আমার শশুড় বাড়ি!?

- Advertisement -
- Advertisement -

"এখনই জয়েন করুন আমাদের গল্প পোকা ডট কম ফেসবুক গ্রুপে। আর নিজের লেখা গল্প- কবিতা -পোস্ট করে অথবা অন্যের লেখা পড়ে গঠনমূলক সমালোচনা করে প্রতি সাপ্তাহে জিতে নিন বই সামগ্রী উপহার। আমাদের গল্প পোকা ডট কম ফেসবুক গ্রুপে জয়েন করার জন্য এখানে ক্লিক করুন "

আমার শশুড় বাড়ি!?

-রুমে বইসা ফেইসবুক গুতাইতেছিলাম এমন সময় আমার দেবর রাফি আইসা! ভাবি শোনো রুপমা আপু তো বাড়ি চইলা আসছে।তারে নাকি তার শাশুড়ি ঘর থিকা বাইর হয়ে যাইতে বলছে আর সে তা শুনেই কান্না করতে করতে বাড়ি চইলা আসছে।মাত্র বিয়ে হয়ছে বিশ দিন এর মাঝে কি এমন হলো যে একাই এই বাড়ি চলে আসলো তাও আবার জামাই রাইখা যে জামাই পাগল মেয়ে ও।যাই হোক ডয়িংরুমে যাইয়া দেখি আমার শশুড় সাহেব রাগে ফুসতাছে শাশুড়ি মা বিলাপ কইয়া কান্না করছে।আমাদের বাড়ি আবার আমার ফুপু শাশুড়ি থাকে কোন সন্তান নাই তার সেই জন্য।সে ও দেখি কইতাছে কেমন মাইয়া তুই বিয়ার কয়দিন হয়তে না হয়তেই হেই বাড়ি ছাইয়া চইলা আহোস।ওই দিকে তাকায় দেখি আমার দাদী শাশুড়ি ও মুখে আচল গুজে কান্না করতাছে।ফুল পাওয়ার ফ্যান চলতাছে তবুও দেখি ঘামতাছে শাশুড়ি আইসা তারে পাখা দিয়া বাতাস করতাছে।কি বেপার হাতে জোড় নাই বাতাস করতে পারো না।কইয়াই চিল্লাইয়া উঠলো শুশুড়।আস্তে চিল্লাও গন্ডারের মতো চিল্লাও ক্যা আর আজ তুমি দাত মাজো নাই এমন গন্ধ ক্যা মুখে।এই শুইনা শুশুর গেছে খেইপা।কি কইলা তুমি এত বড় সাহস তোমার।ওমা বুইড়া হইছো এহোনো কথা কওয়ার সময় থুথু বের হয় ক্যা!এই কথা শুইনা আমার দাদি শাশুড়ি বলে এই বৌমা তুমি আমার পোলারডা খাইয়া আমার পোলারেই কতা হুনাও।হুনামু না কি করুম এ দেখি আপনার মুখ থুথু বের হচ্ছে তাইতো বলি পোলায় কার স্বভাব পাইছে।কিহ তুমি আমারে এত বড় কতা কইলা এই কইয়া সে আবার কান্না জুড়ে দিলো।এইদিকে তোরা ঝগরা থামা তো আগে হুন রুমপা ওই বাড়ি থোন চইলা আইছে ক্যা?হ রুপমা তুই বল তোরে কেডা কি কয়ছে তারে আমি জেলের ভাত খাওয়াই ছারমু।রেগে কথাটা বললো।তবুও রুমপা কিছু কয় না।হঠাৎ রাফি বলে উঠলো আব্বা আমি জানি আপায় কেন চইলা আসছে।জানোস তাইলো এতহ্মন বলোস নাই।এই বলেই শশুড় ওর দিকে পাখা ছুড়ে মারলে সেটা পড়ে গিয়া ফুপু শাশুড়ির উপর।ওমাগো আমারে মাইরা ফালাইলো গো সে এই বলে সে রুমে গিয়া দরজা বন্ধ কইরা কান্না শুরু করলো আবার। এইদিকে শশুড়ের হুংকার শুনে অবশেষে মুখ খুললো রুমপা।আমার শাশুড়ি গুমাইতে ছিলো আমি তার রুমে গিয়া তার মুখে মেকআপ করছিলাম সে ঘুম থিকা ওইডা নিজেরে দেইখা চিল্লান দেয় পরে আমারে বলে বাড়ি থিকা বের হইয়া যাইতে।এই বলে সে আবার কান্না শুরু করে। আসলে ও সারাহ্মন মুখে মেকআপ মাইখা ঘুরে আর যারে পায় তারেই সং সাজাই দেয়।হঠাৎ কলিংবেল বাজলে আমি দরজা খুলে দেখি রুপমার শুশুড় শাশুড়ি আর মামা শুশুর আসছে ওর স্বামী অফিসে আছে বলে আসতে পারেনি।আসলে ঘুম থিকা ওইডা নিজেরে ওমন রুপে দেইখা একটু ভয় পাইছিলাম তাই তোমারে কইছি চইলা যাইতে।তুমি যে সত্যি চইলা আসবা তাতো জানতাম না।চলো মা বাড়ি চলো।কিন্ত আমার শুশুর বললেন তাদের বিকেলে যেতে।তাই আমি আর শাশুড়ি আম্মা গেলাম রান্না ঘরে রান্না করতে।এরপর—
এখনই জয়েন করুন আমাদের গল্প পোকা ফেসবুক গ্রুপে।
আর নিজের লেখা গল্প- কবিতা -পোস্ট করে অথবা অন্যের লেখা পড়ে গঠনমূলক সমালোচনা করে প্রতি মাসে জিতে নিন নগদ টাকা এবং বই সামগ্রী উপহার।
শুধুমাত্র আপনার লেখা মানসম্মত গল্প/কবিতাগুলোই আমাদের ওয়েবসাইটে প্রকাশিত হবে। এবং সেই সাথে আপনাদের জন্য থাকছে আকর্ষণীয় পুরষ্কার।

গল্পপোকার এবারের আয়োজন
ধারাবাহিক গল্প প্রতিযোগিতা

◆লেখক ৬ জন পাবে ৫০০ টাকা করে মোট ৩০০০ টাকা
◆পাঠক ২ জন পাবে ৫০০ টাকা করে ১০০০ টাকা।

আমাদের গল্প পোকা ফেসবুক গ্রুপে জয়েন করার জন্য এই লিংকে ক্লিক করুন: https://www.facebook.com/groups/golpopoka/?ref=share

-রান্না প্রায় শেষের দিকে আমি টেবিলে খাবার গুলো রাখছিলাম।আমার ফুপু শাশুড়ি আমার শুশুড়ের ও বড় তবুও ওনি নিজেকে ইয়াং বলেই দাবি করে।ফুপি আম্মা তার প্রিয় নায়ক রাজ্জাকের মুভি দেখতাছে।কিন্ত রাফি এসে রিমোট হাতে নিয়ে চ্যালেন পাল্টাইতে শুরু করে আর তাতে ফুপি আম্মা তো রেগে ফায়ার।যাইহোক নাইন এক্সএম চ্যালেনে আসতেই সানি লিওনের একটা গান আসলো যেটাতে সানি লিওন নাচতেছিলো।কিন্ত রাফি তারাতাড়ি চ্যালেন ফুপি আম্মার সেই মুভির চ্যানেলে দিলো।কিন্ত ফুপি আম্মা জিগ্যেস করলো ওই মেয়েটা কেরে রাফি?কি সুন্দর কোমর দুইলায়া নাচতেছিলো।আরে ফুপি ওটা হচ্ছে সানি লিওন খুব ভালো মেয়ে একদম লহ্মিমন্ত মেয়ে খুইব স্বামী ভক্ত সংসারী স্বান্তশিষ্ট বুদ্ধিমতী। তাই নাকি রে এত ভালো মেয়ে।হ্যা ফুপি খুব ভালো মেয়ে।ওর শুনে ভিষন হাসি পাচ্ছিলো আমার।টেবিলের খাবার সাজিয়ে সবাইকে বসতে বললাম।হঠাৎ কলিংবেল বাজলে আমি দরজা খুলে দেখি রুমপার জামাই আসছে আমি তারে সালাম দিয়ে ভিতরে আসতে বললাম।খাবার টেবিলে সবাই খাচ্ছে আমি আর শাশুড়ি আম্মা পরিবেশন করছি।রুমপা ও আমাদের হেল্প করছে।হঠাৎ ফুপি আম্মা বলে ওঠলেন।শোন রুমপা সংসারী হ সানি লিওনের মতো স্বামী ভক্ত হ।আমিও কিন্ত সানি লিওনের মতোই ছিলাম খুব স্বামী ভক্ত ছিলাম।এই কথা শুনেই সবার কাশি শুরু হয়ে গেল।আহ বুবু কি বলছো কি তুমি যাও ভিতরে যাও।ওমা যা হাচা তাইতো কইলাম সানি লিওন তো খুব ভালা মেয়ে।শুশুড় আরেকটা ধমক মারতেই ফুপি কাদতে কাদতে তার ঘরে চলে গেল।শশুড় আব্বা এবার রাফির দিকে রাগি চোখে তাকালো এবং সেখানেই মারতে শুরু করলো কারন ওনি জানেন এই সব কথা রাফিই ফুপিরে বলছে।এই দিকে আমি রাফিরে বাচানোর ট্রাই করছি।অন্যদিকে রুপমার শশুড়ের কাশি ওঠছে আম্মা গেল পানি আনতে রান্না ঘরে। রাফি ছাড়া পেয়ে দিলো দৌড় শুশুড় আব্বা দিলো ওরে চামুচ ছুড়ে সেইটা গিয়া লাগলো আমার শাশুড়ির গায়ে। তাতে পানির জগ পরে গেল ফ্লোরে।তাতে আমার শাশুড়ি কান্না জুরে দিলো আমাকে মেরে ফেললো গো মা বলেই ওনি কাদতে লাগলেন।এইদিকে রুপমার শশুড় কাশতে কাশতে দিলো বমি করে। তা দেখে নাক ছিটকালো রুপমার শাশুড়ি।তারমাঝে ওরে আসলো একটা আরশোলা তা দেখে ভয় পেয়ে রুমপা ধরলো তার স্বামীরে জড়িয়ে।তা দেখে ওর শাশুড়ি বললেন কি বেশরম মাইয়া।এটা বলার সাথে সাথে শাশুড়ির গায়রে উপর ওঠলো আরশোলা তা থেকে তিনিও লাফ দিয়ে জড়িয়ে ধরলেন তার স্বামীরে।এইদিকে এসব দেখে খাওয়া ছেড়ে ওঠে দৌড় লাগানেন রুমপার মামা শশুড়। কিন্ত পায়ে ভাঙা জগের কাচে পা কেটে বসে কান্না শুরু করলেন।এইদিকে এসব দেখে মুর্ছা গেলেন আমার দাদী শাশুড়ি।আর ও দিকে রাফি চিল্লাইয়া বলতাছে কে কোথায় আছো দেখে যাও আমাদের বাড়িতে চলিতেছে সার্কাস।
আমি মাথায় হাত দিয়ে ফ্লোরে বসে মনে মনে বলতে লাগলাম এটাই #আমার শশুড় বাড়ি!

(হঠাৎ ভাবলাম ফানি কিছু একটা লেখি যাতে সবাই হাসতে পারে তাই এটা লেখা।তাই এইভাবে লেখলাম।কেউ আবার খারাপ ভাব্বেন না)

#আমার শশুড় বাড়ি!?
#লেখা:Aditiya Rupa

গল্প পোকা
গল্প পোকাhttps://golpopoka.com
গল্পপোকা ডট কম -এ আপনাকে স্বাগতম......

Related Articles

নীলপদ্ম ১৫তম পর্ব(শেষ পর্ব)

#নীলপদ্ম #১৫তম_পর্ব কালো মুখোশধারী কিছু মানুষ এসে তার হাত পা,মুখ চেপে গাড়িতে তুলে দিশাকে। ঘটনার আকর্ষিকতায় কি করবে বুঝে পাচ্ছে না দিশা। তারা তাকে একটি অন্ধকার...

নীলপদ্ম ১৪তম পর্ব

#নীলপদ্ম #১৪তম_পর্ব মনে মনে একটাই চাওয়া, হৃদয় যাতে ফিরে আসে সুস্থ ভাবে, দরকার হলে ক্ষমা চেয়ে নিবে সে। রুমের মাঝে পায়চারি করছিলো ঠিক তখন দরজা খোলার...

নীলপদ্ম ১৩তম পর্ব

#নীলপদ্ম #১৩তম_পর্ব ঘুমন্ত প্রেয়সীকে নির্দ্বিধায় একটা ফুটন্ত নীলপদ্মের থেকে কম কিছু লাগছে না। সূর্যের স্নিগ্ধ কিরণে তাকে আরোও সুন্দর লাগছে। এও নেশা যে যে সে নেশা...
- Advertisement -

Latest Articles

নীলপদ্ম ১৫তম পর্ব(শেষ পর্ব)

#নীলপদ্ম #১৫তম_পর্ব কালো মুখোশধারী কিছু মানুষ এসে তার হাত পা,মুখ চেপে গাড়িতে তুলে দিশাকে। ঘটনার আকর্ষিকতায় কি করবে বুঝে পাচ্ছে না দিশা। তারা তাকে একটি অন্ধকার...

নীলপদ্ম ১৪তম পর্ব

#নীলপদ্ম #১৪তম_পর্ব মনে মনে একটাই চাওয়া, হৃদয় যাতে ফিরে আসে সুস্থ ভাবে, দরকার হলে ক্ষমা চেয়ে নিবে সে। রুমের মাঝে পায়চারি করছিলো ঠিক তখন দরজা খোলার...

নীলপদ্ম ১৩তম পর্ব

#নীলপদ্ম #১৩তম_পর্ব ঘুমন্ত প্রেয়সীকে নির্দ্বিধায় একটা ফুটন্ত নীলপদ্মের থেকে কম কিছু লাগছে না। সূর্যের স্নিগ্ধ কিরণে তাকে আরোও সুন্দর লাগছে। এও নেশা যে যে সে নেশা...

নীলপদ্ম ১২তম পর্ব

#নীলপদ্ম #১২তম_পর্ব নিজের চুল নিজের টানতে ইচ্ছে করছে দিশার। কেনো যে এই কোম্পানিতে চাকরি করতে হলো তার। এসব চিন্তায় যখন মগ্ন সে তখন অনুভব করলো তার...

নীলপদ্ম ১১তম পর্ব

#নীলপদ্ম #১১তম_পর্ব হঠাৎ টুং করে মোবাইলটা বেজে উঠে হৃদয়ের। ছোট নিঃশ্বাস ছেড়ে মোবাইলের লক খুললে দেখে একটা আননোন ইমেইল এড্রেস থেকে একটা মেইল এসেছে। মেইলটা ওপেন...
error: ©গল্পপোকা ডট কম