার ৩ মাস পিরিয়ড অফ ছিলো।
৩ মাস যখম পিরিয়ড হচ্ছিলো না তখন ব্যাপার টা বুজতে পারি।
আর ব্যাপারটা আরো পরিস্কার বুজতে পারি ক্লাস ৯ এর শারিরীক শিক্ষা বই থেকে। আপনারা অনেকেই জানেন সেখানে পুরোপুরি পরিস্কার ভাবে বুজিয়ে দেওয়া হয়েছে ব্যাপারটা।
আমার তখন মাথা ব্যাথা বমি ভাব ছিলো। কিছু খেতে পারতাম না। আর ব্যাপারটা মা আমলে নেয় আর ভালো করে বুজে।
তখন মা আমাকে জিজ্ঞেস করে কি হয়েছে তোর। আমি কিছুই বলিনা।
পরে মা কিট এনে পরিখা করালো আর ব্যাপারটা পরিস্কার হয়।
এর আগে আমি আমার ভাইকে ব্যাপার টা জানাই সে উল্টো আমাকে অত্যাচার করে। বলে এটা আমার না।
আমি বললাম এত বছর ধরে আমার সাথে শারিরীক সম্পক করলেন যে।
আমি সবাইকে বলে দিবো। সে আমাকে হুমকি দিছে বললে তোর খবর আছে।
আমি ও ভয় পেয়ে যায়।
মা আমাকে অনেক মারধোর করে ব্যাপারটা গোপনে রাখে। বাবা ভাইদের কাছ থেকে।
আর বলে এটা কার বাচ্চা কার থেকে পেট বাধিয়েছিন।
আরো অনেক কথা।
পরে মা বাচ্চাটা গোপনে নসট করে ফেলে। তারপর আমাকে আর স্কুলে যেতে দেয় না।
আমি স্কুলে যাওয়ার কথা বললে বলে যেতে হবে না তোর স্কুলে। আবার পেট বাঁধানোর জন্য।
তারপর মা তরি ঘরি করে আমার বিয়ের জন্য বাবাকে বলে।
বাবা তো এমনি তে আমাকে দেখতে পারেনা। তাই কোনো রকম চাইছে আমাকে বিদায় করতে। কারন আমি উটকো ঝামেলা।
এর মধ্যে আমার ছোট ভাই মালেশিয়ায় চলে যায়।
আমি ওই সময় অনেক বার মরতে চেয়েছি। পারিনি।
অনেক মানুষিক হতাশায় ভুগছিলাম।
এরপর একটা ছেলে আসে আমাদের পাশের গ্রামের।
বাবা মা কোনো খোঁজ খবর নেওয়া ছাড়া আমাকে বিয়ে দিয়ে ফেললও।
কি অদ্ভুত ব্যাপার বিয়ের দিন আমার কপালে একটা নাকফুল ও জুটে নি। আমার বাবা বলেছে ওনার মেয়ে না।
ওনাদের বাড়িতে থাকতাম তাই বাবা ডাকি৷ এটা শুনার পর কস্টে বুকটা ফেটে গিয়েছে৷
যাইহোক শশুর বাড়িতে আসলাম।
একদম ভাংগা চোরা ঘর৷ ২ টা রুম মাএ।
ঘর দেখে মাথা ঘুরালো আমার।
বর আমাকে বিয়ে করে এনে কোথায় গেছে সেটা জানি ও না।
শ্যামলা গায়ের রং বরের যা দেখলাম।
আমাকে খাটের উপর বসানো হলো।
বলে রাখি আমার শশুর শাশুড়ী কেউ নেই।
আমার বর এতিম তার কেউ নেই। তার বাবা মারা যাওয়ার সময় এই বাড়িটা তাকে দিয়ে গেছে।
তার যে কজন আত্মীয়সজন আছে তারা আমার বরকে পরিচয় ও দেয় না।
আমি রাতে বরের অপেক্ষা করতে করতে ঘুমিয়ে গেলাম। সে রাতে আসলো না।
সে আলো ফজরের আজানের পর। তাও মাতাল হয়ে।
বিশাস করবেন কিনা জানি সে কোনো কিছু বলা ছাড়া আমার উপর ঝাঁপিয়ে পড়লো৷ চাহিদা শেষে ঘুমিয়ে পড়লো
আমি কাঁদতে লাগলাম। হায় আল্লাহ এ কি হলো আমার কপালে। সারা জীবনেও সুখ পেলাম না।
পরের দিন ঘুম থেকে উঠে বাথরুম খুজতে লাগলাম। ঘরে আর কেউ ছিলো না।
তাই তাকে ডাকলাম। সে আমাকে খুব খারাপ ভাষায় গালি দিয়ে বললও ঘুমাতে দে।
আমি ও আর কিছু বলিনি।
আমি ঘরের মধ্যে বালতিতে প্রসাব করলাম।
ঘরের আশে পাশে একটা কল ও ছিলো না। অন্যের বাড়ি থেকে পানি আনতে হয়৷ আমি নতুন বউ কোথায় যাবো কিছুই চিনি না।চলবে..

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে