গল্প_খেলার_পুতুল পর্ব ১

0
1072
গল্প_খেলার_পুতুল পর্ব ১ !! #মোহাম্মদ_সৌরভ !! আব্বু আপনি যে মহিলাকে বিয়ে করবেন সেই মহিলার মেয়ের সাথে নাকী আমার বিয়ে ঠিক করছেন? আপনার বিয়ে করার ইচ্ছে হলে আপনি বিয়ে করেন তাতে আমার কোনো আপত্তি নেয়। কিন্তু আপনি ঐ মহিলার মেয়ের সাথে কেনো আমার বিয়ে ঠিক করছেন?আব্বু:- হ্যা করেছি আর তোমাকে বিয়েটা করতে হবে। কারন সম্পত্তির ৭৫% মেয়ের নামে আর মেয়েকে তোমার কাছে তখনি বিয়ে দিবে যখন আমি ঐ মেয়ের মাকে বিয়ে করবো।আমি:- আপনি মহিলাকে বিয়ে করেন আমি এই বিয়ে করতে পারবো না। আম্মু মারা যাবার পর আপনি যা বলছেন আমি সব মেনে নিয়েছি। শুধু এই কাজটা আমার পক্ষে করা সম্বভ না প্লিজ আপনি বিয়েটা ভেঙ্গে দিন।আব্বু:- ঠিক আছে তাহলে আমিও তোমার বোনের বিয়েটা ভেঙ্গে দিবো।আমি:- কিন্তু আপুর বিয়ে কেনো ভাঙ্গবেন প্লিজ আব্বু আমি আপনার পায়ে পড়ি আপনি এমনটা করবেন না। তাহলো আপু মরে যাবে আর আপু মরে গেলে আমি কার জন্য বেচে থাকবো?আব্বু:- ঠিক আছে তাহলে তুমি মেয়েটাকে বিয়ে করতে রাজি হয়ে যাও তাহলে তোমার আপুর বিয়েটা হবে।আমি:- কিন্তু ঐ মেয়েটা তো আমার সম্পর্কে সৎ বোন হবে তাহলে আমার বউ হবে কি করে?আব্বু:- ঐ মেয়েটা কি আমার নিজের মেয়ে নাকী যে তোমার সৎ বোন হবে? এত কথা না বলে নিজের বিয়ের জন্য প্রস্তুতি নাও। আর হ্যা একটা কথা ভালো করে যেনে নাও যদি তুমি বিয়েটা করো তাহলে তোমার আপুর বিয়েটা হবে আর তোমাদের দুজনের বিয়ে হবে আগামী ২০ জানুয়ারীতে।আমি:- কিন্তু আব্বুআব্বু:- আহা সৌরভ আমাকে আর কোনো রকম কঠোর হতে বাদ্য করিওনা এমনিতেই তোমাদের দু ভাই বোনের জন্য আমার অনেক সমস্যা হচ্ছে। আর যদি তুমি মনে করো তোমার আপুর বিয়েটা ভেঙ্গে দিবে তাহলে তুমি বিয়েটা ভেঙ্গে দিতে পারো।আমি:- আপুর বিয়েটা আমি ভাঙ্গতে পারবো না কারন আম্মু ওয়াদা দিয়ে গেছে সাহেদ ভাইয়ার সাথে বিয়ে দিবে। আমার জীবন দিয়ে হলেও আমি আম্মুর ওয়াদা আর আপুর ভালোবাসা রক্ষা করবো।আব্বু:- তাহলে আজ রাতে কুলসুমদের বাড়ীতে একটা পার্টি থ্রু করেছে সেখানে তুমি যাবে আমার সাথে। তখনি আব্বুর পার্সনাল সেক্রেটারি এসেছে ওনার নাম রহমান আহমেদ।রহমান:- আরে সৌরভ যে অগ্রিম শুভেচ্ছা রইলো তোমার প্রতি। তাহলে আজকে সন্ধায় কুলসুম ম্যাডামের বাড়ীতে আমরা সবাই যাচ্ছি তাইনা স্যার?আব্বু:- হ্যা তা তো যাচ্ছি, আর সৌরভ তুমি সাধারনত নরমাল কাপড় পড়ে সব অনুষ্টানে চলে যাও। এই কাজটা আজ থেকে ভূল করেও করবে না আর সিমরানের সাথে সব সময় হাসি মুখে কথা বলবে।