কাছে_আসার_গল্প পার্ট ১৭

0
3163

কাছে_আসার_গল্প পার্ট ১৭

সকালে ঘুম থেকে উঠতে লেট হয়ে যায়।
আর খিদায় পেট চো চো করছে…
তাড়াতাড়ি গোসল করে রান্নাঘরে গেলাম রান্না করতে…
পরোটা বানাচ্ছি…
এমন সময় পিছন থেকে হিমেল আমাকে জড়িয়ে ধরলো….
আমি হিমেলের দিকে ঘুরলাম
— কি ব্যাপার ক্যাপ্টেন হিমেল আজকে না ডাকতেই কিচেনে??

হিমেল তার পেটে হাত বুলাত লাগল…
আমাকে বুঝালো তার খিদা লাগছে…
–তাই না, বাবু সোনা
কিন্তু তাহলে যে আপনাকে বাহিরে যেতে হবে….
— এই কেনো কেনো??
— কারন আপ্নিতো আমাকে খালি ডিস্টার্ব করবেন??
— মোটেই না।
আমিতো তোমাকে খালি আদর করবো আর কিছু নাহ…
কসম…
— এই তুমি যাবা…
বলেই হিমেলকে ধাক্কা দিয়া রুম থেকে বের করে দিলাম।
— এই এই এই করো কি??
দজ্জাল বউ…
হুম দজ্জাল বউ, নইলে তো তোমার সাথে পারবো না।
আমরা ব্রেকফাস্ট করার পর আমাদের বসায় যাওয়ার প্ল্যান করলাম।
অবশ্য প্ল্যান টা হিমেলের ছিলো।
হিমেলের মনে হইছিলো মা- বাবা হয়তো তার উপর রেগে আছে। তাই তাদের মান ভাংগাতে যাওয়াটা জরুরি ছিলো।
আমাদের দেখেতো কি খুশি তারা। রাগতো দুরের কথা।
আমাকেতো পুরা বকা দিতে লাগলো
এখনই জয়েন করুন আমাদের গল্প পোকা ফেসবুক গ্রুপে।
আর নিজের লেখা গল্প- কবিতা -পোস্ট করে অথবা অন্যের লেখা পড়ে গঠনমূলক সমালোচনা করে প্রতি সাপ্তাহে জিতে নিন বই সামগ্রী উপহার।
আমাদের গল্পপোকা ফেসবুক গ্রুপের লিংক: https://www.facebook.com/groups/golpopoka/



কেনো তাদের ফোন করে আসলাম না। তাদের আদরের একমাত্র জামাই বলে কথা।
বাসায় সবাই হিমেলকে নিয়ে ব্যাস্ত হয়ে পড়ে….
এমন ভাব করছে হিমেলই তাদের সব।
ধুর এতো হিংসা লাগছে।
আমি আমার রুমে আসলাম।
একটু পর হিমেল ও লেজ গুটিয়ে চলে আসলো…
— কি আমার বউ টার কি মন খারাপ??
নাকি হিংসায় জ্বলে পুড়ে মরছে…
— মোটেই আমি হিংসুটে না.
— সে তো বুঝাই যাচ্ছে…
হিমেল আমার কপালে কপাল ঠেকালো….
— এই কি হচ্ছে…
— এখনো কিছুই না….
সবে তো স্টার্ট…
হিমেল আমাকে ধাক্কা দিয়া বিছানায় ফেলে দিলো…
আর সে উপরে…
— এই এইভাবে যখন তখন কাছে আসবা না। সরো তো….
–আসলে কি হবে?? বলও নইলে আজকে রেহাই নাই….
এমনিতে সকালে তুমি ফাকি দিছো……
— দরজা খোলা তো,
আর আমার কেমন জানি লাগে, সরো
— থাকুক খোলা তাতে কি??
আমার বউ এর সাথে আমি যা খুশি করবো, তাতে কার কি??
হিয়া, হিয়া…
বলে ভাবি ডাকছে…
হিমেল ডাক শুনেই এক লাফে বিছানা থেকে নামে….
— ভাবি আসছি???
— কি হিমেল??
তুমি না খেয়েই রুমে চলে আসলা??
ব্যাপার কি??
আর ননদিনী আসো না ক্যান???
হিমেল আমার টেবিলে আমার বই – পত্র ঘাটতে লাগলো…
— হিয়া তোমার টেবিল কত অগুছালো হয়ে আছে দেখসো??
–হুম আমি নাই তাই….
হঠাৎ হিমেল টেবিলে রাখা একটা ঘড়ি হাতে নিয়া বলে…
— ঘড়িটা সুন্দর।
কার এইটা???
ভাবি ঠাস করে বলে দেয়…
— হিয়া এইটা তুষারের ঘড়ি না???
সেদিন এসে অনেক্ষন থাকলো তোমার সাথে, ওইদিন মনে হয় ভুলে রেখে গেছে??.
তুমি নিতে বলো নাই??.
— নাহ মনে ছিলো না।
— হিয়া তুষার কে??
— আমার এক ফ্রেন্ড।
— ও কি তোমার রুমে আসে??
এই কথা শোনাতে ভাবি হাসতে লাগলো…
আমারো হাসি চলে আসলো।
হিমেল পুরা ভ্যাবাচ্যাকা খেয়ে গেলো, আমাদের হাসি দেখে…
— হিমেল তুমিও না। কি যে কুয়েশ্চেন করো। তুষার ও তো আমাদের বাড়ির ছেলে…
সেই ল্যাংটো কাল থেকে আমাদের বাসায় আসে। আমাদের প্রতিবেশি। হিয়া আর ও একি সাথে ছোটবেলা থেকে পড়াশোনা করেছে ইভেন এখনো একি ইউনিভার্সিটিতে পড়ে।
— হুম হিমেল। ওকে ফ্রেন্ড বললে কম বলা হবে ও তার থেকে একটু বেশি কিছু…
হিমেলের মুখ দেখে মনে হচ্ছে, সে আমাদের উত্তরে সন্তুষ্ট না।
আর কিছু না বলেই সোজা খাবার টেবিলে গেলো।
আমিও গেলাম।
চুপচাপ খাওয়া শেষ করে রুমে এসে পড়ে।
আমি সবার সাথে কিছুক্ষণ গল্প করে রুমে চলে আসলাম।
এসে দেখি হিমাল বিছানায় শুয়ে আছে…
আমি ওকে পিছন থেকে জড়িয়ে ধরে বললাম।
— অই কি হইছে??
এইভাবে শুয়ে আছো কেণ??
— ইচ্ছে হইছে তাই…
চল রেডি হও বাসায় যাবো…

— আজকে থাকবো প্লিজ না করো না, প্লিজ
তুষার আমাকে সরাই দিয়া বিছানা থেকে উঠে রেডি হতে লাগলো…
— এই তুমি রেডি হচ্ছ কেন??
— বাসায় যাব। তাই…
— আমি কি বললাম?? কিছুতো বললা না??
— বলার তো কিছু নাই।
থাকো…
— তুমিও থাকবে।
একা থাকবো বলি নাই তো…
— আমি এক কথা বার বার বলি না তুমি ভালো করেই জানো…
ইচ্ছা না থাকলে জোর জবরদস্তি আবার আমি করতে পারি না।
— থাকতে দিবা না ভালো করেই বললে হয়, এইভাবে রাগ দেখানোর তো কিছু নাই..
ওকে ফাইন, যাও আমি আসছি…
রাগে গজগজ করতে করতে বাসায় আসলাম…
পুরু রাস্তা কেউ কারো সাথে কথা বলি নাই।
বাসায় এসে ড্রেসটা চেঞ্জ করে সোজা বিছানায় বসলাম।
হিমেল ও বিছানায় শুয়ে পড়লো…
দেখি আমার সাথে একটা কথাও বলছে না…
আমি আর কথা না বলে থাকতে পারছি না।
আমি ওর হাতটা ধরে আমার দিকে ঘুরানোর চেষ্টা করলাম…
কিন্তু আমার দিকে ফিরছে না…
— ওই কি হইছে??
তুমি এমন করতেছো ক্যান??
আমি কি করছি বলবাতো??
— এই ভাবে হাত টানাটানি করবা না, আমার ঘুম পাইছে…
ঘুমাবো..
যাও সরো।
হিমেলের এই উত্তরে আমার খুব খারাপ লাগলো…
আমি বিছানার এক কিনারে শুয়ে পড়লাম।
খুব কান্না পাচ্ছিলো…
হিমেল একবারো আমার দিকে ফিরে নাই…
আমিও ডাকি নি।
চলবে

এখনই জয়েন করুন আমাদের গল্প পোকা ফেসবুক গ্রুপে।
আর নিজের লেখা গল্প- কবিতা -পোস্ট করে অথবা অন্যের লেখা পড়ে গঠনমূলক সমালোচনা করে প্রতি সাপ্তাহে জিতে নিন বই সামগ্রী উপহার।
শুধুমাত্র আপনার লেখা মানসম্মত গল্প/কবিতাগুলোই আমাদের ওয়েবসাইটে প্রকাশিত হবে। এবং সেই সাথে আপনাদের জন্য থাকছে আকর্ষণীয় পুরষ্কার।

▶ লেখকদের জন্য পুরষ্কার-৪০০৳ থেকে ৫০০৳ মূল্যের একটি বই
▶ পাঠকদের জন্য পুরস্কার -২০০৳ থেকে ৩০০৳ মূল্যের একটি বই
আমাদের গল্পপোকা ফেসবুক গ্রুপের লিংক:
https://www.facebook.com/groups/golpopoka/

একটি উত্তর ত্যাগ

আপনার মন্তব্য লিখুন দয়া করে!
এখানে আপনার নাম লিখুন দয়া করে