গল্প খেলার পুতুল পার্ট:-২

0
886
গল্প খেলার পুতুল পার্ট:-২ #লেখা_মোহাম্মদ_সৌরভ!! আমার আব্বুর সাথে আপনার আম্মুর বিয়ে হলে সম্পর্কে আপনি আমার কি হবেন? তা একবার চিন্তা করে দেখছেন? আর আপনি কিনা আমাকে বিয়ে করতে রাজি হয়ে গেছেন? প্লিজ আপনি বিয়েটা ভেঙ্গে দিন। তাহলে আমাদের দুই জনের জন্য মঙ্গল হবে।সিমরান:- সম্পর্কে কি হবে? না হবে? তা নিয়ে আমি মুটেও ভাবিনা। আমার দরকার টাকা আর আপনার সাথে আমার বিয়ে। বাছ আর কোনো রকম কথা আমি শুনতে চাইনা।আমি:- আপনার সাথে কথা বলাটা আমার বোকামি হয়ছে। যদি আপনার বিজনেস করার এত সখ থাকে তাহলে আমাদের কম্পানির সাথে বিজনেস চুক্তি করে নিলে তো হয়।সিমরান:- বিয়েটা যদিও ২০ জানুয়ারি হওয়ার কথা ছিল তবে বিয়েটা আগামী ১৫ তারিখে হবে। আর যদি আপনি আমাকে বিয়ে না করেন তাহলে আপনার আপুর বিয়েটা আপনার আব্বু নিজেই ভেঙ্গে দিবে।আমি:- ঠিক আছে যেহেতু খেলার ইচ্ছে হয়ছে তাহলে একটু খেলতে হয়। আপনার বিয়েটা জুরুরী আর আমার আপুর ভালোবাসা আর আম্মুর ওয়াদা রক্ষা করা। তখনি রহমান আঙ্কেল এসে বলে,,,,রহমান:- সৌরভ তোমাদের ডাকছে তোমার আব্বু আসো আমার সাথে তোমরা দুজন।আমি:- হ্যা আসতেছি আপনি যান, ওনি চলে আসছে আমি ওনার পিছু পিছু এসেছি সাথে সিমরান এসেছে।কুলসুম:- এটেনশন প্লিজ প্রিয়ো বন্ধুগন আজকে এই পার্ঠির কারনটা সবাই যানেন। তাও একবার বলে দিতি চাই আমার এক মাত্র মেয়ে সিমরানের সাথে জশিম সাহেবের এক মাত্র ছেলে আল মোহাম্মদ সৌরভের সাথে আগামী ২০ জানুয়ারীতে শুভ বিবাহ দিন ধার্য্য করা হলো। এখন ওদের মাঝে ইংজ্ঞেঞ্জমেন্ট রিং পড়ানো হবে মা সিমনার সৌরভকে রিংটা পড়িয়ে দাও।আব্বু:- নাও সৌরভ এই রিংটা সিমরানকে পড়িয়ে দাও।আমি:- আব্বু এমনটা তো কথা ছিলোনা?আব্বু:- সৌরভ যেইটা বলছি সেইটা করো আমাকে কঠোর হতে বাদ্য করিও না।আমি:- ঠিক আছে দেন, আমি রিংটা সিমরানকে পড়িয়ে দিয়েছি। আর সিমরান আমাকে পড়িয়ে দিছে সবাই খুসি হয়েছে শুধু আমি ছাড়া।সিমরান:- আপনার ভাগ্যটা খুব ভালো আমি আপনাকে বিয়ে করতে রাজি হয়েছি।আমি:- সময় বলে দিবে কার ভাগ্যে কেমন। আমার তো মনে হচ্ছে আপনি আমাকে বিয়ে করার জন্য উঠে পড়ে লেগেছেন।সিমরান:- আমার তো বিয়েতে কোনো রকম ইন্টারেস্ট নেয়। আমার দরকার টাকা আর সেইটা ইনকাম করার মত মেধা আপনার কাছে আছে।