আমি:- আপনার কাছে এমনটা আমি কোনো দিন প্রত্তাশা করিনি, তবে এখন আপনি যা বলবেন তাই হবে দয়া করে আপুর বিয়েটা ভেঙ্গে দিবেন না প্লিজ।আব্বু:- সিমরানকে তুমি বিয়ে করলে তোমার আপুর বিয়েটা হবে। চলো রহমান আমার একটু অফিসে কাজ আছে আর সৌরব গাড়ীটা পাঠায় দিবো তুমি সেজে গুজে চলে আসবে।আমি:- ঠিক আছে! আব্বু চলে গেছে আমি চুপ চাপ বসে আছি তখনি আপু এসেছে,,,আপু:- ভাই তোর মন খারাপ কেনো?আমি:- কই মন খারাপ বল আপু তোরর সাথে সাহেদ ভাইয়ার কথা হয়ছে?আপু:- হ্যা হয়ছে আগামী কাল সাহেদ আমাকে নিয়ে ঘুরতে বের হবে। সৌরভ চল খাবার খাবি আমি তোর জন্য নিজের হাতে রান্না করেছি।আমি:- হ্যা চল, আপুর দিকে তাকালে দুনিয়ার সব কষ্ট আমি ভূলে যায়। খাবার টেবিলে এসে দুই ভাই বোন খাবার খেতে লাগলাম।আপু:- সাহেদের ছোট একটা বোন আছে নাম লিজা দেখতে অনেক সুন্দর আর তোর সাথে মানাবে ভালো।আমি:- লিজাকে আমি চিনি কিন্তু আজ হঠাত করে এমন ভাবে কথা বলছিস কেনো আপু?আপু:- লিজা তোকে অনেক পছন্দ করে আর তোকে বিয়ে করতে চাই তুইকি বলিস?আমি:- কে বলছে তোকে?আপু:- লিজা নিজেই বলছে আমাকে তবে সাহেদ এই ব্যপারে কিছুই যানেনা।আমি:- আপু আমার এখন বিয়ে করার কোনো ইচ্ছে নেই, আর শুন তুই লিজাকে কিছু বলিস না আমি বলবো লিজাকে যা বলার কেমন?আপু:- ঠিক আছে! আমি কি আগামী কাল সাহেদের সাথে ঘুরতে যাবো?আমি:- ঠিক আছে, আচ্ছা আমি রুমে যাই আমাকে বের হতে হবে সন্ধায় কিছু জুরুরী কাজ আছে। আপুকে বলে রুমে এসে শাওয়ার নিতে চলে গেলাম। আপুকে এখন কিছুই বলা যাবেনা কারন আপু জানলে নিজের বিয়েটা ভেঙ্গে দিবে দেখি সিমরানকে বুঝিয়ে বিয়েটা ভাঙ্গা যায় কিনা? মনটা খারাপ করে রেডি হয়ে গেলাম বাহিরে এসে দেখি গাড়ীটা চলে এসেছে আমি গাড়ীতে বসছে। ডাইভার তার নিজের মত করে গাড়ীটা চালিয়ে নিয়ে এসেছে একটা বিশাল বড় বাড়ীর সামনে এসে গাড়ীটা থামিয়েছে। আমি গাড়ী থেকে নেমে দেখি রহমান আঙ্কেল আমার জন্য অপেক্ষা করছে।রহমান:- সৌরভ বাবা এসেছো? আসো আমার সাথে ওনি আগে আগে যাচ্ছে আমি পিছু পিছু যাচ্ছি। কিছুটা হেটে বাড়ীর ভীতরে ঢুকেছি তখনি আব্বু আমাকে দেখে বলে,,,,আব্বু:- কুলসুম এই হচ্ছে আমার ছেলে আল মোহাম্মদ সৌরভ, আমাকে দেখে এগিয়ে এসে আমার দিকে হাত বাড়িয়ে দিয়েছে,,,,কুলসুম:- হাই সৌরভ নাইস টু মিট ইউ।