কুলসুম:- মা সিমরান একটু এদিকে আসো সৌরভকে নিয়ে।সিমরান:- হ্যা আসতেছি! চলেন মিস্টার আল মোহাম্মদ সৌরভ।আমি:- আপনি যান আমি আসতেছি। তখনি সিমরান আমার হাত ধরে টেনে নিয়ে যেতে লাগলো আর সবাই আমার দিকে তাকিয়ে আছে। সিমরানের চুল গুলা ছাড়া অনেক বড় আর ওর সাথে চুল গুলা অনেক মেচিং করেছে।সিমরান:- জীবনে প্রথম কারো হাত ধরে নিজের বুকের বা পাশ লাফাচ্ছিলো। কেনো এমনটা হয়ছে একটু বলবেন মিস্টার সৌরভ?আমি:- আপনার কথা শুনে আমার হাসি পাচ্ছে।সিমরান:- কেনো?আমি:- আপনি জীবনে প্রথম কারো হাত ধরছেন তার জন্য।সিমরান:- আমি জীবনে অনেক ছেলের হাত ধরেছি কিন্তু কখনো এমনটা ফীল হয়নি। কিন্তু আপনার হাতটা স্পর্শ করার পর কেমন একটা অন্য রকম ফীল করেছি।আমি:- হাতটা ছাড়েন আপনার আম্মুর কাছে চলে এসেছেন।সিমরান:- কি বলছেন আম্মু হি হি হি।আমি:- এখানে হাসির কি হলো?সিমরান:- এমনিতেই মাঝে মধ্যে আমার হাসতে ভালো লাগে। হ্যা বলেন কেনো ডাকছেন আমাদের?কুলসুম:- সৌরভকে আমাদের সব আত্বীয় স্বজনদের সাথে আলাপ করিয়ে দাও। আর আমাদের সবটা বাড়ী ঘুরে ঘুরে সৌরভকে দেখিয়ে দাও।সিমরান:- হ্যা এখুনি দেখিয়ে দিতেছি। চলেন আমার সাথে বলে সিমরান আমার হাতটা জড়িয়ে ধরে আমাকে নিয়ে সোজা ওর ব্যাড রুমে এসেছে।আমি:- এখানে নিয়ে আসলেন কেনো?সিমরান:- বিয়ের পর আমি আর আপনি দুজনে এই রুমটাতে থাকবো।আমি:- মানে এখানে কেনো? আমি আমার বাড়ীতে থাকবো আর আমার রুমে।সিমরান:- আপনার আব্বুর সাথে আমার যে চুক্তি হয়েছে সেই চুক্তি অনুযায়ী আপনি আমাদের বাড়ীতে আমার সাথে থাকবেন।আমি:- আগে তো বিয়েটা হোক তারপর না হয় সব কিছু ভেবে দেখবো না হয়।সিমরান:- বিয়ে তো হবেই আর সব কিছুই আমার মত করে হবে। পুতুল নাচ কখনো দেখছেন? যেভাবে পুতুল নেচে নেচে খেলা দেখায়। ঠিক আপনাকে আমি খেলার পুতুল করে রাখবো।আমি:- সময় বলে দিবে কে কাকে খেলার পুতুল করে রাখে। আমি এখন বাসায় যাবো আমার খারাপ লাগতেছে।সিমরান:- এসেছেন আপনার ইচ্ছে আর যাবেন আমার ইচ্ছে। এখন আমার সাথে আসুন আগে আমাদের বাড়ীটা সবটা ঘুরে ঘুরে দেখায়।আমি:- আচ্ছা একটা কথা জিগেস করবো?সিমরান:- হ্যা করেন?আমি:- আপনি আমাকে ভালোবাসেন?সিমরান:- হি হি হি হাসালেন আমাকে।আমি:- কেনো?সিমরান:- আমি ওত বোকা না যে ভালোবাসতে যাবো। আর আপনাকে তো আমি জীবনেও ভালোবাসবো না। কারন একবার মন দিয়ে দিলে আর সহজে ফেরত নেওয়া যাবে না। আর আমি আপনার প্রতি দূর্বল হওয়ার কোনো ইচ্ছে নেই।আমি:- বিয়ে করবেন কেনো তাহলে আমাকে?সিমরান:- কারন প্রতিটা মেয়ের জীবনে একজন ভালো স্বামী দরকার আর আপনি অনেক ভালো ছেলে তাই। আমার মা হবার কোনো ইচ্ছে নেই বিয়ে করতেছি এক মাত্র সমাজ রক্ষার জন্য।আমি:- আপনাদের বাড়ী সবটা দেখা হয়ে গেছে আমি এখন যাই। আর মিস সিমরান খেলার জন্য তৈরি হয়ে যান। আমি যতটা ভালো তার চাইতে অনেক খারাপ যা আপনি কল্পনা করতে পারবেন না। সিমরান আমার দিকে তাকিয়ে আছে আমি পেছনের দিকে না তাকিয়ে সোজা চলে এসেছি। গাড়ীতে উঠে নিজেই ড্রাইব করে বাসায় এসে দরজার কলিং বেল বাজাতেই আপু এসে দরজা খুলে নিয়েছে।আপু:- ভাই আজ এত দেরি করে আসলি কেনো?আমি:- একটু কাজ পড়ে গেছিলো, আপু তোর সাথে আমার কিছু কথা আছে।আপু:- হ্যা বল কি কথা বলবি?আমি:- আমার বিয়ে ঠিক করেছে আব্বু আর আজকে আমাদের রিং পড়ানো হয়ছে। তখনি আপু দাঁড়িয়ে থাকা থেকে সোজা বসে পড়েছে। আপু কি হয়ছে তোর?আপু:- ভাই তুই আমাকে একবারো জানাবার প্রয়োজন বোদ করিসনি?আমি:- আপু আমি সত্যি বুঝতে পারিনি আজকে আমার ইঙ্গেঞ্জমেন্ট রিং পড়াবে। আপু তুই আমাকে ভূল বুঝিস না প্লিজ আপু।আপু:- তা মেয়েটা কেমন দেখতে?আমি:- এই তো আছে তখনি আব্বু এসেছে আমি কথাটা ঘুরিয়ে অন্য কথা বলতে শুরু করেছি। আচ্ছা আপু তুই গিয়ে ঘুমিয়ে পর আমার অনেক ঘুম পাচ্ছে বাকী কথা সকালে হবে।আপু:- আচ্ছা আর শুন আগামী কাল তুই আমাদের সাথে ঘুরতে যাবি কেমন?আমি:- ঠিক আছে! আপু চলে গেছে আমিও আমার রুমে এসে শুয়ে পড়েছি। অনেক ক্লান্ত থাকার কারনে খুব তারা তারি ঘুমিয়ে পড়েছি। সকালে ঘুম থেকে উঠিছি তখনি এজকন বলে,,,শুভ সকাল।আমি চোখ গুলোকে ঢলতে ঢলতে বলি গুডমর্নিং। তখনি হঠাত করে কন্ঠটা অন্য রকম মনে হলো। চোখ গুলো খুলে তো পুরাই অবাক হয়ে গেছি আরে এত সকালে তুমি এখানে কেনো? !! চলবে,,,,,

( প্রিয় পাঠক আপনাদের যদি আমার গল্প পরে ভালোলেগে থাকে তাহলে আরো নতুন নতুন গল্প পড়ার জন্য আমার facebook id follow করে রাখতে পারেন, কারণ আমার facebook id তে প্রতিনিয়ত নতুন নতুন গল্প, কবিতা Publish করা হয়।)
Facebook Id link ???

https://www.facebook.com/shohrab.ampp

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here