আমি:- হাত না বাড়িয়ে ওনাকে সালাম দিয়েছি,, আস্সালামু আলাইকুম। সালাম দেওয়াটা আব্বু পছন্দ করেনি তবে ওনি ছোট একটা হাসি দিয়েছে,,,কুলসুম:- জসিম তোমার ছেলের সাথে আমার মেয়ের জমে খীর হয়ে যাবে, মা সিমরান একটু এদিকে আসো তো মা তখনি চেয়ে দেখি নেবি ব্লু কালার চুড়িদার পড়া সুন্দর আর লম্বা একটা মেয়েকে একজন মহিলা নিয়ে আসতেছে। কাছে আসার পর আমার সাথে পরিচয় করিয়ে দিয়েছে,,,,সিমরান:- চলেন আমার বান্ধবীদের সাথে আপনার আলাপ করিয়ে দেয়।আমি:- হ্যা চলেন, সিমরানের সাথে এসেছি ওর মাত্র দুইটা বান্ধবী আমার সাথে পরিচয় করিয়ে দিয়েছে। আচ্ছা মিস সিমরান আপনার সাথে আমার কিছু কথা ছিলো।সিমরান:- আমি জানি আপনি কি বলবেন শুনেন আমার এতে কোনো সমস্যা নেই। আর এমন না যে আপনার আ আমার বাবা এক বা মা এক আমাদের তো বাপ মা সব আলাদা তাইনা?আমি:- কিন্তু আমার সমস্যা আছে আমি এই বিয়েটা করতে পারবো না।সিমরান:- ঠিক আছা তাহলে আপনার আপুর বিয়েটা আর হবে না, আর সাহেদকে আমি ভালো করে চিনি বাকী কথা এখন আর বলতে চাইনা। আচ্ছা আপনার আমাকে বিয়ে করতে আপত্তি কিসের?আমি:- বিয়ে করতে আপত্তি নেই কিন্তু আপনার মা আমার আব্বুকে বিয়ে করবে এইটা আমার আপত্তি। আপনি প্লিজ বুঝার চেষ্টা করেন মানুষ কি বলবে আর যদি আমাদের সন্তান জর্ন্ম হয় তখন কি বলবেন ওকে?সিমরান:- আমি আপনাকে বিয়ে করবো বাট সংসার করার জন্য নয় আমার কাছে অনেক টাকা আর আপনার কাছে আছে বিজনেস সুতুরাং বিয়েটা একটা চুক্তি মাত্র।আমি:- তার মানে আপনি বিয়েটা একটা খেলা মনে করছেন?সিমরান:- হ্যা খেলা আর আপনি হলেন পুতুল আমি যেভাবে নাচাবো আপনি সেই ভাবে নাচবেন।আমি:- ঠিক আছে আমিও দেখবো আপনি আমাকে কত টুকু নাচাতে পারেন। তবে মিস সিমরান আমার আপুর বিয়েটা যদি ভাঙ্গে বা সাহেদ ভাই যদি আপুকে কষ্ট দেয় তাহলে আপনিও সুখে থাকবেন না।সিমরান:- দেখা যাক কে কাকে কষ্ট দেয় আর কে সুখে থাকে আগে তো বিয়েটা হতে দেন তারপর বুঝবেন পুতুল নাচ কারে বলে,,,, !! পরের পর্বের জন্য অপেক্ষা করুন আরো অনেক কিছু বাকী আছে,,,,, !! চলবে,,,,,,,

( প্রিয় পাঠক আপনাদের যদি আমার গল্প পরে ভালোলেগে থাকে তাহলে আরো নতুন নতুন গল্প পড়ার জন্য আমার facebook id follow করে রাখতে পারেন, কারণ আমার facebook id তে প্রতিনিয়ত নতুন নতুন গল্প, কবিতা Publish করা হয়।)
Facebook Id link ???

https://www.facebook.com/shohrab.ampp

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here